Logo
শিরোনাম
মেঘনা নদীতে গোসল করার সময় নিখোঁজ ছাত্রের মরদেহ উদ্ধার রাজবাড়ীতে ট্রাকের সাথে সংঘর্ষে মোটর সাইকেল আরোহীর মৃত্যু রাজবাড়ীতে আবৃত্তি ও কথামালায় প্রকাশনা উৎসব নওগাঁয় মোটরসাইকেলের ধাক্কায় স্কুল ছাত্র নিহত-মা ও ছোট বোন আহত মোরেলগঞ্জে শ্রমীকদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করলেন এমপি মিলন লালমনিরহাটে বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে মারাগেছে স্কুলছাত্র নওগাঁয় বোরো ধান চাষের শুরুতেই বিদ্যুতের লোড শেডিং, দুঃশ্চিন্তায় কৃষকরা নওগাঁয় ৩৫ কোটি টাকা মূল্যের কষ্টিপাথরের মূর্তি উদ্ধার করেছে পুলিশ কুড়িগ্রামের শীতকাতর অসহায় মানুষের পাশে কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেত্রকোনায় বিশ্ব জলাভূমি দিবস উপলক্ষে মানববন্ধন

কমেছে চালের দাম, সবজির বাজারে স্বস্তি

প্রকাশিত:Saturday ৩১ December ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

মইনুল ইসলাম মিতুল : দীর্ঘদিন পর কমতির দিকে চালের দাম। স্বর্ণা ও পাইজাম জাতের চালের দাম কমেছে কেজিতে ৩ থেকে ৫ টাকা পর্যন্ত। এছাড়া বাজারে শীতের সবজির দামও বেশ কম। ডজনে ৫ টাকা কমেছে ডিমের দামও। ৩০ ডিসেম্বর রাজধানীর রামপুরা, হাজিপাড়া, মালিবাগ ও সেগুনবাগিচা বাজার ঘুরে দেখা গেছে এ চিত্র

এদিকে, এখন বাজার ভরপুর শীতের সবজিতে। সরবরাহ ভালো থাকায় স্বস্তি এসেছে সবজির বাজারে। ৩০ থেকে ৪০ টাকা কেজি দরের মধ্যে কেনা যাচ্ছে নতুন আলু, শিম, মুলা, শালগম, পেঁপে, বাঁধাকপি, ফুলকপি। তবে সারা বছর পাওয়া যায় এমন সবজি কিনতে হচ্ছে কিছুটা বেশি দামে। তারপরও বেগুন, ঝিঙ্গা, চিচিঙ্গা, বরবটি ৫০-৬০ টাকায় মিলছে।

একই সঙ্গে বাজারে নতুন পেঁয়াজ ওঠায় দাম কমেছে। নতুন পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৩৫ থেকে ৪০ টাকা কেজি দরে। তাতে কমে এসেছে আমদানি ও পুরোনো দেশি পেঁয়াজের দামও। সেগুলো এখন কেজিতে ৫ টাকা কমে ৪০ থেকে ৪৫ টাকার মধ্যে বিক্রি হচ্ছে। আদা বিক্রি হচ্ছে ১০০-১২০ টাকা এবং রসুন ৮০-১০০ টাকা।

অন্যদিকে, সপ্তাহের ব্যবধানে ব্রয়লার মুরগির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। আগের সপ্তাহের মতো আজও প্রতি কেজি ১৪৫-১৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে ব্রয়লার মুরগি। তবে ফার্মের মুরগির ডিমের দাম কমেছে। বর্তমানে খুচরা বিক্রি হচ্ছে ১১৫ টাকা ডজন। পাইকারি বাজার থেকে কিনলে আরও ৫ টাকা কমে পাওয়া যাচ্ছে।

সবজি-চালের বাজারে স্বস্তির খবর থাকলেও কোনো সুখবর নেই মুদি পণ্যে। বোতলজাত সয়াবিন তেল প্রতি লিটার ১৬৭ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। চিনির দাম ১১৫-১২০ টাকা কেজি। কমেনি মসুর ডাল ও আটা-ময়দার দাম। খুচরায় প্রতি কেজি মসুর ডাল এখনো ১৩০-১৪০ টাকা বিক্রি হচ্ছে। প্রতি কেজি আটার দাম ৭০ টাকা ও ময়দা ৭৫ টাকা।


আরও খবর



একাত্তর টেলিভিশনের প্রতিনিধি কে অপহরণের চেষ্টা

প্রকাশিত:Monday ১৬ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Thursday ০২ February 2০২3 |
Image

একাত্তর টেলিভিশনের সাভার প্রতিনিধি আশরাফ সিজেলকে অপহরণ চেষ্টার ঘটনায় মামলা করা হয়েছে। সকালে আশরাফ সিজেল বাদি হয়ে সাভার থানায় মামলা দায়ের করেন ।

এর আগে সাভারের ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে ইউনিয়ন পরিষদের অফিস ও খাস জমি দখল করে দোকানপাট নির্মাণের সংবাদ প্রচার করায় রবিবার বিকালে সিজেলকে অপহরণের চেষ্টা করা হয়। সিজেল জানান, কয়েকদিন আগে তিনি ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে আমিনবাজার ইউনিয়ন পরিষদের দাপ্তরিক কাজ করার খবর সংগ্রহ করেন। কিন্তু খবরটি প্রচার না করার জন্য সিজেলকে নির্দেশ দেন ইউপি চেয়ারম্যান। পরে রবিবার বিকালে উপজেলা চেয়ারম্যানের অনুসারী মোহসীন বাবুর নেতৃত্বে ১০/১২ জনের সন্ত্রাসী দল সাভারে সিজেলের রেডিও কলোনির বাসায় হামলা চালিয়ে তাকে অপহরণের চেষ্টা চালায়। এসময় ট্রিপল নাইনে ফোন পেয়ে সিজেলকে উদ্ধার করে পুলিশ। তবে সন্ত্রাসীরা চলে যাওয়ার সময় সিজেলকে আট ঘন্টার মধ্যে সাভার ছাড়ার নির্দেশ দিয়ে যান। এ ব্যাপারে সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মঞ্জুরুল আলম রাজিবের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি সাড়া দেননি।এদিকে মধ্যরাতে সন্ত্রাসীরা আবারও দুটি গাড়ি নিয়ে আশরাফ সিজেলের বাসার নিচে টহল দেয়। পাশাপাশি হুমকি দিয়ে পাশের বাসা থেকে সিসিটিভির ফুটেজ নিয়ে যায় ।  


আরও খবর



আসাদুর রহমান এখন মমতাজ আলী

প্রকাশিত:Sunday ২৯ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Thursday ০২ February 2০২3 |
Image

নিজস্ব প্রতিনিধি :

লালমনিরহাট সিভিল সার্জন অফিসে ৪র্থ শ্রেণীর এক অবসর প্রাপ্ত কর্মচারীর জাতীয় সনদ পত্রে দুই নাম পাওয়ার অভিযোগ উঠছে।

অভিযোগ সূত্রে জানাগেছে দীর্ঘদিন থেকে তার জাতীয় সনদ পত্র অনুযায়ী তার নাম ছিল মোঃ আসাদুর রহমান কিন্তু পরবর্তীতে সংশোধনী   এনআইডি কার্ড পাওয়া গেছে মোঃ মমতাজ আলী।  


সিভিল সার্জন অফিস সূত্র জানায় তার চাকরি মমতাজ আলী নামে করে আসছিল তার এনআইডি কার্ডে আগে কি ছিল তা বোধগম্য নয়।  

অপরদিকে মমতাজ আলীর সাথে মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে ফোন রিসিভ না করায় এ বিষয়ে তার মতামত পাওয়া যায়নি। তবে বিষয়টি সঠিক তদন্ত করা দরকার বলে মনে করেন নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক অভিযোগকারি।


আরও খবর



বকশীগঞ্জের চন্দ্রাবাজ রশিদা বেগম শিক্ষা কমপ্লেক্সে নবীন বরণ অনুষ্ঠান

প্রকাশিত:Wednesday ০১ February ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

মাসুদ উল হাসান,জামালপুর :

জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলার চন্দ্রাবাজ রশিদা বেগম শিক্ষা কমপ্লেক্সে ২০২৩ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীদের নবীন বরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

বুধবার চন্দ্রাবাজ রশিদা বেগম শিক্ষা কমপ্লেক্স অডিটোরিয়াম নবীন বরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন অধ্যক্ষ মোঃ রফিকুল ইসলাম। নবীন বরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা পরিষদ সদস্য ও বকশীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি জয়নাল আবেদীন। আমন্ত্রিত অতিথি ছিলেন ফতেহপুর কামিল মাদ্রাসার প্রভাষক ইকবাল হোসেন মিল্লাত। চন্দ্রাবাজ শেফালী মফিজ মহিলা আলিম মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আব্দুর রশিদের সভাপতিত্বে ও সহকারী শিক্ষক দিনুল ইসলাম সিরাজীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন শিক্ষার্থী শরিফ মাহমুদ,সৈয়দা কামরুন্নাহার কনক ও আসমাউল হোসনা প্রমূখ। এ সময় চন্দ্রাবাজ রশিদা বেগম স্কুল এন্ড কলেজের সকল শিক্ষক-কর্মচারী ও শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



নওগাঁর আত্রাই নদী পরিযায়ী পাখিকে ঘিরে হতে পারে পর্যটন কেন্দ্র

প্রকাশিত:Monday ২৩ January 20২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন :

শীত এলেই ওরা চলে আসে। আসে একেবারে দলবেঁধে। সকাল এর স্নিগ্ধ কুয়াশা আর মৃদু রোদের ফাঁক দিয়ে যেন ভেসে আসে কিচিরমিচির শব্দ। নদীর স্বচ্ছ পানিতে পরিযায়ী পাখির জলকেলি সেই সাথে কলকাকলিতে মুখরিত হয়ে থাকে নদীর দুই পাড়। তাদের আগমনে প্রকৃতি যেন নতুন করে প্রাণ ফিরে পায়। পাখিকে ঘিরে এলাকাটি পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তোলার দাবী জানিয়েছেন স্থানিয় সচেতন মহল সহ পর্যটকরা।

গত কয়েক বছর ধরে শীতের শুরুতে দল বেঁধে আসতে শুরু করে পরিযায়ী পাখি। আবাস গড়ে তোলে নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলার আত্রাই নদীর তীরের পুরো কুঞ্জবন এলাকাজুড়ে। নদীর স্বচ্ছ পানিতে চোখ পড়লেই দেখা মিলবে হাজারো পরিযায়ী পাখির। চলতি শীত মৌসুমে বালিহাঁস, সরালি হাঁস, পানকৌড়ি, রাতচোরাসহ বিভিন্ন প্রজাতির পরিযায়ী পাখির বিচরণ ঘটেছে এখানে। এছাড়া পিয়াং হাঁস, পাতি সরালি, লেঙজাহাঁস, বালিহাঁস, পাতিকুট, শামুকখোল, পানকৌড়ি, ছন্নি হাঁস সহ প্রায় ১২জাতের দেশি পাখির দেখা মিলবে। এসব পরিযায়ী পাখি প্রতিদিন ভোর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত নদীর স্বচ্ছ পানিতে করছে জলকেলি। কখনও জলে ভাসতে ভাসতে আবার কখনও দল বেঁধে উড়ছে নদীর চারপাশে। একসঙ্গে ওঠানামা করতে গিয়ে পা আর পাখার ঝাপটায় চারদিকে ছিটকে পড়া পানিতে সৃষ্টি হচ্ছে এক অপরূপ দৃশ্য। সারাদিন নদীতে থাকলেও রাতে পাখিগুলো ফিরে যায় পাশের রামচন্দ্রপুর ও মধুবন সহ এলাকার বিভিন্ন গাছে। ভোরে আবারও ফিরে আসে আত্রাই নদীতে। মনোমুগ্ধকর এই দৃশ্য দেখতে দুর দূরান্ত থেকে আসছেন পাখি প্রেমিরা। নিরাপদে পাখিগুলোর বসবাসের জন্য আবাস করে দিতে উদ্যোগ নিয়েছে স্থানীয় সামাজিক সংগঠন।

পাখি দেখতে আসা দর্শনার্থী আব্দুল হাকিম, খবির উদ্দিন সাজ্জাদ হোসেন মন্ডল সহ অনেকেই বলেন, এখানে এসে অতিথি পাখি দেখে মনটা ভরে যায়। খুব সুন্দর পরিবেশ ও মনোমুগ্ধকর এই জায়গা। অতিথি পাখির অবাধ বিচরণ। এলাকাটিতে যদি পাখির অভয়ারণ্য গড়ে তোলা যায় সেক্ষেত্রে প্রতি বছর এখানে পরিযায়ী পাখি আরো বেশি করে আসতো। এসব পাখিকে ঘিরে এলাকাটি পর্যটন কেন্দ্র গড়ে উঠতে পারে। ঝাঁকে ঝাঁকে পাখি উড়ে এসে পানিতে পড়ছে। আবার কেউ বাঁশের ওপর বসে আরাম করছে। এখানে যাতে কোনক্রমেই ভীতিকর অবস্থা সৃষ্টি না হয় সেদিকে প্রশাসন ও স্থানীয়দের সুদৃষ্টি কামনা করছি।

সামাজিক সংগঠন নিরাপদ নওগাঁর চেয়ারম্যান ও গনমাধ্যম কর্মী এম সাখাওয়াত হোসেন বলেন, এখানে আগত অতিথি পাখিদের নিরাপত্তা প্রদানে আমরা কাজ করে আসছি। পাখিদের বিচরন স্থান গুলোকে অভয়ারন্য হিসেবে ঘোষনা করতে প্রশাসনের সঙ্গে একাত্ত হয়ে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছি। শুধু অতিথি পাখিই নয় পুরো দেশের পরিবেশে ও জীব বৈচিত্র্য রক্ষায় আমরা বদ্ধ পরিকর। মহাদেবপুর উপজেলার সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ মাকসুদুর রহমান বলেন, আত্রাই নদীতে যেসব স্থান পাখিদের অবাধ বিচরণ আছে সেই সব স্থানে যাতে কেউ নৌকা দিয়ে মাছ শিকার করার কারণে পাখিদের অবাধ বিচরণে বাধাগ্রস্থ না হয় এবং কেউ যেন পাখি শিকার করতে না পারে সে বিষয়ে মৎস্য অফিসের পক্ষ থেকে নজরদারি রয়েছে। এছাড়া কেউ যদি পাখি শিকার করে, আমরা জানতে পারলে বনবিভাগের সাথে সমন্বয় করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। মহাদেবপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আবু হাসান বলেন, আত্রাই নদীতে যেসব স্থান পাখিদের অবাধ বিচরণ আছে সেই সব স্থানে যাতে কেউ নৌকা দিয়ে মাছ শিকার করার কারণে পাখিদের অবাধ বিচরণে বাধাগ্রস্ত না হয় এবং কেউ যেন পাখি শিকার করতে না পারে সেই বিষয়ে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। অতিথি পাখিদের আবাসস্থলকে নিরাপদ করে অভয়ারন্যে পরিণত করে পর্যটকমুখি করতে গৃহিত পদক্ষেপগুলো দ্রুতই বাস্তবায়ন করা হবে।


আরও খবর



রাঙ্গামাটি জেলার শীতার্থ মানুষেমানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে রাঙ্গামাটি রিজিয়ন

প্রকাশিত:Thursday ০৫ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

উচিংছা রাখাইন,রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি 


রাঙ্গামাটি জেলার শীতার্থ ও সাধারণ অসহায় পাহাড়ী বাঙ্গালী জনগনের পাশে

দাঁড়িয়েছে রাঙ্গামাটি রিজিয়ন। বৃহস্পতিবার ৫ জানুয়ারী রাঙ্গামাটি রিজিয়ন

প্রাঙ্গনে অসহায় ও শীতার্থ মানুষের হাতে শীত বস্ত্র ও নগদ অর্থ তুলে দেন

রাঙ্গামাটি রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইমতাজ উদ্দিন এনডিসি

পিএসসি।

এ সময় রাঙ্গামাটি রিজিয়নের ব্রিগেড মেজর মোঃ খায়রুল হাসান, রাঙ্গামাটি

রিজিয়নের জিটুআই মেজর পারভেজ রহমান সহ অন্যান্য সেনা কর্মকর্তারা উপস্থিত

ছিলেন।

রাঙ্গামাটি রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইমতাজ উদ্দিন এনডিসি

পিএসসি বলেন, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী জাতী, বর্ণ, ধর্ম নির্বিশেষে জাতী,

উপজাতী ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য

কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করে যাচ্ছে।

এরই ধারাবাহিকতায় আজকের আমাদের এই ক্ষুদ্র চেষ্টা। এধরনের সেবামূলক

কার্যক্রমে রাঙ্গামাটি রিজিয়ন তার সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা দিয়ে শান্তি,

সম্প্রীতি ও উন্নয়ন নিশ্চিত করণের লক্ষ্যে কাজ করতে এবং দুর্গম এই পাহাড়ী

এলাকার জনসাধারণের কল্যানার্থে সকল কার্যক্রমে সকলের পাশে থাকতে সর্বদা

বদ্ধপরিকর। এধরণের সেবামূলক কার্যক্রম ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে।

আজ অনুষ্ঠানে আত্মকর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে সেলাই মেশিন, ঘর মেরামতের

জন্য ঢেউ টিন, ৩ শতাধিক শীতার্থদের জন্য শীতবস্ত্র, মসজিদের উন্নয়ন কল্পে

সহায়তা প্রদান এবং চিকিৎসার জন্য মানবিক সহায়তার নিমিত্তে আর্থিক অনুদান প্রদান করা হয়।



আরও খবর