Logo
শিরোনাম

মালিতে সশস্ত্র গোষ্ঠীর হামলায় নিহত ১৩২

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২১ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

পশ্চিম আফ্রিকার দেশ মালিতে সশস্ত্র বিদ্রোহীদের হামলায় কমপক্ষে ১৩২ বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছেন। স্থানীয় সময় সোমবার এক বিবৃতিতে দেশটির সরকার জানিয়েছে, শনিবার ও রোববার রাতে মালির মোপ্তি অঞ্চলের ব্যাঙ্কাসের অন্তত তিনটি গ্রামে হামলা চালিয়ে এ হত্যাযজ্ঞ চালানো হয়।

কাতিবা মাকিনা সশস্ত্র গোষ্ঠীর সদস্যরা এ হামলা চালিয়েছে বলে সন্দেহ করছে মালি সরকার। খবর এবিসির।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, কাতিবা মাকিনা গোষ্ঠীটি আল কায়েদার সঙ্গে সম্পৃক্ত। এরা ঠাণ্ডা মাথায় দিয়াল্লাসাগউ, দিয়াওয়েলি ও ডেসাগৌ গ্রামের নিরীহ মানুষদের হত্যা করেছে। তবে এখন পর্যন্ত এ হামলার দায় স্বীকার করেনি কোনো গোষ্ঠী।

ব্যাঙ্কাসের মেয়র মোলায়ে গুইন্দো বার্তা সংস্থা এপিকে বলেন, কীভাবে হামলাটি সংঘটিত হয়েছে তা এখনো স্পষ্ট নয়। তদন্তকারীরা এরই মধ্যে ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন। তারা বিষয়টি খতিয়ে দেখছেন।

এদিকে, মালিতে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশন এক বিবৃতিতে বলেছে, পৃথক আরেকটি হামলায় রোববার একজন জাতিসংঘ শান্তিরক্ষীর মৃত্যু হয়েছে। মালিতে জাতিসংঘের মিশনের প্রধান এল ঘাসিম ওয়ানে বলেন,  চলতি বছরের শুরু থেকে বেশ কয়েকটি হামলায় জাতিসংঘের বেশ কয়েকজন শান্তিরক্ষীর মৃত্যু হয়েছে।

এসব হামলার ব্যাপারে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে মালিতে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশন। তারা এক টুইটার পোস্টে বলেছে, মালির মধ্যাঞ্চলে চরমপন্থীদের হামলায় অনেক বেসামরিক মানুষ নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অনেকে। বহু মানুষ ঘরবাড়ি ছেড়ে পালিয়ে গেছেন। এ হামলায় আমরা গভীরভাবে উদ্বিগ্ন।


আরও খবর



কিশোরগঞ্জ হাওরে পানিবদ্ধি প্রায় দুই হাজার পরিবার

প্রকাশিত:শনিবার ১৮ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

মুজাহিদ সরকার কিশোরগঞ্জ :

অবিরাম বর্ষন আর উজানের পানিতে কিশোরগঞ্জের হাওরের নিম্নাঞ্চল এলাকায় বন্যায় প্লাবিত হচ্ছে। ইতোমধ্যে বন্যার পানি প্রবেশ করছে প্রায়ই দুই থেকে আড়াই হাজার ঘরে। তলিয়ে যাচ্ছে ঘরবাড়ি, নলকূপগুলো তলিয়ে যাওয়ায় খাবার পানির সংকট এরিমধ্য দেখা দিয়েছে। 

খোজ নিয়ে জানা গেছে, হাওর উপজেলা ইটনার বিভিন্ন ইউনিয়নের গ্রামের মানুষ তাদের ঘরবাড়িতে বন্যার পানি প্রবেশ করায় ছেলেমেয়ে, ধান,গরু-ছাগল, হাঁস-মুরগি দৈনন্দিন প্রয়োজনীয় গৃহস্থালির জিনিসপত্র নিয়ে বিপাকে পড়েছে। 

এ মুহুর্তে বন্যা উপদ্রুত এলাকায় প্রাথমিক বিদ্যালয় গুলো বন্যায় উপদ্রুত মানুষের জন্য খোলে দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে সাধারণ জনগণ। 

সাধারণ মানুষ বলছে, বিপদ ঘনিয়ে আনছে  বাতাসের তোড়ে বিশালাকার ঢেউ, গ্রামগুলি বিশালাকৃতির ঢেউ আঁচড় পড়ে ভাঙতে শুরু করছে, ঢেউ মোকাবেলায় কেন কনস্ট্রাকশান প্রোটেকশন না থাকায় খড় কচুরিপানা দিয়ে গ্রামগুলি রক্ষায় প্রাণপণে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে সেখানকার বাসিন্দারা। আশ্রয়ন কেন্দ্র না থাকায় স্কুলগুলো বন্যায় আক্রান্তদের জন্য উন্মুক্ত করে দিলেও ধানচাল গরু-ছাগল এসবের মায়ায় কেউ সেখানে যেতে চাচ্ছেনা। 

অবিরাম বর্ষন আর উজান থেকে তীব্র গতিতে নেমে আসা বন্যার পানিতে আক্রান্ত মানুষের কথা চিন্তা করে প্রয়োজনীয় জীবন রক্ষাকারী ঔষধ পত্র হাসপাতালে পর্যাপ্ত প্রয়োজন। 

হাওরের বানবাসি মানুষের জন্য প্রয়োজনীয় মানবিক সহযোগিতার জন্য সরকারের পাশাপাশি সামর্থবান মানুষকেও এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছে বিশিষ্টজনেরা।


আরও খবর



বন্যার্তদের পাশে দাঁড়াবেন অনন্ত জলিল

প্রকাশিত:রবিবার ১৯ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

সায়মা সাদিয়া :  ভয়াবহ বন্যায় আক্রান্ত দেশের উত্তর-পূর্ব অঞ্চল। সিলেট ও সুনামগঞ্জের অধিকাংশ এলাকা পানিতে ডুবে গেছে। লাখ লাখ মানুষ পানিবন্দি হয়ে দুর্বিসহ দিন পার করছেন। প্রতিনিয়ত বন্যার পানির উচ্চতা বেড়েই যাচ্ছে। পরিস্থিতি এতোটাই প্রতিকূল যে, পর্যাপ্ত সহযোগিতা করতেও হিমশিম খাচ্ছে প্রশাসন।

এই দুর্যোগে বন্যার্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ঢালিউড সুপারস্টার শাকিব খান, বাপ্পী চৌধুরী প্রমুখ। এবার যুক্ত হলেন ঢাকাই সিনেমার আলোচিত নায়ক ও ব্যবসায়ী অনন্ত জলিল। তিনি দেশের বন্যাকবলিত এলাকার মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন।

জলিল জানিয়েছেন, এ বছর ১০-১২টা গরুর জায়গায় মাত্র ১টি বা দুইটি গরু কোরবানি দিয়ে বাকি টাকা ক্ষতিগ্রস্ত বানভাসিদের দেবেন।

শনিবার (১৮ জুন) এক ভিডিওবার্তায় এই ঘোষণা দেন অনন্ত। একইসঙ্গে এমন দুর্যোগে সবাইকে এগিয়ে আসারও আহ্বান জানান তিনি।

অনন্ত জলিল বলেন, ‘সিলেটের বন্যার ভয়াবহতার কারণে এবার আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি, ১০-১২টা গরু কোরবানি না দিয়ে শুধুমাত্র ১টা বা দুইটি গরু কোরবানি দেবো। এই কোরবানির যত টাকা আছে তা দিয়ে বন্যার্তদের পাশে দাঁড়াব। শুধু কোরবানির টাকাই না, আমার ব্যবসার টাকা এবং আমি যে মুভি (দিন: দ্য ডে) মুক্তি দিচ্ছি, সেটা থেকেও টাকা আসবে- সবকিছু দিয়েই সিলেটের বন্যার্তদের পাশে দাঁড়াবো ইনশাআল্লাহ।

তিনি আরও যোগ করেন, ‘যখন যেখানে দুর্যোগ হয় আমি পাশে দাঁড়াই। আমাদের যাদের অর্থ-কড়ি আছে, আমরা কেউ টাকা কবরে নিয়ে যেতে পারব না। আমরা যেটা আয় করি সেটা মানুষের কাজে খরচ করতে হবে, মানুষের পাশে দাঁড়াতে হবে। কারণ আপনি-আমি একদিন পৃথিবীতে থাকব না। আমরা নিজেরা ভোগ না করে, যদি মানুষের কল্যাণে টাকা খরচ করতে পারি, তাহলে আল্লাহ্ আমাদের এই দান কবুল করবেন। মরার পর আমাদের পাশে মানুষের দোয়া ছাড়া আর কিছুই থাকবে না। যে যতটুকু পারেন মানুষের পাশে দাঁড়ান। সবাই মিলে একটু একটু করলেও তাদের অনেক সহায়তা হবে।

উল্লেখ্য, আসছে ঈদুল আযহায় মুক্তি পেতে যাচ্ছে অনন্ত জলিল অভিনীত ‘দিন: দ্য ডে’। বাংলাদেশ ও ইরানের যৌথ প্রযোজনায় সিনেমাটি নির্মিত হয়েছে। এতে অনন্ত জলিলের বিপরীতে বরাবরের মতো অভিনয় করেছেন তার স্ত্রী বর্ষা। আজ (রোববার) সন্ধ্যা ৭টায় সিনেমাটির ফাইনাল ট্রেলার উন্মুক্ত করা হবে।


আরও খবর

শিশুদের সিনেমায় মিথিলা

শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২




যে রেকর্ডে সবার চেয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৮ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

সেন্ট লুসিয়া টেস্টে ১০ উইকেটের হার, দুই ম্যাচের সিরিজে হোয়াইটওয়াশ বাংলাদেশ। আর সেন্ট লুসিয়া টেস্টে হারের মধ্যে দিয়ে টেস্টে শততম হারের দেখা পেয়েছে বাংলাদেশ।

২০০০ সালে টেস্ট অভিষেক বাংলাদেশের, প্রায় দুই যুগের যাত্রায় বাংলাদেশ খেলে ফেলেছে ১৩৪টি টেস্ট। যার মধ্যে ১০০টিতেই হেরেছে টাইগাররা।

এই বাংলাদেশ জয় পেয়েছে ১৬ টেস্টে, ড্র হয়েছে ১৮টি। ১৩৪ ম্যাচ খেলেই ১০০তম হারের দেখা পাওয়ার ঘটনা এটাই প্রথম, টেস্ট ইতিহাসে আর কোনো দলের এত কম ম্যাচ হারের শতক ছোঁয়ার রেকর্ড নেই।

বাংলাদেশের আগে এই রেকর্ড ছিল নিউজিল্যান্ডের দখলে। ৮ ডিসেম্বর ১৯৯৫ সালে শুরু হওয়া পাকিস্তানের বিপক্ষে ক্রাইস্টচার্চ টেস্ট হেরে ‘শতক’ পূর্ণ করেছিল কিউইরা। ওই সময়ের মধ্যে তারা খেলেছিল ২৪১টি টেস্ট। তার মধ্যে ৩৩টিতে জয় ছিল তাদের।

শততম হারের আগে সবচেয়ে বেশি জয়, এমন রেকর্ডটি অস্ট্রেলিয়ার। ১৮৭৭ সালে ইতিহাসের প্রথম টেস্টের প্রায় ১০০ বছর পর ১৯৭৮ সালে যখন শততম হার আসে অস্ট্রেলিয়ার, এর মধ্যে খেলা ৩৭৪টি টেস্টের ১৭০টিই জিতেছিল তারা। 

ভারতের বিপক্ষে অভিষেক টেস্টেই হেরেছিল বাংলাদেশ। এরপর ২০০১ সালে ঢাকায় জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বৃষ্টির সৌজন্যে প্রথম ড্র, তারপর ২০০৪ পর্যন্ত টানা ২১ হার। টেস্টে সেটিই টানা হারের রেকর্ড। 


আরও খবর



নির্ঘুম রাত কাটছে তিস্তাপাড়ের বাসিন্দাদের

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

মইনুল ইসলাম মিতুল: হু হু করে বাড়ছে তিস্তা নদীর পানি। ঘর-বাড়িতে পানি উঠায় নদী-তীরবর্তী মানুষগুলো বাড়িঘর ছেড়ে নিরাপদ স্থানে ছুটে যাচ্ছে। এতে নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছেন তিস্তাপাড়ের বাসিন্দারা।

বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে জেলার হাতিবান্ধার দোয়ানীতে অবস্থিত তিস্তা ব্যারাজ পয়েন্টে (৫২.৭০ সেন্টিমিটার) বিপৎসীমার ১০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। (স্বাভাবিক ৫২.৬০ সেন্টিমিটার)।

লালমনিরহাট পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মিজানুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, উজানে ঢল ও ভারী বৃষ্টিপাতের কারণে তিস্তা নদীর পানি হু হু করে বৃদ্ধি পাচ্ছে।

স্থানীয়রা জানান, ইতোমধ্যে নদী-তীরবর্তী নিম্নাঞ্চল ও চরাঞ্চলের কয়েক হাজার মানুষ পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। আজ সকাল ৯টায় পানি বিপৎসীমার কাছাকাছি এবং বিকেল ৩টায় বিপৎসীমা দিয়ে প্রবাহিত হতে শুরু করে। তবে রাত ৯টায় ডালিয়া পয়েন্টের পানি বিপৎসীমার ১০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। রাতে পানি আরও বাড়তে পারে বলে আশংকা করা হচ্ছে।

উজানের ঢল ও টানা বৃষ্টিপাতে তিস্তা ও ধরলা নদীর পাশাপাশি জেলার অন্যান্য নদী ও ঢোবায় পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। এতে ক্রমেই বাড়ছে দুর্ভোগ।

লালমনিরহাট সদর উপজেলার কালমাটির ওবাইদুল ইসলাম জানান, নদীর পানি বিকেল থেকে হু হু করে বাড়ছে। নদীর তীরবর্তী হওয়ায় কয়েকদিন থেকে রাতে ঘুম আসছে না চোখে। কখন কি হয় সে চিন্তাই এখন মূল ভয়। এর আগে তিস্তার গ্রাসে ৮ বার বাড়ি সরিয়ে নিয়েছে বলেও জানান তিনি।

নির্ঘুম রাত কাটানোর অভিজ্ঞতা শুধু ওবাইদুলের নয়, ওই এলাকার শামসুল, আমজাদসহ অনেকেই জানান, পানি বৃদ্ধি পেলে আমরা যেখানে আশ্রয় নিই ইতোমধ্যে সেই স্কুলের মাঠেও পানি প্রবেশ করতে শুরু করেছে।

এদিকে বন্যাসহ যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবিলায় সব রকম প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন লালমনিরহাটের জেলা প্রশাসক আবু জাফর।


আরও খবর



সৌদিতে আরও ২ বাংলাদেশি হজযাত্রীর মৃত্যু

প্রকাশিত:বুধবার ২২ জুন 20২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

সৌদি আরবে মারা গেলেন আরও দুই বাংলাদেশি হজযাত্রী। মঙ্গলবার (২১ জুন) মদিনায় মারা যান তারা। এ নিয়ে বাংলাদেশি হজযাত্রী মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ৬ জনে।

ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আইটি হেল্পডেস্কের হজের প্রতিদিনের বুলেটিনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

মৃত হজযাত্রীরা হলেন— রংপুর পীরগাছার মো. আব্দুল জলিল খান (৬২)।  তার পাসপোর্ট নম্বর- BX0552614 ও ঢাকার কোতোয়ালির বিউটি বেগম (৪৭)। তার পাসপোর্ট নম্বর- EA0009584।

বুলেটিনে জানানো হয়েছে, মঙ্গলবার পর্যন্ত ৭৮টি ফ্লাইটে সৌদি আরবে গেছেন ২৮ হাজার ৩০৯ জন হজযাত্রী।

সৌদি আরব যাওয়া হজযাত্রীদের মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনার ৩ হাজার ৩৮৫ জন ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনার ২৪ হাজার ৯২৪ জন রয়েছেন। 

গত ৫ জুন বাংলাদেশ থেকে হজ ফ্লাইট শুরু হয়। ঢাকা থেকে শেষ হজ ফ্লাইট ছেড়ে যাবে ৪ জুলাই।





আরও খবর

১০ জুলাই পবিত্র ঈদুল আযহা

শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২