Logo
শিরোনাম

শিরোপা ফয়সালা হবে কি আজ?

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৬ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

ইয়াশফি রহমান: প্রাইম ব্যাংকের সামনে সুপার লিগের তৃতীয় রাউন্ডে দাঁড়াতে পারেনি শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব। একই অবস্থা লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জের। মিরপুরে তাদের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে আবাহনী লিমিটেড।

শিরোপা প্রত্যাশী দুই ক্লাবের হারে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে শিরোপার ফয়সালা হয়নি তৃতীয় রাউন্ডে। আজ চতুর্থ রাউন্ড মাঠে গড়াবে। আজ কি শিরোপার ফয়সালা হবে? শেখ জামাল জয়ে ফিরতে মরিয়া। সঙ্গে প্রথম শিরোপা জয়ের অপেক্ষা দীর্ঘ করতে চায় না তারা।

কোচ সোহেল ইসলাম গণমাধ্যমকে বললেন, ‘ব্যাটিং-বোলিংয়ে আমাদের একটি বাজে দিন গেছে। এর আগে আমরা টানা জিতেছি। ভুল করেছিলাম। কিন্তু জয়ে সেগুলো আড়াল হয়েছে। সামনের ম্যাচটা আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। জিততে হলে আমাদের সেরা ক্রিকেট খেলতে হবে। আমরা শিরোপা জিততে চাই। এজন্য জিততেই হবে।’

মিরপুরে শেখ জামালের প্রতিপক্ষ আবাহনী লিমিটেড। রাউন্ড রবিন লিগে শেখ জামাল বিকেএসপিতে আবাহনীকে ৫ উইকেটে হারিয়েছিল। এবার নিশ্চয়ই বদলা নিতে মুখিয়ে খালেদ মাহমুদের শিষ্যরা।

শেষ রাউন্ডে মিরপুরে তারা মাশরাফি, সাকিব, চিরাগ জানিদের আটকে দারুণ ম্যাচ জিতেছিল। মোসাদ্দেকের অলরাউন্ড পারফরম্যান্সে হেসেছিল প্রতিযোগিতার হ্যাটট্রিক চ্যাম্পিয়নরা। এবার শিরোপার লড়াইয়ে না থাকলেও দারুণভাবে লিগ শেষ করতে চান মোসাদ্দেক, ‘আমরা হয়তো শিরোপা জিততে পারব না। কিন্তু শেষ ম্যাচগুলো জিতে ভালোভাবে লিগ শেষ করতে চাই। সামনে আমাদের দুটি ম্যাচ। দুটি ম্যাচই জিততে চাই।’

লিগে ব্যাট-বল হাতে সমান তালে পারফর্ম করেন মোসাদ্দেক। ১৩ ম্যাচে ৬৪৩ রান করেছেন। বল হাতে উইকেট ১২টি। শেষ দুই ম্যাচে পারফর্ম করে নিজেকেও ভালো অবস্থানে দেখতে চান মোসাদ্দেক।

এদিকে বিকেএসপিতে মাশরাফিদের প্রতিপক্ষ গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স। শেষ ম্যাচে তারা হেরে যাওয়ায় শিরোপার লড়াইয়ে পিছিয়ে পড়েছে। আজ শেখ জামাল জিতে গেলে তাদের উৎসব শুরু হয়ে যাবে। মাশরাফিরা শেষ দুই রাউন্ডে জিতলেও তাদের ধরতে পারবে না। ২২ পয়েন্ট নিয়ে শেখ জামাল এখন শীর্ষে। ১৮ পয়েন্ট নিয়ে রূপগঞ্জ দুইয়ে।

শেখ জামাল আবাহনীকে হারালে পয়েন্ট হবে ২৪। তখন রূপগঞ্জের দুই ম্যাচ জিতলেও পয়েন্ট হবে ২২। ২ পয়েন্ট এগিয়ে থেকে শিরোপা যাবে শেখ জামালের ঘরে। সমীকরণ কি হবে, সেদিকে না তাকিয়ে রূপগঞ্জের কোচ আফতাব আহমেদ নিজেদের খেলায় মনোযোগী।

তবে একটি সমীকরণে শেখ জামাল চ্যাম্পিয়ন হয়ে যেতে পারে। রূপগঞ্জ গাজী গ্রুপের কাছে হারলে এবং শেখ জামাল আবাহনীর বিপক্ষে জয় না পেলে কালই প্রথম লিগ শিরোপা উদযাপন করতে পারবে শেখ জামাল। তবে রূপগঞ্জ জিতে গেলে এবং শেখ জামাল হেরে গেলে শিরোপার ফয়সালা হবে শেষ রাউন্ডে।


আরও খবর



লালমনিরহাটে তিস্তার পানি বৃদ্ধি, চরাঞ্চল প্লাবিত

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৯ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধি ঃ

উজানের পাহাড়ি ঢলে হঠাৎ করে লালমনিরহাটের তিস্তা নদীতে পানি বেড়েছে। ফলে তিস্তা ব্যারাজের ডালিয়া পয়েন্টে ৪৪টি গেট খুলে দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

বৃহস্পতিবার (৯ জুন) দুপুর ১২টায় দেশের বৃহত্তম সেচ প্রকল্প হাতীবান্ধা উপজেলার তিস্তা ব্যারাজ ডালিয়া পয়েন্টে পানির প্রবাহ রেকর্ড করা হয় ৫২ দশমিক ০৫ সেন্টিমিটার। যা (স্বাভাবিকের চেয়ে ৫২ দশমিক ০০সেন্টিমিটার) বিপৎসীমার ৪২ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

নদী-তীরবর্তী বাসিন্দারা জানান, কয়েক দিন ধরে টানা বৃষ্টি ও ভারতের গজলডোবা ব্যারেজে পানি বিপৎসীমা অতিক্রম করায় উজানের ঢল বেড়ে যায়। ফলে তিস্তা ব্যারাজের ডালিয়া পয়েন্টে পানির প্রবাহ বেড়েছে। যদিও এখনো জেলার তিস্তা নদীর পানি বিপৎসীমার নিচে রয়েছে। তবে জেলার নিম্নাঞ্চল পানিতে নিমজ্জিত হয়েছে। এছাড়া পানি জমেছে জেলা শহর থেকে শুরু করে প্রত্যন্ত এলাকায়। এসব পানি তিস্তা ও ধরলা নদীতে চলে আসায় পানি অনেকটা বেড়েছে।

তারা আরও জানান, তিস্তা নদীর বাম তীরে ভাঙন ও বন্যা থেকে রক্ষায় আদিতমারী উপজেলার গোবর্দ্ধন এলাকায় সলেডি স্প্যার বাঁধ ২ নির্মাণ করে পানি উন্নয়ন বোর্ড। গত বছর কিছু অংশে ভাঙন দেখা দিলে তা সংস্কার শুরু করে। সেই সংস্কার কাজ শেষ হতে না হতেই আবারও সেটি ভেঙে যাচ্ছে। এত দিনে পানি কমে গেলেও এবার সেটির কোনো কাজ করেনি পানি উন্নয়ন বোর্ড।

লালমনিরহাট পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) নির্বাহী প্রকৌশলী মিজানুর রহমান বলেন, উজানের পাহাড়ি ঢলে তিস্তার পানির প্রবাহ কিছুটা বেড়েছে। ব্যারাজ রক্ষার্থে সবগুলো জলকপাট খুলে না দিয়ে পানি নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করা হচ্ছে। প্রতি বছর জুনে বন্যা দেখা দেয়। তাই তিস্তাপাড়ের মানুষকে সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে।


আরও খবর



মালয়েশিয়া গমনেচ্ছুদের সতর্ক করে বিজ্ঞপ্তি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

মালয়েশিয়া যেতে ইচ্ছুক কর্মীদের সতর্ক করে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অধীন জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরো (বিএমইটি)।

বুধবার (২৯ জুন) সতর্কতা জারি করে একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়।

এতে বলা হয়, কর্মী প্রেরণ বিষয়ে মালয়েশিয়ার সঙ্গে সই করা সমঝোতা স্মারক অনুযায়ী বাংলাদেশী কর্মী গমনের ক্ষেত্রে কর্মীর বিমান ভাড়া, লেভিসহ মালয়েশিয়ায় প্রদেয় সকল খরচ কর্মী গ্রহণকারী নিয়োগকারী কোম্পানি বহন করবে।

আরও বলা হয়, প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি হিসেবে মালয়েশিয়াগামী কর্মীদের বিএমইটি'র ডাটাবেজে নাম নিবন্ধনের জন্য একাধিক পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রচার হয়েছে। এ নিবন্ধন বৈদেশিক কর্মসংস্থানের সহায়ক। তবে কর্মসংস্থানের নিশ্চয়তা নয়।

সতর্কবার্তায় আরও যা যা বলা হয়—বিএমইটি’র ডাটাবেজে নিবন্ধন ছাড়া কোনও কর্মী মালয়েশিয়ায় যেতে পারবেন না। তাই মালয়েশিয়ায় কর্মী প্রেরণের বিষয়ে সরকারি ঘোষণার আগে কোনও ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান বা রিক্রুটমেন্ট এজেন্টের সঙ্গে সকল আর্থিক লেনদেন থেকে বিরত থাকতে হবে।

পাসপোর্টসহ মূল্যবান ডকুমেন্ট অন্যের হাতে জমা দিয়ে জিম্মি হবেন না। দালাল বা মধ্যস্বত্বভোগীরা নিরাপদ অভিবাসনের অন্তরায়। তাদের পরিহার করুন।

শোনা যাচ্ছে কিছু অসাধু ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান প্রতারণামূলকভাবে প্রচারণা চালাচ্ছেন এবং সরকারি অনুমোদন ছাড়াই লোভনীয় বিজ্ঞাপন দিয়ে অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছেন। অনুমোদনবিহীন বিজ্ঞাপন, প্রতিষ্ঠান ও প্রতারকদের বিষয়ে সতর্ক থাকুন।

মালয়েশিয়ায় কর্মী প্রেরণের নামে অবৈধ ও আগাম লেনদেনে সম্পৃক্ত দায়ী রিক্রুটিং এজেন্সি বা তার প্রতিনিধি, ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে বৈদেশিক কর্মসংস্থান ও অভিবাসী আইন, ২০১৩-সহ সংশ্লিষ্ট আইন অনুযায়ী কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

প্রতারণা থেকে বাঁচতে সকল দেশের ক্ষেত্রে ব্যাংকের মাধ্যমে আর্থিক লেনদেন করবেন। অবশ্যই মানি রিসিপ্ট সংরক্ষণ করবেন। এছাড়া, মালয়েশিয়াসহ বিদেশ গমন সংক্রান্ত যেকোনও পরামর্শের জন্য নিকটস্থ জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিস বা কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।

প্রয়োজনে www.bmet.gov.bd ভিজিট করে বা ০৮০০০১০২০৩০ (টোল-ফ্রি) নম্বরে কল করে তথ্য ও পরামর্শ নেওয়া যাবে।


আরও খবর



গুঞ্জন উড়িয়ে দিলেন আনুশকা শর্মা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৬ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২ |
Image

দীর্ঘ বিরতির পর সম্প্রতি কাজে সরব হয়েছেন বলিউড অভিনেত্রী আনুশকা শর্মা। বর্তমানে ‘চাকদা এক্সেপ্রেস’ সিনেমার কাজ নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন তিনি। তবে সিনেমার খবরের বাইরে আবারও ব্যক্তিজীবন নিয়ে শিরোনামের এলেন এই অভিনেত্রী। সম্প্রতি স্বামী ক্রিকেটার বিরাট কোহলিকে নিয়ে মুম্বাইয়ের একটি হাসপাতালে যান আনুশকা। যা ফটোসাংবাদিকদের ক্যামেরায় ধরা পড়তে দেরি হয়নি। সেই ছবিগুলো প্রকাশ্যে আসতেই ভাইরাল হয় নেটদুনিয়ায়।

অনেকেই মন্তব্য করেন, আনুশকা আবারও ‘মা’ হতে চলেছেন। দ্বিতীয় সন্তানের জন্য শুভকামনা জানাতেও ভুল করেননি তাদের ভক্তরা। তবে বিষয়টি নিয়ে বিব্রত না হয়ে বেশ মজাই করছেন। কারণ হাসপাতালটিতে তারা একজন ফিজিওথেরাপিস্টের কাছে গিয়েছিলেন বলে জানিয়েছেন এই দম্পতি। তাছাড়া বিষয়টি যে, এমন একটি গুঞ্জনে রূপ নেবে সেই ধারণাও তাদের ছিল বলেন জানান।

অনেকেই মন্তব্য করেন, আনুশকা আবারও ‘মা’ হতে চলেছেন। দ্বিতীয় সন্তানের জন্য শুভকামনা জানাতেও ভুল করেননি তাদের ভক্তরা। তবে বিষয়টি নিয়ে বিব্রত না হয়ে বেশ মজাই করছেন। কারণ হাসপাতালটিতে তারা একজন ফিজিওথেরাপিস্টের কাছে গিয়েছিলেন বলে জানিয়েছেন এই দম্পতি। তাছাড়া বিষয়টি যে, এমন একটি গুঞ্জনে রূপ নেবে সেই ধারণাও তাদের ছিল বলেন জানান।


আরও খবর

শিশুদের সিনেমায় মিথিলা

শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২




লালমনিরহাটে পিতার খুনি পুত্রকে আটক করেছে সিআইডি

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধি ঃ

লালমনিহাট কালীগঞ্জ উপজেলায় বাবার কবিরাজি চিকিৎসার কারণে যৌন ক্ষমতা হারিয়েছে এমন ক্ষোভ থেকে নিজের পিতাকে খুন করেছিলেন জাহাঙ্গীর আলম । দীর্ঘ চার বছেরর তদন্ত শেষে ক্লুলেস এই হত্যা মামলাটির রহস্য উদঘাটন করে খুনিকে গ্রেফতার করেছে লালমনিরহাট সিআইডি।

বৃহস্পতিবার (২ জুন) দুপুরে লালমনিরহাট পুশিশ সুপারের কার্যালয়ের তৃতীয় তলায় জেলা সিআইডির সম্মেলন কক্ষে সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে জেলা (সিআইডির) অতিরিক্ত বিশেষ পুলিশ সুপার মোঃ ইসমাইল পিপিএম (বার) বলেন, ২০১৮ সালের ৩১ জুলাই কালিগঞ্জ উপজেলার নিথক অচিনতলা এলাকায় গভীর রাতে নিজ শয়নকক্ষে খুন হন গোলাম হোসেন(৪০)। তাকে ঘুমন্ত অবস্থায় গলায়, কাধে, ঘাড়ে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। নিহতের বড় ছেলের দায়ের করা মামলায় তদন্ত কাজ শুরু করলেও কোন রহস্য খুঁজে পাওয়া যায়না।দীর্ঘ চার বছরে ছয়জন তদন্তকারী কর্মকর্তা ক্লুলেস মামলাটির রহস্য উদঘাটন করতে পারেননি।

চলতি বছরের মার্চে ৭ম তদন্ত কারী কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব নেন সিআইডির উপ-পরিদর্শক (এসআই) জায়েদুল ইসলাম জাহিদ।দায়িত্ব নিয়ে এই মামলার আসামী নিহত গোলাম হোসেনের দ্বিতীয় ছেলে জাহাঙ্গীর আলমকে গত ১০ এপ্রিল আটক করে আদালতে সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করেন। আদালত দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করলে সুকৌশলী জিজ্ঞাসাবাদে তার পিতাকে হত্যার কথা স্বীকার করেন সে।

জাহাঙ্গীরের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, তার বাবা ২০০৯ সালের দিকে কবিরাজি চিকিৎসায় তার যৌন ক্ষমতা নষ্ট করে দেন। পরের বছর বিয়ে করলে বাসর ঘরে তিনি বুঝতে পারেন তার যৌন ক্ষমতা নাই। সেই থেকে স্ত্রীর সাথে এই বিষয়টি নিয়ে মনোমালিন্য শুরু হয়। দীর্ঘ আট বছরের সংসার জীবনে অক্ষমতা নিয়ে স্ত্রীর সাথে কলহ, বিরোধ লেগে থাকলে পিতার প্রতি ক্ষোভ তৈরি হতে থাকে। এক পর্যায়ে তাকে হত্যা করলে যৌন ক্ষমতা ফিরে পাবেন মনে করে পরিকল্পনা করতে থাকেন। ঘটনার দিন স্ত্রী ঢাকায় গার্মেন্টস এ থাকায় এবং হালকা বৃষ্টিতে রান্না ঘর থেকে দা নিয়ে গিয়ে তার বাবাকে কুপিয়ে হত্যা করেন। বাবার লাশ বাড়ির পাশে গর্ত করে লুকিয়ে ফেলার পরিকল্পনা করলেও পিতার গোঙানিতে বড় ভাই ও ভাবি আসলে তিনি আর মরদেহ লুকাতে পারেননি। পরক্ষনে সেখানেই তার মৃত্যু হয়।

এ বিষয়ে আদালতে ১৬৪ ধারায় আদালতে স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি দিয়েছেন খুনি বলেও সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।

সিআইডির এ সংবাদ সম্মেলনে লালমনিরহাট সিআইডির অতিরিক্ত বিশেষ পুলিশ সুপার ইসমাইল (পিপিএম বার) সিআইডি ইন্সপেক্টর মোঃ আজিমুদ্দিন,সাব-ইন্সপেক্টর জাহিদসহ প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



কন্টেইনার বিস্ফোরণ

২২ জনের মরদেহ হস্তান্তর : বাকি শনাক্তে চলছে ডিএনএ টেস্ট

প্রকাশিত:সোমবার ০৬ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

সীতাকুণ্ডের ভাটিয়ারিতে বিএম কনটেইনার ডিপোতে ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনায় নিহত ৪৯ জনের মধ্যে পরিচয় শনাক্ত হওয়া ২২ জনের মরদেহ তাদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। বাকিদের পরিচয় শনাক্তে ডিএনএ (ডিঅক্সিরাইবোনিউক্লিক অ্যাসিড) পরীক্ষা করা হবে।

সোমবার (৬ জুন) সকালে ২২ জনের মরদেহ চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গ থেকে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

চমেক হাসপাতালের সেবা তত্ত্বাবধায়ক বলেন, অজ্ঞাত মরদেহগুলোর চেহারা চেনা যাচ্ছে না। অনেক চেহারা পুড়ে প্রায় বিকৃত হয়ে গেছে। ফলে যাদের স্বজনরা এখনও নিখোঁজদের খুঁজছেন তারা হাসপাতাল প্রাঙ্গণে নির্ধারিত স্থানে যোগাযোগ করলে ডিএনএ পরীক্ষার জন্য নমুনা নেওয়া হবে।

ইতোমধ্যে চমেক হাসপাতাল এলাকায় মাইকিং করা হয়েছে, যাদের স্বজনের খোঁজ মিলেনি তারা যেন আজ সোমবার সকাল ৯টায় হাসপাতালে অবস্থান করেন। এরপর দাবিকৃত স্বজনদের ডিএনএ পরীক্ষা করার মাধ্যমে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের দফতরের এনডিসি তৌহিদুল ইসলাম জানান, লাশ হস্তান্তরের সময় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে স্বজনদের নগদ দুই লাখ টাকার চেক এবং দাফন-কাফনের যাবতীয় খরচ দেওয়া হচ্ছে। যাদের লাশ এখনও শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি তাদের স্বজনদের ডিএনএ নমুনা সংগ্রহ করা হচ্ছে।

গত শনিবার (৪ জুন) রাত ৯টার দিকে সীতাকুণ্ডের সোনাইছড়ি এলাকায় বিএম কনটেইনার ডিপোতে আগুন লাগে। আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করার সময় রাসায়নিক থাকা একটি কনটেইনারে বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে। ভয়াবহ এই অগ্নিকাণ্ডে এখন পর্যন্ত ৪৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন দুই শতাধিক।


আরও খবর