Logo
শিরোনাম
বাউল ছালমা হলেন বরিশাল বিভাগের শ্রেষ্ঠ "জয়িতা" পাংশায় মাদক সহ ৯ মামলার আসামী গ্রেফতার ১৬৩ টাকায় তেল বিক্রির ব্যত্যয় ঘটলে ব্যবস্থা নেয়া হবে: ভোক্তার মহাপরিচালক দুর্গাপুরে বালুবাহী হ্যান্ডট্রলির চাপায় প্রাণ গেল শিক্ষার্থীর নওগাঁ জেলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি আবু বক্কর, সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত নওগাঁয় প্রাইভেটকার তল্লাসি, ৭২ কেজি গাঁজা সহ যুবক আটক রূপগঞ্জে প্রাইভেটকার চাপায় গৃহবধু নিহত রাঙ্গামাটির বড়ইছড়ি নির্মাণ শ্রমিক বোঝাই ট্রাক খাদে নিহত-২, আহত-২০ মুসলিমদেরকে সঠিক পথ থেকে বিচ্যুত করার জন্য বিভিন্ন ষড়যন্ত্র চলছে নওগাঁয় কম্পিউটার ব্যবসার অন্তরালে অশ্লিল ভিডিও বিক্রি করায় ৩ যুবক আটক

নওগাঁয় নিজের রাগ নিয়ন্ত্রণ করতে না পেরে ছাত্রকে পেটালেন এক শিক্ষক

প্রকাশিত:রবিবার ২১ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪ |

Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোটার :

নওগাঁয় নিজের রাগ নিয়ন্ত্রণ করতে না পেরে ৮ম' শ্রেণীতে পড়ুয়া এক ছাত্রকে পিটিয়ে রাগ নিয়ন্ত্রণ করলেন এক শিক্ষক। পরে ছাত্র ও তার অভিভাবকের কাছে নিজের ভুল শিকার করে গোপনে ঘটনাটি মিমাংসা ও করেছেন মারপিটকারি শিক্ষক।

শিক্ষক কর্তৃক ছাত্রকে মারপিট করার ঘটনাটি ঘটেছে নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলার হাটচকগৌরী উচ্চ বিদ্যালয়ে। 

মারপিটের শিকার ছাত্র নাহিদ ইসলাম ওরফে অপু মহাদেবপুর উপজেলার পাতনা গ্রামের আমিনুল ইসলাম এর ছেলে ও হাটচকগৌরী উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণীর ছাত্র।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ঐ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের দুই জন শিক্ষার্থী জানান, ঘটনার দিন গত মঙ্গলবার দুপুরে ৮ম' শ্রেণীতে পড়ুয়া ছাত্র নাহিদ ইসলাম ওরফে অপু (১৪) টিউওবয়েল পাড়ে গিয়ে পানি তুলে চোখমুখ ধোয়ার সময় পানি ছিটকে অপর শিক্ষার্থীদের শরীরে পরে। এসময় বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক মোকলেছুর রহমান পানি ছিটানোর অপরাধে ক্ষিপ্ত হয়ে রুম থেকে বেত এনে নাহিদ ইসলাম ওরফে অপুকে বেদম মারপিট করেন।

মারপিটের শিকার ছাত্র নাহিদ ইসলাম ওরফে অপু'র দুলাভাই প্রতিবেদক কে রবিবার মুঠোফোনে কলদিয়ে জানান, একজন শিক্ষক হলেন জাতি গড়ার কারিগড়। আর সেই জাতিগড়ার কারিগড় শিক্ষক নিজের রাগ নিয়ন্ত্রণ করতে না পেরে কোন ছাত্রকেই অমানবিক ভাবে মারপিট করতে পারেন না। মারপিটের ঘটনাটি অমানবিক। তিনি আরো বলেন, কিভাবে মারপিট করা হয়েছে শরীরে আঘাতের চিহ্ন দেখলে যে কেউ হতবাক হবেন।


এব্যাপারে বক্তব্য নিতে হাটচকগৌরী উচ্চ বিদ্যালয় এর প্রধান শিক্ষক এনামুল হক এর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে শিক্ষক কর্তৃক ছাত্রকে মারপিট করার ঘটনাটি তিনি জানেন না বলে জানান।

বক্তব্য নিতে সহকারি শিক্ষক মোকলেছুর রহমান এর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে, সহকারি শিক্ষক মোকলেছুর রহমান মারপিট করার কথা শিকার করে বলেন, আমি রাগ নিয়ন্ত্রণ করতে না পেরে মারপিট করেছি। মারপিট করা ঠিক হয়নি জন্যই ঘটনাটি পরের দিন বুধবার মিমাংসা করা হয়েছে। 

ছাত্রের অপরাধ কি ছিলো যে কারনে আপনি তাকে বেদম মারপিট করলেন এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ঐ ছাত্র শিক্ষার্থীদের শরীরে পানি ছিটাচ্ছিলেন এমন দৃশ্য দেখে আমি রাগ নিয়ন্ত্রণ করতে না পেরে মারপিট করেছি এবং পরে ভেবে দেখেছি মারাটা ঠিক হয়নি এজন্য মিটিয়ে ফেলেছি।

অপরদিকে বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মোঃ আতাউর রহমান প্রতিবেদক এর মুঠোফোনে কলদিয়ে জানান, মারপিট এর যে ঘটনা ঘটেছে তা ইতি মধ্যেই মিমাংসাও করা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, যেহতু ঘটনাটি মিমাংসা করা হয়েছে, এজন্য এবিষয়ে কোন সংবাদ প্রকাশ করার দরকার নেই। অপরদিকে শিক্ষক কর্তৃক ছাত্রকে মারপিট করার ঘটনাটি প্রকাশ পাওয়ার পর অভিভাবকদের মাঝে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে। অপরদিকে রবিবার দুপুরে সরজমিনে হাটচকগৌরী উচ্চ বিদ্যালয়ে গেলে এসময় প্রধান শিক্ষক তার অফিস কক্ষে মারপিট এর শিকার শিক্ষার্থী ও মারপিটকারি শিক্ষককে ডেকে নিয়ে বলেন, আসলেই ঘটনাটি আমি আগে জানতাম না। এক পর্যায়ে প্রতিবেদক মারপিটের শিকার ছাত্রের বক্তব্য নিতে চাইলে প্রধান শিক্ষক বলেন, কারো কোন অভিযোগ নেই। তারপর বক্তব্য নিলে এখানেই (অফিস রুমে নেন)। এসময় প্রধান শিক্ষক ও মারপিটকারি শিক্ষক এর সামনে কিছুটা বাধ্য হয়েই মারপিট এর শিকার ছাত্র প্রতিবেদক কে জানান, আমি হয়তটা দুষ্টুমি করেছি বলেই স্যার আমাকে মেরেছেন, পরে স্যার ডেকেনিলে আমি স্যারকে জড়িয়ে ধরি স্যারও আমাকে জড়িয়ে ধরেন। এসময় তার নির্যাতনের কয়েকটি ছবি দেখিয়ে তার ছবি কিনা ছাত্রকে জিজ্ঞাসা করলে বলেন, হাঁ মারপিট করার পর বাড়িতে গেলে আঘাতের ছবিগুলো ফোনে তুলেছিলো জানিয়ে তিনি বলেন আমি ও স্যার সব ভুলে মিমাংসা হয়েছি।


আরও খবর



সংরক্ষিত নারী আসনে আ.লীগের ফরম বিক্রি শুরু

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ |

Image

দ্বাদশ জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন ফরম আজ থেকে বিক্রি শুরু হচ্ছে।

মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত মনোনয়নের আবেদনপত্র সংগ্রহ ও জমা দেওয়া যাবে। যা চলবে বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) পর্যন্ত।

আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে স্থাপিত প্রশাসনিক বিভাগ অনুযায়ী সুনির্দিষ্ট বুথে গিয়ে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ ও জমা দেওয়া যাবে।

কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের দ্বিতীয় তলায় ঢাকা, ময়মনসিংহ, সিলেট ও চট্টগ্রাম বিভাগ ও তৃতীয় তলায় রংপুর, রাজশাহী, খুলনা ও বরিশাল বিভাগের মনোনয়ন ফরম বিতরণ করা হবে। কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের নিচতলায় সব বিভাগের মনোনয়ন ফরম জমা নেওয়া হবে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের কোনো প্রকার অতিরিক্ত লোকসমাগম ছাড়া প্রার্থী নিজে অথবা প্রার্থীর একজন যোগ্য প্রতিনিধির মাধ্যমে আবেদনপত্র সংগ্রহ ও জমা দিতে হবে।

আবেদনপত্র সংগ্রহের সময় অবশ্যই প্রার্থীর জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি সঙ্গে আনতে হবে এবং ফটোকপির ওপর মোবাইল নম্বর ও সাংগঠনিক পরিচয় সুস্পষ্টভাবে উল্লেখ করতে হবে।


আরও খবর

সোমবারের মধ্যে গাজায় যুদ্ধবিরতি হতে পারে

মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




জিআই হিসেবে অনুমোদন পেল আরো ৪ পণ্য

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ |

Image

আরো ৪টি পণ্যকে বাংলাদেশের ভৌগোলিক নির্দেশক (জিআই) পণ্য হিসেবে অনুমোদন দিয়ে জার্নাল প্রকাশিত হয়েছে। এই পণ্য ৪টি হলো রংপুরের হাঁড়িভাঙ্গা আম, মৌলভীবাজরের আগর, মৌলভীবাজারের আগর-আতর এবং মুক্তাগাছার মন্ডা। এ নিয়ে বাংলাদেশে অনুমোদিত জিআই পণ্যের সংখ্যা দাঁড়ালো ২৮টি।

২০০৩ সালে বাংলাদেশে এ কাজের জন্য দায়িত্বপ্রাপ্ত শিল্প মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন পেটেন্ট, ডিজাইন ও ট্রেডমার্কস অধিদপ্তর (ডিপিডিটি) যাত্রা শুরু করে। বর্তমানে একে পেটেন্ট, শিল্প-নকশা ও ট্রেডমার্কস অধিদপ্তর (ডিপিডিটি) নামে অভিহিত করা হয়। শিল্প মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগের ফলে ভৌগোলিক নির্দেশক পণ্য (নিবন্ধন ও সুরক্ষা) আইন, ২০১৩ পাস হয়। এর দুই বছর পর ভৌগোলিক নির্দেশক পণ্য বিধিমালা, ২০১৫ প্রণয়ন করা হয়।

২০১৬ সালে জামদানি শাড়ী-কে বাংলাদেশে প্রথম জিআই পণ্য হিসেবে স্বীকৃতি দেয়া হয়। এরপর স্বীকৃতি পায় আরো ২০টি পণ্য। সেগুলো হলো-বাংলাদেশ ইলিশ, চাঁপাইনবাবগঞ্জের খিরসাপাত আম, বিজয়পুরের সাদা মাটি, দিনাজপুর কাটারীভোগ, বাংলাদেশ কালিজিরা, রংপুরের শতরঞ্জি, রাজশাহী সিল্ক, ঢাকাই মসলিন, রাজশাহী-চাপাইনবাবগঞ্জের ফজলি আম, বাংলাদেশের বাগদা চিংড়ি, বাংলাদেশের শীতল পাটি, বগুড়ার দই, শেরপুরের তুলশীমালা ধান, চাঁপাই নবাবগঞ্জের ল্যাংড়া আম, চাঁপাই নবাবগঞ্জের আশ্বিনা আম, নাটোরের কাঁচাগোল্লা, বাংলাদেশের ব্ল্যাক বেঙ্গল ছাগল, টাঙ্গাইলের পোড়াবাড়ির চমচম, কুমিল্লার রসমালাই, কুষ্টিয়ার তিলের খাজা।

সম্প্রতি অনুমোদিত ৩টি পণ্য টাঙ্গাইল শাড়ী, নরসিংদীর অমৃতসাগর কলা ও গোপালগঞ্জের রসগোল্লার অনুমোদনের কপি ও জার্নাল গতকাল মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে তুলে দেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন এবং শিল্প মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব জাকিয়া সুলতানা। এতে জিআই পণ্যের সংখ্যা হয় ২৪টি। আজকে ৪টি জিআই পণ্যের জার্নাল প্রকাশিত হওয়ায় মোট অনুমোদিত জিআই পণ্যের সংখ্যা দাঁড়ালো ২৮টি।

এছাড়া আরো ২টি পণ্য জিআই পণ্য হিসেবে অনুমোদনের জন্য প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। সেগুলো হলো জামালপুরের নকশি কাঁথা এবং যশোরের খেজুর গুঁড়। আগামী সপ্তাহে এই দুটো পণ্যের জার্নাল প্রকাশিত হবে বলে আশা করা যায়।


আরও খবর

গ্যাস লিকেজ থেকে বিস্ফোরণ, দগ্ধ সাত

বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




ইসরাইলকে অস্ত্র সরবরাহ বন্ধের আহ্বান বিশেষজ্ঞদের

প্রকাশিত:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪ |

Image

দখলদার ইসরাইলকে অস্ত্র দেয়া বন্ধের আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসঙ্ঘ বিশেষজ্ঞদের একটি দল। তারা জানিয়েছেন, ইসরাইল গাজায় যেসব অস্ত্র ব্যবহার করে, সেগুলো ইসরাইলকে সরবরাহ করা হলে তা সম্ভবত আন্তর্জাতিক আইনের লঙ্ঘন বলে বিবেচিত হবে। সেজন্য ইসরাইলকে অস্ত্র সরবরাহ বন্ধ করতে হবে।

মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক নিউজ সাইট মিডল ইস্ট আই জানিয়েছে, জাতিসঙ্ঘের একদল বিশেষজ্ঞ শুক্রবার বলেছেন, ইসরাইলকে অস্ত্র সরবরাহ করা হলে তারা সেটি গাজায় ব্যবহার করতে পারে। ফলে স্পষ্ট ঝুঁকি রয়েছে যে এর মাধ্যমে আন্তর্জাতিক মানবিক আইনের গুরুতর লঙ্ঘন হবে। সেজন্য জাতিসঙ্ঘের সদস্য সকল দেশের জন্য ১৯৪৯ সালের জেনেভা কনভেনশন এবং প্রথাগত আন্তর্জাতিক মানবিক আইনের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করা উচিৎ।

বিশেষজ্ঞরা আরো বলেছেন, সেজন্য ইসরাইলকে কোনো অস্ত্র কিংবা গোলাবারুদ অথবা কোনো যন্ত্রাংশও সরবরাহ থেকে বিরত থাকতে হবে। কারণ, বাস্তবতা ও অতীত অভিজ্ঞতা থেকে বুঝা যায়, তারা এর মাধ্যমে আন্তর্জাতিক মানবিক আইনই লঙ্ঘন করবে।

উল্লেখ্য, চলমান গাজা যুদ্ধে এখন পর্যন্ত অন্তত ২৯ হাজার ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে।

সূত্র : মিডল ইস্ট আই


আরও খবর



মজুতদার-সিন্ডিকেটদের মদদ দিচ্ছে বিএনপি

প্রকাশিত:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪ |

Image

রোকসানা মনোয়ার : দ্রব্যমূল্য নিয়ে অরাজক পরিস্থিতির সৃষ্টি করতে মজুতদার ও সিন্ডিকেটদের বিএনপি পৃষ্ঠপোষকতা ও মদদ দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

রাজধানীর ধানমন্ডিস্থ আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি সিন্ডিকেট লালন পালন করছে, মজুদদারদের পৃষ্ঠপোষকতা করছে - একথা বললে কি ভুল হবে? যারা করছে, তারা বিএনপির পুরনো সিন্ডিকেট।

তিনি বলেন, বিএনপি সরকার ছিল ব্যবসায়ী সরকার। আওয়ামী লীগ ব্যবসা করতে আসেনি। এখানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে সরকার হাল ছেড়ে দিয়েছে -এ কথা মনে করার কোনো কারণ নেই। যে অশুভ চক্র দ্রব্যমূল্য বাড়িয়ে জনঅসন্তোষের কারণ সৃষ্টি করছে, তাদের কোনো অবস্থাতেই ছাড় দেয়া হবে না। প্রধানমন্ত্রী নিজেই জোরালোভাবে সেটি বলেছেন।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিদ্যুতে যথেষ্ট ভর্তুকি দিতে হচ্ছে সরকারকে। এই ভর্তুকি ধীরে ধীরে কমাতে চাই। সে কারণে সমন্বয় করাটা জরুরি হয়ে পড়েছে। বিদ্যুৎ সুবিধা যদি বজায় রাখতে চাই তাহলে সমন্বয়টা আমাদের করতে হবে।

ক্ষমতায় থাকাকালে বিএনপি দফায় দফায় বিদ্যুতের দাম বাড়িয়েছিল জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় থাকতে দিনে ১৮ ঘণ্টা লোডশেডি হয়েছে এবং সেখানে বিদ্যুতের দাম পাঁচ বছরে তারা নয়বার বাড়িয়েছিল। আওয়ামী লীগ সরকার শতভাগ বিদ্যুৎ দিয়েছে। শেখ হাসিনার সরকারের আমলে বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা ২৯ হাজার সাত শ মেগাওয়াটে উন্নীত হয়েছে।

বিএনপি গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনবে এবং এই আন্দোলনে সরকারের পতন অবশ্যই হবে বিএনপি নেতাদের এমন মন্তব্যের জবাবে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, এখন প্রশ্ন হচ্ছে দেশে একটা নির্বাচন হয়ে গেল। তারা নির্বাচনে অংশ নেয়নি। আন্দোলনের নামে সন্ত্রাসের মহড়া দিয়েছে। আগুন সন্ত্রাস করেছে। আন্দোলনের নামে বিএনপি কত ভয়ঙ্কর ভূমিকায় যেতে পারে সেটা তারা করে দেখিয়েছে বার বার। তারা জনগণের সম্পৃক্ত ছিল না বলে অতীতে তারা ব্যর্থ হয়েছে।

তিনি বলেন, ভুল ও নেতিবাচক রাজনীতি করে যাচ্ছে বিএনপি। তারা একসময় নিশ্চয়ই স্বীকার করবে আন্দোলনে তাদের ভুল আছে। নির্বাচনে না আসাটা বিএনপির সবচেয়ে বড় ভুল। এখন তারা উপলব্ধি করবে।

উপজেলা নির্বাচনে বিএনপি দলগতভাবে অংশ না নিলেও তৃণমূলে নেতারা নিজেদের অস্তিত্ব রক্ষায় নির্বাচন করবে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, উপজেলা নির্বাচনে অংশ নেয়া নিয়ে দলটির মধ্যে দ্বিধাদ্বন্দ্ব চলছে। আমরা দলীয় প্রতীক দিয়ে নির্বাচন করছি না। এমন অবস্থায় স্বতন্ত্র পরিচয়ে বিএনপির অনেকে নির্বাচন করবে। দলীয়ভাবে যাই করুক, যারা তৃণমূলে আছেন তাদের অস্তিত্বের বিষয় আছে। তৃণমূলে অস্তিত্ব নিয়ে টিকে থাকার প্রশ্ন আছে। আমার ধারণা, বিএনপির অনেকেই অংশ নিবে। দলগতভাবে তারা যাই বলুক না কেন।

বর্তমানে অর্থনীতির সঙ্কট আছে জানিয়ে সেতুমন্ত্রী বলেন, এজন্য আমরা দায়ী নই। বিশ্বে যুদ্ধ বিগ্রহ যেভাবে প্রসারিত হচ্ছে তাতে অর্থনীতির উপর প্রতিক্রিয়া স্বাভাবিকভাবে হচ্ছে। জিনিসপত্রের দাম বাড়ছে। কিন্তু দ্রব্যমূল্য যাতে মানুষের ক্রয়-ক্ষমতার মধ্যে থাকে সে ব্যাপারে সরকার যথেষ্ট তৎপরতায় কাজ করে যাচ্ছে। এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী মন্ত্রণালয়গুলোকে নির্দেশ দিয়েছেন, তার আলোকে সবাই কাজ করে যাচ্ছে।

বিদেশে আওয়ামী লীগ সরকারের সাবেক এক মন্ত্রীর বিপুল অর্থ সম্পদ নিয়ে গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদের বিষয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী বলেন, দুর্নীতি করে কেউ ছাড় পাবে না। তিনি মন্ত্রী হন আর যেই হোন।

সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক ও মির্জা আজম, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আবদুস সবুর, উপদপ্তর সম্পাদক সায়েম খান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর

গ্যাস লিকেজ থেকে বিস্ফোরণ, দগ্ধ সাত

বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




দশমিনায় শিক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪ |

Image

মোঃ নাঈম হোসাইন দশমিনা (পটুয়াখালী) :

পটুয়াখালীর দশমিনায় সৈযদ জাফর আরজবেগী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ২০২৪সালের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার বেলা ১১টায় এসএ মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে সাধারন ও কারিগরি শাখার ১০৫জন শিক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা উপলক্ষে কোরআন থেকে তালোয়াদ, গীতা পাঠ  ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।  

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. কাওসার আলম এর  সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন দশমিনা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোসা. নাফিসা নাজ নীরা। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা জাফর আহম্মেদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও দশমিনা সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান  এ্যাড, ইকবাল মাহমুদ লিটন, উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার মু. নেছার উদ্দিন, বিদ্যলয়ের সাবেক সভাপতি আসাদুল হক হাওলাদার, ইমেল ল্যাবরেটরি স্কুল এন্ড কলেজের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ঈশ্বর চন্দ্র শীল, জমিদাতা মো. আবুল কাশেম প্যাদা, অভিবাবক, শিক্ষক-শিক্ষিকা, শিক্ষার্থী ও স্থানীয়গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ প্রমূখ।

প্রধান অতিথি নাফিসা নাজ নীরা বলেন, তোমাদের ভালোভাবে লেখা পড়া করতে হবে এবং মানুষের মত মানুষ হতে হবে।


আরও খবর

বাউল ছালমা হলেন বরিশাল বিভাগের শ্রেষ্ঠ "জয়িতা"

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

পাংশায় মাদক সহ ৯ মামলার আসামী গ্রেফতার

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪