Logo
শিরোনাম

মাধবদীতে ডাকাতির প্রস্তুতকলে অস্ত্রসহ ৮ ডাকাত আটক

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০22 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ |
Image

মাধবদী (নরসিংদী) প্রতিনিধি ঃ 

নরসিংদীর মাধবদীতে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে নরসিংদীর জেলা গোয়েন্দা শাখা ও মাধবী থানা পুলিশের যৌথ অভিযানে আন্তঃজেলা ডাকাত দলের ৮ জন সদস্যকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়। 

পুলিশ জানায়,  গত সোমবার রাত ১.২৫ মিনিটে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মাধবদী থানা এলাকা মেহের পাড়া ইউনিয়নের চৌয়া গ্রামে একটি কালভার্টের উপর হতে তাদেরকে আটক করা হয় । এ সময় তাদের সাথে থাকা একটি বিদেশি পিস্তল ,একটি ম্যাগজিন ও ২ রাউন্ড গুলি এবং১টি চাপাতি ,১টি রামদা ,১ টি কাটার, লোহার পাইপ সহ ডাকাতি কাজে ব্যবহৃত একটি পিকআপ ভ্যান উদ্ধার করা হয়।

আটকৃত প্রত্যেক এই আন্ত:জেলা ডাকাত দলের সদস্য বলে জানায় পুলিশ । আটককৃতরা হলেন মাধবদী থানা সাগরদি গ্রামের মতি মিয়ার পুত্র মোঃ ইব্রাহিম, ডৌকাদি গ্রামের জমির আলীর পুত্র ইউনুস ,নরসিংদী থানার বানিয়াছল  এর আবু তাহের পুত্র রুবেল ,মাধবদী থানার বালাপুর এর জাবেদ আলীর পুত্র আইউব, বিরামপুরের আব্দুল হালিমের পুত্র শাহিন, সাগরদী গ্রামের বাসেত পুত্র শফিকুল ইসলাম বাদল ,আড়াইহাজার থানার শালমদী গ্রামের জালালের পুত্র মোঃ শাহিন ,যশোর কোতয়ালী থানা আব্দুল সাত্তার এর পুত্র জাহাঙ্গীর, পুলিশ জানায় তাদের নামে একাধিক মামলা রয়েছে তারা বিদেশি ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে ডাকাতি করার জন্য বের হয়েছিল । নরসিংদী জেলা গোয়েন্দা শাখা ইনচার্জ মোঃ আবুল বাশার বিপিএম-বার এর নেতৃত্বে মাধবদী থানা অফিসার ইনচার্জ রোকনুজ্জামান এর সহযোগিতায় এস আই নইমুল ইসলাম মোস্তাক,এস আই মোফাজ্জল হোসেন, সজিব খান ,রাহুল মজুমদার ,ফরহাদ,রুবেল, হামিদুল ,মান্নান, তুষার সহ আরো বেশ কয়েকজন অভিযানে অংশগ্রহণ করেন । উক্ত বিষয়ে আসামীদের বিরুদ্ধে মাধবদী থানায় পেনাল কোড ৩৯৯/৪০২ ধারায় এবং ১৮৭৮ সালের অস্ত্র আইনের ১৯অ/১৯(ঋ) ধারায় পৃথক পৃথক এজাহার দাখিল করা হয়েছে।


আরও খবর



৭ সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ০৫ অক্টোবর ২০২২ |
Image

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারতে চার দিনের সরকারি সফরের দ্বিতীয় দিনে মঙ্গলবার (৬ সেপ্টেম্বর) ঢাকা ও নয়াদিল্লীর মধ্যে সাতটি সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) স্বাক্ষরিত হয়েছে। উভয় দেশের প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে  সমঝোতা স্বাক্ষরিত হয়।

এগুলো হলো- অভিন্ন সীমান্ত নদী কুশিয়ারা থেকে ভারত ও বাংলাদেশের পানি প্রত্যাহারের বিষয়ে ভারত সরকারের জল শক্তি মন্ত্রণালয় ও বাংলাদেশ সরকারের পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের মধ্যে সমঝোতা স্মারক, ভারতে বাংলাদেশের রেলওয়ে কর্মীদের প্রশিক্ষণের বিষয়ে ভারতের রেল মন্ত্রণালয় এবং বাংলাদেশের রেলওয়ের মধ্যে সমঝোতা স্মারক, বাংলাদেশ রেলওয়ের জন্য এফওআইএস ও অন্যান্য আইটি এপ্লিকেশনের মতো আইটি সিস্টেমে সহযোগিতার জন্য ভারতের রেল মন্ত্রণালয় ও বাংলাদেশের রেলওয়ের মধ্যে সমঝোতা স্মারক।

অন্যান্য সমঝোতা স্মারকগুলো হচ্ছে- ভারতে বাংলাদেশ জুডিশিয়াল অফিসারদের প্রশিক্ষণ ও দক্ষতা বৃদ্ধি কর্মসূচির বিষয়ে ভারতের ন্যাশনাল জুডিশিয়াল একাডেমি এবং বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের মধ্যে সমঝোতা স্মারক, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সহযোগিতার বিষয়ে ভারতের কাউন্সিল ফর সাইন্টিফিক এন্ড ইন্ডাস্ট্রিয়াল রিসার্চ (সিএসআইআর) ও বাংলাদেশের কাউন্সিল অব সাইন্টিফিক অ্যান্ড ইন্ডাস্টিয়াল রিসার্চ (বিসিএসআইআর) এর মধ্যে সমঝোতা স্মারক, মহাকাশ প্রযুক্তির ক্ষেত্রগুলোতে সহযোগিতা সংক্রান্ত সমঝোতা স্মারক এবং প্রসার ভারতী ও বাংলাদেশ টেলিভিশন (বিটিভি)’র মধ্যে সম্প্রচার সহযোগিতা সংক্রান্ত স্মারক।

সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের আগে হায়দরাবাদ হাউসে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী ও ভারতের প্রধানমন্ত্রীর মধ্যে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় তাদের মধ্যকার আলোচনায় নিরাপত্তা সহযোগিতা, বিনিয়োগ, বাণিজ্যিক সম্পর্ক জোরদার, বিদ্যুৎ ও জ্বালানী খাতে সহযোগিতা, অভিন্ন নদীগুলোর পানি বন্টন, রোহিঙ্গা, পানি সম্পদ ব্যবস্থাপনা, সীমান্ত ব্যবস্থাপনা, মাদক ও মানবপাচার মোকাবিলার মতো পারস্পারিক স্বার্থ সংশ্লিষ্ট ইস্যুগুলো প্রাধান্য পায়।

সূত্র : বাসস


আরও খবর

শিগগিরই বাড়ছে বিদ্যুতের দাম

মঙ্গলবার ০৪ অক্টোবর ২০২২




সিলেট সিটিতে ১০৪০ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা

প্রকাশিত:সোমবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ |
Image

সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক) ২০২২-২২ অর্থবছরের জন্য ১০৪০ কোটি ২০ লাখ ৪৩ হাজার টাকা আয় ও সমপরিমাণ টাকা ব্যয় ধরে বাজেট প্রণয়ন করা হয়েছে।

সোমবার দুপুর ১২টায় নগরীর আরামবাগ এলাকার আমানউল্লাহ কনভেনশন সেন্টারে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে বাজেট ঘোষণা করেন সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।

বাজেট ঘোষণার সময় মেয়র বলেন- সিলেট নগরের নাগরিকবৃন্দকে অধিকতর সুযোগ সুবিধা ও সেবা প্রদান নিশ্চিত করার লক্ষ্যকে সামনে রেখে এবার সর্বমোট ১০৪০ কোটি ২০ লাখ ৪৩ হাজার টাকা আয় ও সমপরিমাণ টাকা ব্যয় ধরে বাজেট প্রণয়ন করা হয়েছে।

বাজেটে উল্লেখযোগ্য আয়ের খাত গুলো হলো- হোল্ডিং ট্যাক্স ৪৫ কোটি ২ লাখ ২৮ হাজার টাকা, স্থাবর সম্পত্তি হস্থান্তরের ওপর কর ১৬ কোটি টাকা, ইমারত নির্মাণ ও পুনর্নির্মাণের ওপর কর ২ দুই কোটি টাকা, পেশা ব্যবসার ওপর কর ৮ কোটি ৫০ লাখ টাকা, বিজ্ঞাপনের ওপর কর ১ কোটি ২০ লাখ টাকা, বিভিন্ন মার্কেটের দোকান গ্রহীতার নাম পরিবর্তনের ফি ও নবায়ন ফিস বাবদ ৮০ লাখ টাকা, ঠিকাদারি তালিকাভূক্তি ও নবায়ন ফি বাবদ ৩০ লাখ টাকা, ল্যাব টেস্ট ফিস বাবদ ৬০ লাখ টাকা, বাস টার্মিনাল ইজারা বাবদ আয় ১ কোটি ৭০ লাখ টাকা, ট্রাক টার্মিনাল ইজারা বাবদ আয় ৮ লাখ ৫০ হাজার টাকা, খেয়াঘাট ইজারা বাবদ ১৮ লাখ ৫০ হাজার টাকা, সিটি কর্পোরেশনের সম্পত্তি ও দোকান ভাড়া বাবদ ৪ কোটি ৫০ হাজার টাকা, রোড রোলার ভাড়া বাবদ আয় ৫০ লাখ টাকা, রাস্তা কাটার ক্ষতিপূরণ বাবদ আয় ৩০ লাখ টাকা, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা খাতে আয় ১ কোটি ২০ লাখ টাকা, দক্ষিণ সুরমা শেখ হাসিনা শিশু পার্কের টিকিট বিক্রয় থেকে আয় ৮০ লাখ টাকা, পানির সংযোগ লাইনের মাসিক চার্জ বাবদ ৬ কোটি ৫০ লাখ টাকা, পানির লাইনের সংযোগ ও পুনঃসংযোগ ফিস বাবদ ১ কোটি টাকা, নলকুপ স্থাপনের অনুমোদন ও নবায়ন ফি বাবদ ২ কোটি টাকা।

বাজেটে উল্লেখযোগ্য ব্যয় খাত গুলো হলো- নির্মাণ ও সংস্কার, ঢাকায় সিটি কর্পোরেশনের নিজস্ব লিয়াজো অফিসের জন্য ফ্ল্যাট ক্রয়, কসাই খানা নির্মাণ/ময়লা আবর্জনা ফেলার জায়গা উন্নয়ন, সিটি কর্পোরেশনের যানবাহন রক্ষায় গ্যারেজ নির্মাণ, সিটি কর্পোরেশনের যানবাহন, রক্ষণাবেক্ষনে ওয়ার্কসপ নির্মাণ, হাট বাজার উন্নয়ন, বাস টার্মিনাল সংস্কার ও উন্নয়ন, সিলেট সিটি কর্পোরেশন এলাকায় পাঠাগার নির্মাণ, নাগরিক নিরাপত্তার জন্য গুরুত্বপূর্ণ রাস্তায় সিসি ক্যামেরা স্থাপন, গভীর নলকুপ স্থাপন, এমজিএসপি প্রকল্পের রক্ষনাবেক্ষন কাজের নিজস্ব অর্থ ব্যয়, সিটি কর্পোরেশনের জন্য জীপ গাড়ী ও ২টি আধুনিক এ্যাম্বুলেন্স ক্রয় এবং নারীদের উন্নয়নে প্রকল্প গ্রহন ব্যয়সহ ইত্যাদি ব্যয় উল্লেখযোগ্য।


আরও খবর



বিতর্কিত নির্বাচনের শঙ্কা টিআইবির

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ |
Image

মইনুল ইসলাম মিতুল : জাতীয় নির্বাচনের জন্য নির্বাচন কমিশন (ইসি) ঘোষিত রোডম্যাপ সংশোধন না করলে আবারও ২০১৪ ও ২০১৮ এর মতোই বিতর্কিত নির্বাচনের শঙ্কা প্রকাশ করেছেন টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান। বলেন, ইভিএম ব্যবহারের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করতে হবে।

আন্তর্জাতিক গণতন্ত্র দিবস উপলক্ষ্যে বৃহস্পতিবার ‘অন্তর্ভুক্তিমূলক নির্বাচন; গণতান্ত্রিক সুশাসনের চ্যালেঞ্জ উত্তরণে করণীয়’ শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনে ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ইসির রোডম্যাপকে চূড়ান্ত না ভেবে আবার সংশোধন করা যেতে পারে। বিশেষ করে প্রশাসনকে নিরপেক্ষ করতে উদ্যোগ নেয়ার কথা বলেন তিনি।

টিআইবির এ নির্বাহী পরিচালক জানিয়েছেন, তত্বাবধায়ক সরকার আদর্শ গণতান্ত্রিক চর্চা নয়। কিন্তু মন্ত্রিত্ব বহাল রেখে নির্বাচনে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ডও তৈরি সম্ভব নয়। আইন সংস্কার করে এমপি-মন্ত্রী ও প্রশাসনের হস্তক্ষেপ বন্ধ করার উদ্যোগ নিতে হবে ইসিকেই। নির্বাচনের সময় ইন্টারনেটের গতি হ্রাস ও গণমাধ্যম সংবাদ সংকুচিত করার নজির আছে জানিয়ে ইসিকে গণতান্ত্রিক ক্ষমতার চর্চার আহ্বান জানায় টিআইবি।

প্রসঙ্গত, গত বুধবার আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের রোডম্যাপ বা কর্মপরিকল্পনা প্রকাশ করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। প্রকাশিত ২০ পৃষ্ঠার কর্মপরিকল্পনায় ২০২৩ সালের নভেম্বরে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে। আর ভোট হবে ডিসেম্বরের শেষ অথবা চব্বিশ সালে জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে; মোট ১৫ দিনের মধ্যে ভোটের সময় রেখে কর্মপরিকল্পনা প্রকাশ করা হয়েছে।



আরও খবর

শিগগিরই বাড়ছে বিদ্যুতের দাম

মঙ্গলবার ০৪ অক্টোবর ২০২২




মোরেলগঞ্জে দূর্গাপূজা উপলক্ষে আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক মতবিনিময় সভা

প্রকাশিত:সোমবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ০৫ অক্টোবর ২০২২ |
Image

এম.পলাশ শরীফ, নিজস্ব প্রতিবেদকঃ 

 বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে সোমবার সকালে শারদীয় দূর্গা পূজা উপলক্ষে সনাতন ধর্মাবলম্বী নেতৃত্বের সাথে আইন শৃঙ্খলা বিষয়ক মতবিনিময় সভা  অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাগেরহাট -৪ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাড. আমিরুল আলম মিলন। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা পুলিশ সুপার কেএম আরিফুল হক পিপি এম।  বক্ততা করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো.জাহাঙ্গীর আলম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আল মামুন,উপজেলা  চেয়ারম্যান আ্যাড. শাহ-ই- আলম বাচ্চু, পৌর মেয়র আ্যাড. মনিরুল হক তালুকদার, থানা অফিসার ইন চার্জ মো. সাইদুর রহমান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক মোজাম,  মুক্তিযোদ্ধা নীহার রঞ্জন হালদার, কাউন্সিলর শংকর কুমার রায়, প্রভাষক বেদান্ত কুমার  হালদার প্রমুখ।


আরও খবর



ইটনায় ওএমএস এর মাধ্যমে ৩০ টাকা কেজি চাল বিক্রি চলছে

প্রকাশিত:বুধবার ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৪ অক্টোবর ২০২২ |
Image

মোঃ মুজাহিদ সরকার কিশোরগঞ্জ :

কিশোরগঞ্জের ইটনা উপজেলায় ওএমএস এর মাধ্যমে ৩০ টাকা কেজি দরে চাল বিক্রি কার্যক্রম শুরু হয়েছে। প্রতিজন ৫ কেজি করে ৩০ টাকা দরে চাল কিনতে পারবেন। প্রতি ডিলার প্রতিদিন ০২ টন চাল বিক্রি করতে পারবেন। 

গত ০১ সেপ্টেম্বর (বৃহস্পতিবার) সকালে সদর ইউনিয়ন এলাকায় এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়। আজ ১৪ সেপ্টেম্বর সকালে গিয়ে দেখা যায়, লাইন ধরে ওএমএস চাল কিনছে সাধারণ মানুষ। 

ওএমএস এর চাল কিনতে আসা হাবিব মিয়া জানান, বর্তমান সময়ের চাল, ডাল সব কিছুই দাম, যার ফলে আমাদের অসহায় দুস্থ মানুষের জন্য কষ্ট হয়ে যাচ্ছে, সরকার ৩০ টাকা কেজি চাল বিক্রির ব্যবস্থা করায় আমাদের উপকার হয়ছে। 

উপজেলা খাদ্য গুদামে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার মোঃ আল আমীন জানান, সুবিধাভোগীরা কমদামে চাল ক্রয় করতে সকাল থেকে ভিড় করেছেন ওএমএস কেন্দ্রগুলোতে। এই কার্যক্রম তিনমাস চলবে। উপজেলা খাদ্য গুদামের সামনে এবং নতুন বাজারের চাল বিক্রির কার্যক্রম চলছে।উপজেলার সদর ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডে ০২ জন ডিলারের মাধ্যমে সপ্তাহে শুক্র ও শনিবার বাদে এসব চাল বিক্রি চলবে। 

ইটনা উপজেলা নির্বাহি অফিসার নাফিসা আক্তার জানান, সরকার গরীব মানুষের কথা বিবেচনা করে খোলা বাজারে চাল বিক্রি শুরু করেছে।  আশা করি এই কর্মসূচির মাধ্যমে দরিদ্র পরিবারগুলি উপকৃত হবেন।


আরও খবর