Logo
শিরোনাম
মেঘনা নদীতে গোসল করার সময় নিখোঁজ ছাত্রের মরদেহ উদ্ধার রাজবাড়ীতে ট্রাকের সাথে সংঘর্ষে মোটর সাইকেল আরোহীর মৃত্যু রাজবাড়ীতে আবৃত্তি ও কথামালায় প্রকাশনা উৎসব নওগাঁয় মোটরসাইকেলের ধাক্কায় স্কুল ছাত্র নিহত-মা ও ছোট বোন আহত মোরেলগঞ্জে শ্রমীকদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করলেন এমপি মিলন লালমনিরহাটে বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে মারাগেছে স্কুলছাত্র নওগাঁয় বোরো ধান চাষের শুরুতেই বিদ্যুতের লোড শেডিং, দুঃশ্চিন্তায় কৃষকরা নওগাঁয় ৩৫ কোটি টাকা মূল্যের কষ্টিপাথরের মূর্তি উদ্ধার করেছে পুলিশ কুড়িগ্রামের শীতকাতর অসহায় মানুষের পাশে কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেত্রকোনায় বিশ্ব জলাভূমি দিবস উপলক্ষে মানববন্ধন

নওগাঁয় ধান ক্ষেত থেকে মৃতদেহ উদ্ধার

প্রকাশিত:Monday ২১ November ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টারঃ 


নওগাঁয় ধানের ক্ষেত থেকে বিনয় চন্দ্র মন্ডল (৬৪) নামে এক বৃদ্ধের মৃতদেহ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। সোমবার সকালে নওগাঁর মান্দা উপজেলার মধ্য-দুর্গাপুর গ্রামের একটি ধান ক্ষেত থেকে মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নওগাঁ সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরন করেন মান্দা থানা পুলিশ।

নিহত বিনয় চন্দ্র মন্ডল মান্দা উপজেলার পিরোরি বিলদুধলা গ্রামের মৃত শ্রীখণ্ঠ মন্ডলের ছেলে। তিনি পেশায় একজন গোয়াল ছিলেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রবিবার বিকেল থেকে তিনি নিখোঁজ ছিলেন। নিখোঁজের পর তার পরিবারের লোকজন তাকে অনেক খোঁজাখুঁজি করেও কোনো সন্ধান পায়নি। সোমবার ২১ নভেম্বর সকালে জমির মালিক ধান কাটতে গিয়ে ধান ক্ষেতের ভিতরে তার মৃতদেহ দেখতে পান। মহূর্তের মধ্যে ঘটনাটি জানাজানি হলে শত শত লোকজন ঘটনাস্থলে ভীড় জমান। পরে পরিবারের লোকজন এসে মৃতদেহ টি শনাক্ত করেন। খবর পেয়ে মান্দা থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে মৃতদেহটি উদ্ধার করেন।

সত্যতা নিশ্চিত করে মান্দা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নুর-এ-আলম সিদ্দিকী জানান, খবর পেয়ে থানা দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌছে প্রাথমিক সুরতহাল রির্পোট অন্তে মৃতদেহটি উদ্ধার পূর্বক ময়না তদন্তের জন্য নওগাঁ জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও জানান ওসি।


আরও খবর



খাদ্যে বিষক্রিয়ায় পাঁচজনের মৃত্যু

প্রকাশিত:Tuesday ১৭ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে গত শনিবার খাবারে বিষক্রিয়ায় আওয়ামী লীগের দুই নেতাসহ এখন পর্যন্ত পাঁচজন মারা গেছেন। এঘটনায় গুরুতর অসুস্থ প্যানেল মেয়র হাবিবুর রহমানকে ঢাকায় একটি হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছে। আরও দুজন চিকিৎসাধীন।

কুলিয়ারচর থানার ওসি মোহাম্মদ গোলাম মুস্তফা জানান, শনিবার রাতে ঘনিষ্ট একজনের বাসায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক গিয়াস উদ্দিনসহ আরো কয়েকজন দাওয়াত খেতে যান। বাড়ি ফেরার পথে সবাই অসুস্থ হয়ে পড়েন। দ্রুত তাদের ভাগলপুরের জহুরুল ইসলাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে মারা যান উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা গিয়াস উদ্দিনসহ, সাংগঠনিক সম্পাদক জহির রায়হান, হোমিও চিকিৎসক গোবিন্দ বিশ্বাস, ভ্যানচালক শাহজাহান মিয়া ও চা বিক্রেতা লিটন। ময়নাতদন্তের পর তাদের মৃত্যুর কারণ জানা যাবে জানিয়েছে পুলিশ। এ ঘটনায় এখনো কোন মামলা হয়নি। 


আরও খবর



সড়ক ভবন নয়, এযেন একটি দেশিও বিদেশি ফুল গাছের বাগান

প্রকাশিত:Sunday ১৫ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টার :


নওগাঁ সড়ক ভবনে দেশিও বিদেশি ফুল গাছের সমারহ।

নওগাঁ সড়ক ভবনের কার্যালয় বর্তমানে নানা ধরনের দেশি ও বিদেশি ফুলের স্বর্গরাজ্যে পরিণত হয়েছে। ভবনের প্রধান ফটক দিয়ে প্রবেশ করার সময় চোখে পড়বে বিভিন্ন রঙ্গের বড় বড় গাঁদা ফুল থোকায় থোকায় ফুটে আছে। পাশেই সুন্দর অবকাঠামোর মাঝে গড়ে তোলা হয়েছে বিভিন্ন দেশী, বিদেশী ফুল ও ওষুধী গাছের ভেষজ মিশ্রণ ফুল বাগান।

শুধু ফুল বাগানের সৃজন নয়, পুরো সড়ক ভবনের প্রাঙ্গন-ই যেন ছিমছাম সৌন্দর্য্যরে ছোঁয়া আর আবাসিক ভবনের বাইরের অংশ বিশ্বকাপ ফুটবল খেলার প্রিয় দেশের পতাকার রঙ্গের আদলে মনকাড়া ছোঁয়াও রয়েছে সেই সাথেই বাগানের মাঝে শোভা পাচ্ছে ডোরাকাটা রয়েল বেঙ্গল টাইগারের প্রতিকৃতি আর পুরো বাগান জুড়ে ফুল গাছের পাশাপাশি নানা রকমের শোভাবর্ধক বিভিন্ন প্রজাতির গাছও শোভা পাচ্ছে। যা দেখার মতো।

মনোরম বাগানে প্রবেশ করতেই দ্যামাস্ক গোলাপ, রংগন, জবা, ক্রিসমাস, বেরিসহ বিভিন্ন ফুল গাছের পাশে শোভা পাচ্ছে সুন্দর সুন্দর নাম ফলক। একবার বাগানে প্রবেশ করে পুরো বাগানটি অবলোকন করলেই চোখ জুড়িয়ে যাবে যে কারো। এছাড়া ফুলের সৌন্দর্য্য আর মিষ্টি গন্ধে সতেজ হয়ে উঠবে প্রান। প্রতিটি মানুষেরই এমন ফুল বাগান অন্তত একবার পরিদর্শন করা উচিত। বিশেষ করে ফুল বিষয়ে শিশুসহ সকল ধরনের মানুষেরই জ্ঞানের পরিধি বাড়াতে এই বাগান পরিদর্শন করার কোন বিকল্প নেই। নওগাঁ সড়ক বিভাগের সড়ক ভবন প্রাঙ্গণে হৃদয়ের সবটুকু ভালোলাগা ও ফুলের প্রতি ভালোবাসার সবটুকু ঢেলে এমন ব্যতিক্রমী ফুল বাগানে সাজিয়েছেন, সওজ নওগাঁ জেলা নির্বাহী প্রকৌশলী ও লেখক মোঃ সাজেদুর রহমান সাজেদ।

নির্বাহী প্রকৌশলী সাজেদুর রহমান সাজেদ বলেন, নওগাঁ সড়ক বিভাগে এমন উদ্যোগ গ্রহণ করেছিলেন আমার উত্তরসুরী সাবেক নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ হামিদুল হক। তারই ধারাবাহিকতায় একটু একটু করে অফিস কম্পাউন্ডকে সাজানো শুরু করি আমি। আমি যেখানে কাজ করি সেখানেই সড়ক নেটওয়ার্কের পাশাপাশি অফিস ও বাসা সবকিছু পরিপাটি করার চেষ্টা করি। মানুষ সাধারনত পুরাতন ও জরাজীর্ণ সরকারী অফিস দেখে অভ্যস্ত। কিন্তু সুন্দর পরিবেশ করতে পারলে সবার মন প্রফুল্ল থাকে। কাজের গতি পায়। মানুষের মন মানসিকতা পরিবর্তনেও পরিবেশ সহায়ক ভূমিকা রাখে। আর এ জন্য খুব বেশি অর্থেরও প্রয়োজন হয় না। সরকারি দপ্তর সম্পর্কে মানুষের ধারনা বদলানোর জন্যই এই উদ্যোগ গ্রহণ করা। সরকারের স্বক্ষমতা বেড়েছে। প্রজাতন্ত্রের কর্মচারীদের মানসিকতাও ইতিবাচকভাবে বদলে যাচ্ছে। আমরা যেখানে জীবনের অধিকাংশ সময় কাটাই সেই অফিসকে সুন্দর রাখা নৈতিক দায়িত্ব। এতে করে যেমন একটি সুন্দর পরিবেশের সৃষ্টি হয় তেমনি ভাবে ওই অফিসের সবকিছুতে স্বচ্ছতার পাশাপাশি কাজের প্রতি আগ্রহ বেড়ে যায় এবং মন মানসিকতার পরিবর্তনের পাশাপাশি সবকিছুতেই পরিচ্ছন্নতা ফিরে আসে বলেও মনে করেন তিনি।


আরও খবর



বিএনপির সঙ্গে গণতন্ত্র চর্চা করার মতো মানসিকতা নেই

প্রকাশিত:Friday ২৭ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

বুলবুল আহমেদ সোহেল :

বিএনপির সঙ্গে গণতন্ত্র চর্চা করার মতো মানসিকতা নেই মন্তব্য করে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের আলোচিত সংসদ সদস্য একে এম শামীম ওসমান বলেছেন, নারায়ণগঞ্জকে অশান্ত করার চেষ্টা করলে এখানে থাকতে দেব না।‘নেতৃবৃন্দ বলছেন গণতন্ত্রের কথা, ভোট নিরপেক্ষ হওয়ার কথা। বিএনপির ভাইয়েরা যারা আছেন, ২০০১ থেকে ২০০৭ পর্যন্ত কী করেছেন? পঁচাত্তর সালের পর আপনারা যখন ক্ষমতায় ছিলেন, তখন কী করেছিলেন? এই আদালত থেকে আওয়ামী লীগের নেতাদের মার খেয়ে চলে যেতে হয়েছে। এগুলো কি সামান্য অত্যাচার? নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্যানেলে নির্বাচনী প্রচারে অংশ নিয়ে বৃহস্পতিবার (২৬ জানুয়ারি) দুপুরের দিকে তিনি এ কথা বলেন। 

তিনি আরে বলেন, ‘আপনারা দেখবেন লিংকরোডে পাপ্পু ও মনিরের কবর রয়েছে। তাদেরকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছিল, এমনকি তাদের লাশের উপরও গুলি করা হয়েছিল। আমাদের বাড়ি ঘরেও হামলা করা হয়েছিল, ভেঙে দেওয়া হয়েছিল। সিদ্ধিরগঞ্জ এলাকায় এক খুনির নির্দেশে নয়জন নেতাকর্মীকে হত্যা করা হয়েছিল। বিএনপির আমলে নারায়ণগঞ্জের ৪৯ জন লোককে আমাদের হাত দিয়ে দাফন করতে হয়েছে।’ 

বিএনপি বলেছিল ১০ ডিসেম্বর হ্যান হবে, ত্যান হবে; আমি বলেছিলাম ঘোড়ার ডিম হবে। এখনও বলছি ঘোড়ার ডিম না, বিএনপির কোনো ডিমই হবে না। ঘোড়াও ওদের জন্য ডিম পাড়বে না। ওদের দিন শেষ। বিএনপি এখন আম্মা গ্রুপ, ভাইয়া গ্রুপে ভাগ হয়ে গেছে।’ 

বিএনপি নেতাকর্মীদের উদ্দেশে এই সংসদ সদস্য বলেন, ‘আপনারা অনেক বড় বড় কথা বলছেন, শান্ত থাকুন, নারায়ণগঞ্জের পরিবশে শান্ত থাকতে দেন। আমরা সবাইকে ক্ষমা করে দিয়েছি। আমাদের ওপর অনেক নির্যাতন করা হয়েছিল। সেগুলো যদি একবার আমাদের মাথায় মনে পড়ে যায়, তাহলে কিন্তু আপনাদের নারায়ণগঞ্জে বাস করা কঠিন হয়ে যাবে।‘আমরা ধৈর্য ধরেছি, কিন্তু আমরা দুর্বল না। আপনারা যে অপরাধ করেছেন তার জন্য বিচার হয়েছে। জনগণ আপনাদের বিরুদ্ধে রায় দিয়েছে। রাষ্ট্রীয়ভাবে সব জায়গায় এবং নারায়ণগঞ্জ বারেও রায় দেওয়া হয়েছে।’


নির্বাচনের বছরে বিরোধী শক্তি নানা ধরনের অপকর্মে লিপ্ত হতে পারে বলেও সতর্ক করেন শামীম ওসমান। তিনি বলেন, ‘এই বছরটা হচ্ছে বাংলাদেশের সবচেয়ে সংকটের বছর। সব অশুভ শক্তি, সব ষড়যন্ত্রকারী এক হয়েছে। এরা কামড় দেওয়ার চেষ্টা করলে আমরাও যারা গণতন্ত্রে বিশ্বাসী, যারা জাতির পিতার সৈনিক, আমরাও প্রস্তুত আছি, ওই সমস্ত অশুভ শক্তির বিষদাঁত ভেঙে দেওয়ার জন্য। আমরা প্রস্তুত থাকব, ছিলাম, আছি এবং নারাণগঞ্জে আগামীতে নেতৃত্ব দেব।’ 

আইনজীবীদের নির্বাচন নিয়ে তিনি বলেন, ‘আইনজীবী প্যানেলের এই বার একটি গুরুত্বপূর্ণ জায়গা। এবারের প্রার্থী সভাপতি জুয়েল ও সাধারণ সম্পাদক মোহসিনসহ প্রতিটা সদস্য যেন সমান ভোট পান। এই বিষয়টা আপনাদের দৃষ্টি রাখার জন্য বলছি। ব্যক্তিগত দ্বন্ধে যাবেন না। সবাই একত্রিত হয়ে বারের আওয়ামী লীগের প্যানেলকে জয়যুক্ত করবেন।’

সভায় উপস্থিত ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খোকন সাহা, মনিরুজ্জামান বুলবুল, এক্স পিপি ও সিনিয়র আইনজীবী ওয়াজেদ আলী খোকন, আইনজীবী সমিতি নির্বাচনের সভাপতি প্রার্থী হাসান ফেরদৌস জুয়েল ও সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী মোহসিন মিয়াসহ আওয়ামী লীগপন্থি বারের আইনজীবীরা।

নারায়ণগঞ্জ আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত জুয়েল-মোহসিন প্যানেলে ১৭ প্রার্থী প্রতিদ্ধন্ধিতা করছেন। আগামী ৩০ জানুয়ারি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।


আরও খবর



মৃত্যুর পরও অমর সারাহ ইসলাম

প্রকাশিত:Monday ২৩ January 20২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image
রোকসানা মনোয়ার :সারাহ ইসলাম, বয়স মাত্র ২০। দশ মাস বয়সে তার ব্রেন টিউমার ধরা পড়ে। মেয়েকে সুস্থ করে তুলতে দীর্ঘ ১৯ বছর সংগ্রাম করেছেন তার বাবা মা। দেশে বিদেশে নানা রকম চিকিৎসাতেও কোন কাজ হয়নি। ধীরে ধীরে মৃত্যুর দিকে এগিয়ে যাচ্ছিলেন; সদ্য জীবন শুরু করা ফুটফুটে এই মেয়েটি। বাবা মাকে সারাহ অনুরোধ করেছিলেন; মৃত্যুর পর তার দেহটি যাতে মানুষের কল্যানে দান করা হয়।
বুধবার রাত ১০টায় সারাহ মারা যান। তার দুটি কিডনী ও চোখের দুটি কর্নিয়া সরিয়ে নিয়ে প্রায় সাথে সাথেই চারজন মানুষের দেহে প্রতিস্থাপন করেন ডাক্তাররা। রাত ১০টা থেকে টানা ভোর পর্যন্ত চলেছে এই অস্ত্রপচার। চারজন রোগীই সুস্থ আছেন। এটি হয়তো দেশের চিকিৎসা ব্যবস্থার এগিয়ে যাওয়ার চিত্র। কিন্তু আমি বিস্মিত অন্য কারনে।
মৃত্যুর মতো একটি কঠিন সত্যকে মেনে নিয়ে; এমন আত্মত্যাগের জীবন গড়তে কে তোমাকে শেখালো মা ? এই সার্থপর সমাজ, চারপাশে লোভের-লাভের এতো এতো প্রতিযোগিতা; এই নষ্ট সময়ে তুমি এক তরতাজা ফুল।
স্যালুট তোমাকে মা। স্যালুট তোমার মতো বীরকন্যার জন্মদাত্রী মাকেও। যে কিনা এমন একটা পবিত্র সৌরভের জন্ম দিয়েছে।

মৃত্যুতেও অমর একজন সারাহ ইসলাম । দূরারোগ্য রোগের সাথে লড়াই করে নিজে হার মানলেও, কিডনি ও কর্নিয়া দান করে নতুন জীবন দিয়েছেন চারজনকে। সারাহর অঙ্গ নেয়া চার রোগীই এখন সুস্থ আছেন। সাহসিকা সারাহর গল্প জানালেন তার মা ।

পাঁচ বছর যাবত বোনের চিকিৎসা খরচ জোগাতে গিয়ে যখন প্রায় নি:স্ব শাহাজাদা আহমেদের পরিবার তখন সারাহ ইসলাম এসেছেন জীবনের বাক বদলকারী হিসেবে। শাহাজাদা ফিরে পেয়েছেন তার বোনকে আর দশ বছরের ছোট্ট সন্তানের কাছে তার মাকে ফিরিয়ে দিয়েছে সারাহর দান করা কিডনী।

বলছি সেই ২০ বছরের সারাহর কথা। মাত্র দশ মাস বয়স থেকেই লড়েছেন টিউবেরাস স্কেলোসিসের মত দুরারোগ্য ব্যাধির সাথে।এবার ব্রেনে বাঁধা বেসেছিলো টিউমার। হয়তো বুঝতে পরেছিলেন লড়াইয়ে এবার ফিরে নাও আসতে পারেন। মৃত্যুর পরও নিজেকে বিলিয়ে বাঁচতে চেয়েছেন সারাহ। মস্তিস্ক যখন আর সারা দিচ্ছিলো না তখন সারাহর দুই কিডনী আর চোখের কর্ণিয়া নতুন করে বাঁচার আশা যুগিয়েছে চার চারটা মানুষকে।

বড় আঁকিয়ে হবেন একদিন, এমন স্বপ্ন ছিলো সারাহর চোখে। জীবন তাকে সেই সময়টুকু না দিলেও মৃত্যুতেও থমকে যাননি সারাহ! এমন সাহসী আর মানবিক মেয়েই তো চেয়েছিলেন মা শবনম।

বিখ্যাত কেউ নন কিন্তু তারপরও এমন সিলিউট থেকে সারাহ ইসলামকে চিনে নিতে আর কষ্ট হয় না। তার এই দেখিয়ে যাওয়া পথে যেদিন এমন আরও অনেক মৃত্যুঞ্জয়ের কাহিনীযুক্ত হবে সেই দিনের অপেক্ষায় সারাহর পরিবার।




আরও খবর



শীতের দাপট থাকবে কয়েকদিন

প্রকাশিত:Friday ২০ January ২০23 | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

মইনুল ইসলাম মিতুল :মৌলভীবাজারে মাঘের প্রথম সপ্তাহে আবারো জেঁকে বসেছে শীত। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৫ দশমিক ছয় ডিগ্রি সেলসিয়াস।

এটি এখন পর্যন্ত সবচেয়ে কম তাপমাত্রা। উত্তরের জেলা পঞ্চগড়ে মৃদু শৈত্যপ্রবাহের পর এবার শুরু হয়েছে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ। হিমেল বাতাস আর ঘন কুয়াশায় বিপর্যস্ত জনজীবন। তেঁতুলিয়ায় তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৬ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এদিকে তাপমাত্রা কমে যাওয়ায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন। বেড়েছে ঠাণ্ডাজনিত রোগের প্রকোপ। সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে রয়েছে শিশু ও বয়স্করা।

মাঝারি ও মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বইছে ২৭ জেলায়। শীতের সঙ্গে ঘন কুয়াশায় বিপর্যস্ত জনজীবন। কষ্টের জীবন কাটছে ছিন্নমূল মানুষের। আরো কিছু দিন শীতের দাপট চলবে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

বিভিন্ন স্থানে কুয়াশায় ঢেকে থাকে প্রকৃতি। শীত আর কুয়াশার কারণে প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের হচ্ছেন না কেউ। তারপরও জীবিকার তাগিদে ঘরে বসে থাকলে চলে না অনেকের। মাঘের শীত যতই কাঁপন ধরাক হাড়ে, কাজে বের হওয়ায় নিস্তার নেই।

ঘন কুয়াশা আর সূর্য কিরণের অভাবে দিন ও রাতের তাপমাত্রার পার্থক্য কমেছে। চলতি মাসে দেশের কোথাও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৫ ডিগ্রির উপরে ছিল না। আর ঢাকায় এ মাসে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১১ দশমিক ৭ ডিগ্রি।

এদিকে আবহাওয়া অফিসের পূর্বাভাস বলছে, শৈত্যপ্রবাহ থাকবে আরো কিছু দিন। বাড়বে বিস্তৃতি। নতুন করে আরো কিছু জেলায় ওপর দিয়ে বইতে পারে শৈত্যপ্রবাহ।


আরও খবর