Logo
শিরোনাম

জুনে সড়কে প্রাণ হারালেন ১০৪৭

প্রকাশিত:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | হালনাগাদ:বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ |
Image

মইনুল ইসলাম মিতুল :  দেশের সড়কগুলোতে দুর্ঘটনায় চলতি বছরের জুন মাসে ১ হাজার ৪৭ জন নিহত হয়েছেন। মোট ৩ হাজার ১১০টি সড়ক দুর্ঘটনায় এই প্রাণহানি হয়। এসব দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন ২ হাজার ৬২২ জন।

শুক্রবার (১ জুলাই) জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানিয়েছে স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ‘সেভ দ্য রোড’।

সংস্থাটি জানায়, জাতীয় মহাসড়ক, আন্তঃজেলা সড়ক ও আঞ্চলিক সড়কসহ বিভিন্ন সড়কে এসব প্রাণঘাতী দুর্ঘটনা ঘটে।

জুন মাসে ২১টি গণমাধ্যমে প্রকাশিত দুর্ঘটনার খবরের ভিত্তিতে এ এবং জরিপের মাধ্যমে এ প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে সংগঠনটি।

সংবাদ সম্মেলনে প্রতিবেদনটি উপস্থাপন করেন সেভ দ্য রোডের মহাসচিব শান্তা ফারজানা। এতে বলা হয়, চলতি বছর জুন মাসে ৮৫৮টি মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় ৭৫২ জন আহত এবং ২৭৬ জন নিহত হয়েছেন।

ট্রাক দুর্ঘটনা ঘটেছে ৬১৮টি। এর মধ্যে আহত ৪৫৬ ও নিহত ১৫৬ জন। ৯৩৮টি বাস দুর্ঘটনায় আহত ৭৫১ ও নিহত ৪২০ জন।

এ ছাড়া পাড়া-মহল্লায়, মহাসড়কে অসাবধানতার কারণে লরি, পিকআপভ্যান, নসিমন, করিমন, ব্যাটারি ও সিএনজিচালিত এবং রিকশা-সাইকেলে ৬৯৬টি দুর্ঘটনা ঘটেছে। এতে নিহত হয়েছেন ১৯৫ ও আহত হয়েছেন ৬৬৩ জন।

এছাড়া জুন মাসে নৌপথে দুর্ঘটনা ঘটেছে ১২২টি। এতে আহত ৪৭৭ জন ও নিহত ২৪ জন। রেলপথ দুর্ঘটনা ঘটেছে ১৯৭টি। এতে আহত ১৭২ জন ও নিহত ১৭ জন। তবে আকাশপথে দুর্ঘটনা না হলেও বিমানবন্দরে অব্যবস্থাপনার কারণে বিভিন্ন সময় ৭৩ জন চিকিৎসা নিয়েছেন বলে জানানো হয়।

মোটরসাইকেলের ক্ষেত্রে দ্রুত গতিতে চালানো, ট্রাফিক নিয়ম না মানা, হেলমেট ব্যবহারে অনিহা দুর্ঘটনার কারণ। অপরদিকে, অসাবধানতাু ও ঘুমন্ত চোখে ক্লান্তিসহ দ্রুত চালানোর কারণে ট্রাক দুর্ঘটনা ঘটেছে। বাসে যেসব দুর্ঘটনা ঘটেছে এর পেছনে কারণ রাস্তার খানাখন্দ, অচল রাস্তাঘাট ও সড়ক পথে নৈরাজ্য।

যাত্রাপথ দুর্ঘটনামুক্ত করতে সেভ দ্য রোডের পক্ষ থেক সাতদফা দাবি জানানো হয়। দাবিগুলো হলো বঙ্গবন্ধু ফুটবল লীগের খেলা শেষে বাড়ি ফেরার পথে সড়কপথ দুর্ঘটনায় নিহত অর্ধশত শিশু-কিশোরের স্মরণে ১১ জুলাইকে ‘দুর্ঘটনামুক্ত পথ দিবস’ ঘোষণা করতে হবে।ফুটপাত দখলমুক্ত করে যাত্রীদের চলাচলের সুবিধা দিতে হবে। সড়কপথে ধর্ষণ-হয়রানি রোধে ফিটনেসবিহীন বাহন নিষিদ্ধ এবং কমপক্ষে অষ্টমশ্রেণি উত্তীর্ণ ও জাতীয় পরিচয়পত্র ব্যতিত চালক-সহযোগী নিয়োগ বন্ধে সংশ্লিষ্ট সবাইকে কঠোর পদক্ষেপ নিতে হবে। স্থল, নৌ, বিমান ও রেলপথ দুর্ঘটনায় নিহতদের সরকারিভাবে কমপক্ষে ১০ লাখ ও আহতদের ৩ লাখ টাকা ক্ষতি পূরণ দিতে হবে। ট্রান্সপোর্ট ওয়াকার্স রুল' বাস্তবায়নের পাশাপাশি সত্যিকারের সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার লক্ষে ‘ট্রান্সপোর্ট পুলিশ ব্যাটালিয়ন’ বাস্তবায়ন করতে হবে। পথ দুর্ঘটনার তদন্ত ও সাজা ত্বরান্বিতকরণের মধ্যদিয়ে সতর্কতা তৈরি করতে হবে এবং ট্রান্সপোর্ট পুলিশ ব্যাটালিয়ন গঠনের আগ পর্যন্ত হাইওয়ে পুলিশ, নৌপুলিশসহ সংশ্লিষ্টদের আন্তরিকতা-সহমর্মিতা-সচেতনতার পাশাপাশি সবপথের চালক-শ্রমিক ও যাত্রীদের আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হতে হবে। স্পিড গান, সিসিটিভি ক্যামেরা, ইউলুপ বৃদ্ধি, পথ-সেতুসহ সংশ্লিষ্ট সব মন্ত্রণালয়ে দুর্নীতি প্রতিরোধে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।



আরও খবর

আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস

মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২




লালমনিরহাটে বন্যার খনিকটা উন্নতি, ত্রান পাননি বানভাসি মানুষ

প্রকাশিত:বুধবার ০৩ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২ |
Image

নিজস্ব প্রতিনিধি,লালমনিরহাট :

লালমনিরহাটে বন্যা পরিস্থিতির খানিকটা উন্নতি, তিস্তা ব্যারাজ পয়েন্টে বিপদসীমার ১০ সেন্টিমিটার নীচ দিয়ে পানি বইছে  তবে বানভাসিদের মাঝে  সরকারি বরাদ্দ থাকলেও তা এখনো পৌছায়নি। 

পানি উন্মন বোর্ড সূত্র জানায়, যদি উজানে ভারিবৃষ্টিপাত না হয় তাহলে দ্রুত তিস্তার পানি নেমে যাবে। ইতোমধ্যে তিস্তার ডালিয়া পয়েন্টে আজ সকালম৯ টায়  বিপদসীমার ১০ সেন্টিমিটার নীচ দিয়ে পানি বইছে।  এদিকে এখন পর্যন্ত নতুন করে নদীতে ভাঙ্গন দেখ দেয়নি।  

জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন অফিস সূত্রে জানা গেছে এ পর্যন্ত ৩৩শত শুকনো খাবারের প্যাকেট বরাদ্দ হয়েছে তা বিতরণের প্রস্তুতি চলছে।  মাঠপর্যায়ের তথ্য মতে জেলার হাতিবান্ধা, কালীগঞ্জ,আদিতমারি ও লালমনিরহাট সদর উপজেলার ১৬ টি ইউনিয়নে প্রায় ৩০ হাজার পরিবার পানি বন্দী অবস্থায় আছে। এই বানভাসিদের জন্য যে পরিমান বরাদ্দ দিয়েছে তা চাহিদার চেয়ে একেবারেই অপ্রতুল।  অপরদিকে বানভাসিদের মানুষদের সুপেয় পানির অভাব সহ  পয়োনিষ্কাশনের মারাত্মক সমস্যা,  রান্নাঘরে পানি ওঠায় খাবারের সমস্যা, গোখাদ্য সমস্যা দেখা দিয়েছে।  আদিতমারি উপজেলা নির্বাহী অফিসার  সারোয়ার আলম জানান মহিষ খোঁচা ইউনিয়নে প্রায় ৩ হাজার পরিবার পানি বন্দী রয়েছে।  


অপরদিকে লালমনিরহাট সদর পিআইও মশিউর রহমান জানান,তালিকা হচ্ছে আর জেলা প্রশাসক আবু জাফর, উপজেলা চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান সুজন ও খুনিয়াগাছ ইউপি চেয়ারম্যান বাদল সহ মঙ্গলবার বিকেল ৫ টার পর বানভাসি এলাকা পরিদর্শন করা হয়েছে।  

এছাড়াও হাতিবান্ধা পিআইও এবং কালীগঞ্জ উপজেলায় কর্মরত পিআইও ( প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা) এর সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তারা ফোন রিসিভ না করায় তাদের তথ্য পাওয়া যানি।  তবে হাতিবান্ধার জাউয়া বাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মশিউর রহমান জানান, ওই ইউনিয়নে ২হাজারেরও বেশি পরিবার পানি বন্দী হয়ে আছেন। জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার গোলাম নবী সরেজমিনে এসে জানান,বানের পানি ওঠায় আপাতত ৭ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পাঠদান কার্যক্রম বন্ধ  রয়েছে।


আরও খবর



সরকার নিরুপায় হয়ে তেলের মূল্য বৃদ্ধি করেছে

প্রকাশিত:রবিবার ০৭ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ |
Image

রোকসানা মনোয়ার ঃ

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন বিশ্বব্যাপী জ্বালানি তেলের অস্বাভাবিক মূল্য বৃদ্ধিতে শেখ হাসিনা সরকার নিরুপায় হয়ে মূল্য বৃদ্ধি করেছে। 

তিনি বলেন আন্তর্জাতিক বাজারে মূল্য-হ্রাস পেলে সরকার আবারও জ্বালানি মূল্য সমন্বয় করবে।

ওবায়দুল কাদের আজ সকালে তাঁর বাসভবনে ব্রিফিংকালে এ কথা বলেন। 

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের প্রভাবে বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেলের মূল্য অস্থিতিশীল হয়ে ওঠে উল্লেখ করে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন যার ফলে ডলারের সাথে টাকার বিনিময় হারেও প্রভাব পড়ে, এতে বিপিসি কে লোকসান গুনতে হচ্ছে। 

মন্ত্রী বলেন পার্শ্ববর্তী দেশে জ্বালানি তেলের দাম বেশি হওয়ায় পাচারের আশঙ্কা ছিল। বিশ্ববাজারে মূল্য বৃদ্ধির ফলে ফেব্রুয়ারী ২২ হতে জুলাই ২২ পর্যন্ত বিপিসি'র লোকসান ছিল প্রায় নয় হাজার কোটি টাকা, এ প্রেক্ষাপটেই সরকারকে বাধ্য হয়ে মূল্য সমন্বয় করতে হয়েছে। 

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বিভিন্ন দেশের জ্বালানি তেলের বর্তমান অবস্থান তুলে ধরে বলেন মিয়ানমারে ডিজেলের লিটার প্রতি মূল্য ১১২ টাকা ৫৬ পয়সা,ভারতে ১১৪ টাকা, শ্রীলঙ্কায় ১১৭ টাকা ৪৯ পয়সা,আরব আমিরাতে ১২২ টাকা ৮০ পয়সা,নেপালে ১২৭ টাকা ৮২ পয়সা, সিঙ্গাপুরে ১৮৯ টাকা ৭৮ পয়সা এবং হংকং-এ ২৬০ টাকা ৭৫ পয়সা।

তিনি বলেন সরকার এর আগেও ৪ নভেম্বর ২০২১ সালে মূল্য সমন্বয় করে, তার আগে ২০১৬ সালের ২৫ এপ্রিল আন্তর্জাতিক বাজারে দাম কমায় ডিজেলের মূল্য কমিয়েছিল।  ভবিষ্যতেও বিশ্ববাজারে দাম কমলে অভ্যন্তরীণ বাজারে দাম কমিয়ে সমন্বয় করা হবে।

সড়ক পরিবহন মন্ত্রী বলেন এ কথা সত্য, জ্বালানির মূল্য বৃদ্ধির প্রভাব পড়ে অর্থনীতির বিভিন্ন খাতে।সরকার এ বিষয়টি সক্রিয়  বিবেচনায় রেখে নেতিবাচক প্রভাব নিম্নপর্যায়ে রাখতে সচেষ্ট। 

স্বল্প আয়ের মানুষের জীবনমান, কৃষি উৎপাদনসহ গুরুত্বপূর্ণ খাতসমূহে বিভিন্ন ধরনের সাপোর্ট কর্মসূচির আওতা বৃদ্ধির বিবেচনায় নিচ্ছে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন বিশেষজ্ঞদের মতে বিশ্ববাজারে শীঘ্রই জ্বালানির দাম স্থিতিশীল হতে শুরু করবে, সেটা আমাদের জন্য আশার বার্তা বয়ে আনবে।

ডিজেলের মূল্য বৃদ্ধিজনিত কারণে ডিজেল চালিত বাস ও মিনিবাসের ভাড়া সমন্বয়ে গতকাল বিআরটিএ'তে পরিবহন মালিক, শ্রমিক সংগঠনসহ অংশিজনদের বৈঠকে মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং বিআরটিএ'র চেয়ারম্যানের উপস্থিতিতে সিদ্ধান্ত হয়েছে,- সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের আশা করে বলেন পরিবহন মালিক ও শ্রমিক সংগঠনগুলো সমন্বয়কৃত ভাড়ার অতিরিক্ত দাবী করবে না।

মন্ত্রী সতর্ক করে বলেন কোন পরিবহন সমন্বয়কৃত ভাড়ার অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সরকার নাকি দানবে পরিণত হয়েছে -মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এমন বক্তব্যের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন আসলে এদেশে মানুষ হত্যা, জনগণের সম্পদ নষ্ট করা এবং জীবন্ত মানুষকে আগুনে পুড়িয়ে বিএনপিই মূর্তিমান দানবে রূপ নিয়েছে। 

যারা হত্যার রাজনীতিতে হাতেখড়ি দিয়ে রাজনীতি শুরু করে তারাই দানব, তারা দানবের চেয়েও ভয়ংকর বলে মন্তব্য করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। 

ওবায়দুল কাদের আরও বলেন যাদের দুর্নীতির দুর্গন্ধে ভূত পালায় তারাই সরকারের সব কাজে দুর্নীতির দুর্গন্ধ খুঁজে বেড়ায়।


আরও খবর



ইটনা প্রায় ২০০টি ফার্মেসীর মধ্যে ড্রাগ লাইসেন্স আছে মাত্র ০৯টির

প্রকাশিত:শনিবার ৩০ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ |
Image

মোঃ মুজাহিদ সরকার,কিশোরগঞ্জ:

কিশোরগঞ্জের ইটনা উপজেলার সদর ইউনিয়ন বাজারে ২৩-২৫টা ছাড়াও ০৮টি ইউনিয়নের বিভিন্ন বাজার ও মহল্লায় আনুমানিক দুই শতাধিক ওষুধের দোকান গড়ে উঠেছে। হাতেগোনা কয়েকটি দোকান ছাড়া বেশিরভাগ ওষুধের দোকানে লাইসেন্স, কেমিস্ট ও ফার্মাসিস্ট ছাড়াই চলছে রমরমা ওষুধ ব্যবসা। 

জানা যায়, প্রশাসনের কোন রকম নজরদারি না থাকায় আইনের তোয়াক্কা না করে সরকারি রেজিস্ট্রার্ড চিকিৎসকের প্রেসক্রিপশন ছাড়াই এন্টিবায়েটিক, ঘুমের ঔষুধসহ সব ধরনের ওষুধ বিক্রি করছেন ব্যবসায়ীরা। তাছাড়া অবাধে বিক্রি হচ্ছে যৌন উত্তেজক টেবলেট ও মহিলাদের গর্ভপাতের ওষুধ। আবার অনেক ফার্মেসিতে ওষুধ বিক্রির পাশাপাশি রোগের চিকিৎসাও দেয়া হচ্ছে। 

কিশোরগঞ্জ জেলা থেকে ইটনা উপজেলার অতিরিক্ত দূরত্ব হওয়ায় নিম্ন আয়ের মানুষের চিকিৎসাসেবার অন্যতম মাধ্যম হয়ে উঠেছে লাইসেন্সবিহীন এসব ফার্মেসী। আর এতে করে মারাত্বক স্বাস্থ্য ঝুঁকি মধ্যে পড়ছেন উপজেলার মানুষ। অন্যদিকে লাভবান হচ্ছে একদল ওষুধ ব্যবসায়ী। 

ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর(কিশোরগঞ্জ) সূত্রে জানা যায়, ইটনা উপজেলায় সরকারিভাবে ড্রাগ লাইসেন্সধারী ফার্মেসী রয়েছে মোট ৭৩টি। এর মধ্যে অ্যালোপ্যাথিক ৬৯টি, হোমিওপ্যাথিক ০২টি এবং ইউনানি ০১টি এবং হোল সেল ১টি ফার্মেসী রয়েছে। উল্লেখ্য যে, ইটনা উপজেলায় এই ৭৩টি এর মধ্যে শুধুমাত্র ০৯টি অ্যালোপ্যাথিক ফার্মেসীর ড্রাগ লাইসেন্স নবায়ন করা হয়েছে। নবায়ন হয়েছে "গীতা ড্রাগ হাউজ,জয়িতা ফার্মেসী,মুসলিম মেডিকেল হল,সাথী ফার্মেসী, ইসলামিয়া ফার্মেসী,জয় মেডিসিন সেন্টার,উর্মি মেডিকেল হল, পুষ্পকলি ওষুধালয় এবং জননী মেডিসিন গার্ডেন। কিছু ফার্মেসী আছে ২০১০-১৪ইং সালের পর আর নবায়ন করা হয় নাই কিন্ত উপর মহল ম্যানেজ করে ওষুধের রমরমা ব্যবসা বাণিজ্য চলছে। 

সঠিক তথ্য নিশ্চিত করার জন্য, ওষুধ ফার্মেসীতে সাজানো রোগী পাঠায় রেজিস্টার্ড চিকিৎসকের ছারপত্র ছাড়াই। আমাদের সাজানো ক্রেতা র চাহিবার মাত্রই এন্টিবাইটিক ওষুধ বিক্রি করেন ফার্মেসীতে দায়িত্বরত লোকজন অথচ তাদের ফার্মাসিস্ট সার্টিফিকেট নাই। একই চিত্র উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নের ফার্মেসীগুলোতেও।

দেখা যায়, আবার অনেক ফার্মেসীতে মানুষের ওষুধের পাশাপাশি গরু-ছাগল, হাঁস মুরগির ওষুধও বিক্রি করতে। এসব ঔষুধ সংরক্ষণও করা হয় যেনতেন ভাবে। 

গত ২৪ শে নভেম্বর ২০২০ইং নীলফামারীতে মডেল ফার্মেসী উদ্বোধনের সময় বাংলাদেশ ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি) মেজর জেনারেল মো. মাহবুবুর রহমান বলে ছিলেন, ওষুধ ফার্মেসী স্থাপন করতে হলে ড্রাগ লাইসেন্স ও ফার্মাসিস্ট থাকতে হবে। ড্রাগ লাইসেন্স এবং ফার্মাসিস্ট ছাড়াই যেসব ফার্মেসী স্থাপন করা হয়েছে, তা আইনানুযায়ী অবৈধ। ওই সব অবৈধ ফার্মেসীতে কোনো ওষুধ কোম্পানি ওষুধ সরবরাহ করতে পারবে না। ড্রাগ লাইসেন্স ও ফার্মাসিস্ট ছাড়া যেসব ওষুধের দোকান চালু আছে, তা ক্রমান্বয়ে বন্ধ করে দেওয়া হবে। 

নামপ্রকাশ না করার শর্তে এক ফার্মেসীর মালিক বলেন, আমরা ইটনা সদরের সব থেকে বড় ওষুধের দোকান 'গীতা ড্রাগ হাউজ' থেকে ওষুধ কিনে এনে বিক্রি করি। আমার মতো ড্রাগ লাইসেন্সবিহীন বিভিন্ন ইউনিয়নের ওষুধের দোকানে সব ধরনের ওষুধ বিক্রি করে গীতা ড্রাগ হাউজ কিন্ত গীতা ড্রাগ হাউজের হোলসেল করার অনুমতি নেই। 

গীতা ড্রাগ হাউজের মালিক সনজিত রায় বলেন, আমার এখন থেকে যারা ওষুধ কিনে নেন তাদের বেশিরভাগ-ই গ্রামের মহল্লার ছোট ছোট ওষুধ ব্যবসায়ী। ড্রাগ লাইসেন্স আছে নাকি নাই এগুলো ওষুধ কোম্পানি থেকেও খোঁজ করেন না তবে আমরা ফার্মেসীর মালিকদের সাথে মিটিং করে বার বার বলছি ড্রাগ লাইসেন্স করার জন্য। 

উর্মি মেডিকেল হলের মালিক শাওন চন্দ্র দে বলেন, আমরা সরকারের নির্দেশ মেনে ট্যাক্স দিয়ে ড্রাগ লাইসেন্স নবায়ন করে বৈধ ভাবে ব্যবসা করছি। অনেকে ট্রেড লাইসেন্স ও ড্রাগ লাইসেন্স না থাকার পরও জমজমাট ব্যবসা করে যাচ্ছে। প্রশাসনের উচিত মোবাইল কোর্ট করে জরিমানা দিয়ে ছেড়ে না দিয়ে তাদের ড্রাগ লাইসেন্স গুলো দ্রুত করার জন্য সহযোগিতা করা। 

ইটনা উপজেলা ওষুধ ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি ও ওষুধ ব্যবসায়ী হায়দার আলী বলেন, আমরা সবাই কে বলবো ড্রাগ লাইসেন্স করার জন্য এবং যাদের ড্রাগ লাইসেন্স আছে তাদের নবায়ন করার জন্য। তিনি আরও বলেন, কিছুদিনের মধ্যে ওষুধ ব্যবসায়ীদের কে নিয়ে মিটিং করবো।

ইটনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা.প্রসূন সাহা বলেন, চিকিৎসক এর প্রেসক্রিপশন ব্যতীত অপ্রয়োজনীয় এন্টিবায়োটিক, ব্যাথানাশক বড়ি এবং মানহীন ঔষধ মানব শরীরে কিডনি, লিভার সহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গের ক্ষতি করে। 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাফিসা আক্তার জানান, কিছু মাস আগে উপজেলার বাজারে ওষুধের দোকানগুলোতে উপজেলা প্রশাসন মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন এবং বেশ কিছু দোকানকে নগত অর্থ জরিমানা করা হয়েছিল। ওষুধ ব্যবসায়ীদের সবাইকে নির্দেশ দেয়া হয়েছিল ড্রাগ লাইসেন্স করার জন্য এবং যাদের ড্রাগ লাইসেন্স আছে কিন্ত নবায়ন করা হয়নি তাদের কে দ্রুত নবায়ন করার জন্য।


আরও খবর



সাবরিনা-আরিফের ১১ বছরের কারাদণ্ড

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৯ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২ |
Image

করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষার নামে প্রতারণা ও জাল সনদ দেয়ার অভিযোগের মামলায় জেকেজি হেলথ কেয়ারের শীর্ষ কর্মকর্তা ডা. সাবরিনা আরিফ চৌধুরী ও তার স্বামী আরিফুল চৌধুরীসহ আট আসামির প্রত্যেককে ১১ বছর করে কারাদণ্ডের রায় হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৯ জুলাই) দুপুরে ঢাকার অতিরিক্ত মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট তোফাজ্জল হোসেনের আদালতে এ রায় ঘোষণা করেন।

গত ২৯ জুন ঢাকার অতিরিক্ত মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট তোফাজ্জল হোসেন রাষ্ট্র ও আসামিপক্ষের যুক্তি উপস্থাপন শেষে রায় ঘোষণার জন্য এ দিন ধার্য করেন।

এর আগে গত ১১ মে ঢাকার অতিরিক্ত মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট তোফাজ্জল হোসেনের আদালতে আত্মপক্ষ সমর্থনে আসামিরা নিজেদের নির্দোষ দাবি করে ন্যায়বিচার প্রত্যাশা করেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, করোনা মহামারির সময় নমুনা সংগ্রহ করে তা পরীক্ষা না করেই জেকেজি হেলথকেয়ার ২৭ হাজার মানুষকে ভুয়া রিপোর্ট দেয়। এ অভিযোগের প্রেক্ষিতে ২০২০ সালের ২৩ জুন অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তারসহ প্রতিষ্ঠানটি সিলগালা করে দেয়া হয়।

এরপর ২০২০ সালের ৫ আগস্ট ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে সাবরিনা ও আরিফসহ আটজনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করেন ডিবি পুলিশের পরিদর্শক লিয়াকত আলী। চার্জশিটভুক্ত অন্য আসামিরা হলেন- আবু সাঈদ চৌধুরী, হুমায়ূন কবির হিমু, তানজিলা পাটোয়ারী, বিপ্লব দাস, শফিকুল ইসলাম রোমিও এবং জেবুন্নেসা।


আরও খবর



এবার ক্যাটরিনা-ভিকিকে হত্যার হুমকির অভিযোগ

প্রকাশিত:সোমবার ২৫ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২ |
Image

নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন ক্যাটরিনা কাইফ এবং ভিকি কৌশল। অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তি নেটমাধ্যমে তাদের প্রাণনাশের হুমকি দিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এরপর মুম্বাই পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেছেন এই তারকা-দম্পতি।

ভারতীয় একাধিক গণমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, ক্যাটরিনা কাইফ-ভিকি কৌশলের অভিযোগ দায়ের পর সান্তাক্রুজ থানা মামলা রুজু করে তদন্ত শুরু করেছে। ইতিমধ্যেই সেই অভিযুক্তকে আটক করা হয়েছে।

ভিকির অভিযোগ, বেশ কিছু দিন ধরেই নাম-পরিচয় গোপন রেখে এক ব্যক্তি ক্যাটরিনাকে নেটমাধ্যমে পর্যবেক্ষণ করছিলেন। তিনিই ইনস্টাগ্রামে প্রাণনাশের হুমকি দেন। সেই হুমকির বয়ান যদিও জানা যায়নি, তবে ঘটনায় যে দুশ্চিন্তা ঘনিয়েছে ভিকি-ক্যাটের জীবনে, তা নিয়ে সন্দেহ নেই।

সম্প্রতি জন্মদিন উদ্‌যাপনে সপরিবার মলদ্বীপ গিয়েছিলেন ভিকি-ক্যাটরিনা। তখনও কি মনের গভীরে কাঁটা হয়েছিল সেই ভয়? খুনের হুমকি পাওয়ার পরে আতঙ্কে কিছু দিন আগেই আগ্নেয়াস্ত্র রাখার অনুমতি চেয়ে পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছিলেন অভিনেতা সালমান খান, সেই একই ভয় কি ছায়া ফেলল ভি-ক্যাটের জীবনে?

অভিযুক্তের নামে একাধিক ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে। পঞ্জাবি গায়ক সিধু মুসে ওয়ালা হত্যাকাণ্ডের পর ক্রমাগতই হুমকি পাচ্ছেন তারকারা। ক্যাটরিনাকেও লরেন্স বিষ্ণোইয়েরই কোনও শাগরেদ ভয় দেখাচ্ছে কি না, তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। সূত্র: আনন্দবাজার।



আরও খবর

বিয়ে করছেন রিচা-ফজল

মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২

গুঞ্জন উড়িয়ে দিলেন আলিয়া!

বুধবার ০৩ আগস্ট ২০২২