Logo
শিরোনাম

নতুন রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন দিতে যে কোন মূহুর্তে ইসি'র গণবিজ্ঞপ্তি

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৩ মে ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | ২৫জন দেখেছেন
Image

সদরুল আইনঃ

                 সুদীর্ঘ ৫ বছর পর নতুন রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন প্রক্রিয়া শুরু করতে যাচ্ছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

 জানা গেছে, নতুন দলের নিবন্ধন দিতে গণবিজ্ঞপ্তি জারি করবে সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানটি। ইতিমধ্যে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল ইসির সংশ্লিষ্ট শাখাকে গণবিজ্ঞপ্তি জারির নির্দেশনা দিয়েছেন।

 এক্ষেত্রে চলতি মাসেই আবেদন আহ্বান করে গণবিজ্ঞপ্তি জারি করা হতে পারে বলে ইসি সূত্রে জানা গেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, দ্রুত নতুন রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন প্রক্রিয়া শুরু করা হবে। স্বল্প সময়ের মধ্যে গণবিজ্ঞপ্তি জারি করা হবে।

ইসির সংশ্লিষ্টরা বলেন, রাজনৈতিক দলগুলোর নিবন্ধন প্রক্রিয়া শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত তিন দফা রাজনেতিক দলগুলোকে নিবন্ধনের জন্য গণবিজ্ঞপ্তি জারি করে ইসি।

 নবম সংসদ নির্বাচনে অংশ নেওয়ার জন্য রাজনৈতিক দলগুলোর নিবন্ধন বাধ্যতামূলক করেছিল নির্বাচন কমিশন। প্রথম ২০০৮ সালের ১৫ অক্টোবর গণবিজ্ঞপ্তি জারি করে রাজনৈতিক দলগুলোকে জবাবদিহিতায় আনার লক্ষ্যে নিবন্ধন দেওয়া শুরু হয়।

সে সময় ১১৭টি দল আবেদন করে এবং পরে খসড়া গঠনতন্ত্র জমা দিয়ে ৩৯টি দল নিবন্ধিত হয়। সংশোধিত গঠনতন্ত্র জমা না দেওয়ায় ফ্রিডম পার্টির নিবন্ধন বাতিল করে কমিশন।

 এরপর ২০১২ সালে দশম জাতীয় সংসদ এবং সর্বশেষ ২০১৭ সালে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে নতুন রাজনৈতিক দলগুলোর কাছ থেকে আবেদন আহ্বান করেছিল ইসি।

রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন বিধিমালা ২০০৮-এর ৩ ধারায় বলা আছে, ‘কমিশন নির্বাচনে অংশগ্রহণে ইচ্ছুক রাজনৈতিক দলের নিবন্ধনের জন্য সময় গণবিজ্ঞপ্তি দ্বারা দরখাস্ত আহ্বান করতে পারবে’। 

রাজনৈতিক দলকে শর্ত পূরণ সাপেক্ষে নিবন্ধিত করার সিদ্ধান্ত গ্রহণের পর উক্ত দলকে নিবন্ধন সার্টিফিকেট প্রদান করে কমিশন। নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলের নাম সরকারি গেজেটে প্রকাশ করা হয়। নিবন্ধন না থাকলে কোনো দল নির্বাচনে অংশ নিতে পারে না।

ইসি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, বিষয়টি কমিশনের কাছে উপস্থাপনের জন্য নথি প্রস্তুত করা হচ্ছে। কমিশন অনুমোদন দিলে যে কোনো সময় জারি হতে পারে গণবিজ্ঞপ্তি। 

সর্বশেষ দল নিবন্ধনের জন্য ২০১৭ সালের ৩০ অক্টোবর গণবিজ্ঞপ্তি জারি করেছিল ইসি। সময় দেওয়া হয়েছিল ঐ বছর ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত। এতে নিবন্ধন পেতে আবেদন করেছিল ৭৬টি রাজনৈতিক দল।

 কে এম নুরুল হুদা কমিশন নানা কারণে সবার আবেদন বাতিল করেছিল। পরবর্তী সময়ে আদালতের আদেশে নিবন্ধন পায় জাতীয়তাবাদী গণতান্ত্রিক আন্দোলন— এনডিএম ও বাংলাদেশ কংগ্রেস। 

২০১২ সালে গণবিজ্ঞপ্তি জারি করলে ৪৩টি দল আবেদন করেছিল। কাজী রকিবউদ্দীন আহমদ কমিশন সে সময় বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্ট (বিএনএফ) ও সাংস্কৃতিক মুক্তিজোট—এই দুইটি দলকে নিবন্ধন দেয়।


আরও খবর



গজারিয়ায় আন্ত জেলা ডাকাত দলের ৫ সদস্য গ্রেফতার ও দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার

প্রকাশিত:শুক্রবার ২২ এপ্রিল 20২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | ৯৬জন দেখেছেন
Image

গজারিয়া প্রতিনিধিঃ

মুন্সিগঞ্জ জেলার গজারিয়া উপজেলায় আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সক্রিয় পাঁচ সদস্যকে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে দেশীয় অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার করেছে গজারিয়া থানা পুলিশ ।

গ্রেপ্তারকৃত ডাকাত সদস্যরা হলো মোঃ হিমেল, মেহেদি হাসান, পিতা হযরত আলী, মোঃ জাবেদ, মেহেদী হাসান, পিতা শামীম । গ্রেপ্তারকৃত ডাকাত সদস্যরা হলো গুয়াগাছিয়া ইউনিয়ন , নতুন চাষি ও কদমতলী গ্রামের। শুক্রবার জুম্মার নামাজ পর গজারিয়া থানা প্রাঙ্গণে অফিসার ইনচার্জ মোঃ রইছ উদ্দিন প্রেস ব্রিফিংয়ে জানান শুক্রবার ভোর রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে, থানা পুলিশের একটি অভিযান পরিচালনায় বাউশিয়া ইউনিয়নের অন্তর্গত চরবাউশিয়া ফরাজীকান্দি পাখির মোড় এলাকায় কবরস্থানের পাশে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে তাদেরকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয় থানা পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃত ডাকাত সদস্যরা ডাকাতি পেশায় নিয়োজিত থাকার স্বীকারোক্তি করেছেন। গজারিয়া থানা এসআই মোঃ ওহিদুল মিয়া বাদী হয়ে

গ্রেফতারকৃত আসামীদের বিরুদ্ধে প্যানেল কোড, ধারা৩৯৯/৪০২ অনুযায়ী মামলা করেন। গ্রেফতারকৃত আসামীদেরকে মুন্সিগঞ্জ কোর্ট হাজতে প্রেরণ করা হয়।


আরও খবর



গাজীপুরে মাদক সন্ত্রাসীদের হাত থেকে রক্ষা পেতে ইউপি মেম্বারের সংবাদ সম্মেলণ

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৩ মে ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | ৬১জন দেখেছেন
Image

সদরুল আইন, গাজীপুর জেলা প্রতিনিধিঃ

            এলাকার জনগণকে মাদকের হাত থেকে রক্ষা করতে গিয়ে বিপাকে পড়েছেন এক ইউপি সদস্য । 

মাদক ব্যবসার প্রতিবাদ করায় মাদক ব্যবসায়ীদের হামলা এবং হুমকিতে জীবনের নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলে অভিযোগ তুলেছেন ভুক্তভোগী।

আর এ অবস্থা থেকে পরিত্রাণ পেতে গাজীপুর মহানগরের হাবিবুল্লাহ স্মরণীতে এক সংবাদ সম্মেলন করেছেন সেই ইউপি মেম্বার।

ভুক্তভোগী আসাদুজ্জামান নূর জেলার তরগাঁও ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এবং একই ওয়ার্ডের ইউপি মেম্বার।

সংবাদ সম্মেলনে ইউপি সদস্য এবং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ আসাদুজ্জামান নূর বলেন, মাদক ব্যবসার প্রতিবাদ করায় আমার বাড়িতে হামলা চালিয়ে আমার ভাইকে এলোপাথারি কুপিয়েছে কাপাসিয়া উপজেলার তরগাঁও ইউনিয়নের দক্ষিণখামের গ্রামের মাদক ব্যবসায়ি  মোঃ রাজীব বেপারী (৩০)।

ভুক্তভোগী আসাদুজ্জাম জানান, রাজীব বেপারী ও তার সহযোগীরা দীর্ঘদিন ধরে কাপাসিয়ার তরগাঁও এলাকার বিভিন্ন স্থানে মাদক ব্যবসা করে আসছে। সে এলাকায় মাদকের ডিলার হিসেবে পরিচিত।

 তার বিরুদ্ধে মাদক, নারী ও শিশু নির্যাতনসহ থানায় পাঁচটি মামলা রয়েছে। এলাকার মাদক ব্যবসার নিষেধ করায় রাজীব বেপারী তার ৭-৮জন সহযোগী নিয়ে ঈদের আগের রাতে তার বাড়িতে গিয়ে হামলা চালিয়ে   আমার ভাই টিপু চৌধুরী রিপনকে কুপিয়ে আহত করে ফেলে যায় এবং সবাইকে খুন জখমের হুমকি দেয়। 

ওই মাদক ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে ইউনিয়ন পরিষদ, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এবং থানা পুলিশের কাছে অভিযোগ দিয়েও কোন প্রতিকার মিলছে না।

তিনি, রাজীব বেপারী ও তার সহযোগীদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান। সংবাদ সম্মেলনে ওই এলাকার আলী হায়দার ও আশিকুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত রাজীব বেপারীর পিতা ওসমান গনি বলেন, তার ছেলে মাদকের সঙ্গে জড়িত নেই। সে নিয়মিত নামাজ আদায় করে। এলাকায় জমি সংক্রান্ত বিরোধের কারণে তার ছেলের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে।


আরও খবর



গাজীপুর জমির বায়নার টাকা ফেরত নিতে সালিশে এএসআইয়ের ওপর হামলা

যুবককে মারধরের অভিযোগ

প্রকাশিত:শনিবার ২৩ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | ৯৬জন দেখেছেন
Image

সদরুল আইন,গাজীপুর জেলা প্রতিনিধিঃ

         গাজীপুরের শ্রীপুরে জমি বিক্রির বায়নার টাকা উদ্ধারের সালিশ বৈঠকে প্রকাশ্যে এক যুবককে মারধরের অভিযোগ উঠেছে শ্রীপুর থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) শাহীনের বিরুদ্ধে। 

এ ঘটনার পর স্থানীয়দের হামলায় ওই পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।  শুক্রবার (২২ এপ্রিল) বিকালে উপজেলার গাজীপুর ইউনিয়নের ফরিদপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশের হামলার শিকার লাইছুদ্দিন ও স্থানীয়রা জানান, শ্রীপুরের গাজীপুর ইউনিয়নের ফরিদপুর গ্রামের রমজান আলী মুন্সী আনুমাণিক সাত মাস আগে পাশের কাপাসিয়া উপজেলার বাসিন্দা মাহমুদার থেকে সাড়ে ৩ গণ্ডা জমি বিক্রির উদ্দেশ্যে ৫ লাখ টাকা বায়না করেন।

 ওই নারী জমির কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করে বায়নাকৃত সাড়ে ৩ গণ্ডা জমি বনের জায়গা হিসেবে চিহ্নিত করেন। পরে ওই নারী জমির মালিক রমজান আলী মুন্সীর কাছে জমির টাকা ফেরত চান। 

টাকা ফেরত দেওয়ার কথা বলে রমজান আলী মুন্সী কালক্ষেপণ শুরু করেন। পরে ভুক্তভোগী নারী শ্রীপুর থানায় লিখিত অভিযোগ করেন। এ ঘটনা নিষ্পত্তির জন্য থানা থেকে কয়েকবার সালিশ বৈঠকে বসার কথা বলা হলেও রমজান আলী মুন্সী কালক্ষেপণ করতে থাকেন। এক পর্যায়ে রমজান আলী মুন্সী তার বাড়িতে সালিশ বৈঠকে বসার অনুরোধ করেন। 

পরে শুক্রবার (২২ এপ্রিল) বিকালে শ্রীপুর থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) শাহীনের উপস্থিতিতে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যাক্তিদের নিয়ে বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য রমজান আলী মুন্সীর বাড়িতে সালিশ বসে

 বৈঠকে কথাবার্তার এক পর্যায়ে রমজান আলী মুন্সীর ভাতিজা লাইছুদ্দিনকে উপস্থিত সবার সামনে এএসআই শাহীন মারধর শুরু করেন। পরে উপস্থিত লোকজন এএসআই শাহীনকে অবরুদ্ধ করে তার ওপর হামলা চালায়। পরে উভয়কেই স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

পুলিশের হামলার শিকার লাইছুদ্দিন দাবি করেন, ‘আলোচনার মাধ্যমে সব ফয়সালা হওয়ার পর আমি শুধু বলেছি স্ট্যাম্পের মাধ্যমে স্বাক্ষর নিয়ে টাকা পরিশোধ করা হবে। যাতে পরবর্তীতে কোনও পক্ষ অস্বীকার করতে না পারে। এ কথা বলার পর এএসআই শাহীন উপস্থিত সবার সামনে আমাকে মারধর শুরু করেন।’

এ বিষয়ে শ্রীপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মাহফুজ ইমতিয়াজ ভূঁইয়া বলেন, বাদীর অভিযোগের ভিত্তিতে এএসআই শাহীন জমি সংক্রান্ত সালিশ বৈঠকে গিয়েছিলেন। সেখানে বিবাদী পক্ষের লোকজন তার ওপর হামলা করেছে।

 খবর পেয়ে সন্ধ্যায় থানা থেকে ফোর্স গিয়ে স্থানীয়দের সহযোগিতায় তাকে উদ্ধার করে। তবে এএসআই শাহীন কাউকে মারধর করেছে কিনা সে বিষয়ে কোনও অভিযোগ পাইনি। 

গাজীপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সিরাজুল হক মাদবর বলেন, ফরিদপুর গ্রামে গণ্ডগোলের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যাই। পরে জানতে পারি এক নারী জমি কিনেছেন। পরে আর টাকা দিতে পারবেন না বলে বায়নার টাকা ফেরত চান।

 পরে থানার এক দারোগা বিষয়টি মীমাংসার জন্য বৈঠকে এসে টাকা দিতে বিলম্ব হওয়ায় উত্তেজিত হয়ে লাইছুদ্দিনকে থাপ্পর দেন। এ ঘটনার নিষ্পত্তির জন্য শনিবার (২৩ এপ্রিল) আমরা শ্রীপুর থানার ওসির অফিসে বসবো। 

স্থানীয়দের হামলার শিকার এএসআই শাহীনের মোবাইলফোন বন্ধ থাকায় তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।


আরও খবর



যাত্রীশূন্য শিমুলিয়া-পাটুরিয়া ঘাট

প্রকাশিত:বুধবার ০৪ মে ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | ৬০জন দেখেছেন
Image

ঈদের আগের দিন যাত্রীদের চাপ নেই মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ের শিমুলিয়া ঘাটে। গত তিন দিন ঘরমুখো মানুষের উপচেপড়া ভিড় থাকলেও আজ সোমবার (২ মে) অনেকটাই ফাঁকা শিমুলিয়া ঘাট। সকাল থেকেই ঘাটের পরিবেশ স্বাভাবিক। স্বাভাবিক রয়েছে ফেরি, লঞ্চ এবং স্পিডবোট চলাচলও। একই চিত্র পাটুরিয়া ঘাটে।

বুধবার (৪ মে) সকাল সাড়ে ৯টায় ঘাট এলাকা ঘুরে এমন পরিস্থিতি দেখা যায়।

শিমুলিয়া ঘাট কর্তৃপক্ষ জানায়, সকাল ৬টা থেকে সকাল ৯টা পর্যন্ত ছয়টি ফেরি ঘাট ছেড়ে গেছে। সারাদিন মোট ১০টি ফেরি, ৮৫টি লঞ্চ ও ১৫৪টি স্পিড বোট এই ঘাটে চলাচল করবে। রাতেও সাতটি ফেরি চলাচল করবে।

 তবে দুপুরের পর যাত্রী চাপ বাড়তে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এদিকে সোমবার সকাল থেকেই অনেকটা নীরব পাটুরিয়া ঘাট। চাপ কম থাকায় কয়েকটি ফেরি পন্টুনে নোঙ্গর করে রাখা হয়েছে। 

একেবারেই ফাঁকা রয়েছে পাটুরিয়ার দুটি ট্রাক টার্মিনাল। ঘাটে আসা যানবাহনগুলো কোন যানজট ছাড়াই সরাসরি ফেরিতে উঠে যাচ্ছে।


আরও খবর



বুড়িমারী হত্যাকান্ড: আত্মসমর্পণ করতে এসে ৩৮ আসামী কারাগারে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | ৪৬জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিনিধি, লালমনিরহাট

রংপুর ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের সাবেক গ্রন্থাগারিক সাহিদুন্নবী জুয়েলকে পিটিয়ে ও আগুনে পুড়িয়ে হত্যা মামলার ৩৮ পলাতক আসামি আত্মসমর্পণ করেছেন।

বুধবার, ১১ মে বিকেলে জ্যেষ্ঠ বিচারিক আমলি আদালত-৩ এর বিচারক জয়নাল আবেদীন তাদের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন

বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে লালমনিরহাটের কোর্ট পুলিশ পরিদর্শক মো. মুসা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

 

তিনি জানান, জুয়েল হত্যা মামলায় পলাতক ৩৮ আসামি আত্মসমর্পণ করতে আদালতে আসেন। তাদের জামিন আবেদন করেন আইনজীবীরা। তবে শুনানি শেষে তা নাকচ করেন বিচারক। পরে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়।

পুলিশ জানায়, জুয়েল হত্যা, পুলিশের ওপর হামলা ও বুড়িমারী ইউনিয়ন পরিষদ ভবনে হামলার পৃথক মামলায় এজাহারভুক্ত ৩৮ আসামি দীর্ঘ দিন ধরে পলাতক ছিলেন। অনেকেই বেশ কিছু দিন হাইকোর্ট থেকে জামিনে ছিলেন। বুধবার সকালে তারা স্বেচ্ছায় আত্মসমর্পণ করতে এলে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত।

আসামি পক্ষের আইনজীবী ফিরোজ হায়দার লাভলু বলেন, জামিন পেতে জেলা জজ আদালতে আমরা আপিল করব। এর মধ্যে পুলিশ এখন পর্যন্ত ৪৮ জনকে গ্রেপ্তার করেছে। এছাড়া স্বেচ্ছায় আদালতে আত্মসমর্পণ করেছেন আরও ১২ জন। তাদের মধ্যে জামিনে রয়েছেন অনেকেই।

প্রসঙ্গত, গত ২০২০ সালের ২৯ অক্টোবর রাত ৮টার দিকে পাটগ্রাম উপজেলার বুড়িমারী বাজারের বাশকল এলাকায় শহীদুন্নবী জুয়েলকে পিটিয়ে ও পুড়িয়ে হত্যা করা হয়।


আরও খবর