Logo
শিরোনাম

নারায়ণগঞ্জের হেলথ রিসোর্ট হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে গিয়ে প্রতারণার শিকার

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

বুলবুল আহমেদ সোহেল ; নারায়ণগঞ্জঃ

নারায়ণগঞ্জ নগরের  চাষাঢ়ার হেলথ রিসোর্ট হাসপাতালে অতিরিক্ত মুনাফার জন্য প্রসূতি রোগীকে অকারণেই জরুরী অজুহাতে সিজার করিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছ। সিজারের পর চুক্তির দ্বীগুন টাকা বিল ধরিয়ে দিয়ে টাকা পরিশোধ না করা পর্যন্ত আটকে রাখাহয় রোগীকে। রোগীর অভিভাবক প্রায় তিনঘন্টা দেন দরবার করে চুক্তির বাইরে অতিরিক্ত টাকা পরিশোধ করে রোগীর ছাড়পত্র হাতে পান।  বুধবার ঘটে যাওয়া এ ঘটনার খবর ছড়িয়ে পড়লে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ও চিকিৎসকদের নিয়ে সমালোচনার ঝড় ওঠে নগরীতে।

ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী হায়দার আলী সুমন জানান, শহরের চাষাঢ়ার পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টারে বসেন স্যার সলিমউল্লাহ মেডিকেল কলেজ অ্যান্ড মিটফোর্ড হাসপাতালের গাইনি বিশেষজ্ঞ ও সার্জন ডা. পারুল আক্তার। অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার পর থেকে তার তত্ত্বাবধানে ছিলেন তার স্ত্রী নীলিমা। সবকিছু স্বাভাবিক থাকলেও গত রোববার (১৯ জুন) সিজার করতে হবে বলে চাষঢ়া বালুর মাঠ এলাকায় অবস্থিত হেলথ রিসোর্ট হাসপাতালে নীলিমাকে ভর্তি কারতে বলেন ডাক্তার। তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হলে হাসপাতালের লোকজন ডা. পারুলের সাথে আলাপ করে ১৫ হাজার টাকা অগ্রীম দিতে বলেন। অগ্রীম টাকা দেওয়ার পর তার স্ত্রীকে ইনজেকশন দিয়ে অপারেশন থিয়েটারে নিয়ে যায়। কিছুক্ষণ পরই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানান, ডা. পারুল ঢাকায় এক মিটিংয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়ায় তিনি অপারেশন করতে পারবেন না। অন্য ডাক্তার দিয়ে অপারেশন করানো হবে। অপারেশনের আগে বলেছিলেন, টাকা-পয়সা নিয়ে কোন টেনশন করতে হবে না, সব পারুল ম্যাডাম বুঝবেন।

বুধবার দুপুর বারোটায় স্ত্রী ও নবাগত মেয়েকে বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার জন্য ছাড়পত্র চাইলে হাসপাতাল থেকে ওষুধের খরচ ছাড়াও ৫৪ হাজার ৮০০ টাকার বিল ধরিয়ে দেয়। আর অ্যাডভান্স ১৫ হাজার টাকাও বিলে ওঠানো হয়নি। পুরো টাকা পরিশোধে করে ছাড়পত্র নিতে বলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। 

সুমন এসময় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে ডাঃ পারুলের সঙ্গে ঔষধসহ সব কিছু মিলিয়ে ২৫ হাজার টাকায় চুক্তি হয়েছিল বলে জানান। কিন্তু হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাকে বলেন ডাঃ পারুলের সঙ্গে কথা বলে চুক্তিনুযায়ীই এ বিল ধরা হয়েছে। এসময় ডাঃ পারুলের সঙ্গে যোগাযোগ কররা চেষ্টা করলে তার ও অ্যাসিসটেন্ট দুজনেরই মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায়। 

পরে এ নিয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ও রোগীর স্বজনদের মধ্যে প্রায় তিন চার ঘন্টা দর কষাকষি করে ৩৫ হাজার টাকা বিল পরিশোধের সমঝোতা হয়। পরে চুক্তির বাইরে অতিরিক্ত ১০ হাজার টাকা দিয়ে বিকেল চারটার দিকে স্ত্রী ও সন্তানকে নিয়ে হাসপাতাল ছাড়েন সুমন। 

হেলথ রিসোর্ট হাসপাতাল অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারের পরিচালক আব্দুল মান্নান মোল্লা সাংবাদিকদের বলেন, ডা. পারুল আক্তারেরই অপারেশন করার কথা ছিল। তিনি রোগীকে পাঠিয়েও সময়মতো আসতে পারেননি। পরে আরেকজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দিয়ে অপারেশন করানো হয়। হাসপাতালের পক্ষ থেকে সব ধরনের সুবিধা প্রদান করা হয়েছে। বিলের বিষয়টি ডা. পারুলের সাথে রোগীর লোকজন আগেই চুক্তি করেন। সে অনুযায়ীই বিল করা হয়েছ বলে রোগীর অভিভাবকদের অভিযোগের কথাটি এড়িয়ে যান। 

কৌশলে অতিরিক্ত টাকা আদায়ের এ অভিযোগের খবর ছড়িয়ে পড়লে নগর জুড়ে ব্যাপক আলোচিত হয়। সচেতন মহলের দাবি, জেলার স্বাস্থ্য বিভাগের উর্ধতন কর্মকর্তাদের ঔদাসিনতায় আনাচে কানাচে নামে বেনামে অবৈধ হাসপতাল ক্লিনিক ডায়াগনস্টিক সেন্টার গড়ে উঠেছ। বৈধগুলোর মধ্যেও অনেক প্রতিষ্ঠানের ব্যাপারে অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে। চিকিৎসকদের সঙ্গে চুক্তিভিত্তিক রোগীদের অনেক হাসপাতাল ক্লিনিকে রোগী যেতে বাধ্য করা হচ্ছে। সে কারণেই সেবা নিতে গিয়ে মানুষকে নানা ভাবে হয়রানি ও প্রতারণার শিকার হতে হচ্ছে।  


আরও খবর



লালমনিরহাটে পিতার খুনি পুত্রকে আটক করেছে সিআইডি

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধি ঃ

লালমনিহাট কালীগঞ্জ উপজেলায় বাবার কবিরাজি চিকিৎসার কারণে যৌন ক্ষমতা হারিয়েছে এমন ক্ষোভ থেকে নিজের পিতাকে খুন করেছিলেন জাহাঙ্গীর আলম । দীর্ঘ চার বছেরর তদন্ত শেষে ক্লুলেস এই হত্যা মামলাটির রহস্য উদঘাটন করে খুনিকে গ্রেফতার করেছে লালমনিরহাট সিআইডি।

বৃহস্পতিবার (২ জুন) দুপুরে লালমনিরহাট পুশিশ সুপারের কার্যালয়ের তৃতীয় তলায় জেলা সিআইডির সম্মেলন কক্ষে সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে জেলা (সিআইডির) অতিরিক্ত বিশেষ পুলিশ সুপার মোঃ ইসমাইল পিপিএম (বার) বলেন, ২০১৮ সালের ৩১ জুলাই কালিগঞ্জ উপজেলার নিথক অচিনতলা এলাকায় গভীর রাতে নিজ শয়নকক্ষে খুন হন গোলাম হোসেন(৪০)। তাকে ঘুমন্ত অবস্থায় গলায়, কাধে, ঘাড়ে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। নিহতের বড় ছেলের দায়ের করা মামলায় তদন্ত কাজ শুরু করলেও কোন রহস্য খুঁজে পাওয়া যায়না।দীর্ঘ চার বছরে ছয়জন তদন্তকারী কর্মকর্তা ক্লুলেস মামলাটির রহস্য উদঘাটন করতে পারেননি।

চলতি বছরের মার্চে ৭ম তদন্ত কারী কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব নেন সিআইডির উপ-পরিদর্শক (এসআই) জায়েদুল ইসলাম জাহিদ।দায়িত্ব নিয়ে এই মামলার আসামী নিহত গোলাম হোসেনের দ্বিতীয় ছেলে জাহাঙ্গীর আলমকে গত ১০ এপ্রিল আটক করে আদালতে সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করেন। আদালত দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করলে সুকৌশলী জিজ্ঞাসাবাদে তার পিতাকে হত্যার কথা স্বীকার করেন সে।

জাহাঙ্গীরের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, তার বাবা ২০০৯ সালের দিকে কবিরাজি চিকিৎসায় তার যৌন ক্ষমতা নষ্ট করে দেন। পরের বছর বিয়ে করলে বাসর ঘরে তিনি বুঝতে পারেন তার যৌন ক্ষমতা নাই। সেই থেকে স্ত্রীর সাথে এই বিষয়টি নিয়ে মনোমালিন্য শুরু হয়। দীর্ঘ আট বছরের সংসার জীবনে অক্ষমতা নিয়ে স্ত্রীর সাথে কলহ, বিরোধ লেগে থাকলে পিতার প্রতি ক্ষোভ তৈরি হতে থাকে। এক পর্যায়ে তাকে হত্যা করলে যৌন ক্ষমতা ফিরে পাবেন মনে করে পরিকল্পনা করতে থাকেন। ঘটনার দিন স্ত্রী ঢাকায় গার্মেন্টস এ থাকায় এবং হালকা বৃষ্টিতে রান্না ঘর থেকে দা নিয়ে গিয়ে তার বাবাকে কুপিয়ে হত্যা করেন। বাবার লাশ বাড়ির পাশে গর্ত করে লুকিয়ে ফেলার পরিকল্পনা করলেও পিতার গোঙানিতে বড় ভাই ও ভাবি আসলে তিনি আর মরদেহ লুকাতে পারেননি। পরক্ষনে সেখানেই তার মৃত্যু হয়।

এ বিষয়ে আদালতে ১৬৪ ধারায় আদালতে স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি দিয়েছেন খুনি বলেও সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।

সিআইডির এ সংবাদ সম্মেলনে লালমনিরহাট সিআইডির অতিরিক্ত বিশেষ পুলিশ সুপার ইসমাইল (পিপিএম বার) সিআইডি ইন্সপেক্টর মোঃ আজিমুদ্দিন,সাব-ইন্সপেক্টর জাহিদসহ প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



স্লিপ এপনিয়া উপসর্গ ও চিকিৎসা

প্রকাশিত:সোমবার ২০ জুন ২০22 | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

সম্প্রতি ভারতীয় উপমহাদেশের সংগীতশিল্পী বাপ্পী লাহিড়ী মুম্বাইয়ের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, জনপ্রিয় এই গায়কের মৃত্যু হয়েছে অবস্ট্রাকটিভ স্লিপ অ্যাপনিয়ায়। কিন্তু এই স্লিপ অ্যাপনিয়া কী, কত ধরনের, এর কোনো চিকিৎসা আছে কিনা এবং থেকে প্রতিকারের উপায় সম্পর্কে মানুষে ধারণা খুব কম। এবার তাহলে স্লিপ অ্যাপনিয়ার এই সব বিষয়ে জেনে নেয়া যাক-

 

স্লিপ অ্যাপনিয়া

স্লিপ অ্যাপনিয়ায় আক্রান্ত ব্যক্তির ঘুমে বারবার ব্যাঘাত ঘটে শ্বাস-প্রশ্বাস বন্ধ হওয়ায়। বিষয়ে জাতীয় নাক কান গলা ইনস্টিটিউটের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক অধ্যাপক মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ জানিয়েছেন, যখন কোনো ব্যক্তির স্লিপ অ্যাপনিয়া হয় তখন তিনি ঘুমানোর একটু পরই জোরে জোরে শ্বাস নিতে থাকেন। আক্রান্ত ব্যক্তির শ্বাস নেয়ার গতি বেড়ে গেলে হঠাৎ করেই আবার শ্বাস-প্রশ্বাস বন্ধ হয়। এক্ষেত্রে কিছুক্ষণ পর ফের শ্বাস-প্রশ্বাস নেয়া শুরু হয়। আর শ্বাস-প্রশ্বাসের এই ব্যাঘাতকে অ্যাপনিয়া বলা হয়।

 

ঘুমের মধ্যে জোরে নিঃশ্বাস নেয়ার সময় হঠাৎ করেই শ্বাস-প্রশ্বাস বন্ধ হওয়ার কারণ হিসেবে অধ্যাপক আব্দুল্লাহ জানিয়েছেন, শ্বাস-প্রশ্বাস যখন বারবার নেয়া হয় তখন মূলত বাতাসের সঙ্গে শরীর থেকে কার্বন ডাই অক্সাইড বের হয়। কার্বন ডাই অক্সাইডের পরিমাণ কমে গেলে মানুষের শরীরে থাকা শ্বাস-প্রশ্বাসের সিস্টেম বন্ধ করে দেয় সেন্ট্রাল নার্ভাস সিস্টেম। তখন নিশ্বাস কিছুক্ষণ বন্ধ থাকার পর শরীরের সেন্ট্রাল নার্ভাস সিস্টেমে ফের কার্বন ডাই অক্সাইডের পরিমাণ বৃদ্ধি পেলে নার্ভাস সিস্টেম পুরোদমে উজ্জীবিত হয়ে শ্বাস-প্রশ্বাস ফিরে আসে। আর এই জটিল পরিস্থিতিতে অনেক সময় মানুষের মৃত্যুও হয়ে থাকে।

 

অ্যাপনিয়ার প্রকারভেদ

অধ্যাপক মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ জানিয়েছেন, শ্বাস-প্রশ্বাসের ক্ষেত্রে বাধা সৃষ্টি হলে তখন তাকে অবস্ট্রাকটিভ স্লিপ অ্যাপনিয়া বলা হয়ে থাকে। এটা গলায় টনসিল ফুলে গিয়ে হতে পারে। অনেক ক্ষেত্রে শ্বাসনালী এবং গলার সংযোগ স্থলে মাংসপেশি ফুলে গিয়ে হয়ে থাকে। যাকে অ্যাডনয়েডও বলা হয়। আবার অনেক সময় নাকের ভেতরে মাংসপেশি বড় হয়ে যায়।

 

এসব সমস্যাগুলো শ্বাস-প্রশ্বাসের ক্ষেত্রে বাধা তৈরি করে থাকে। যাকে অবস্ট্রাকটিভ স্লিপ অ্যাপনিয়া হিসেবে শনাক্ত করা হয়। রোগে সাধারণত যাদের ওজন বেশি বা শরীরে মেদ বেশি, বয়স্ক মানুষ শিশু তারা ভোগে থাকেন।

 

বিশেষজ্ঞ এই চিকিৎসকের মতে, হৃদপিণ্ড, ব্রেন এবং নিউরোজনিত সমস্যা থেকে মানুষের শরীরের সেন্ট্রাল নার্ভাস সিস্টেনে বিভিন্নরকম জটিলতা হয়ে থাকে এবং ওই ব্যক্তির তখন স্লিপ অ্যাপনিয়ায় ভোগার সম্ভাবনা থাকে। অনেক ক্ষেত্রে এই সমস্যা জটিল এবং গুরুতর হয়। তবে এই দুই ধরনের অ্যাপনিয়াতেই আক্রান্ত ব্যক্তির মৃত্যুর ঝুঁকি রয়েছে।

 

অ্যাপনিয়ার চিকিৎসা

অবস্ট্রাকটিভ স্লিপ অ্যাপনিয়ায় আক্রান্ত ব্যক্তির ক্ষেত্রে প্রথমেই যা দেখা হয় তা হলো, শ্বাসনালীকে কেন্দ্র করে কোন জায়গায় বাধা রয়েছে এবং তা চিহ্নিত করে পরে অপসারণ করতে হয়। এক্ষেত্রে অল্প সময়েই মুক্তি পাওয়া যেতে পারে এই সমস্যা থেকে। তবে জটিল স্লিপ অ্যাপনিয়া শরীরের বিভিন্ন গুরুতর সমস্যা থেকে হয়ে থাকে বলে এর চিকিৎসা আজীবন চালানোর প্রয়োজন হতে পারে।

 

প্রতিরোধের উপায়

স্লিপ অ্যাপনিয়া থেকে মুক্তির ক্ষেত্রে চিকিৎসকদের পরামর্শ, একটু সতর্ক থাকলে এই রোগ থেকে দূরে থাকা সম্ভব। শরীরের উচ্চতা অনুযায়ী ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখা। নিয়মিত শারীরিক ব্যায়াম করা এবং সুষম খাদ্যাভ্যাস করা। এছাড়া যাদের ঘুমের মধ্যে বার বার নিঃশ্বাস বন্ধ হয় তাদের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের পরামর্শ নিতে বলে থাকেন চিকিৎসকরা।

 


আরও খবর

বাড়ছে মৃত্যু, কমেছে শনাক্ত

শনিবার ০২ জুলাই 2০২2




কন্টেইনার বিস্ফোরণ : ৮ জনকে আসামি করে মামলা

প্রকাশিত:বুধবার ০৮ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডের কেশবপুর এলাকার বিএম কন্টেইনার ডিপোতে অগ্নিকাণ্ড ও বিস্ফোরণের ঘটনায় আটজনকে আসামি করে মামলা করেছে সীতাকুণ্ড থানা পুলিশ।

মঙ্গলবার (৭ জুন) সীতাকুণ্ড থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আশরাফ সিদ্দিকী বাদী হয়ে মামলাটি করেন। মামলায় দুর্ঘটনায় অবহেলার অভিযোগ আনা হয়েছে।

সীতাকুণ্ড থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সুমন চন্দ বণিক জানান, আটজন কর্মকর্তা ও কর্মচারীর নামে গতকাল মঙ্গলবার রাতে মামলটি রুজু করা হয়েছে। মামলা নং- ৯।

তিনি আরও জানান, গ্রেপ্তারের স্বার্থে কৌশলগত কারণে তাদের নাম প্রকাশ করা হচ্ছে না।

গত শনিবার (৪ জুন) রাতে বিএম কন্টেইনার ডিপোতে রাত সোয়া ৯টার দিকে একটি কনটেইনারে আগুনের সূত্রপাত। তার দেড় ঘণ্টা পর রাত পৌনে ১১টার দিকে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৪৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন দুই শতাধিক মানুষ। নিহত ব্যক্তিদের মধ্যে ফায়ার সার্ভিসের সদস্য নয়জন।

সীতাকুণ্ড থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম আজাদ বলেন, ডিপোতে আগুন ও বিস্ফোরণের ঘটনায় কর্তৃপক্ষের অবহেলাজনিত কারণ উল্লেখ করে পুলিশের পক্ষ থেকে আটজনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়নি। মামলার তদন্ত কাজ শুরু হয়েছে বলে জানান তিনি।


আরও খবর



আল-জাজিরার প্রতিবেদন

পোল্যান্ড বর্ডারের কাছে ন্যাটোর অস্ত্রাগার ধ্বংসের দাবি রাশিয়ার

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৬ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

ইউক্রেনের পশ্চিম লিভিভ অঞ্চলে ন্যাটোর একটি অস্ত্রাগার ধ্বংস করেছে রাশিয়ান সেনারা। রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ইগর কোনাশেনকভ জানিয়েছেন, পোল্যান্ড সীমান্তের কাছে ন্যাটোর ওই অস্ত্রভাণ্ডারটি ধ্বংস করতে দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করা হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার কাতার ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম আল-জাজিরা এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে। 

রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ইগর কোনাশেনকভ আরও জানিয়েছেন, ইউক্রেনের ওই অস্ত্রভাণ্ডারে আমেরিকার সরবরাহকৃত এম ৭৭৭ হাউইটজারের শেল সংরক্ষণ করা ছিল। সেগুলো ধ্বংস করা হয়েছে। পাশাপাশি চারটি অত্যাধুনিক স্বচালিত কামান ব্যবস্থা ‘হাউইটজার’ও ধ্বংস করা হয়েছে। এছাড়াও বিমান হামলা চালানো হয়েছে ইউক্রেনের দক্ষিণ মাইকোলাইভ অঞ্চলের একটি সামরিক বিমানঘাঁটিতে।

তবে তাৎক্ষণিকভাবে এই হামলা সম্পর্কে কিয়েভ কর্তৃপক্ষ কোনো মন্তব্য করেনি। এদিকে, রাশিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধরত ইউক্রেনকে আরও এক বিলিয়ন ডলারের সামরিক সহায়তা দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। গতকাল বুধবার এই ঘোষণা দেওয়া হয়। এই সামরিক সহায়তার মধ্যে রয়েছে অত্যাধুনিক ১৮টি স্বচালিত কামান ব্যবস্থা ‘হাউইটজার’, ৩৬ হাজার রাউন্ড গোলাবারুদ ও ১৮টি কৌশলগত যান।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টের উপদেষ্টা মাইখাইলো পোডোলিয়াক গত সোমবার জানিয়েছেন, রাশিয়ান সেনাদের রুখে দিতে তার দেশের আরও এক হাজার হাউইটজার, ৫০০ ট্যাঙ্ক, এক হাজার ড্রোন এবং আরও ভারী অস্ত্র। অন্যদিকে, প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি জানিয়েছেন, তার দেশের আরও আধুনিক ক্ষেপণাস্ত্র-বিরোধী সিস্টেমের প্রয়োজন।

প্রসঙ্গত, গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে বিশেষ সামরিক অভিযান পরিচালনা করছে রাশিয়া। এরপর থেকে যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা দেশগুলো রাশিয়াকে ঠেকাতে ইউক্রেনকে একের পর এক অস্ত্র সহায়তা দিয়ে আসছে। এরই অংশ হিসেবে যুক্তরাষ্ট্র আবারও নতুন করে অস্ত্র সহায়তার ঘোষণা দিয়েছে। সূত্র : আল-জাজিরা 


আরও খবর



রাঙ্গামাটি রাজস্থলীতে আঞ্চলিক সংগঠনের দুই পক্ষের গোলাগুলি, নিহত ১

প্রকাশিত:রবিবার ২৬ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

উচিংছা রাখাইন,রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি

রাঙ্গামাটির রাজস্থলীতে আঞ্চলিক সংগঠনের দুই গ্রুপের গোলাগুলিতে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি (জেএসএস)এর পোষাক পরিহিত  একজন নিহত হয়েছেন।শুক্রবার দিবাগত রাত আনুমানিক ১০ ঘঠিকার সময় উপজেলার গাইন্দ্যা ইউনিয়নের ওগারীপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সুত্রে জানা গেছে।

রাজস্থলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাকির হোসাইন জানান, উপজেলা সদর থেকে ৭ কিলোমিটার দূরে দুর্গম পাহাড়ি এলাকায় গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। সকালে ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পোশাক পরিহিত একজনের লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত ব্যক্তি আঞ্চলিক সংগঠন চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি (জেএসএস)এর সদস্য বলে ধারণা করা যাচ্ছে  বলে জানিয়েছেন ওসি। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাঙ্গামাটি জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হচ্ছে বলে জানান। রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত গোলাগুলিতে নিহত ব্যক্তির পরিচয় এখনো জানা যায়নি।


আরও খবর