Logo
শিরোনাম

রাজধানীর বাড্ডায় পানির তীব্র সঙ্কট

প্রকাশিত:শুক্রবার ০২ সেপ্টেম্বর 2০২2 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০১ ডিসেম্বর ২০২২ |
Image

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় এখনো তীব্র পানির সংকট রয়েছে। এ নিয়ে ওয়াসার কাছে বারবার অভিযোগ করেও কোন সমাধান মিলছে না। 

উত্তর বাড্ডার বেশকিছু এলাকাজুড়ে প্রায় একমাসজুড়ে তীব্র পানির সংকট রয়েছে। সারাদিন পানির অপেক্ষায় থেকেও, অধিকাংশ সময় হতাশ হতে হয় বাসিন্দাদের। মধ্যরাতে কিছু সময়ের জন্য পানি আসলেও,তা অপ্রতুল। 

পানির সংকটের কারণে গোসল, পানিপান, দৈনন্দিন সকল কাজ ব্যহত হচ্ছে। যাদের পানি সংরক্ষণের ব্যবস্থা নেই, তাদের অবস্থা আরও ভয়াবহ। 

যদিও ঢাকা ওয়াসার তথ্য বলছে, রাজধানীতে দৈনিক সর্বোচ্চ ২৬৫ কোটি লিটারের চাহিদার বিপরীতে ২৭৫ কোটি লিটার পানি সরবরাহ করা হচ্ছে।

বাড্ডার বাসিন্দারা বেশ কিছু দিন ধরে দূষিত পানি ব্যবহার করে ভয়াবহ পানিবাহিত রোগে আক্রান্ত হওয়ার কবলে রয়েছে বলে মৌখিক অভিযোগ করেছেন স্থানীয়রা।

দূষিত পানি পানের কারণে মানুষ ডায়রিয়া, কলেরা, জন্ডিস, টাইফয়েড, হেপাটাইটিস, কিডনি, লিভারসহ নানা জটিল ও প্রাণঘাতী সংক্রামক রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কায় ধাবিত হচ্ছে।

বাড্ডার বাসিন্দাদের অভিযোগ, ওয়াসার পানিতে মাত্রাতিরিক্ত দুর্গন্ধ ও ময়লা পাওয়া যায়। দীর্ঘ সময় ফোটানোর পরেও কিছু কিছু এলাকার পানি থেকে দুর্গন্ধ দূর হয় না। ওই পানি পুরোপুরি পানের অযোগ্য।গোসলে পানি ব্যবহার করে ইতিমধ্যে অনেকে চুলকানি চর্ম রোগে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসকদের দারস্ত হচ্ছেন। বিশুদ্ধ পানির সংকট দিন দিন প্রকট হচ্ছে।
২০১০ সালের মধ্যে সবার জন্য স্বাস্থ্যসেবার পাশাপাশি নিরাপদ পানির ব্যবস্থা করার বিষয়ে সরকার ঘোষণা দিয়েছিল। কিন্তু আজও বাস্তবায়ন হয়নি। দূষিত পানি পান করে লাখ লাখ মানুষ, বিশেষ করে শিশুরা অধিক হারে পানিবাহিত রোগে আক্রান্ত হচ্ছে।
মাঠ পর্যায়ে কর্মরত বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি সংস্থার হিসাব অনুযায়ী, দেশে প্রতিদিন ১০ কোটি লিটার বিশুদ্ধ পানির ঘাটতি রয়েছে। রাজধানীতে প্রতিদিন ২২০ থেকে ৩০০ কোটি লিটার পানির প্রয়োজন।

গত তিন দশকে ভূগর্ভস্থ পানির জন্য প্রায় ৫০ কোটি টাকা ব্যয় করা হলেও বিশুদ্ধ পানির ব্যবস্থা নিশ্চিত করা যায়নি। বর্তমানে সারাদেশে বছরে প্রায় ৩ কোটি ২০ লাখ মানুষ পানি সংকটে ভুগছে।

কেবল বিশুদ্ধ ও পরিচ্ছন্ন পানি ব্যবহারের মাধ্যমে বিশ্বজুড়ে পানিবাহিত রোগ এবং এ কারণে মৃত্যুঝুঁকি প্রায় ২১ শতাংশ পর্যন্ত কমানো যেতে পারে বলে মত দিয়েছে সংস্থাটি।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা আরো বলছে, উন্নয়নশীল ও অনুন্নত দেশগুলোতে প্রতি ৫ জনে ৩ জন নিরাপদ খাবার পানি পায় না। স্বল্পমাত্রায় পানি সরবরাহ ও অপ্রতুল স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য এসব দেশে ৮০ শতাংশ রোগব্যাধি হয়ে থাকে।

একটি বিশেষ মাধ্যমে সংশ্নিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, দেশে মানুষের প্রতিদিন সুপেয় পানির যে চাহিদা রয়েছে, ভূগর্ভস্থ পানি থেকে সেই চাহিদা পুরোপুরি মেটানো সম্ভব নয়। অপরিকল্পিতভাবে পানি উত্তোলনের কারণে প্রতি বছরই ভূর্ভস্থ পানির স্তর নিচে নামছে। 

বিশেষ করে এই গরমের মৌসুমে তীব্র ভোগান্তি হয় পানি নিয়ে।যেমন এই বছর মাঘ মাসের শেষ দিক থেকে শুরু হয়েছে দুর্গন্ধযুক্ত পানি। যাও মধ্যরাত পর্যন্ত অপেক্ষা করে পানি সংগ্রহ করি তাও অত্যন্ত ব্যবহার অনুপযোগী।

  কিন্তু কি করার পানির তো দৈনন্দিন প্রয়োজন রয়েছে।অপর এক বাড়িওয়ালা বলছেন গত কয়েক মাস ধরে এসব দূষিত পানি ব্যবহার করে পরিবারের সবাই অতিষ্ঠ হয়ে গেছে ।

তার উপরে সুপেয় পানি সরবরাহের দামে গত কয়েক মাস ধরে দূর্গন্ধযুক্ত পানি ব্যবহার করে সুপেয় পানির বিল দিতে হচ্ছে এ ভাবে কতো দিন আমরা ভোগান্তিতে ভুগবো।

 


আরও খবর

নওগাঁয় বেগুন গাছে টমেটো চাষে সফল কৃষক বাদল

বৃহস্পতিবার ০১ ডিসেম্বর ২০২২

কাগজ সংকটে বই প্রকাশ অনিশ্চিত

বৃহস্পতিবার ০১ ডিসেম্বর ২০২২




হজযাত্রীদের ইমিগ্রেশন হবে ঢাকায়

প্রকাশিত:সোমবার ১৪ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৯ নভেম্বর ২০২২ |
Image

হজযাত্রীদের শতভাগ ইমিগ্রেশন ও লাগেজ তল্লাশির কাজ ঢাকায় সম্পন্ন করা হবে। এ ছাড়া সৌদি আরব ও বাংলাদেশের মধ্যে নিরাপত্তা সহযোগিতার ক্ষেত্রে দুদেশের চুক্তি সই হয়েছে।

বাংলাদেশ সফররত সৌদি আরবের স্বরাষ্ট্র উপমন্ত্রী নাসের বিন আবদুল আজিজ আল দাউদের নেতৃত্বে প্রতিনিধিদলের সঙ্গে বৈঠকে এ চুক্তি সই হয়। সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের নেতৃত্বে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠক শেষে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান সাংবাদিকদের বলেন, আলোচনার পর আমরা দুটি এমওইউ সই করেছি। একটি হলো নিরাপত্তা সহযোগিতা চুক্তি, আরেকটি হলো রুট-টু-মক্কা সার্ভিস এগ্রিমেন্ট।

তিনি বলেন, প্রথমটিতে দুদেশের নিরাপত্তা আরো কীভাবে উন্নতি করা যায়, সে বিষয়টি মাথায় আছে। প্রশিক্ষণের ব্যবস্থাসহ বিভিন্ন বিষয় এর মধ্যে রয়েছে। রুট-টু-মক্কার মধ্যে রয়েছে আমাদের হজযাত্রীদের আরো কীভাবে সহযোগিতা দেওয়া যায়। এখান থেকে ইমিগ্রেশন ও সবকিছু ঠিকঠাক করে তারা উড়োজাহাজে উঠে যাবে। এ সুবিধাগুলো আগে পরীক্ষামূলকভাবে ছিল।

মন্ত্রী বলেন, এখন থেকে ইমিগ্রেশন, ব্যাগেজ চেকিং সবকিছু বাংলাদেশের বিমানবন্দর থেকে হয়ে যাবে। এটাই হলো রুট-টু-মক্কা সার্ভিস এগ্রিমেন্টের বিষয়।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এ ছাড়া আরো অনেক বিষয় নিয়ে আলাপ হয়েছে। রোহিঙ্গা ইস্যু আলোচনায় এসেছে। আমাদের দুদেশের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর মধ্যে প্রশিক্ষণ এবং পারস্পরিক তথ্য আদান-প্রদান। ভাতৃপ্রতিম মুসলিম দেশ, দুদেশের সম্পর্ক আরো উন্নত করা যায়, সেটা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। আমাদের যে শ্রমিকরা যেখানে যাচ্ছে, দক্ষ শ্রমিকদের সেখানে পাঠানোর জন্য তারা অনুরোধ জানিয়েছেন। দক্ষ শ্রমিক পাঠালে তারা আরো ভালো সুবিধা পাবেন বলে আলোচনা হয়েছে।

তিনি বলেন, আমরা আরো বলেছি, কীভাবে ভিসা আরো সহজ করা যায়। বাংলাদেশ থেকে প্রচুর হজ ও ওমরাহযাত্রী, ব্যবসায় ও চাকরির জন্য প্রতিনিয়ত সৌদি আরব যাচ্ছেন। তারা যে স্কলারশিপ দিচ্ছেন, সেটা আরো কীভাবে সহজ করা যায় সেটা নিয়ে এবং বিজনেস ভিসাটা আরো কীভাবে সহজ করা যায় সেটা নিয়ে বিস্তারিত আলাপ হয়েছে।

নতুন করে শ্রমিক নেওয়া ও সৌদি আরব থেকে এলএনজি আনার বিষয়ে কোনো আলোচনা হয়েছে কি না জানতে চাইলে আসাদুজ্জামান খান বলেন, এলএনজির কোনো বিষয় আলোচনায় আসেনি। শ্রমিকদের ই-পাসপোর্ট তাড়াতাড়ি দেওয়ার বিষয়ে তারা অনুরোধ করেছেন। আমরা বলেছি আমরা তাড়াতাড়িই করব, কিন্তু প্র্যাকটিক্যালি এ অসুবিধাগুলো আছে।


আরও খবর

নওগাঁয় বেগুন গাছে টমেটো চাষে সফল কৃষক বাদল

বৃহস্পতিবার ০১ ডিসেম্বর ২০২২

কাগজ সংকটে বই প্রকাশ অনিশ্চিত

বৃহস্পতিবার ০১ ডিসেম্বর ২০২২




কু‌মিল্লায় লরি ও বা‌সের ধাক্কায় নিহত ২

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৫ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০১ ডিসেম্বর ২০২২ |
Image

কুমিল্লা ব্যুরো ঃ

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লা অংশে লরির ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী স্ত্রী নিহত হয়েছেন। স্বামী আশংকাজনক অবস্থায় হাসপাতা‌লে ভ‌র্তি।                মঙ্গলবার (১৫ নভেম্বর) বিকেলে মহাসড়কের কুমিল্লার বুড়িচং এলাকার ময়নামতি ক্যান্টনমেন্ট পূবালী ব্যাংকের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনায় ছিটকে পড়ে আহত হয়েছেন মোটরসাইকেল চালক  ও নিহত হ‌য়ে‌ছেন আ‌রোহী চাল‌কের স্ত্রী   ।

নিহতরা হ‌লেন ইভা আক্তার (২৫)। আহত স্বামী রবিউল ইসলাম (৩২)। তাদের বাড়ি কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার আজ্ঞাপুর গ্রামে। রবিউল ময়নামতি জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

কুমিল্লা ময়নামতি হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আকুল চন্দ্র বিশ্বাস বলেন, মরদেহ উদ্ধার করে থানায় আনা হয়েছে। আহত রবিউলকে হাসপাতালে পাঠিয়েছি। স্বজনরা আসলে আইনগত প্রকৃয়া শেষে মরদেহ পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হবে। দুর্ঘটনার পর লরিটি দ্রুত বেগে চলে যায় বলে জানতে পেরেছি। দুর্ঘটনার কারণ জানতে সিসিটিভি ফুটেজ পর্যালোচনা করা হচ্ছে।

এ‌দি‌কে মঙ্গলবার বিকেলে কু‌মিল্লার গৌরীপুর -হোমনা সড়কের মোস্তাক হাজারী বাড়ির সামনে  কুমিল্লা গামী (কুমিল্লা- জ-১১-০২৮০) নাম্বারের একতা সার্ভিস প‌রিবহ‌নের এক‌টি বাস একপথচা‌রি ভিক্ষুককে ধাক্কা দেয়। এসময় মৃত্যু ঘটে ঘটনাস্থলেই মৃতু‌্য হয় পথচা‌রি ভিক্ষুক। 

পু‌লিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায় সড়‌কের পশ্চিম দিক থেকে পার হ‌য়ে পূর্ব দিকে আসার সময় বাস‌টি ধাক্কা দেয়।

আহত ছেনোয়ারাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গৌরীপুর নিয়ে গেলে ডাক্তার তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।                                         নিহত ভিক্ষুক  ‌মোঃ সা‌নোয়ার (৬৫) ।তাঁর গ্রামের বাড়ি কু‌মিল্লা দাউদকা‌ন্দি উপজেলার বার পাড়া ইউনিয়নের রাঙ্গাশিমুলিয়ায়।                               নিহ‌তের লাশের পাশে আহাজারি করতে দেখা যায় তাঁর  মেয়েকে।

এ ঘটনার পরপর  ঘাতক বাস ও চালক পলাতক র‌য়ে‌ছে।


আরও খবর



অধিকরণ করা অব্যবহৃত জমি

জনসাধারণের ব্যবহারের জন্য কাজে লাগানোর দাবী

প্রকাশিত:শুক্রবার ১১ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৯ নভেম্বর ২০২২ |
Image

বুলবুল আহমেদ সোহেল ঃ

সরকারী অধিকরণ করা অব্যবহৃত জমি উদ্ধার করে জনসাধারণের ব্যবহারের জন্য কাজে লাগানোর দাবীতে সমাবেশ করেছে নারায়ণগঞ্জ ভূমি রক্ষা সম্মিলিত নাগরিক পরিষদ। শুক্রবার বিকেলে, নগরের চাষাড়ায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। 

ভূমি রক্ষার সম্মিলিত নাগরিক পরিষদের আহবায়ক সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রবিউর রাব্বির সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন এডভোকেট মাহবুবু রহমান মাসুম, ভবানী শঙ্কর রায়সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। 

সমাবেশে বক্তারা বলেন, নারায়ণগঞ্জে নাগরিকদের প্রয়োজনে জমির অভাবে উন্নতমানের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, মেডিকেল কলেজ, বিনোদনের জন্য পার্কসহ কোন কিছুই করা যাচ্ছে না। অথচ নারায়ণগঞ্জে রেলওয়ে, রাজউক, বিআইডব্লিউটিএ, জেলা পরিষদ, সড়ক ও জনপদ বিভাগ সহ বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানের অব্যবহৃত জমি আত্মসাৎ এর জন্য ভূমিধস্যু একটি চক্র তৎপর রয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের অসাদু কর্মকর্তা কর্মচারীদের যোগসাজসে তারা আত্মসাৎ করছে। 

বক্তারা বলেন, রেলওয়ে তাদের অব্যবহৃত জমি স্থানীয় ভূমিদস্যুদের নিয়ে দীর্ঘদিন যাবত গোপনে বিভিন্ন ব্যক্তির কাছে বিক্রি করে আসছে। শহরের এক নং রেলগেইট এলাকায় ৪৭ হাজার দুইশ' বর্গফুট জমি ১০ বছর আগে রেলওয়ে কল্যাণ ট্রাস্ট নামক একটি  সংগঠনের নামে বরাদ্দ দিয়ে আত্মসাতের ব্যবস্থা করে। তখন নাগরিক আন্দোলনের মুখে তা বন্ধ করলেও এখন আবার সে জায়গা আত্মসাতের চেষ্টা করছে।

বক্তারা বলেন, রাজউক দেশের বিভিন্ন জায়গায় জরিপ করে টেকসই উন্নয়নের জন্য নদী বন্দর সংলগ্ন ২১ টি জেলায় নৌ-বন্দর, রেল স্টেশন ও বাস টার্মিনাল একই জায়গায় তৈরির জন্য ডিটেল এরিয়া প্ল্যান প্রণয়ন করেছে। সে পরিকল্পনায় নারায়ণগঞ্জের নৌ-বন্দর, রেল স্টেশন ও বাস টার্মিনালটি রয়েছে। নারায়ণগঞ্জ রেল স্টেশন এলাকায় স্কুল, কলেজ, দ্বিগুবাবুর বাজার ও বাস টার্মিনাল রয়েছে এ এলাকায়।

অথচ সরকারি প্রতিষ্ঠান হয়েও এ পরিকল্পনা উপেক্ষা করে রেলওয়ে অনৈতিকভাবে স্থানীয় ভূমিদস্যুদের সাথে নিয়ে এ জায়গাটি আত্মসাতের প্রক্রিয়ায় লিপ্ত হয়েছে।তারা এসব জিমে উদ্ধার করার দাবি জানিয়েছেন।


আরও খবর

ই-টিকেটিংয়ে কমেছে ভাড়ার নৈরাজ্য

মঙ্গলবার ২৯ নভেম্বর ২০২২

ই-টিকেটিংয়ে বন্ধ অতিরিক্ত ভাড়া

শুক্রবার ২৫ নভেম্বর ২০২২




লালমনিরহাটে তিন জঙ্গির যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

প্রকাশিত:সোমবার ২১ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০১ ডিসেম্বর ২০২২ |
Image

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ 

লালমনিরহাটে নিষিদ্ধ ঘোষিত জেএমবির তিন জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত জেলা জজ মোঃ মিজানুর রহমান।

সোমবার (২১ নভেম্বর) লালমনিরহাট জেলা দায়রা জজ ও সন্ত্রাস বিরোধী ট্রাইবুনাল এক এর বিজ্ঞ বিচারক মো মিজানুর রহমান এ আদেশ প্রদান করেন। যাজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামীরা হলেন, আসাদুজ্জামান,  শফিক ও  মোখলেছার রহমান। সন্ত্রাস বিরোধী আইনে তাদের সাজা প্রদান করে আদালত।

এছাড়া অপর আসামী তফিজুল ইসলামসহ মোট চার জঙ্গীকে দোষী সাব্যস্ত করে ১৪ বছর কারাদন্ডের আদেশ দেন। এদের প্রত্যেকের বাড়ি পাটগ্রাম উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে। মামলা সুত্রে জানা যায়, ২০১৮ সালের ৮ আগষ্ট গোপন সূত্রের ভিত্তিতে র‍্যাব ১৩ এর একটি টহল দল সন্ধ্যায় পাটগ্রাম পৌরসভা এলাকার একটি কাঠমিস্ত্রীর দোকানে অভিযান চালিয়ে আসামীদের হাতেনাতে আটক করে এবং আগ্নেয়াস্ত্র, ম্যাগাজিন, গুলি ও জেহাদী বই ও প্রচারপত্র উদ্ধার করে।

দীর্ঘ চার বছর পর আজ লালমনিরহাট দায়রা জজ ও বিচারক সন্ত্রাস বিরোধী ট্রাইবুনাল মোঃ মিজানুর রহমান এই রায় প্রদান করেন।


আরও খবর



রাণীনগরে চুরির ঘটনায় আরো ৬টি মোবাইল ফোন উদ্ধার সহ গ্রেপ্তার-১

প্রকাশিত:শনিবার ১৯ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০১ ডিসেম্বর ২০২২ |
Image

কাজী আনিছুর রহমান,রাণীনগর (নওগাঁ) :

নওগাঁর রাণীনগরে মোবাইল শো-রুমে চুরির ঘটনায় নাইম শাহানা (৩০) নামে আরো একজনকে গ্রেপ্তার করেছে থানাপুলিশ । এসময় চুরি যাওয়া আরো ৬টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়েছে। এর আগে গত ১১ নভেম্বর থানাপুলিশ আন্ত:জেলা চোর চক্রের ৫ জনকে গ্রেপ্তারসহ প্রাই আড়াই লক্ষ টাকা মূল্যের চুরি যাওয়া ১৪টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করে।

থানাপুলিশ জানায়,গত ১৫ সেপ্টেম্বর রাতে উপজেলা সদর হাসপাতাল এলাকায় সুফিয়া মার্কেটে হাসিবুল হাসানের মোবাইল শো-রুমের দোকানের তালা কেটে প্রায় আট লক্ষ টাকা মূল্যের ৪৭টি বিভিন্ন ব্রান্ডের মোবাইল চুরির ঘটনা ঘটে। এঘটনায় দোকান মালিক ১৯ সেপ্টেম্বর থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলার প্রেক্ষিতে চুরি যাওয়া মালামাল উদ্ধার ও চোর চক্রকে ধরতে মাঠে নামে পুলিশ। গত ১১নভেম্বর ভোর রাত থেকে সকাল ১০টা পর্যন্ত জেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে আন্ত:জেলা চোর চক্রের ৫সদস্যকে গ্রেপ্তারসহ প্রায় আড়াই লক্ষ টাকা মূল্যের ১৪টি চোরাই মোবাইল ফোন উদ্ধার করে। এর পর গ্রেপ্তারকৃতদের ৭দিনের রিমান্ডের আবেদন জানিয়ে আদালতে সোর্পদ করলে আদাল ৩দিনের রিমান্ড মুঞ্জুর করে। আসামীদের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদে পাওয়া তথ্য মতে,শুক্রবার রাতে নওগাঁ সদর উপজেলার গুমারদহ গ্রামে অভিযান চালিয়ে নাইম শাহানাকে গ্রেপ্তার করা হয়। এসময় তার নিকট থেকে ৬টি চোরাই মোবাইল উদ্ধার করা হয়। গ্রেপ্তার নাইম নওগাঁ সদর উপজেলার গুমারদহ গ্রামের শাহাদত শাহানার ছেলে। 

রাণীনগর থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ বলেন,চুরির ঘটনায় এপর্যন্ত ৬জনকে গ্রেপ্তারসহ মোট ২০টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়েছে। অবশিষ্ঠ চোরাই মালামাল উদ্ধারসহ জরিতদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। গ্রেপ্তার নাইমকে শনিবার আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।


আরও খবর