Logo
শিরোনাম

কানাডার চলচ্চিত্র উৎসবে 'অন্যদিন'

প্রকাশিত:শনিবার ১০ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ |
Image

গুণী চলচ্চিত্র নির্মাতা কামার আহমাদ সাইমনের চলচ্চিত্র ‘অন্যদিন' এবার কানাডার ভ্যানকুভার আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে নির্বাচিত হয়েছে।

২৯ সেপ্টেম্বর থেকে ৯ অক্টোবর পর্যন্ত চলবে কানাডার এই উৎসবটি। এতে ৭৫টি দেশ থেকে ১৩৫টি পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ও ১০২টি স্বল্পদৈর্ঘ্য ছবি নির্বাচিত হয়েছে। উৎসবের একমাত্র বাংলাদেশি সিনেমা ‘অন্যদিন...’। এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের ক্যামডেন আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব, ইন্টারন্যাশনাল ডকুমেন্টারি ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল আমস্টারডাম ইডফায় অংশ নেয় কামার আহমাদ সাইমনের ‘জল’ত্রয়ীর দ্বিতীয় ছবি ‘অন্যদিন...’।


আরও খবর

ঋতুপর্ণা-প্রসেনজিতের বিয়ে

শুক্রবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২




রাজধানীর গ্রিনরোডে গ্যারেজ শ্রমিক খুন

প্রকাশিত:শুক্রবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ০৫ অক্টোবর ২০২২ |
Image

রাজধানীর গ্রিনরোড এলাকায় সন্ত্রাসীদের ছুরিকাঘাতে নিহত হয়েছে শিপন নামের এক কিশোর। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে নয়টার দিকে কাঁঠাল বাগান মসজিদের গলিতে এ ঘটনা ঘটে। নিহতের স্বজনদের অভিযোগ, স্থানীয় সন্ত্রাসী স্বাধীনের সাথে বিরোধের জেরে, স্বাধীনের লোকজন শিপনকে খুন করে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য স্বাধীনের বাবা- মাকে হেফাজতে নিয়েছে পুলিশ

কলাবাগান থানা পুলিশ জানায়, শিপন ফ্রিজ মেরামতের কাজ শিখছিল। সে কাঁঠালবাগান স্টাফ কোয়ার্টারে পরিবারের সঙ্গে থাকত। কাঁঠালবাগানে তার বাবার মুরগির দোকান আছে।

শিপনের বাবা মজিবুর মিয়া বলেন, রাত ১০টার দিকে শিপনকে স্বাধীন নামের স্থানীয় এক কিশোরের সঙ্গে ঘোরাঘুরি করতে দেখেন তিনি। রাত ১০টার পর তার কাছে খবর আসে শিপনকে কুপিয়েছে স্বাধীন। রক্তাক্ত অবস্থায় শিপনকে উদ্ধার করে রাত সাড়ে ১২টার দিকে ঢাকা মেডিক‌্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে যান তিনি।

ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া জানান, শিপনকে আনার পরপরই কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

শিপনের বাবার দাবি, হামলাকারী স্বাধীন ও তার সহযোগীরা মাদকাসক্ত ও ছিনতাইয়ে জড়িত। অপরাধ সংঘটনে রাজি করাতে না পেরে হয়তো শিপনকে কুপিয়ে হত্যা করেছে।


আরও খবর

কল্যাণপুরে ভবনে ফাটল

রবিবার ০২ অক্টোবর 2০২2

কিশোর গ্যাং আতঙ্কে রাজধানী

শনিবার ০১ অক্টোবর ২০২২




ইটনায় আসন্ন জেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষ্যে মতবিনিময় সভা

প্রকাশিত:সোমবার ০৩ অক্টোবর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ |
Image

মোজাহিদ সরকার, কিশোরগঞ্জ :

কিশোরগঞ্জের ইটনায় আসন্ন ১৭ অক্টোবর জেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষ্যে উপজেলার সকল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, ইউপি সদস্য ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গদের নিয়ে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

০৪ অক্টোবর সকাল ১১টায় ইটনা মহামান্য রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ অডিটরিয়াম হল রুমে এই মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। 

উক্ত মতবিনিময় সভায় ইটনা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান চৌধুরী কামরুল হাসানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কিশোরগঞ্জ জেলা পরিষদ নির্বাচনের বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট মোঃ জিল্লুর রহমান। 

জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থী অ্যাডভোকেট মোঃ জিল্লুর রহমান বক্তব্যে বলেন, আমি আপনাদের হাওরের সন্তান, দায়িত্ব পাওয়ার পর চেষ্টা করেছি কাজ করার কিন্ত এখনও অনেক কাজ বাকি। আপনাদের কাছে ভোট প্রত্যাশা করে বলতে চাই, আর একবার সুযোগ পেলে বাকি কাজ গুলো শেষ করতে চাই। আপনাদের মূল্যবান ভোট দিয়ে ১৭ তারিখ জয় যুক্ত করবেন। 

চৌধুরী কামরুল হাসান বক্তব্যে বলেন, কিশোরগঞ্জ হাওরের উন্নয়ন অবদানের অংশীদার হিসেবে অ্যাডভোকেট মোঃ জিল্লুর রহমান নাম রয়েছে। তিনি সৎ যোগ্য ব্যক্তি আশা করি আসছে ১৭ তারিখ বিপুল ভোটে চশমা মার্কার জয় হবে। উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে অ্যাডভোকেট মোঃ জিল্লুর রহমান কে ভোট দেওয়ার জন্য ভোটারদের কাছে অনুরোধ করেন। 

মতবিনিময় সভায় আরও বক্তব্য রাখেন ইউপি সদস্য, ইউপি চেয়ারম্যান, আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি/ সাধারণ সম্পাদক বৃন্দ। আসন্ন ১৭ তারিখ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামিলীগ মনোনীত প্রার্থী ও চশমা মার্কায় ভোট দিয়ে নির্বাচিত করার প্রতিশ্রুতি দেন। 

জেলা পরিষদ নির্বাচনের মতবিনিময় সভা পরিচালনায় ছিলেন উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা মোঃ জিল্লুর রহমান।


আরও খবর



প্রতি মাসে বাল্যবিয়ের শিকার ২৮৮ মেয়ে

প্রকাশিত:শনিবার ০১ অক্টোবর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ |
Image

এ বছরের জানুয়ারি থেকে আগস্ট মাস পর্যন্ত দেশের ২৮টি জেলায় ২ হাজার ৩০১ জন কন্যাশিশু বাল্যবিবাহের শিকার হয়েছে। সে হিসেবে প্রতি মাসে ২৮৮ কন্যাশিশুর বাল্যবিবাহ হয়েছে। এ সময় ৫৮৯টি বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ করা হয়েছে। ৩০ সেপ্টেম্বর ঢাকায় জাতীয় কন্যাশিশু অ্যাডভোকেসি ফোরাম এ তথ্য জানিয়েছে। সংস্থাটি জাতীয় কন্যাশিশু দিবস উপলক্ষে ‘কন্যাশিশু পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ প্রতিবেদন-২০২২’ উপস্থাপন করেছে।

এ ফোরাম ২০২২ সালের প্রথম ৮ মাসে দেশের ২৪টি জাতীয়, স্থানীয় ও অনলাইন সংবাদমাধ্যম থেকে বাল্যবিবাহের তথ্য সংগ্রহ করেছে। এছাড়া বাল্যবিবাহ-সংক্রান্ত তথ্য তারা মাঠপর্যায় থেকে নিয়েছে।

ফোরামের সাধারণ সম্পাদক নাছিমা আক্তার অনুষ্ঠানে লিখিত বক্তব্য তুলে ধরেন। সেখানে বলা হয়, প্রথম ৮ মাসে ৭৬ কন্যাশিশু যৌন হয়রানি ও নির্যাতনের শিকার হয়। এর বেশির ভাগই রাস্তায়, নিজ বাসায় ও স্বজনদের দ্বারা নির্যাতনের শিকার। এ সময় পর্নোগ্রাফির শিকার ১৫ জন, অ্যাসিড সন্ত্রাসের শিকার ৩ জন, অপহরণ ও পাচারের শিকার ১৩৬ জন, হত্যার শিকার ১৮৬ জন, যৌতুকের কারণে নির্যাতনের শিকার ১৩ জন এবং হত্যা করা হয়েছে ৫ জনকে, আত্মহত্যা করেছে ১৮১ জন ও ৮ কন্যাশিশুকে বিভিন্ন স্থানে ফেলে যাওয়া হয়। জানুয়ারি থেকে আগস্ট পর্যন্ত ৫৭৪ কন্যাশিশু ধর্ষণের শিকার হয়। এর মধ্যে দলবদ্ধ ধর্ষণের শিকার ৮৪ ও ৪৩ প্রতিবন্ধী কন্যাশিশু ধর্ষণের শিকার। জাতীয় কন্যাশিশু অ্যাডভোকেসি ফোরাম বলেছে, ধর্ষণের ঘটনার পর আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হলেও অনেকেই জামিনে মুক্ত হয়ে ভুক্তভোগীর পরিবারকে ভয়ভীতি দেখায়। চূড়ান্ত শাস্তির কোনো তথ্য পাওয়া যায় না।

জাতীয় কন্যাশিশু অ্যাডভোকেসি ফোরামের কিছু উল্লেখযোগ্য সুপারিশ হলো শিশু নির্যাতন, ধর্ষণ ও হত্যার মতো ঘটনাকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে দ্রুত বিচার করা, অভিযুক্ত ব্যক্তিকেই অভিযোগ প্রমাণের দায়, কন্যাশিশু নির্যাতনকারীদের রাজনৈতিক ও প্রশাসনিক প্রশ্রয় বন্ধ করা, শিশুদের জন্য আলাদা অধিদপ্তর, বাল্যবিবাহ বন্ধে প্রশাসন, আইনশৃঙ্খলাসহ সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের নজরদারি বৃদ্ধি, সাইবার সচেতনতা বাড়ানো, আইনের সঠিক ও কঠোর প্রয়োগ।

ফোরামের সভাপতি বদিউল আলম মজুমদার বলেন, কন্যাশিশু নির্যাতন ব্যাধিতে পরিণত হয়েছে। এর প্রতিরোধ প্রয়োজন। তিনি বলেন, নারীর প্রতি সুরক্ষা জন্মকাল থেকেই নিশ্চিত করতে হবে। কন্যাশিশুদের প্রতি বিশেষ নজর দেওয়া প্রয়োজন। তাদের জন্য সুন্দর ভবিষ্যৎ সৃষ্টি করতে পারলে সবার জন্যই সুন্দর ভবিষ্যৎ তৈরি হবে।


আরও খবর

শিগগিরই বাড়ছে বিদ্যুতের দাম

মঙ্গলবার ০৪ অক্টোবর ২০২২




শিরক থেকে দূরে থাকতে হবে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ |
Image

শিরক একটি আরবি শব্দ যার অর্থ অংশ। ইসলামী পরিভাষায় সর্বশক্তিমান আল্লাহতায়ালার সঙ্গে কাউকে শরিক করা, কাউকে তাঁর সমকক্ষ ভাবা কিংবা অংশীদার করাকে শিরক বলে।

এটি একটি জঘন্য অপরাধ এবং কবিরা গুনাহ। মহান সর্বশক্তিমান আল্লাহতায়ালা শিরককে বড় মিথ্যা এবং জুলুম বলে আখ্যায়িত করেছেন। রসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের হাদিসে বলা হয়েছে- আল্লাহ তার বান্দার যে কোনো গুনাহকে ক্ষমা করে দেন। কিন্তু শিরকের গুনাহকে ক্ষমা করেন না। আমাদের সমাজে আল্লাহতায়ালার সঙ্গে বিভিন্নভাবে এবং বিভিন্ন পন্থায় শিরক করা হয়ে থাকে। মানুষ পাথর, অগ্নি, গাছ ও কবর পূজা ইত্যাদির মাধ্যমে শিরক করে। তা ছাড়া ব্যবসা-বাণিজ্য, চাকরি-বাকরি, বিবাহশাদি, রোগ-শোক, আয়-রোজগার ইত্যাদির ক্ষেত্রেও বিভিন্নভাবে এবং বিভিন্ন পন্থায় শিরক করা হয়। শিরক চার ভাগে বিভক্ত করা হয়েছে। ১. আল্লাহর মূল সত্তায় শিরক, ২. আল্লাহর গুণাবলিতে শিরক, ৩. আল্লাহর অধিকারে শিরক, ৪. আল্লাহর এখতিয়ারে শিরক। পবিত্র কোরআনে শিরকের পরিণাম সম্পর্কে সতর্ক করে বলা হয়েছে- এটি একটি ক্ষমাহীন অপরাধ।

ইরশাদ করা হয়েছে, ‘নিশ্চয়ই আল্লাহ তাকে ক্ষমা করেন না, যে তার সঙ্গে কাউকে শরিক করে। এ ছাড়া যাকে ইচ্ছা ক্ষমা করেন এবং কেউ আল্লাহর সঙ্গে শরিক করলে সে ভীষণভাবে পথভ্রষ্ট হয়। তারা তার পরিবর্তে শুধু দেবীরই পূজা করে এবং বিদ্রোহী শয়তানের পূজা করে।’ (৪-সুরা নিসা : ১১৬-১১৭)। যারা আল্লাহ ব্যতীত অন্য কাউকে উপাস্য হিসেবে মানে তারা পথভ্রষ্ট। ইরশাদ করা হয়েছে- স্মরণ কর, যখন ইবরাহিম তার পিতা আজরকে বললেন : ‘তুমি কি প্রতিমাগুলোকে উপাস্য মনে কর? আমি দেখতে পাচ্ছি যে, তুমি ও তোমার সম্প্রদায় প্রকাশ্য পথভ্রষ্ট।’ (৬ সুরা আনয়াম : ৭৪)। আল্লাহ মানুষকে সৃষ্টি করেছেন তার ইবাদতের জন্য। শিরকমুক্ত ইবাদতের মাধ্যমে বান্দা আল্লাহর সন্তুষ্টি বিধান করতে পারে।

সর্বশেষ ও শ্রেষ্ঠ নবী মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের নির্দেশিত পথে আল্লাহর ইবাদত করতে হবে। হজরত আদম (আ.)-এর মাধ্যমে দুনিয়ার বুকে প্রথম নবীর আগমন, মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের আগমনের মাধ্যমে পৃথিবীতে নবী রসুলের আগমন পর্বের সমাপ্তি টানা হয়েছে। মহানবী মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের পর পৃথিবীতে আর কোনো নবী আসবেন না। তিনি হলেন বিশ্ববাসীর জন্য মনোনীত নবী।

কেয়ামত পর্যন্ত যত মানুষ পৃথিবীতে আসবে তারা তার উম্মতের মধ্যেই গণ্য হবে। রসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আল্লাহর পথে মানুষকে ডাকার এ মহান জিম্মাদারি তার উম্মতের মধ্যে যারা কোরআন হাদিসের জ্ঞানে জ্ঞানী তাদের ওপর দিয়েছেন। মহানবীর আগে যে হাজার হাজার নবী রসুল এসেছেন তাদের বিশেষ সম্প্রদায়ের নবী রসুল হিসেবে পৃথিবীতে পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু আখেরি নবীর আগমন ঘটেছে সমগ্র মানবজাতির জন্য। ইরশাদ করা হয়েছে- ‘হে নবী আমি তোমাকে সারা বিশ্বের জন্য রহমত হিসেবে প্রেরণ করেছি।’ (২১ সুরা আম্বিয়া : ১০৭)।


আরও খবর

শারদীয় দুর্গোৎসব কাল শুরু

শুক্রবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২




রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের শেষকৃত্যে শেখ হাসিনা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০22 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ |
Image

লন্ডনে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের রাষ্ট্রীয় শেষকৃত্যে বিশ্বনেতাদের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। যুক্তরাজ্যের স্থানীয় সময় সোমবার ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবেতে এ অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠান শুরু হয়। রাষ্ট্রীয় শেষকৃত্যানুষ্ঠান শুরুর আগে সকাল ১০টা ৪৪ মিনিটে দিনের প্রথম শোকযাত্রা শুরু হয়। রানির কফিন নিয়ে ওয়েস্টমিনস্টার হল থেকে ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবেতে যাত্রা করেন স্টেট গান ক্যারেজের নাবিকরা। তাদের পেছনে ছিলেন রাজা চার্লস এবং রাজপরিবারের অন্য জ্যেষ্ঠ সদস্যরা।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ব্রিটেনে এ ধরনের রাষ্ট্রীয় শেষকৃত্য সবশেষ হয়েছিল ৬০ বছর আগে উইনস্টন চার্চিলের ক্ষেত্রে। বাকিংহাম প্রাসাদ থেকে জানানো হয়েছে, শেষকৃত্যের পরিকল্পনায় রানি ব্যক্তিগতভাবে কিছু সংযোজন করেছিলেন।

বিবিসির প্রতিবেদন অনুযায়ী, সোমবার সকাল ৮টার দিকে অতিথিদের জন্য ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবের দরজা খুলে দেওয়া হয়। এরপর সাড়ে ১০টার দিকে ওয়েস্টমিনস্টার হল থেকে রানির মরদেহ নেওয়া হয় ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবেতে। রয়্যাল নেভির গাড়িবহরে করে তাকে নিয়ে যাওয়া হয়।

ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবেতে রানির অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার কর্মসূচিতে অতিথিরাও উপস্থিত ছিলেন। এতে ধর্মীয় বাণী পাঠ করেন আর্চ বিশপ জাস্টিন ওয়েলবি। সদ্য নিযুক্ত ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী লিজ ট্রাসও বাণী পাঠ করেন। এরপর শেষ পোস্ট বিউগল বাজানো হবে বেলা ১১টা ৫৫ মিনিটে। এরপর পুরো দেশজুড়ে দুই মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। পরে অ্যাবে থেকে হাইড পার্কে ওয়েলিংটন আর্কে রানির মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয়।

স্থানীয় সময় বিকাল ৩টার দিকে রানির মরদেহ উইন্ডসর ক্যাসলে নিয়ে যাওয়া হয়। এ সময় রানির কফিনের পেছনে সাধারণ মানুষ অংশ নেন। এতে রাজপরিবারের সদস্যরাও যোগ দেন। ক্যাসল থেকে রানিকে নেওয়া হয় সেন্ট জর্জ চ্যাপেলে। সন্ধ্যায় রানির স্বামী ডিউক অব এডিনবার্গের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত হন রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ।

এর আগে দ্বিতীয় এলিজাবেথের শেষকৃত্য উপলক্ষে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানদের সম্মানে ব্রিটিশ রাজপরিবারের দেওয়া অভ্যর্থনায় যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শেখ হাসিনার সঙ্গে তার ছোট বোন শেখ রেহানাও ছিলেন এ সময়।

রাজা চালস ও কুইন কনসোর্ট ক্যামিলা পার্কার সদ্য প্রয়াত রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় যোগ দিতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে আসা প্রেসিডেন্ট, প্রধানমন্ত্রী ও রাজাদের সম্মানে এ অভ্যর্থনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন।

এদিকে, রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া ঘিরে নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে ফেলা হয়েছে পুরো লন্ডন। শেষকৃত্যে অংশ নিতে দেশটিতে বিশ্ব নেতাদের অবস্থান আর স্মরণকালের সবচেয়ে বেশি জনসমাগমে যে কোনো অপ্রীতিকর পরিস্থিতি 

অন্যদিকে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং তার বোন শেখ রেহানার সঙ্গে দেখা করেছেন ভারতের রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মু। সোমবার লন্ডনে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া শুরুর ঠিক আগে তাদের সাক্ষাৎ হয়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রয়াত রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের শেষকৃত্যে যোগদান শেষে সোমবার রাতেই লন্ডন ত্যাগ করেন। জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের (ইউএনজিএ) ৭৭তম অধিবেশনে যোগ দিতে তিনি নিউইয়র্কের পথে ইংল্যান্ডের রাজধানী ত্যাগ করেন। এর আগে ১৫ সেপ্টেম্বর সরকারি সফরে লন্ডনে (যুক্তরাজ্য) পৌঁছান শেখ হাসিনা।


আরও খবর

শিগগিরই বাড়ছে বিদ্যুতের দাম

মঙ্গলবার ০৪ অক্টোবর ২০২২