Logo
শিরোনাম
নওগাঁয় চোরাই অটোভ্যান উদ্ধার সহ আন্তঃজেলা চোর চক্রের ৩ জন আটক দ্বিতীয় বার আইজিপি পদক পেলেন রাঙ্গাবালী থানার ওসি হেলাল উদ্দিন অপহরণের ৪৮ ঘন্টার মধ্যেই কিশোরী উদ্ধার সহ অভিযুক্ত যুবক আটক বাউল ছালমা হলেন বরিশাল বিভাগের শ্রেষ্ঠ "জয়িতা" পাংশায় মাদক সহ ৯ মামলার আসামী গ্রেফতার ১৬৩ টাকায় তেল বিক্রির ব্যত্যয় ঘটলে ব্যবস্থা নেয়া হবে: ভোক্তার মহাপরিচালক দুর্গাপুরে বালুবাহী হ্যান্ডট্রলির চাপায় প্রাণ গেল শিক্ষার্থীর নওগাঁ জেলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি আবু বক্কর, সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত নওগাঁয় প্রাইভেটকার তল্লাসি, ৭২ কেজি গাঁজা সহ যুবক আটক রূপগঞ্জে প্রাইভেটকার চাপায় গৃহবধু নিহত

ড. আনোয়ার হোসেনের সাথে সাংবাদিকদের মতবিনিময়

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৩ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৩ মার্চ ২০২৪ |

Image
লালমনিরহাটে সাবেক উপাচার্য

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

লালমনিরহাটে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ড. আনোয়ার হোসেন-এঁর সাথে স্থানীয় সুধীবৃন্দের মতবিনিময় অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৩ অক্টোবর) দুপুর ১২টা ৩০মিনিটে লালমনিরহাট রেলওয়ে বিভাগের গেস্ট হাউজে এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

তিনি মতবিনিময় কালে জানান, লালমনিরহাট জেলার মোগলহাট জিরো পয়েন্টের ধরলা নদী থেকে ৪ নভেম্বর ২০২২ বঙ্গোপসাগরের উদ্দেশ্যে নৌকা যোগে একাত্তরের ইতিহাস খুজতে যাত্রা শুরু করবেন।  তবে এ যাত্রায় যমুনা নদীর বঙ্গবন্ধু সেতু পর্যন্ত তিনি চার জন সফরসঙ্গী ও দুজন নৌকার মাঝিকে সাথে নিয়ে এবারের যাত্রা শুরু করবেন। 

আরও জানান, যদি তাঁর জীবিনে এই যাত্রা শেষ করতে নাও পারেন পরবর্তী তরুণ প্রজন্মের মানুষজন সেটি নিশ্চয়ই বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত যাত্রাটি শেষ করবেন। 

এ সময় বেগম কামরুন নেছা ডিগ্রী কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ ও সাবেক জেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক আমিরুল হায়াত আহমেদ মুকুল, শেখ শফিউদ্দিন কমার্স কলেজের অধ্যক্ষ এন্তাজুর রহমান, জাতীয় যুব জোট কেন্দ্রীয় কমিটির সহসম্পাদক আজমুল হক পুতুল, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি কামাল আনিছুজ্জামান রবিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক জেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক  উত্তম কুমার রায় লড়াই, সাপ্তাহিক আলোর মনি পত্রিকার সম্পাদক মোঃ মাসুদ রানা রাশেদ সহ অন্যান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

সাবেক উপাচার্য ড. আনোয়ার হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, লালমনিরহাট থেকে ১০কিলোমিটার দূরে মোগলহাট যেখান দিয়ে ধরলা নদী বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে, সেই ধরলা নদী দিয়েই একটা নৌযাত্রা শুরু করবো। একাত্তরের খোজের অর্থ হচ্ছে  এই যাত্রা পথে আমরা সাধারণ মানুষের কথা শুনবো। যাদের কথা হয়তো মানুষ কখনও শুনতেও চায় নাই, যারা হয়তো মুক্তিযোদ্ধাও না, যাদের কাছে অস্ত্রও ছিলো না, সেই সব মানুষদের। কিন্তু যাদের অবদান সবচেয়ে বেশি মুক্তিযুদ্ধে এবং যারা কিছুই পায়নি। ধরলা থেকে  শুরু করে ব্রহ্মপুত্র, যমুনা, পদ্মা, মেঘনা হয়ে একবারে বঙ্গোপসাগর। এবারে পুরোটা করতে পারবো না। এবারে বঙ্গবন্ধু সেতু পর্যন্ত শেষ হবে। এবং তারপরে যদি বেচে থাকি আগামী বছর কাজ করবো।

উল্লেখ্য যে, সাবেক উপাচার্য ড. আনোয়ার হোসেন সকালে লালমনি এক্সপ্রেস ট্রেনে লালমনিহাটে এসে রেলওয়ে গেস্ট হাউজে অবস্থান করেন।


আরও খবর

থেমে যাওয়া মানে জীবন নয়

রবিবার ২৩ এপ্রিল 20২৩




পাংশায় মাদক সহ ৯ মামলার আসামী গ্রেফতার

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ০৩ মার্চ ২০২৪ |

Image

জেলা প্রতিনিধি রাজবাড়ী : 

রাজবাড়ী পাংশার মৌরাটে এক অভিযান চালিয়ে ১০১ পিস ইয়াবা সহ ৯ মামলার আসামী অনু খাঁ নামে এক মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। 

বুধবার (২৭ ফেব্রুয়ারী) ওই ইউনিয়নের ধুলিয়াট গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। সে  ওই এলাকার মৃত বক্কার খাঁ'র ছেলে। 

পাংশা থানা সূত্রে জানা যায়, ওসি স্বপন কুমার মজুমদারের নির্দেশনায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গত রাতে এস আই মিনহাজ সহ পুলিশের একটি দল ধুলিয়াট গ্রামে এক মাদক বিরোধী অভিযান চালিয়ে অনু খাকে গ্রেফতার করে। এ সময় তার হেফাজতে থাকা ১০১ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

আটক অনু খাঁ'র বিরুদ্ধে ০১টি হত্যা মামলা, ০৩টি অস্ত্র মামলা, ০১টি বিস্ফোরক মামলা, ০১টি ডাকাতি প্রস্তুতি মামলা, ০১টি মাদক মামলা, ০১ চুরি মামলা, ০১টি অন্যান্য মামলাসহ মোট ০৯টি মামলা রয়েছে।


আরও খবর



ইসরায়েলি বর্বরতায় গাজায় নিহত ২৮৩৪০

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ মার্চ 2০২4 |

Image

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সঙ্গে আলোচনা শেষে জর্ডানের রাজা দ্বিতীয় আব্দুল্লাহ গাজায় লড়াই শেষ করার জন্য পূর্ণ যুদ্ধবিরতির আহবান জানিয়েছেন। তবে রাজার সঙ্গে আলোচনায় স্থায়ী যুদ্ধবিরতি চাননি বাইডেন। তিনি চান- ছয় সপ্তাহের যুদ্ধবিরতি। এছাড়া হামাসকে নির্মূল করতে ইসরায়েলকে সময় দিতে চায় যুক্তরাষ্ট্র। এদিকে গাজায় ইসরায়েলের হামলায় ২৪ ঘণ্টায় আরও ১৬৪ জনের মৃত্যু হয়েছে।

হোয়াইট হাউজে দ্বিতীয় আব্দুল্লাহকে পাশে নিয়ে বাইডেন বলেন, গাজার দক্ষিণে রাফা শহরে ইসরায়েল যে আক্রমণের প্রস্তুতি নিচ্ছে, তাতে যেন বেসামরিক মানুষদের অবশ্যই নিরাপত্তা দেওয়া হয়। অন্যদিকে, জর্ডানের রাজা যেকোনো অভিযানের বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি দেন। খবর রয়টার্সের

বাইডেন বলেন, যুক্তরাষ্ট্র গাজা ভূখণ্ডের যুদ্ধে অন্তত ছয় সপ্তাহের বিরতির জন্য আলোচনা চালাচ্ছে। এই সাময়িক বিরতি আরও বিস্তীর্ণ একটি সমঝোতার অংশ হিসেবে আলোচিত হচ্ছে, যার মধ্যে জিম্মিদের মুক্তির বিষয়টিও অন্তর্ভুক্ত থাকবে। তবে জর্ডানের রাজা বলেন, আমাদের এই মুহূর্তে দীর্ঘস্থায়ী যুদ্ধবিরতির প্রয়োজন। এই যুদ্ধের অবসান হতেই হবে।

গত বছর ৭ অক্টোবর থেকে গাজায় ইসরায়েল যে হামলা চালাচ্ছে সেটি বন্ধ করার জন্য দ্বিতীয় আব্দুল্লাহ বারবার পূর্ণ যুদ্ধবিরতির জন্য চাপ দিয়েছেন। সেই আক্রমণের পর বাইডেনের সাথে প্রথম সামনা-সামনি বৈঠকে জর্ডানের রাজা বলেন, রাফার উপর ইসরায়েলের হামলা এই বিশ্ব মেনে নিতে পারে না। এটা আরেকটি মানবিক বিপর্যয় নিয়ে আসবে। আমরা দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে এটা আর চলতে দিতে পারি না।

অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলের হামলা অব্যাহত থাকায় ২৪ ঘণ্টায় আরও ১৬৪ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে সোমবার জানিয়েছে গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

এক বিবৃতিতে গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ইসরায়েল গাজায় ২৪ ঘন্টায় ১৬৪ জনকে হত্যা করেছে। এই সময় ১৯টি পরিবারে গণহত্যা চালিয়েছে তারা। আহত হয়েছেন আরও ২০০ জন। অনেক মানুষ এখনও ধ্বংসস্তূপের নিচে এবং রাস্তায় আটকা পড়ে আছে কারণ উদ্ধারকারীরা তাদের কাছে পৌঁছাতে পারছে না।

৭ অক্টোবর থেকে হামলায় এখন পর্যন্ত গাজায় নিহত হয়েছেন ২৮ হাজার ৩৪০ জন। আহতের সংখ্যা ৬৭ হাজার ৯৮৪ জন। ইসরায়েলের সামরিক অভিযান গাজাকে ব্যাপকভাবে বাস্তুচ্যুত, ধ্বংস এবং খাদ্য, পানি ও আশ্রয়ের ঘাটতির দিকে পরিচালিত করেছে।

আন্তর্জাতিক ক্ষোভ সত্ত্বেও ইসরায়েল গাজার দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর রাফায় স্থল আক্রমণের পরিকল্পনা করেছে। সেখানে এখন তারা বিমান হামলা চালাচ্ছে। সেখানে সীমিত জায়গার মধ্যে গাজার ২৩ লাখ মানুষের মধ্যে ১০ লাখের বেশি মানুষ কোনো না কোনো ধরনের আশ্রয় খুঁজে পেয়েছে।


আরও খবর



মাথায় আঘাত পেয়ে হাসপাতালে মোস্তাফিজ

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ মার্চ 2০২4 |

Image

আপাতত শঙ্কামুক্ত অনুশীলনের সময় বলে মাথায় আঘাত পাওয়া মোস্তাফিজুর রহমান। তার স্ক্যান রিপোর্ট ভালো এসেছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের টিম ম্যানেজমেন্ট সূত্র।

জানা গেছে, মাথায় সেলাই শেষে ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল থেকে তাকে টিম হোটেলে নেওয়া হবে। এ সময় ফিজকে ২৪ ঘণ্টার নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হবে।

মোস্তাফিজের সর্বশেষ অবস্থা নিয়ে মিডিয়া ম্যানেজার খান নয়ন জানান, মোস্তাফিজ কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের ঘরের ছেলে। এমন দুর্ঘটনায় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের টপ অফিশিয়ালরা সবাই হাসপাতালে চলে এসেছেন। এ মুহূর্তে মোস্তাফিজের কন্ডিশন স্পষ্ট করে কিছু বলা সম্ভব নয়। তাকে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। আশা করি, আজকের দিনের পর তার ব্যাপারে বিস্তারিত জানানো সম্ভব হবে।

এর আগে, জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে অনুশীলনের সময় ক্যারিবিয়ান ক্রিকেটার ম্যাথু ফোর্ডের স্ট্রেইট ড্রাইভে মাথায় বল লাগে দ্য ফিজের। মূলত বল করে ফেরার পথেই এ ঘটনা ঘটে।

পরে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ফিজিও জাহিদুল ইসলাম সজলের বরাত দিয়ে কুমিল্লা জানায়, আঘাতের পর তাৎক্ষণিকভাবে রক্ত পড়া থামাতে মোস্তাফিজের মাথায় ব্যান্ডেজ করা হয়। পরে দ্রুত ইম্পেরিয়াল হাসপাতালে নিয়ে করা হয় সিটি স্ক্যান।


আরও খবর



দ্বিতীয় বার আইজিপি পদক পেলেন রাঙ্গাবালী থানার ওসি হেলাল উদ্দিন

প্রকাশিত:শনিবার ০২ মার্চ 2০২4 | হালনাগাদ:শনিবার ০২ মার্চ 2০২4 |

Image

নিজস্ব সংবাদদাতা, রাঙ্গাবালী :

প্রশংসনীয় ও ভাল কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ দ্বিতীয় বারের মত ‘আইজিপি’স এক্সেমপ্ল্যারি গুড সার্ভিসেস ব্যাজ পদক পেয়েছেন পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হেলাল উদ্দিন। পুলিশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ মর্যাদাপূর্ণ এ পদক পাওয়ায় শনিবার দুপুরে রাঙ্গাবালী থানা পুলিশের সদস্যরা তাকে সংবর্ধনা প্রদান করেন। 

জানা গেছে, ২০২৩ সালে বরিশাল এয়ারপোর্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার দায়িত্বে থাকা অবস্থায় প্রশংসনীয় ও ভাল কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ হেলাল উদ্দিনকে এ পদক দেওয়া হয়। বুধবার রাজারবাগ পুলিশ লাইনসের প্যারেড গ্র্যাউন্ডে তাকে ব্যাজ পদক পরিয়ে দেন পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন। এসময় তার হাতে সনদপত্র তুলে দেওয়া হয়। এরআগে ২০১৮ সালে বরিশালের উজিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) থাকাকালীন প্রথমবারের মত আইজিপি পদকে ভূষিত হন হেলাল উদ্দিন। 

পুলিশের দ্বিতীয় মর্যাদাপূর্ণ এ পদক দ্বিতীয়বারের মত পেয়ে রাঙ্গাবালী থানার ওসি হেলাল উদ্দিন বলেন, ‘ভাল কাজের স্বীকৃতি যখন পাওয়া যায়, তখন সেই কাজের উৎসাহ অনেকগুণ বেড়ে যায়। আমি নিজে যেমন কাজে উৎসাহ পাবো, আমার দেখাদেখি অন্যরাও উৎসাহিত হবেন। আমি চাইবো, ভবিষ্যতে আরও ভাল কিছু করতে। আমার টিমের সদস্যদেরও ভাল কাজের জন্য  উৎসাহ দিবো। 


আরও খবর



ইসরাইলিরা সরতেই গাজায় সিটিতে ফিরছে হামাস

প্রকাশিত:রবিবার ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ০৩ মার্চ ২০২৪ |

Image

মাসখানেক আগে গাজার যেসব এলাকা থেকে ইসরাইলি বাহিনী প্রত্যাহার করা হয়েছিল, সেসব এলাকায় ফিলিস্তিনি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস আবার ফিরে এসেছে। এমনকি তারা ওইসব এলাকায় তাদের নিজস্ব প্রশাসন প্রতিষ্ঠার জন্য পুলিশ অফিসার নিয়োগ এবং বেসামরিক কর্মীদের আংশিক বেতন প্রদানও শুরু করেছে। গাজা সিটির স্থানীয় চার অধিবাসী এবং হামাসের এক সিনিয়র কর্মকর্তা শনিবার এই তথ্য জানিয়েছেন।

এসব এলাকায় ভয়াবহ ধ্বংসযজ্ঞ চালিয়েছিল ইসরাইলি বাহিনী। তারা ওইসব এলাকায় হামাসকে নির্মূল করার দাবিও করেছিল। কিন্তু তারা হামাসের শক্তি বুঝতে পারেনি। হামাসের যে ঘুরে দাঁড়ানোর সক্ষমতা রয়েছে, তা অনুধাবন করতে পারেনি। তবে হামাস ফিরে আসতেই ইসরাইলি বাহিনীও ওইসব এলাকায় আবার হামলা করতে শুরু করেছে।

গাজা সিটির চার অধিবাসী বার্তা সংস্থা এপিকে জানিয়েছেন, গাজা সিটির পুলিশ সদরদফতর এবং অন্যান্য সরকারি অফিসে ইউনিফর্ম পরা এবং সাদা পোশাকের পুলিশ কর্মকর্তাদের নিয়োগ করেছে হামাস। তারা জানিয়েছে, তারা বেসামরিক কর্মীদের ফিরতে দেখেছেন। তবে এরপর ইসরাইলি হামলাও প্রত্যক্ষ করেছেন।

পুলিশের ফিরে আসাটা বিধ্বস্ত এলাকায় আইন-শৃঙ্খলা পুনঃপ্রতিষ্ঠা প্রয়াসের অংশবিশেষ বলে মনে হচ্ছে। হামাসের এক কর্মকর্তাও এপিকে একই কথা বলেন। তিনি অবশ্য তার পরিচয় প্রকাশ করেননি। কারণ তিনি কথা বলার অনুমতিপ্রাপ্ত নয়।

হামাসের ওই কর্মকর্তা বলেন, যেসব এলাকা থেকে ইসরাইলি বাহিনী প্রত্যহার করা হয়েছে, সেসব এলাকায় তাদের শাসন পুনঃপ্রতিষ্ঠার নির্দেশনা দিয়েছেন। পরিত্যক্ত দোকানপাট ও বাড়িঘরে যাতে লুটপাট বা চুরি না হয়, সেটা প্রতিরোধের চেষ্টা তারা করছেন। এসব সম্পত্তির মালিকরা ইসরাইলের উচ্ছেদ নোটিশের পর সরে গিয়েছিলেন।

হামাস প্রায় ১৭ বছর আগে গাজায় তাদের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করে। তারা নিজস্ব সরকারি আমলাতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করে হাজার হাজার বেসামরিক কর্মী নিয়োগ করে। এদের মধ্যে রয়েছেন শিক্ষক, ট্রাফিক পুলিশ, সিভিল পুলিশ।

বর্তমানে এসব কর্মীকে আংশিক বেতন হিসেবে ২০০ ডলার করে দেয়া হয়। এতে বোঝা যাচ্ছে যে হামাসের শক্তি এখনো অটুট আছে। উল্লেখ্য, ইসরাইল দাবি করেছে যে তারা গাজায় হামাসের প্রায় ১০ হাজার যোদ্ধাকে হত্যা করেছে। আর ৭ অক্টোবর ইসরাইলি হামলা চালানো সময় হত্যা করা হয়েছিল ১০০০ হামাস যোদ্ধাকে। কিন্তু মনে হচ্ছে, ইসরাইলের দাবি সত্য নয়।

ইসরাইলি কমান্ডাররা দাবি করছে যে হামাসের ব্যাটালিয়ন কাঠামো গুঁড়িয়ে দেয়া হয়েছে। কিন্তু কার্যত দেখা যাচ্ছে যে হামাস এখনো গেরিলা কায়দায় হামলা চালিয়ে যাচ্ছে।


সূত্র : টাইমস অব ইসরাইল

 


আরও খবর