Logo
শিরোনাম

কুড়িগ্রামে খাবার সংকটে বন্যার্তরা

প্রকাশিত:রবিবার ১৯ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ |
Image

সায়মা সাদিয়া : ধরলার পানি সেতু পয়েন্টে কিছুটা স্থিতিশীল থাকলেও ব্রহ্মপুত্রের পানি বৃদ্ধি পেয়ে চিলমারী ও নুনখাওয়া পয়েন্টে বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এতে প্লাবিত হচ্ছে নতুন নতুন এলাকা।

এদিকে গত পাঁচ দিন ধরে পানিবন্দি থাকায় চরম দুর্ভোগে পড়েছেন জেলার ৯ উপজেলার লক্ষাধিক মানুষ। বিশেষ করে দুর্গম চরাঞ্চলের বন্যাকবলিতরা নৌকা ও ঘরের উঁচু করা মাচানে বসবাস করলেও শুকনো খাবার ও বিশুদ্ধ পানির সংকটে পড়েছেন। অনেকে পরিবার, ঘর-বাড়ি ছেড়ে পাকা সড়ক ও উঁচু বাঁধে আশ্রয় নিতে শুরু করেছেন। গবাদি পশুরও খাদ্য সংকট দেখা দিয়েছে।

কুড়িগ্রাম সদরের শুলকুর বাজার এলাকায় পাকা সড়কের পাশে আশ্রয় নেওয়া আমেনা বেগম বলেন, ঘরের ভেতর পানি ঢুকে চৌকি তলিয়ে গেছে। থাকার মতো অবস্থা না থাকায় ছেলে-মেয়ে নিয়ে রাস্তায় এসে উঠেছি।

সদরের ব্রহ্মপুত্রের অববাহিকার যাত্রাপুর ইউনিয়নের চর যাত্রাপুর এলাকার কাদের আলী বলেন, ঘরের সব কিছু পানিতে তলিয়ে গেছে। কাছে কোনও উঁচু জায়গা না থাকায় নৌকায় দিন পার করছি। ঠিকমতো রান্না করতে না পারায় খেয়ে না খেয়ে আছি।

কুড়িগ্রামের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রেজাউল করিম বলেন, বন্যার্তদের ২৯৫ টন চাল, নগদ ১১ লাখ টাকা, ১ হাজার প্যাকেট শুকনো খাবার, ১৭ লাখ টাকার শিশুখাদ্য ও ১৯ লাখ টাকার গো-খাদ্য বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এগুলো বিতরণ করা শুরু হয়েছে।


আরও খবর



পাকিস্তানে ছয় সেনা কর্মকর্তাসহ হেলিকপ্টার নিখোঁজ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০২ আগস্ট 2০২2 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২ |
Image

পাকিস্তানে ছয় সেনা কর্মকর্তাসহ একটি হেলিকপ্টার নিখোঁজ হয়েছে। তাদের মধ্যে একজন জেনারেল ছিলেন। পাকিস্তানের দক্ষিণপশ্চিম অংশে তারা সেনাবাহিনী কর্তৃক বন্যাত্রাণ অপারেশনের তদারকি করছিলেন তারা।

জানা গেছে, আবহাওয়া খারাপ ছিল। সেনা অফিসারদের নিয়ে যাওয়া হেলিকপ্টারের সঙ্গে এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলের যোগাযোগ ছিন্ন হয়ে যায়। 

সেনার পক্ষ থেকে বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়েছে, বালুচিস্তানের লাসবেলা এলাকায় সেনার জওয়ানরা যে বন্যাত্রাণে নেমেছেন, তা দেখার জন্য অফিসাররা হেলিকপ্টারে সেখানে গেছিলেন। কিন্তু হেলিকপ্টারের কী হয়েছে, তা বিবৃতিতে জানানো হয়নি।

সংবাদসংস্থা রয়টার্সকে গোয়েন্দা সূত্র জানিয়েছে, কোর কম্যান্ডার সরফরাজ আলি, পাকিস্তান কোস্ট গার্ডের ডিরেক্টর জেনারেল ব্রিগেডিয়ার আমজাদ হানিফ ও দু’জন গোয়েন্দা অফিসার হেলিকপ্টারে ছিলেন।

পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, উদ্ধার ও ত্রাণের কাজ শুরু হওয়ার পর হেলিকপ্টারটি আর দেখতে পাওয়া যায়নি।

খারাপ আবহাওয়ার জন্য উদ্ধারকাজ বন্ধ রাখা হয়েছিল। মঙ্গলবার সকাল থেকে তা আবার শুরু হয়।

পাকিস্তানে ভয়ংকর বৃষ্টির পর প্রবল বন্যা হয়েছে। সেনাকে উদ্ধার ও ত্রাণের কাজে লাগানো হয়েছে। বালুচিস্তানে প্রচুর মানুষ মারা গেছেন এবং অনেক ঘরবাড়ি ভেসে গেছে।

প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরীফ বলেছেন, পরিস্থিতি খুবই সংকটজনক। সোমবার তিনি দুর্গত অঞ্চল ঘুরে দেখেছেন। শরীফ বলেছেন, পুরো দেশ বন্যাদুর্গত ও তাদের সাহায্যকারীদের সুরক্ষার জন্য প্রার্থনা করছে।

আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, আগামী দিনগুলোতে পাকিস্তানে আরও বৃষ্টি হবে। ফলে বন্যা পরিস্থিতি আরো খারাপ হতে পারে। সূত্র: ডয়েচে ভেলে, এপি, এএফপি, রয়টার্সট্রিবিউন পিকে


আরও খবর



নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের সদস্য

সবুজের যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৫ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২ |
Image

নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের সদস্য মোঃ মাহাদী সাদ্দাম হোসেন সবুজের(২৫) যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড হয়েছে। 

বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টায় লালমনিরহাটের দায়রা জজ ও বিচারক (সন্ত্রাস বিরোধী ট্রাইবুনাল - এক) মোঃ মিজানুর রহমান এই রায় দেয়। 

সাজাপ্রাপ্ত আসামি মোঃ মাহাদী সাদ্দাম হোসেন সবুজ জেলার কালীগঞ্জ থানার ভোটমারী গ্রামের মোঃ মোস্তাফিজুর রহমানের পুত্র।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, ২০১৮ সালের ৯ সেপ্টেম্বর জেলার কালীগঞ্জ উপজেলার ভোটমারী বাজার সংলগ্ন হানিফ চেয়ারম্যানের বাড়ির পাশে নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের সদস্য মোঃ মাহাদী সাদ্দাম হোসেন সবুজের নেতৃত্বে ৪/৫ জন জঙ্গি নাশকতামূলক তৎপরতা চালাতে গোপন বৈঠক করছে। রংপুর র‍্যাব -১৩ এস আই সুবীরের নেতৃত্বে র‍্যাবের টিম সেখানে অভিযান চালায়। র‍্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে ৪/৫ জন জঙ্গি পালিয়ে যায়। র‍্যাব নিষিদ্ধ  জঙ্গি সংগঠন বাংলা টিমের  দলনেতা মোঃ মাহাদী সাদ্দাম হোসেন কে আটক করে। এ ঘটনায় গত ২০১৮ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর  কালীগঞ্জ থানায় র‍্যাবের এসআই সুবীর বাদী হয়ে মামলা দায়ে করে।  একই দিন মামলাটির তদন্তভার গ্রহন করে  কালীগঞ্জ থানার  এসআই মোঃ মতিয়ার রহমান।  পরে উর্ধতন কতৃপক্ষে নির্দেশে রংপুর  র‍্যাব -১৩ সহকারী পুলিশ সুপার আহসান হাবীব দ্বিতীয় বার  তদন্তভার গ্রহণ করে। তদন্ত শেষে  গত ২০১৯ সালের ১০ জানুয়ারি অস্ত্র আইনে চার্জ গঠন করে আদালতে দাখিল করা হয়। মামলা টি প্রমাণে ১৫ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহন ও রাস্ট্র পক্ষের সাক্ষীগণ কে আসামী পক্ষের আইনজীবী  জেরা করেন। গত ২০২০ সালের ১৮ মার্চ আসামী মোঃ মাহাদী সাদ্দাম হোসেনের বিরুদ্ধে রাষ্ট্র পক্ষের পিপি ও আসামী পক্ষের আইনজীবী উপস্থিতিতে বিচারক দন্ডযোগ্য অপরাধে অভিযোগ গঠন করে। 

রাস্ট্রপক্ষের আইনজীবী পিপি অ্যাডভোকেট আকমল হোসেন জানান, 

সাক্ষ্য প্রমাণ শেষ আজ বৃহস্পতিবার ২৮ জুলাই সকাল ১১ টায় আসামী মোঃ মাহাদী সাদ্দাম হোসেনের উপস্থিতিতে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ডের রায় দেয় বিচারক। ইতোমধ্যে কারাগারে বন্দিজীবনের সময় কে এই রায়ে সাজা হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করেছে।  রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ছিলেন পিপি অ্যাডভোকেট আকমল হোসেন ও আসামী পক্ষে আইনজীবী ছিলেন এ্যাডভোকেট মিঃ গোলাম মোস্তফা। 

আসামি পক্ষের আইনজীবী মিঃ গোলাম মোস্তফা জানান, এই রায়ের বিপক্ষে আসামির স্বজনরা উচ্চ আদালতে আপিল করবেন।


আরও খবর



নিষেধাজ্ঞার শুফল পাচ্ছে জেলেরা!এক নৌকায় ২৩ লাখ টাকার ইলিশ

প্রকাশিত:বুধবার ২৭ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২ |
Image

অনুপ সিংহ,নোয়াখালী প্রতিনিধিঃ

নোয়াখালীর দ্বীপ উপজেলা হাতিয়াতে ৬৫ দিনের নিষেধাজ্ঞা শেষে সাগরে জেলেদের জালে ঝাঁকে ঝাঁকে ধরা পড়ছে ইলিশ। 

একই নৌকায় ধরা পড়েছে ছোট-বড় মিলিয়ে ৯৯ মণ ইলিশ। জালভর্তি মাছ পাওয়ায় জেলেদের মুখে হাসি। এ যেন স্বপ্নের যাত্রা শেষে সোনার হরিণ পাওয়া। 

গতকাল মঙ্গলবার (২৬ জুলাই) সন্ধ্যায় পরে হাতিয়ার চেয়ারম্যান ঘাটে মাছগুলো নিলাম করলে চেয়ারম্যান ঘাটের স্থানীয় মেঘনা ফিশিংয়ে ২৩ লাখ  ২৬ হাজার ৫০০ টাকায় কিনে নেন। 

জেলে আবুল কাশেম বলেন, ১০-১৫জন জেলে গতকাল সোমবার গভীর রাত থেকে ইলিশ ধরতে মা-বাবার দোয়া-৩’ নামের একটি মাছ ধরার নৌকা নিয়ে সাগরে জাল ফেলেন। জাল টেনে নৌকায় তুলতেই দেখতে পান, অনেকগুলো বড় ইলিশ এবং একই সঙ্গে ছোট ইলিশও ধরা পড়েছে। এক নৌকায় আগে কখনো এত মাছ পাওয়া যায়নি। ঘাটে আসার সঙ্গে সঙ্গে মাছ দেখতে অনেক মানুষ ভিড় জমিয়েছে। পরে মেঘনা মেঘনা ফিশিং সব মাছ গুলো নিলামে কিনে নেন।   

জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন বলেন, সামনে আরও বেশি মাছ ধরা পড়বে বলে আশা করা হচ্ছে। প্রজনন মৌসুমসহ সরকারি বিভিন্ন নিষেধাজ্ঞা মেনে চলায় স্থানীয় জেলেরা উপকৃত হচ্ছেন। এ কারণে নদী ও সাগরে বিভিন্ন প্রজাতির মাছের বংশবিস্তার বেড়েছে। যার ফলে প্রচুর মাছ ধরা পড়ছে।


আরও খবর

আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস

মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২




মিরপুরে স্বামীর ছুরিকাঘাতে স্ত্রী নিহত

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৫ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২ |
Image

রাজধানীর মিরপুরের পল্লবীতে পরকিয়া সন্দেহে স্ত্রীর গলায় ছুরি চালিয়ে হত্যা করেছে স্বামী। এ ঘটনায় মেয়েটির স্বামী আব্দুল হান্নানকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, দুদিন আগে খুলনা থেকে ঢাকায় এসে গার্মেন্টেসে চাকরি নেন গৃহবধূ সাথী। কিন্তু কারো প্রেমে পড়ে ঘর ছেড়েছে এমন সন্দেহে হান্নান ঢাকায় এসে তাকে খুঁজে বের করেন। বৃহস্পতিবার রাত ৮ টার দিকে, গার্মেন্টেস থেকে ফেরার পথে সাথীকে পল্লবীর সাত নম্বর সেকশনের রাস্তায় থামায় হান্নান। সেখানেই তিনি সাথীর ওপর চড়াও হয়ে গলায় ছুরি চালিয়ে দেন। এলাকার লোকজন সাথীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। চিকিৎসকরা জানান অতিরিক্ত রক্ত ক্ষরণে হাসপাতালে পৌঁছার আগেই মারা গেছেন সাথী 


আরও খবর

দল গোছানোর কাজে গতি আনছে আ.লীগ

বুধবার ০৩ আগস্ট ২০২২




লালমনিরহাটে বিজিবি’র সৈনিক পদে এক ভুয়া পরীক্ষার্থী আটক

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৯ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ |
Image

লালমনিরহাট প্রতিনিধি ঃ     

তিনি টাকার বিনিময়ে কাজ করেন, তার রয়েছে বেশ চৌকসয়তা এমন বহুনাটকের পর লালমনিরহাটে বিজিবি’র সৈনিক পদে প্রক্সি দিতে এসে আটক হয়েছেন মিজানুর রহমান মিজান নামে এক ভুয়া পরীক্ষার্থী।

বিজিবি কর্তৃক জানা যায়, ৫০হাজার টাকা চুক্তিতে প্রক্সি দিতে গিয়ে বিজিবির হাতে আটক হন তিনি। বৃহস্পতিবার (২৮ জুলাই) এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন বিজিবি লালমনিরহাটের তিস্তা ৬১ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্ণেল শাহরীয়ার হাসান।

আটক মিজান ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার সিন্দুরনা গ্রামের খলিফা রহমানের ছেলে। তিনি বিপিএড পরীক্ষার্থী ছিলেন।

লেফটেন্যান্ট কর্ণেল শাহরীয়ার হাসান জানান, বিজিবিতে সৈনিক পদে নিয়োগ চলছে। এর অংশ হিসেবে বুধবার (২৭ জুলাই) গাইবান্ধা জেলার প্রার্থীদের লিখিত পরীক্ষা লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার দোয়ানিতে অবস্থিত বিজিবি ৬১ ব্যাটালিয়নের তিস্তা-২ এ অনুষ্ঠিত হয়।

 99GD080896 রোল নম্বরের পরীক্ষার্থীর পরিবর্তে সারোয়ার মণ্ডল সজিবের হয়ে লিখিত পরীক্ষায় অংশ নিতে কেন্দ্রে আসে‌ন মিজান। এ সময় বিষয়টি বুঝতে পেরে ভুয়া পরীক্ষার্থী হিসেবে তাকে আটক করে বিজিবি।

পরে বিজিবির প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মিজান স্বীকার করেন যে ৫০হাজার টাকা চুক্তিতে অন্যের হয়ে পরীক্ষায় অংশ নেন তিনি। তার সঙ্গে জড়িত দালাল চক্রটির তথ্যও বিজিবিকে দেয় মিজান।

এ ঘটনায় প্রক্সি দেওয়ার অপরাধে মিজান ও দালাল চক্রটির বিরুদ্ধে হাতীবান্ধা থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। পরে তাকে পুলিশে সোপর্দ করেছে বিজিবি।

হাতীবান্ধা থানার অফিসার ইনচার্জ শাহা আলম এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।


আরও খবর