Logo
শিরোনাম

মোরেলগঞ্জে ইচ্ছামাফিক বিদ্যালয়ে যাচ্ছেন শিক্ষকরা

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ |
Image

এম. পলাশ শরীফ, নিজস্ব প্রতিবেদক:

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ইচ্ছামাফিক স্কুলে যাচ্ছেন ৩ শিক্ষক। সরকারি নির্দেশনা সময়সূচির কোন তোয়াক্কা না করে নিজেদের ইচ্ছায় স্কুলে হাজিরা দিয়ে দিন পার করছেন। সংশ্লিষ্ট ক্লাষ্টারের কর্মকর্তার নেই তদারকি। স্কুল ভবনে প্রাক-প্রাথমিকের একই শিক্ষার্থীরা গণশিক্ষাকেন্দ্রে পাঠদান নিতে দেখা গেছে।

রোববার সরেজমিনে গিয়ে দেখাগেছে, উপজেলার মোরেলগঞ্জ সদর ইউনিয়নে ১১৯ নং মধ্য বিশারীঘাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সময়সূচি সকাল ৯টায় থেকে ৪ টা পর্যন্ত সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী সকল শিক্ষকের উপস্থিতির কথা থাকলেও চিত্র রয়েছে ভিন্ন। শিক্ষার্থীরা হৈ-চৈ করে বাহিরে সময় পার করছেন। বিদ্যালয়ে কর্মরত ৬ জন শিক্ষক থাকলেও প্রধান শিক্ষক ইয়াসমিন আক্তার, সহকারি শিক্ষক ইসরাত জাহান ও স্বপ্না রানী দাস যথাসময়ে উপস্থিত হলেও সহকারি শিক্ষক জান্নাতুল ফেরদৌসি, মো. অহিদুর রহমান ও বৃত্তি রানী বল ৩ শিক্ষক পর্যায়ক্রমে ঘন্টাব্যাপী ব্যবধানে বিদ্যালয়ে হাজিরা দিয়েছেন। শিক্ষার্থীরা বলছেন প্রতিদিন ক্লাশ বসছে ১০ টায়। প্রধান শিক্ষক বলছেন সোয়া ৯টায়। নির্দিষ্ট সময়ে প্রাক-প্রাথমিক শ্রেনীকক্ষে ২-৪ জন শিক্ষার্থী উপস্থিত থাকলেও অন্য একটি শ্রেনীকক্ষ দেখা গেছে ফাঁকা। বিদ্যালয়টিতে মোট শিক্ষার্থী রয়েছে ১৮৫ জন।


শিক্ষার মানন্নোয়নে সরকারিভাবে উন্নয়ন প্রকল্পের ক্ষুদ্র মেরামত, স্লিপের টাকা, রুটিন ম্যানটেনেন্সসহ বিভিন্ন বরাদ্দ পেলেও সে অর্থ বরাদ্দ যথাযথ ব্যয় না করারও অভিযোগ রয়েছে স্থানীয়দের। স্কুলের শিক্ষার্থীদের শিখন কার্যক্রম ব্যবহৃত ল্যাপটবটি রয়েছে সহকারি শিক্ষক অহিদুর রহমানের বাড়িতে। প্রাক-প্রাথমিকের শিক্ষক জান্নাতুল ফেরদৌসি অভিযোগ তুলেছেন এ বিদ্যালয়ের ২য় তলায় ইসলামিক ফাউন্ডেশনের গনশিক্ষা কেন্দ্রের ক্লাশ চলছে দীর্ঘদিন ধরে সেখানে তার শিক্ষার্থীরা। ওই শিশুদের পাঠদান শেষ হয় ১০ টায়। তারপরে শুরু হয় প্রাক-প্রাথমিকের ক্লাশ এ কারনেই তিনি দেরি করে আসেন বিদ্যালয়ে। প্রাক ও গনশিক্ষা কেন্দ্রের একই ছাত্রের বিষয়টি প্রধান শিক্ষককে বলেও সুরহা হয়নি বলে অভিযোগ ওই সহকারি শিক্ষকের। বিদ্যালয়ে ডিজিটাল হাজিরা মেশিন ঝুলানো থাকলেও নেই কার্যক্রম। ক্রয়কৃত মেশিনের অর্থ গেছে ভেস্তে।

এ সর্ম্পকে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইয়াসমিন আক্তার বলেন, বিদ্যালয়ে নিয়মিত সোয়া ৯টায় ক্লাশ শুরু হয়।  শিশু শিক্ষার্থীরা ভুল করে ১০ টার কথা বলেছেন। আজ একটু দেরি হয়েছে। পরবর্তীতে এ রকম থাকবে না। তার প্রাকের শিক্ষার্থীদের গনশিক্ষা কেন্দ্রে ছাত্র দেখানো হয়েছে সে বিষয়টিও উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের অবহিত করা হবে।

এ বিষয়ে উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. জালাল উদ্দিন খান বলেন, সরকারি নির্দেশনা সময়সূচি না মেনে বিদ্যালয়ে শিক্ষকদের বিলম্বের হাজিরা বিষয়টি খোঁজ খবর নিয়ে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। 


আরও খবর

১১০০ শিক্ষকের সনদ জাল

শনিবার ০১ অক্টোবর ২০২২




কু‌মিল্লা বরুড়ার ৮৮‌টি মন্ড‌পে আর্থিক অনুদান‌ বিতরণ

প্রকাশিত:শুক্রবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ০৫ অক্টোবর ২০২২ |
Image

কু‌মিল্লা ব্যুরো ঃ

কু‌মিল্লা বরুড়ার ঐতিহ‌্যবাহী নর‌সিংহ‌দেব ও জগন্নাথ দেব কেন্দ্রীয় ম‌ন্দি‌রে অনুদান বিতরণ ক‌রেন অনুষ্ঠা‌নের প্রধান অ‌তি‌থি বরুড়‌া উপ‌জেলা জনকল‌্যাণ সভাপ‌তি ও‌ যোগা‌যোগ মন্ত্রণাল‌য়ের যুগ্ন স‌চিব প্রশাসন বাবু মনীন্দ্র কি‌শোর মজুমদার।                  শুক্রবার দুপু‌রে এস কিউ ফাউন্ডেশ‌নের সদস‌্য স‌চিব মোঃ তোফা‌য়েল হো‌সে‌নের সভাপ‌তি‌ত্বে অনু‌ষ্ঠিত আর্থিক অনুদান বিতরণ অনুষ্ঠা‌নে বক্তব‌্য রা‌খেন বরুড়া জনকল‌্যাণ স‌মি‌তির সাধারণ সম্পাদক আবদুস ছামাদ, সা‌বেক মেয়র বাহাদুরউজ্জামান  বাহাদুর।                      এস‌ কিউ গ্রুপ ও এস কিউ ফাউন্ডেশ‌নের চেয়ারম‌্যান এ জেড এম শ‌ফিউদ্দিন শামী‌মের আর্থিক সহায়তায় ৮৮‌টি ম‌ন্দি‌রের পু‌জোমন্ড‌বে অনুদান প্রদান করা হয়।         অনুষ্ঠা‌নে বরুড়ার সনাতন ধর্ম‌লম্বী নেতৃবৃন্দরাসহ স্থানীয় পু‌জোমন্ড‌পের সভাপ‌তি ও সাধারণ সম্পাদকসহ নেতৃবৃন্দরা উপ‌স্থিত‌ ছি‌লেন।


আরও খবর



ব্রিটেনের রানির শেষকৃত্য

প্রকাশিত:বুধবার ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ |
Image

ব্রিটেনের প্রয়াত রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথের মরদেহ আজ ওয়স্টেমিনস্টার হলে নেয়া হবে। সোমবার শেষকৃত্য অনুষ্ঠিত হওয়ার আগ পর্যন্ত সেখানে রাখা হবে। শ্রদ্ধা জানাবেন বিশ্বনেতা থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষ। প্রতিদিন ২৪ ঘণ্টাই চলবে শ্রদ্ধা অনুষ্ঠান।

মঙ্গলবার লন্ডনে পৌঁছানোর আগে, রানির কফিন এডিনবার্গের সেন্ট জাইলস ক্যাথেড্রালে রাখা হয়। সেখান থেকে রয়্যাল এয়ার ফোর্সের বিমানে স্কটল্যান্ড থেকে লন্ডনে আনা হয়। প্রায় ৩৩ হাজার মানুষ এডিনবার্গে রানিকে সম্মান জানাতে জড়ো হয়। এদিন বাকিংহাম প্যালেসে রানির মরদেহ পৌঁছালে তা গ্রহণ করেন রাজা তৃতীয় চার্লস এবং রাজপরিবারের সদস্যরা। গত বৃহস্পতিবার স্কটল্যান্ডের ব্যালমোরাল ক্যাসেলে ৯৬ বছর মারা যান রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ। ব্রিটেনের রাজসিংহাসনে সবচেয়ে বেশি সময় রাজত্ব করেন তিনি। তার রাজত্বকাল ছিল ৭০ বছর। রানির মৃত্যুর পর নতুন রাজা হয়েছেন তার বড় ছেলে তৃতীয় চার্লস।


আরও খবর

চিকিৎসাবিজ্ঞানের নোবেল ঘোষণা

মঙ্গলবার ০৪ অক্টোবর ২০২২




কলড্রপের ক্ষতিপূরণ বাড়ছে ১ অক্টোবর থেকে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ০৫ অক্টোবর ২০২২ |
Image

মইনুল ইসলাম মিতুল : মোবাইল ফোনে প্রতি কলড্রপের জন্য তিনটি পালস ৩০ সেকেন্ড ফেরত পাবেন গ্রাহক। আগামী ১ অক্টোবর থেকে তা কার্যকর হবে। বিটিআরসি থেকে মোবাইল অপারেটরদের এমন নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। কলড্রপ নিয়ে সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর বিটিআরসি মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানিয়েছেন সংস্থার চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, জবাবদিহি এবং গ্রাহক সন্তুষ্টি নিশ্চিত করতে সব মোবাইল অপারেটর অভিন্ন ইউএসএসডি কোর্ডের (*১২১*৭৬৫#) মাধ্যমে একজন গ্রাহক-পূর্ববর্তী দিন, সপ্তাহ, মাসিক অননেট কলড্রপের জানতে পারবেন।

এত দিন কোনো অপারেটরই প্রথম কলড্রপের জন্য কোনো ক্ষতিপূরণ দিত না। উল্লেখ করার বিষয় হলো, গ্রাহকের যত কলড্রপ হতো তার ৬৫ শতাংশই হয় প্রথম কলড্রপ। দেখা যাচ্ছে, এতে কলড্রপের বেশির ভাগ অংশেরই ক্ষতিপূরণ পেত না গ্রাহক।

কলড্রপের বর্তমান পরিস্থিতি : চলতি বছরের মে মাস জুড়ে কলড্রপের পরিসংখ্যান বলছে, ওই ৩১ দিনে গ্রামীণফোন, রবি ও বাংলালিংকের অননেট কলড্রপ হয়েছে ৭ কোটি ৯৯ লাখ ৬৬ হাজার ৩৩২টি। যেখানে প্রথম কলড্রপ ৫ কোটি ১৪ লাখ ৪৬ হাজার ৩৪৭টি, দ্বিতীয় কলড্রপ ১ কোটি ৪৭ লাখ ৩০ হাজার ১৭৮টি, তৃতীয় ৫৬ লাখ ৬৮ হাজার ৫৬৬টি, চতুর্থ ২৭ লাখ ৪২ হাজার ৭৫৬টি, ৫ম ১৫ লাখ ৪১ হাজার ১৬০টি, ৬ষ্ঠ ৯ লাখ ৫০ হাজার ৩১০টি এবং ৭ম ১০ লাখ ২৬ হাজার। এর বাইরে ৮ম হতে আরো কলড্রপের পরিমাণ ১৪ লাখ ৬০ হাজার ৮৯২টি।

সংবাদ সম্মেলনে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সংযুক্ত ছিলেন ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার এবং ডাক ও টেলিযোযোগ সচিব মো. খলিলুর রহমান। কলড্রপ নিয়ে বিশদ উপস্থাপনা দেন বিটিআরসির সিস্টেম অ্যান্ড সার্ভিসেস বিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. নাসিম পারভেজ। সম্মেলনে বিটিআরসির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ও মোবাইল ফোন অপারেটরগুলোর প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর

এক এনআইডিতে ১৫টির বেশি সিম নয়

বুধবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২




রাঙ্গামাটিতে হরতাল স্থগিত

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ |
Image

পার্বত্য চট্টগ্রাম ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশনের বৈঠক স্থগিত হওয়ায় রাঙ্গামাটিতে ৩২ ঘন্টার হরতাল প্রত্যাহার করেছে পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদ।

এর আগে এই বৈঠক স্থগিতসহ সাত দফা দাবিতে মঙ্গলবার ভোরে ৩২ ঘন্টার হরতাল শুরু করে সংগঠনটি। এতে বন্ধ হয়ে যায় সড়ক ও নৌপথে অভ্যন্তরীণ ও দূরপাল্লার যানবাহন। শহরের বিভিন্ন স্থানে টায়ার জ্বালিয়ে পিকেটিং করে পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদের কর্মীরা। দুপুরের পর পর পার্বত্য চট্টগ্রাম ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশনের বুধবারের বৈঠক স্থগিতের কথা জানান কমিশনের সচিব। বেলা সাড়ে তিনটায় হরতাল প্রত্যাহারের ঘোষণা দেয় পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদ। 


আরও খবর

শিগগিরই বাড়ছে বিদ্যুতের দাম

মঙ্গলবার ০৪ অক্টোবর ২০২২




মাছ-পশুখাদ্যে ট্যানারির বিষাক্ত বর্জ্য

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ |
Image

আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী ট্যানারি বর্জ্য থেকে পোলট্রি ও মাছের খাদ্য তৈরি করা সম্পূর্ণ নিষেধ। কিন্তু কখনো গোপনে, কখনো প্রকাশ্যেই ট্যানারির বর্জ্য জ্বালিয়ে তৈরি করা হচ্ছে বিষাক্ত পোলট্রি ফিড। আর এসব ফিড সরবরাহ করা হচ্ছে দেশের বিভিন্ন এলাকার পশু, পোলট্রি ও মাছের খামারে। এসব ফিডে আছে ট্যানারির চামড়ায় ব্যবহৃত রাসায়নিক ক্রমিয়াম, সালফিউরিক অ্যাসিড, লাইম, সোডা, ফরমিকা, ক্লোরাইড, সালফেট, অ্যালুমিনিয়াম সালফেট প্রভৃতি। এসব বিষাক্ত উপাদান মুরগি ও মাছের মাধ্যমে পৌঁছে যাচ্ছে মানব-শরীরে। এতে জনস্বাস্থ্য রয়েছে হুমকিতে।

সাভার ট্যানারি ইন্ডাস্ট্রিয়াল এস্টেট থেকে কঠিন বর্জ্য নিয়মিত একটি চক্র অবৈধভাবে বের করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। অবৈধভাবে বের করা এসব কঠিন বর্জ্য নেওয়া হচ্ছে পশু, পোলট্রি ও মাছের খাদ্য তৈরির কারখানায়। ২২ সেপ্টেম্বর সাভার ট্যানারি ইন্ডাস্ট্রিয়াল এস্টেটের সলিড ওয়েস্ট ডাম্পিং স্টেশনে গেলে পরিবহন শ্রমিকরা এ তথ্য জানান।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শ্রমিক বলেন, নিয়মিত একটি চক্র গভীর রাতে ও ভোরবেলা ট্রাকবোঝাই করে কঠিন বর্জ্য সাভার ট্যানারি ইন্ডাস্ট্রিয়াল এস্টেটের পেছনের গেট ও ১ নম্বর গেট দিয়ে বের করে নিয়ে যায়। সেগুলো দেশের বিভিন্ন পশু, পোলট্রি ও মাছের কারখানায় বিক্রি করা হয়। এ চক্রের সঙ্গে ট্যানারির কিছু নিরাপত্তাকর্মী, কর্মচারী ও স্থানীয় পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা জড়িত।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে প্রতিষ্ঠানটির এক কর্মকর্তা বলেন, এ ট্রাক দুটি কঠিন বর্জ্য নিয়ে বের হওয়ার সময় জব্দ করা হয়েছে। আমরা মাঝেমধ্যেই এরকম ট্রাক জব্দ করি। পুলিশেও দেই। কিন্তু, পুলিশ ছেড়ে দেয়। এই কঠিন বর্জ্য দিয়ে পোলট্রি-পশুখাদ্য তৈরি করা হয়। বিষয়টি বন্ধ করা দরকার।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ঢাকা ট্যানারি ইন্ডাস্ট্রিয়াল এস্টেট ওয়েস্ট ট্রিটমেন্ট প্লান্ট কোম্পানি লিমিটেডের নির্বাহী প্রকৌশলী সতেন্দ্রনাথ পাল বলেন, আমরা মাঝেমধ্যেই কঠিন বর্জ্যবোঝাই ট্রাক বের হওয়ার সময় আটক করি। মাঝেমধ্যে জরিমানা করে ছেড়ে দেওয়া হয়। এ ছাড়া পুলিশ ফাঁড়িতেও দেওয়া হয়। আমরা এ চক্রটির বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে চাই। তা ছাড়া এই চক্রটিকে প্রতিহত করা যাবে না। আগামী বোর্ড মিটিংয়ে আমরা বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করব এবং একটা সিদ্ধান্তে আসব।

বিষয়টি জানতে চাইলে চামড়া শিল্প নগরী ট্যানারি ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. রাসেল মোল্লা বলেন, আমাদের কাছে শুধু একটি ট্রাক হস্তান্তর করা হয়েছিল। কিন্তু, ট্যানারি কর্তৃপক্ষ ট্রাকটির বিরুদ্ধে মামলা না দেওয়ায় পরবর্তীতে ডাম্পিং স্টেশনে ওই বর্জ্যগুলো আনলোড করে ট্রাকটি ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। আমরা তো ট্রাক আটক করার কেউ না। ট্যানারি কর্তৃপক্ষ ট্রাক আটক করে মামলা দিলে আমরা মামলা নেব।

সাভার এলাকায় তিনটি পোলট্রি ফিড প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানে ১ লাখ ৫ হাজার টন ট্যানারি বর্জ্য পাওয়া গেছে। এর মধ্যে সাভারের ভার্কুতাতেই এক লাখ টন, আমিনবাজারে দুই হাজার টন ও ভার্কুতা মোগড়াকান্দায় তিন হাজার টন বর্জ্য পাওয়া যায়। রাজধানীর হাজারীবাগের ট্যানারি শিল্পকে ঘিরে এর আশপাশে গড়ে উঠেছিল অসংখ্য বিষাক্ত পোলট্রি ফিড তৈরির কারখানা। এখন এসব ট্যানারি রয়েছে সাভারের হেমায়েতপুরে। হেমায়েতপুরের তেঁতুলঝোড়া ইউনিয়নের হরিণধরা গ্রামে গড়ে ওঠা চামড়া শিল্প নগরীর একেবারে উত্তর প্রান্ত ঘেঁষে গড়ে উঠেছে বর্জ্য পোড়ানোর খামারগুলো। বর্জ্য পোড়াতে সেখানে প্রায় ৪০টির মতো চুলা রয়েছে। আর সেখানেই তৈরি হচ্ছে বিষাক্ত পোলট্রি ফিড।

প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক (ডিএলএস) ডা. এ বি এম খালেদুজ্জামান বলেন, কিছু অসাধু ব্যবসায়ী পোলট্রি ফিডে ট্যানারি বর্জ্য দেওয়ার অপচেষ্টা করছে। নিয়মিত সম্মিলিত ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার মাধ্যমে আমরা তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নিচ্ছি। পোলট্রি ফিডে ট্যানারির বর্জ্য মেশানোর অপরাধে কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের নিবন্ধন বাতিল করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালের ৯ এপ্রিল মাছ, মুরগি ও পশুখাদ্য তৈরিতে ট্যানারির বর্জ্য ব্যবহার বন্ধে হাইকোর্টের দেওয়া রায় বহাল রেখেছিলেন আপিল বিভাগ। ওইদিন শিল্প মালিকদের করা আপিল পুনরুজ্জীবিত করার আবেদন খারিজ করে প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার নেতৃত্বাধী চার সদস্যর বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট মনজিল মোরসেদ। পরে তিনি সাংবাদিকদের বলেছিলেন, পোলট্রি ও মাছের খাবার প্রস্তুতকারক সমিতির করা আপিল পুনরুজ্জীবিত করার আবেদন আপিল বিভাগ খারিজ করে দিয়েছে। ওই আদেশের ফলে ট্যানারি বর্জ্য দিয়ে মুরগি ও মাছের খাবার তৈরি বন্ধে আগের রায়ই বহাল রয়েছে বলে জানিয়েছেন মনজিল মোরসেদ।

 ২০১০ সালের ২৬ জুলাই পরিবেশবাদী সংস্থা হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের পক্ষে জনস্বার্থে করা একটি রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ২০১১ সালের ২১ জুলাই এক মাসের মধ্যে ট্যানারি বর্জ্য দিয়ে মাছ, মুরগি ও পশুখাদ্য তৈরির কারখানা বন্ধের নির্দেশ দিয়েছিল হাইকোর্ট। পরে এর বিরুদ্ধে একটি কারখানার মালিকের করা লিভ টু আপিলও খারিজ করে দেয় আপিল বিভাগ।


আরও খবর

শিগগিরই বাড়ছে বিদ্যুতের দাম

মঙ্গলবার ০৪ অক্টোবর ২০২২