Logo
শিরোনাম
নওগাঁয় চোরাই অটোভ্যান উদ্ধার সহ আন্তঃজেলা চোর চক্রের ৩ জন আটক দ্বিতীয় বার আইজিপি পদক পেলেন রাঙ্গাবালী থানার ওসি হেলাল উদ্দিন অপহরণের ৪৮ ঘন্টার মধ্যেই কিশোরী উদ্ধার সহ অভিযুক্ত যুবক আটক বাউল ছালমা হলেন বরিশাল বিভাগের শ্রেষ্ঠ "জয়িতা" পাংশায় মাদক সহ ৯ মামলার আসামী গ্রেফতার ১৬৩ টাকায় তেল বিক্রির ব্যত্যয় ঘটলে ব্যবস্থা নেয়া হবে: ভোক্তার মহাপরিচালক দুর্গাপুরে বালুবাহী হ্যান্ডট্রলির চাপায় প্রাণ গেল শিক্ষার্থীর নওগাঁ জেলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি আবু বক্কর, সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত নওগাঁয় প্রাইভেটকার তল্লাসি, ৭২ কেজি গাঁজা সহ যুবক আটক রূপগঞ্জে প্রাইভেটকার চাপায় গৃহবধু নিহত

সেরা ক্রীড়াবিদ মেসি, সেরা দল আর্জেন্টিনা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৯ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:রবিবার ০৩ মার্চ ২০২৪ |

Image

ইয়াশফি রহমান : ক্যারিয়ারে অসংখ্য অর্জন লিওনেল মেসির। সেই অর্জনের খাতায় নতুন নতুন অধ্যায় যোগ করে চলেছেন এই আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড। তেমনই আরেকটি পুরস্কার নিজের শোকেসে তুললেন বিশ্বকাপজয়ী আর্জেন্টাইন অধিনায়ক।

ক্যারিয়ারে দ্বিতীয়বারের মতো ক্রীড়াজগতের প্রেস্টিজিয়াস এ পুরস্কার হাতে তুললেন আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক। কোনো ফুটবলার হিসেবেও যা দ্বিতীয়বার। এর আগে প্রথম ফুটবলার হিসেবেও ২০২১ সালে এটি জিতেছিলেন লিও। সেবার কোপা আমেরিকার শিরোপা আর এবার অধরা বিশ্বকাপ তাকে এনে দিয়েছে বছরের সেরা খেলোয়াড়ের স্বীকৃতি।

ফ্রান্সের প্যারিসে সোমবার (৮ মে) পুরস্কার জমকালো অনুষ্ঠানে মেসির হাতে পুরস্কার তুলে দেয়া হয়। এদিকে মেসি ছাড়াও বিশ্বের সেরা দল হিসেবে এই পুরস্কার জিতেছে ৩৬ বছর পর বিশ্বকাপ ঘরে তোলা আর্জেন্টিনা।

লরিয়াস পুরস্কার জিতে মেসি বলেন, এটা বিশেষ এক সম্মান। বিশেষ করে এই বছর লরিয়াস ওয়ার্ল্ড স্পোর্টস অ্যাওয়ার্ড প্যারিসে হওয়ায়। যারা ২০২১ সালে এখানে আসার পর আমাদের সাদরে গ্রহণ করেছে। আমি সব সতীর্থকে ধন্যবাদ জানাতে চাই। শুধু জাতীয় দলের নয় পিএসজির সতীর্থদেরও।

আর্জেন্টিনা ও পিএসজি ফুটবলার মেসি আরও বলেন, এ ধরণের স্বীকৃতি পাওয়া দারুণ। আর আমি ভাগ্যবান এ বছর জীবনের সবচেয়ে বড় স্বপ্ন বিশ্বকাপ জয়ের ইচ্ছা পূরণ হয়েছে। যার জন্য আমাকে অনেক অপেক্ষা করতে হয়েছে। বার্সেলোনা ও আর্জেন্টিনার হয়ে অনেক চড়াই-উৎরাইয়ের মধ্য দিয়ে গিয়েছি। তবে কখনোই থেমে যাইনি।

কাতার বিশ্বকাপে দারুণ ছন্দে ছিলেন মেসি। দলকে ৩৬ বছর পর শিরোপা জেতানোর পাশাপাশি নিজেও জিতেছেন গোল্ডেন বল পুরস্কার। এবার তার ঝুলিতে যুক্ত হলো আরও একটি পুরস্কার।

এছাড়াও বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে একশো মিটার স্প্রিন্টে স্বর্ণ জয়ী জ্যামাইকান স্প্রিন্টার শেলি অ্যান ফ্রেজার জিতেছেন বর্ষসেরা নারী খেলোয়াড়। ড্যানিশ ফুটবলার ক্রিশ্চিয়ান এরিকসেন কামব্যাক অব দ্যা ইয়ার ও স্প্যানিশ টেনিস তারকা কার্লোস আলকারাজ জিতেছেন ব্রেকথ্রো অব দ্যা ইয়ারের পুরস্কার।


আরও খবর

মাথায় আঘাত পেয়ে হাসপাতালে মোস্তাফিজ

রবিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




দ্বিতীয় বার আইজিপি পদক পেলেন রাঙ্গাবালী থানার ওসি হেলাল উদ্দিন

প্রকাশিত:শনিবার ০২ মার্চ 2০২4 | হালনাগাদ:শনিবার ০২ মার্চ 2০২4 |

Image

নিজস্ব সংবাদদাতা, রাঙ্গাবালী :

প্রশংসনীয় ও ভাল কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ দ্বিতীয় বারের মত ‘আইজিপি’স এক্সেমপ্ল্যারি গুড সার্ভিসেস ব্যাজ পদক পেয়েছেন পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হেলাল উদ্দিন। পুলিশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ মর্যাদাপূর্ণ এ পদক পাওয়ায় শনিবার দুপুরে রাঙ্গাবালী থানা পুলিশের সদস্যরা তাকে সংবর্ধনা প্রদান করেন। 

জানা গেছে, ২০২৩ সালে বরিশাল এয়ারপোর্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার দায়িত্বে থাকা অবস্থায় প্রশংসনীয় ও ভাল কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ হেলাল উদ্দিনকে এ পদক দেওয়া হয়। বুধবার রাজারবাগ পুলিশ লাইনসের প্যারেড গ্র্যাউন্ডে তাকে ব্যাজ পদক পরিয়ে দেন পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন। এসময় তার হাতে সনদপত্র তুলে দেওয়া হয়। এরআগে ২০১৮ সালে বরিশালের উজিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) থাকাকালীন প্রথমবারের মত আইজিপি পদকে ভূষিত হন হেলাল উদ্দিন। 

পুলিশের দ্বিতীয় মর্যাদাপূর্ণ এ পদক দ্বিতীয়বারের মত পেয়ে রাঙ্গাবালী থানার ওসি হেলাল উদ্দিন বলেন, ‘ভাল কাজের স্বীকৃতি যখন পাওয়া যায়, তখন সেই কাজের উৎসাহ অনেকগুণ বেড়ে যায়। আমি নিজে যেমন কাজে উৎসাহ পাবো, আমার দেখাদেখি অন্যরাও উৎসাহিত হবেন। আমি চাইবো, ভবিষ্যতে আরও ভাল কিছু করতে। আমার টিমের সদস্যদেরও ভাল কাজের জন্য  উৎসাহ দিবো। 


আরও খবর



হাইড্রোজেন হতে পারে ভবিষ্যতের জ্বালানি

প্রকাশিত:সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ০৩ মার্চ ২০২৪ |

Image

জলবায়ু পরিবর্তনের এই সময়ে জ্বালানি হিসেবে হাইড্রোজেনের ব্যবহার নিয়ে নতুন উদ্যমে আলোচনা শুরু হয়েছে। ৩৫০টির বেশি প্রকল্প চলমান রয়েছে হাইড্রোজেন নিয়ে। ২০৩০ সাল নাগাদ এই গ্যাসের পেছনে সর্বমোট বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়াবে ৫০০ বিলিয়ন ডলারে।


হিন্ডেনবার্গ ট্র্যাজেডির পর থেকেই বিতর্কিত জ্বালানির খাতায় নাম লিখিয়েছে হাইড্রোজেন। ১৯৩৭ সালে হাইড্রোজেন গ্যাসে পূর্ণ উড়োজাহাজ হিন্ডেনবার্গের লেজে মাঝআকাশেরি আগুন ধরে যায়। তারপর মাত্র ৩৪ সেকেন্ডের মাথায় আগুন ছড়িয়ে পড়ে পুরো উড়োজাহাজে। প্রাণে বাঁচেননি একজন যাত্রীও।

হাইড্রোজেনকে অনেকেই বলেন ভবিষ্যতের জ্বালানি। তাদের দাবি, গাড়ি চালাতে ও বাসাবাড়িতে এই গ্যাস ব্যবহারের মাধ্যমে কার্বন নিঃসরণ প্রায় শূন্যের কোঠায় নামিয়ে আনা সম্ভব। হাইড্রোজেন অর্থনীতি সংকটে থাকা জ্বালানি খাতকে উদ্ধার করতে পারবে বলে আশা তাদের।

হাইড্রোজেন-বিরোধীরা অবশ্য বলছেন, ১৯৭০-এর দশক থেকেই এই গ্যাসে বিনিয়োগ নিয়ে নানা ধরনের গবেষণা চলছে। কিন্তু হাইড্রোজেন গ্যাসের খামতির কারণে কোনো গবেষণাই হালে পানি পায়নি। 

 তবে  হাইড্রোজেন প্রযুক্তি বর্তমান কার্বন নিঃসরণের পরিমাণ ২০৫০ সালের মধ্যে শতাংশ কমিয়ে আনতে পারবে। পরিমাণে কম হলেও বর্তমান বাস্তবতায় এইটুকু কার্বন নিঃসরণ কমানোও যথেষ্ট গুরুত্ব রাখে। 

তেল-কয়লার মতো জ্বালানির প্রধান উৎস নয় হাইড্রোজেন। এটি মূলত শক্তিবাহক, অনেকটাই বিদ্যুতের মতো। ব্যাটারির মতো সংরক্ষণের মাধ্যম উৎপাদন করতে হয়। নবায়নযোগ্য ও পারমাণবিক শক্তি ব্যবহার করে পানি থেকে হাইড্রোজেনকে আলাদা করা হয়। এই প্রক্রিয়াটি বেশ ব্যয়বহুল, তবে এর খরচ দিন দিন কমে আসছে। 

অপরিচ্ছন্ন জীবাশ্ম জ্বালানি থেকেও হাইড্রোজেন তৈরি করা যায়। তবে প্রযুক্তির সাহায্যে কার্বন আলাদা করে না ফেললে এতে প্রচুর দূষণ হয়। হাইড্রোজেন অনেক জ্বালানির তুলনায় তুলনামূলক বেশি দাহ্য এবং ভারী। থার্মোডায়নামিকসের সূত্রানুসারে, প্রাথমিক জ্বালানিকে হাইড্রোজেনে এবং তারপর হাইড্রোজেনকে ব্যবহারযোগ্য শক্তিতে রূপান্তরিত করতে প্রচুর অপচয় হয়।

১৯৭০-এর দশকে হাইড্রোজেন প্রযুক্তির ব্যবহার নিয়ে অনেকগুলো গবেষণা হয়েছে। কিন্তু কোনোটাই বেশিদূর আগায়নি। আশির দশকে সোভিয়েত ইউনিয়ন একটি হাইড্রোজেনচালিত যাত্রীবাহী জেট উড়িয়েছিল কিন্তু প্রথম ফ্লাইট উড়তে পেরেছে মাত্র ২১ মিনিট।

তবে জলবায়ু পরিবর্তনের এই কালে জ্বালানি হিসেবে হাইড্রোজেনের ব্যবহার নিয়ে নতুন উদ্যমে আলোচনা শুরু হয়েছে। ৩৫০টির বেশি প্রকল্প চলমান রয়েছে হাইড্রোজেন নিয়ে। ২০৩০ সাল নাগাদ এই গ্যাসের পেছনে সর্বমোট বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়াবে ৫০০ বিলিয়ন ডলারে। ধারণা করা হচ্ছে, ২০৫০ সাল নাগাদ বছরে ৬০০ বিলিয়ন ডলারের হাইড্রোজেন বিক্রি হতে পারে। বর্তমানে বছরে ১৫০ বিলিয়ন ডলারের হাইড্রোজেন বিক্রি হয়। 

এখন প্রধানত সার তৈরিসহ বিভিন্ন শিল্পে এ গ্যাসের ব্যবহার হয়। ভারত শিগগিরই হাইড্রোজেনের জন্য নিলামের আয়োজন করবে। চিলি সরকারি জমিতে হাইড্রোজেন উৎপাদনের জন্য টেন্ডার ডেকেছে। ব্রিটেন, ফ্রান্স, জার্মানি, জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়াসহ ১২টির বেশি দেশে জাতীয় হাইড্রোজেন প্ল্যান্ট রয়েছে।

তবে এত উত্তেজনার মধ্যে হাইড্রোজেন কী করতে পারে এবং কী করতে পারে না, তা স্পষ্টভাবে জেনে নেওয়া দরকার। জাপানি ও কোরিয়ান প্রতিষ্ঠানগুলো হাইড্রোজেনচালিত গাড়ি বিক্রি করতে আগ্রহী। কিন্তু মুশকিল হলো, ব্যাটারিচালিত গাড়ি প্রায় দ্বিগুণ জ্বালানিসাশ্রয়ী। কিছু ইউরোপীয় দেশ বাসাবাড়িতে পাইপের মাধ্যমে হাইড্রোজেন সরবরাহের আশা করছে। কিন্তু হিট পাম্প অনেক বেশি কার্যকর। এছাড়াও কিছু কিছু পাইপ দিয়ে হাইড্রোজেন গ্যাস নিরাপদে সরবরাহ করা সম্ভব না। কিছু বড় জ্বালানি প্রতিষ্ঠান এবং তেল ও প্রাকৃতিক গ্যাসনির্ভর রাষ্ট্র সহ-উৎপাদ কার্বন ঠিকমতো ধরে না রেখেই হাইড্রোজেন তৈরি করতে চায়। কিন্তু তাতে কার্বন নিঃসরণ কমবে না।

তবে হাইড্রোজেন বিশেষায়িত বাজারগুলোকে সাহায্য করতে পারে। বিশেষ করে জটিল রাসায়নিক প্রক্রিয়া ও অতি উচ্চ তাপমাত্রা প্রয়োজন হয় যেসব শিল্পে, সেগুলোতে এই গ্যাস বড় ভূমিকা রাখতে পারবে। বৈশ্বিক কার্বন নিঃসরণের ৮ শতাংশের জন্য দায়ী ইস্পাত শিল্প। এই শিল্পে কাজ করতে হয় কয়লা পুড়িয়ে। বায়ুশক্তি দিয়ে কয়লাকে প্রতিস্থাপন করা না গেলেও হাইড্রোজেন দিয়ে করা যাবে। গত আগস্টে হাইড্রোজেন জ্বালানি দিয়ে তৈরি বিশ্বের প্রথম সবুজ ইস্পাত বিক্রি করেছে সুইডিশ প্রতিষ্ঠান হাইব্রিট।