Logo
শিরোনাম

নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিবেশিত হলো নাটক ‘দ্যা স্লেভ'

প্রকাশিত:বুধবার ০৫ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪ |

Image

নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি :

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিবেশিত হলো হ্যারিয়েট বিচার স্টো-এর বিখ্যাত উপন্যাস আঙ্কেল থমস্ কেবিন  অবলম্বনে নাটক 'দ্যা স্লেভ'। আজ (০৪ জুন) রাত ৮:৩০ মিনিটে কলা ও বিজ্ঞান ভবনের সামনে নাটকটি পরিবেশিত হয়। 

নাটকটির পরিকল্পনা ও নির্দেশনা করেছেন থিয়েটার এন্ড পারফরম্যান্স স্টাডিজ বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোহাম্মদ মাজহারুল হোসেন তোকদার । বিভাগের ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীদের অভিনয় অনুশীলন পরীক্ষার জন্য নাটকটি নির্মাণ করা হয়েছে।


আমেরিকার কেন্টাকি শহরের আফ্রো-আফ্রিকান ক্রীতদাসদের নির্মম শোষণের গল্প 'দ্যা স্লেভ'। হ্যারিয়েট বিচার স্টো-এর বিখ্যাত উপন্যাস আঙ্কেল টমস্ ক্যাবিনকে সঙ্গে করে পান্ডুলিপি নির্মিত হয়েছে। নিগ্রো সৎ ক্রীতদাস টমস ও ছোট শিশু হ্যারিকে বিক্রি করার প্রচেষ্টা থেকে গল্পটি আবর্তিত হয়েছে। মি. শেলবী একজন ঋণগ্রস্ত ব্যবসায়ী,  তার সকল সম্পত্তি বন্দক রেখেছেন দাস ব্যবসায়ী মি. হ্যালীর কাছে। মি. হ্যালির বন্দকী অর্থ পরিশোধের জন্য বাধ্য হয়ে টম ও হ্যারিকে বিক্রি করো দেয় মি. শেলবী, এই খবর জানতে পেরে হ্যারির মা এলিজা হ্যারিকে নিয়ে পালিয়ে যায়।  অন্যদিকে এলিজার স্বামী জর্জ হ্যারিস এই বন্দী অবস্থা থেকে মুক্তি নিয়ে কানাডায় পালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়।  এলিজা পালানোই মি. হ্যালী ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে এবং টমকে হাতে পায়ে ব্যারি পড়িয়ে নিয়ে যায়। নাটকটির ঘটনা প্রবাহে মূলত ঊনবিংশ শতাব্দীর আমেরিকার দাসত্বের অনৈতিকতা এবং অমানবিকতাকে  চিত্রিত করা হয়েছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে আফ্রো-আফ্রিকান ক্রীতদাসদের দুর্দশার ও নির্যাতনের ছবি তুলে ধরা হয়েছে। 

নির্দেশক মোহাম্মদ মাজহারুল হোসেন তোকদার বলেন, আমেরিকান ক্রীতদাসদের ইতিহাস এবং আঙ্কেল টমস্ কেবিন উপন্যাসকে একসূত্রে মিলিয়ে ক্রীতদাসদের শোষণ নির্যাতনের জীবন গল্প সকলের সামনে তুলে ধরার প্রয়াস তিনি করেছেন। 

উল্লেখ্য, নাটকটির বিশেষ দৃশ্যে অভিনয় করেছে থিয়েটার অ্যান্ড পরিবেশনা বিভাগের ২০২১-২০২২, ২০২২-২০২৩ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীরা, ড্যান্স ক্লাব ও ১৫ জন শিশু কিশোর।


আরও খবর



ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে শিক্ষকদের বৈঠক স্থগিত

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৪ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪ |

Image



বিডি টুডেস ডেস্ক:



সর্বজনীন পেনশনের ‘প্রত্যয়’ কর্মসূচির প্রজ্ঞাপন বাতিলের দাবিতে শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের একযোগে সর্বাত্মক কর্মবিরতিতে অচল হয়ে পড়েছে বিভিন্ন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়। 



এমন পরিস্থিতিতে শিক্ষকনেতাদের সঙ্গে বৃহস্পতিবার (৪ জুন) সকাল ১০টায় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের যে বৈঠক হওয়ার কথা ছিল, তা স্থগিত করা হয়েছে। 


বৈঠক স্থগিতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. জিন্নাত হুদা।



তিনি বলেন, আজকে বৈঠক হওয়ার কথা ছিল, কিন্তু বৈঠকটি স্থগিত করা হয়েছে। এর কারণ হিসেবে আমাদেরকে কিছু জানানো হয়নি। 


তিনি আরও বলেন, পরবর্তীতে বৈঠক হলে সরকার যদি জরুরি মনে করে তারা আমাদের সঙ্গে বসবে, অন্যথায় আমাদের আন্দোলন এভাবেই চলতে থাকবে। বৈঠক হলে বিষয়টি যথা সময়ে জানিয়ে দেওয়া হবে।  



সর্বজনীন পেনশন ‘প্রত্যয়’ স্কিম কর্মসূচির প্রজ্ঞাপন বাতিলের দাবিতে শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের একযোগে সর্বাত্মক কর্মবিরতিতে অচল হয়ে পড়েছে বিভিন্ন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়।



 যদিও পেনশনের পক্ষে একটি বিবৃতি দিয়েছে অর্থ মন্ত্রণালয়। কিন্তু শিক্ষক নেতারা সে বিবৃতিটিকে বিভ্রান্তিকর বলে প্রত্যাখ্যান করেছে এবং চতুর্থ দিনের মতো চলছে শিক্ষকদের কর্মবিরতি।


আরও খবর



যারা দল ছেড়ে গেছে তারা নিভে গেছে : শেখ হাসিনা

প্রকাশিত:রবিবার ২৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪ |

Image



বিডি টুডেস ডেস্ক:


আওয়ামী লীগের নেত্রী বলেন, দেশের মানুষের মৌলিক চাহিদা পূরণ করার জন্য আমরা সবকিছু করেছি। মাছ, মুরগি, ডিম উৎপাদন, মাংস উৎপাদন বৃদ্ধি করে মানুষের চাহিদা মিটাতে সক্ষম হচ্ছে।  


এর আগে বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে দেশের প্রাচীনতম রাজনৈতিক ক্ষমতাসীন দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত সমাবেশের মঞ্চে উপস্থিত হয়েছেন দলের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।  



সমাবেশ মঞ্চে উপস্থিত হয়ে দলীয় সভাপতি জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করেন। এরপর জাতীয় সংগীত বাজানো হয়৷ জাতীয় সংগীত শেষে আওয়ামী প্রধান বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন এবং আসন গ্রহণ করেন। এরপর আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শুরু হয়। এতে সভাপতিত্ব করছেন শেখ হাসিনা।



প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, দেশের প্রতিটি অর্জনে আওয়ামী লীগের অবদান রয়েছে। 


২০৪১ সালের মধ্যে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ে তুলবো। আমরা আগামী ১০০ বছরের জন্য ডেল্টা প্লান তৈরি করেছি। দেশ এগিয়ে যাবে। বারবার আওয়ামী লীগকে নিশ্চিহ্ন করার চেষ্টা করে তারা ব্যর্থ হয়েছে।


শেখ হাসিনা বলেন, আওয়ামী লীগ জন্ম থেকে ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করেই সামনে এগিয়ে যাচ্ছে। দেশ স্বাধীন করার পর মাত্র অল্প কিছুদিন সময় পেয়েছিল জাতির পিতা। কিন্তু  ষড়যন্ত্রকারীরা তাকে হত্যা করে ফেলে।  


শেখ হাসিনা বলেন, আমরা দেশের চাহিদা অনুযায়ী বিদ্যুৎ উৎপাদন করেছি। দেশের প্রতিটি ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দিয়েছি। দেশে অতিদারিদ্র্য বলে কেউ থাকবে না। দেশে কারিগরিসহ শিক্ষার উন্নয়ন ও স্মার্ট জনগণ তৈরি, খাদ্যে স্বয়ং সম্পূর্ণ করতে সক্ষম হয়েছি।


  আওয়ামী লীগের নেত্রী বলেন, দেশের মানুষের মৌলিক চাহিদা পূরণ করার জন্য আমরা সবকিছু করেছি। মাছ, মুরগি, ডিম উৎপাদন, মাংস উৎপাদন বৃদ্ধি করে মানুষের চাহিদা মিটাতে সক্ষম হচ্ছে।  


এর আগে বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে দেশের প্রাচীনতম রাজনৈতিক ক্ষমতাসীন দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত সমাবেশের মঞ্চে উপস্থিত হয়েছেন দলের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।  



সমাবেশ মঞ্চে উপস্থিত হয়ে দলীয় সভাপতি জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করেন। এরপর জাতীয় সংগীত বাজানো হয়৷ জাতীয় সংগীত শেষে আওয়ামী প্রধান বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন এবং আসন গ্রহণ করেন। এরপর আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শুরু হয়। এতে সভাপতিত্ব করছেন শেখ হাসিনা।



প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, দেশের প্রতিটি অর্জনে আওয়ামী লীগের অবদান রয়েছে। ২০৪১ সালের মধ্যে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ে তুলবো। আমরা আগামী ১০০ বছরের জন্য ডেল্টা প্লান তৈরি করেছি। দেশ এগিয়ে যাবে। বারবার আওয়ামী লীগকে নিশ্চিহ্ন করার চেষ্টা করে তারা ব্যর্থ হয়েছে।


সভায় আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা, আমন্ত্রিত অতিথিসহ দলের সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।


সভায় আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা, আমন্ত্রিত অতিথিসহ দলের সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



ঘূর্ণিঝড় রেমালে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে নানিয়ারচর জোন

প্রকাশিত:শনিবার ২৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪ |

Image

উচিংছা রাখাইন, রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি:

রাঙ্গামাটিতে ঘূর্ণিঝড় রেমালে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের বসত ঘর নির্মাণের জন্য টিন এবং গৃহপালিত পশু (ছাগল) বিতরণ কর্মসূচি পালন করেছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী নানিয়ারচর জোন।

নানিয়ারচর সেনাজোন (১০ বীর) এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে ''সম্প্রীতি ও উন্নয়ন" প্রকল্পের আওতায় ঘূর্ণিঝড় রেমালে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের বসত ঘর নির্মাণের জন্য টিন,নির্মানে সাহায্য এবং গরীব ও অসহায় দুইটি পরিবারের মাঝে গৃহপালিত পশু (ছাগল) বিতরণ কর্মসূচির আয়োজন করা হয়েছে।

দেখাগেছে  ইসলামপুর  এলাকার অসহায় রাজিয়া বেগমের রেমালে ক্ষতিগ্রস্ত বসত ঘর পুণঃনির্মাণ করে দেওয়া হয় এবং সেই সাথে কুতুকছড়ি এলাকার রফিক উদ্দিন ও সুজন চাকমাকে পারিবারিকভাবে স্বাবলম্বী করতে সহায়তা স্বরুপ ছাগল প্রদান করা হয়েছে।


জোন অধিনায়ক  বিএ-৭৫৯৭ লেঃ কর্ণেল  তামজিদুর রহমান চৌধুরী(পিএসসি) তিনি নিজেই পরিবারের মাঝে স্বাবলম্বী করতে গৃহ নির্মানে সহযোগিতা এবং টিন,গৃহপালিত পশু বিতরণ করেন। 

তিনি এসময়  বলেন,বাংলাদেশ সেনাবাহিনী তথা নানিয়ারচর জোন, তার দায়িত্বপূর্ণ এলাকায় আর্থসামাজিক উন্নয়ন এবং জনকল্যাণমূলক কার্যক্রম পরিচালনা করার ধারাবাহিকতা অব্যাহত রেখে চলেছে। নানিয়ারচরে সেনাবাহিনী কর্তৃক পরিচালিত এমন কর্মসূচিতে, স্থানীয় সকল স্তরের জনগণ নিরাপত্তা বাহিনীর প্রতি সন্তোষ প্রকাশ করে আসছে। 


আরও খবর



গাবতলী হাটের আকর্ষণ পাকিস্তানের উট-মিরপুরের দুম্বা

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৪ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪ |

Image

রাজধানীতে যতগুলো স্থানে পশুর হাট বসেছে তার মধ্যে গাবতলী অন্যতম। প্রত্যেক বছর এই হাটে চোখ থাকে ক্রেতাদের। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। হাটে এবছরের আকর্ষণ পাকিস্তান থেকে আনা উট আর মিরপুরের বিভিন্ন আকৃতির দুম্বা। এসব প্রাণী দেখতে দূর-দূরান্ত থেকে আসা ক্রেতারা ভিড় করছেন এ হাটে।

শুক্রবার (১৪ জুন) বিকেলে গাবতলীর পশুর হটে গিয়ে ক্রেতাদের ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। তবে এখনও সেভাবে পশু কেনাকাটা শুরু হয়নি বলে দাবি করেছেন বিক্রেতারা। তবে বাজারের আকর্ষণ হিসেবে ইতোমধ্যে সাড়া ফেলেছে পাকিস্তান থেকে আনা দুটি উট।

সরেজমিনে দেখা গেছে, বিশাল আকৃতির উট দুটি দেখতে ভিড় করছেন ক্রেতারা। সাধারণ মানুষের ভিড়ের কারণে অন্য ব্যবসায়ীরা কিছুটা বিরক্ত। তবে আজ সন্ধ্যা পর্যন্ত একটি উটও বিক্রি করা যায়নি।

অন্যদিকে, রাজধানীর মিরপুর থেকে দুটি দুম্বা আনা হয়েছে গাবতলীতে। লোকজন এসে দুম্বা দেখে দাম করে চলে যাচ্ছে। আবার কেউ কেউ দামও বলছে। তবে এখনও সেই দুম্বাগুলো বিক্রি করা যায়নি।

উটের দায়িত্বে থাক পলাশ নামে এক কিশোর জানান, আপাতত উটের দায়িত্বে আমি আছি। উটগুলো পাকিস্তান থেকে আনা হয়েছে। এর বাইরে আমি আর কিছু বলতে পারব না।

উটের দাম প্রসঙ্গে এই কিশোর জানায়, বড় উটের দাম ২৮ লাখ টাকা আর ছোট উটের দাম ২৬ লাখ টাকা। এর মধ্যে এক ক্রেতা বড় উট নিতে ২১ লাখ টাকা পর্যন্ত দাম বলেছেন। কিন্তু আমাদের লাভ না থাকায় বিক্রি করা সম্ভব হয়নি। ছোট উটের দাম এখন কেউ বলেনি।

দুইটি দুম্বা নিয়ে গাবতলীতে এসেছেন ব্যবসায়ী বেলাল হোসেন। তিনি বলেন, মিরপুর-১ নম্বরে দুম্বার খামার আছে। এই খামার থেকে আমি দুম্বাগুলো কিনে এনেছি। দুইটি দুম্বার দাম দিয়েছি ৭ লাখ টাকা। কিন্তু ক্রেতারা এখন পর্যন্ত ৪ লাখ থেকে সাড়ে ৪ লাখ টাকা দাম বলছে।


আরও খবর



বন্যা মোকাবিলায় সবাইকে প্রস্তুত হওয়ার নির্দেশনা প্রধানমন্ত্রীর

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০২ জুলাই 2০২4 | হালনাগাদ:শুক্রবার ১২ জুলাই ২০২৪ |

Image



সদরুল আইন:


চলতি বর্ষা মৌসুমে বন্যা হতে পারে এমন আশঙ্কা ব্যক্ত করে সবাইকে প্রস্তুতি নেওয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।



 প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, এবার বন্যার আশঙ্কা আছে। দেশব্যাপী বৃষ্টির প্রভাবও বাড়তে পারে। সবাইকে বন্যা মোকাবিলায় আগাম প্রস্তুতি নিতে হবে।



আজ মঙ্গলবার (২ জুলাই) জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় প্রধানমন্ত্রী এ নির্দেশনা দেন। রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে এনইসি সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত এ সভায় প্রধানমন্ত্রী সভাপতিত্ব করেন।



সভা শেষে পরিকল্পনা বিভাগের সচিব সত্যজিত কর্মকার সাংবাদিকদের এ তথ্য জানিয়েছেন।


প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা তুলে সত্যজিত কর্মকার আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী দেশের মানুষকে বন্যা থেকে রক্ষার জন্য আমাদের আগাম প্রস্তুতি নিতে বলেছেন।


এছাড়াও বন্যায় যাতে কৃষি কাজ যেন ব্যাহত না হয় সেই উদ্যোগ নিতেও বলেছেন প্রধানমন্ত্রী। সেইসঙ্গে কৃষিজমি নষ্ট করে যাতে অপরিকল্পিত আবাসন প্রকল্প না হয় সেদিকেও নজর দিতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী।


সচিব বলেন, ভূমি অধিগ্রহণ বিশেষভাবে দেখতে হবে। তিন ফসলি এলাকায় প্রকল্প নেওয়া যাবে না কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য।


আরও খবর