Logo
শিরোনাম
রাজবাড়ীতে ট্রাকের সাথে সংঘর্ষে মোটর সাইকেল আরোহীর মৃত্যু রাজবাড়ীতে আবৃত্তি ও কথামালায় প্রকাশনা উৎসব নওগাঁয় মোটরসাইকেলের ধাক্কায় স্কুল ছাত্র নিহত-মা ও ছোট বোন আহত মোরেলগঞ্জে শ্রমীকদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করলেন এমপি মিলন লালমনিরহাটে বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে মারাগেছে স্কুলছাত্র নওগাঁয় বোরো ধান চাষের শুরুতেই বিদ্যুতের লোড শেডিং, দুঃশ্চিন্তায় কৃষকরা নওগাঁয় ৩৫ কোটি টাকা মূল্যের কষ্টিপাথরের মূর্তি উদ্ধার করেছে পুলিশ কুড়িগ্রামের শীতকাতর অসহায় মানুষের পাশে কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেত্রকোনায় বিশ্ব জলাভূমি দিবস উপলক্ষে মানববন্ধন মোরেলগঞ্জে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দৈন্যদশা শিক্ষার্থী ৮ শিক্ষক ২

সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে ওয়ান স্টপ সার্ভিস

প্রকাশিত:Monday ২৩ January 20২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ওয়ান স্টপ ইমার্জেন্সি সার্ভিস চালুর পর থেকে রোগীদের মৃত্যুঝুঁকি কমতে শুরু করেছে। হাসপাতাল পরিচালক বলছেন, জরুরি রোগীর সেবায় ল্যাব সাপোর্ট, আলট্রাসনোগ্রাম, পোর্টেবল এক্সরেসহ প্রায় সব ধরনের সুবিধা রয়েছে। সেবা চলমান রাখতে চিকিৎসক, সেবিকা ও মেডিক্যাল টেকনোলজিস্ট প্রয়োজন।

সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ওয়ান স্টপ ইমার্জেন্সি সার্ভিস চালুর পর থেকে জরুরী রোগীদের ভীড় বেড়েই চলেছে ।

প্রথমে একজন রোগী এলেই শুরু হয় ডাটা এন্ট্রি।এরপর রোগের উপসর্গ ভেদে শুরু হয় চিকিৎসা।সামান্য রোগ নিয়ে আসা রোগীদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে বাড়ী ফেরত পাঠানো হয় ।আর, রোগী জটিল হলে শুরু হয় চুড়ান্ত চিকিৎসা।সহজে সেবা পেয়ে খুশি সাধারণ মানুস

সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক বলছেন, যে কোনও রোগী দিন-রাত ২৪ ঘণ্টা চিকিৎসা নিতে পারবেন। জরুরি রোগীর সেবায় অত্যাধুনিক ল্যাব সাপোর্ট, আলট্রাসনোগ্রাম, ইসিজি, পোর্টেবল এক্সরেসহ প্রায় সব ধরনের ডায়াগনস্টিক সুবিধা রয়েছে এই সার্ভিসে। প্রয়োজনে জরুরি অপারেশনের সুবিধাও মিলবে। আছে আইসিইউ সাপোর্টও।

পরিচালক বলছেন, এই মুহুর্তে জরুরী ভাবে হাসপাতালে রোগীর চাহিদা অনুযায়ী আরো বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক, সেবিকা ও স্বাস্থ্যকর্মী প্রয়োজন। সেই চাহিদা পত্র নিয়ে অধিদপ্তর ও মন্ত্রণালয়ে আলোচনা চলছে

 


আরও খবর



শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধূরী নওফেল

ছাত্রদের ছাত্রীদের সমান তালে এগিয়ে যেতে হবে-

প্রকাশিত:Friday ০৩ February ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

কুমিল্লা ব্যুরো :

শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধূরী নওফেল এমপি বলেছেন ছাত্রদের পাশাপাশি সমান তালে ছাত্রীদের এগিয়ে যেতে হবে, ছেলেদের সঙ্গে মেয়েদেরও বাস্তবিক শিক্ষা জরুরী

শুক্রবার বিকেলে কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার তুলাগাঁও মহিলা কলেজ পরিদর্শন ও মুজিব জন্মশতবর্ষ উদযাপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথাগুলো বলেন। 

তিনি আরো বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী মায়ের মত ১৭ কোটি মানুষকে আগলে রেখেছেন সাবেক খাদ্যমন্ত্রী একজন মহিলা ছিলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও মহিলা ছিলেন তিনারা মায়ের জায়গা থেকে আমাদেরকে খাদ্য স্বয়ংসম্পূর্ণ করেছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাদের জন্য এবং আমাদের পরবর্তী প্রজন্মের জন্য উন্নয়নের মহাসড়ক মাস্টার প্ল্যান করেছেন তা আস্তে আস্তে দৃশ্যমান হচ্ছে যেমন মেট্রোরেল কর্ণফুলী টানেল ইতিমধ্যেই আমরা পাতাল রেলের দিকে পা বাড়াচ্ছি। ছোটতুলাগাঁও মহিলা কলেজ উন্নয়নে সকল সহযোগিতা করার আশ্বাস প্রদান করেন।

বিশেষ অতিথি ছিলেন কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বরুড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাছিমুল আলম চৌধুরী নজরুল এমপি, অডিটের মহাহিসাব নিয়ন্ত্রক মুসলিম চৌধুরী, চট্রগ্রাম দক্ষিন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এম এ সালাম, কলেজ দাতা সদস্য ড. ইন্জিনিয়ার ফজলুর রহমান, কুমিল্লা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা (মাউশি) বিভাগের আঞ্চলিক কর্মকর্তা প্রফেসর সোমেশ কর চৌধুরী।

এই সময় আরো উপস্থিত ছিলেন বরুড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নাছির উদ্দীন লিংকন, বরুড়া পৌরসভার মেয়র মোঃ বক্তার হোসেন বখতিয়ার, বরুড়া উপজেলা (ভারপ্রাপ্ত) নির্বাহী অফিসার মোঃ মেহেদী হাসান, বরুড়া থানা অফিসার ইনচার্জ ইকবাল বাহার মজুমদার, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ সাইফুল ইসলাম সহ আরো অনেক নেতৃবৃন্দ। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ছোটতুলাগাঁও মহিলা কলেজ ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি তোফাজ্জল আলী মিয়া।

পরে বিকালে কলেজ অডিটিরিয়ামে সুধী সমাবেশ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এমপি।


আরও খবর



প্রশ্নফাঁসে ১০ বছর কারাদণ্ডের আইন পাস

প্রকাশিত:Tuesday ১৭ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Thursday ০২ February 2০২3 |
Image

বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন আইন-২০২৩ বিল’জাতীয় সংসদে পাস হয়েছে। পাবলিক সার্ভিস কমিশনের (পিএসসি) অধীনে কোনো পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁস করলে সর্বোচ্চ ১০ বছরের কারাদণ্ড এবং অর্থদণ্ডের বিধান রেখে সংসদে ‘বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন আইন-২০২৩ বিল’পাস হয়। এছাড়া ভুয়া পরিচয়ে অংশ নিলে ২ বছরের কারাদণ্ডের বিধান রেখে জাতীয় সংসদ একটি বিল পাস হয়েছে।

আইনে সরকারি চাকরির পরীক্ষাসংক্রান্ত বিভিন্ন অপরাধ ও তার সাজা নির্ধারণ করা হয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, কোনো ব্যক্তি পরীক্ষার্থী না হয়েও নিজেকে পরীক্ষার্থী হিসেবে হাজির করলে বা মিথ্যা তথ্য দিয়ে পরীক্ষার হলে প্রবেশ করলে বা অন্য কোনো ব্যক্তির নামে বা কোনো কল্পিত নামে পরীক্ষায় অংশ নিলে তা অপরাধ হিসেবে গণ্য হবে। এর শাস্তি সর্বোচ্চ ২ বছরের কারাদণ্ড বা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ড।

এর আগে বিলটির ওপর আনা জনমত যাচাই-বাছাই কমিটিতে পাঠানো হয় এবং সংশোধনীগুলো কণ্ঠভোটে নাকচ হয়ে যায়। তবে জাতীয় পার্টির এমপি ফখরুল ইমামের একটি সংশোধনী গ্রহণ করা হয়।

১৯৭৭ সালে প্রণীত বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশন অর্ডিন্যান্স রহিত করে নতুন এ আইন প্রণীত হয়েছে। বিলে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশন অর্ডিন্যান্সের অধীন প্রতিষ্ঠিত বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন এমনভাবে বহাল থাকবে, যেন এটি নতুন আইনের অধীন প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। একজন সভাপতি এবং ছয় থেকে সর্বোচ্চ ১৫ জন সদস্যের সমন্বয়ে কমিশন গঠিত হবে। কমিশন প্রজাতন্ত্রের জনবল নিয়োগের উদ্দেশে সংশ্লিষ্ট আইন ও বিধিবিধান সাপেক্ষে পরীক্ষা নেওয়ার পদ্ধতি ও শর্তাবলি নির্ধারণ করতে পারবে।

বিলে প্রশ্নপত্র ফাঁস সম্পর্কে বলা হয়েছে, কোনো ব্যক্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার আগে পরীক্ষার জন্য প্রণীত কোনো প্রশ্ন সংবলিত কাগজ বা তথ্য, পরীক্ষার জন্য প্রণীত হয়েছে বলে মিথ্যা ধারণাদায়ক কোনো প্রশ্ন সংবলিত কাগজ বা তথ্য অথবা পরীক্ষার জন্য প্রণীত প্রশ্নের সঙ্গে হুবহু মিল রয়েছে বলে বিবেচিত হওয়ার অভিপ্রায়ে কোনো প্রশ্ন সংবলিত কাগজ বা তথ্য যেকোনো উপায়ে ফাঁস, প্রকাশ বা বিতরণ করলে তা দণ্ডনীয় অপরাধ হিসেবে বিবেচিত হবে। এর শাস্তি সর্বোচ্চ ১০ বছরের কারাদণ্ড ও অর্থদণ্ড। এ অপরাধ আমলযোগ্য ও অজামিনযোগ্য হবে।


আরও খবর



সোনারগাঁয়ে মাসব্যাপী লোকজ মেলার উদ্বোধন করলেন ওবায়দুল কাদের

প্রকাশিত:Thursday ১৯ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Thursday ০২ February 2০২3 |
Image

সোনারগাঁ প্রতিনিধি :


সড়ক পরিবহন, সেতু মন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, অসুস্থ রাজনীতি করতে করতে ফখরুল সাহেবরা নিজেরাই অসুস্থ হয়ে গেছে। আগামী নির্বাচন পর্যন্ত যারাই দেশে আন্দোলনের নামে জান মালের ক্ষতি ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করবে তাদের উপযুক্ত জবাব দেওয়া হবে। জঙ্গীবাদ সাম্প্রদায়িকতা সংস্কৃতি ও আমাদের শত্রু। মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের সকল শক্তি একত্রিত হয়ে সকল অপশক্তির বিরুদ্ধে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে রুখে দাঁড়ানোর আহবান জানিয়েছেন।


আজ বুধবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে অবস্থিত বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশনের মাসব্যাপী লোকজ উৎসব উদ্বোধন কালে প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এসব কথা বলেন।


সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ এমপি'র সভাপতিত্বে আরও উপস্থিত ছিলেন,স্থানীয় সাংসদ ও জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা,ফাউন্ডেশনের পরিচালক এসএম রেজাউল করিম,সাবেক এমপি কায়সার হাসনাত,জেলা প্রশাসক মঞ্জুর হাফিজ প্রমূখ।


এবারের লোকজ মেলায় দেশীয় সংস্কৃতির পুনরুজ্জীবনে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ছড়িয়ে থাকা কারুশিল্পীদের প্রদর্শনী, লোক জীবন প্রদর্শনী, পুতুল নাচ, বায়স্কোপ, নাগর দোলা, গ্রামীন খেলা প্রদর্শন করা হবে। এ বছর কর্মরত কারুশিল্পীদের প্রদর্শনীর ৩২টি স্টল সহ ১০০টি স্টল রয়েছে। ফাউন্ডেশনের ভেতরে শিল্পাচার্য জয়নুল লোক ও কারুশিল্প যাদুঘর এবং লোক ও কারুশিল্প যাদুঘর। এ দুটি যাদুঘরে স্থান পেয়েছে প্রায় পাচঁ হাজার প্রাচীন লোক ও কারুশিল্প। লোক ও কারুশিল্প যাদুঘর এশিয়ার অন্যতম বৃহত্তম কারুশিল্প যাদুঘর। গ্রাম বাংলার ইতিহাস ও ঐতিহ্যের ধারক ও বাহক। 


এছাড়া এ বছর  মুন্সিগঞ্জ ও মৌলভী বাজারের শীতল পাটি, মাগুরা ও ঝিনাইদহের শোলা শিল্প, রাজশাহীর শখের হাড়ি ও মুখোশ। চট্টগ্রামের তালপাতার হাতপাখা, রংপুরের শতরঞ্জি, সোনারগাঁয়ের জামদানী, বগুড়ার লোকজ খেলনা, প্রতিদিন সন্ধ্যায় লোকজ মঞ্চে পালাগান, বাউল গান, জারিসারি গান, হাছন রাজার গান, গ্রামীন খেলা হা-ডু-ডু, কানামাছি খেলা অনুষ্ঠিত হবে।  যাদুঘরে রয়েছে গ্রামীন লোক জীবনের নানান উপাদান যেমন, কৃষক পরিবারের ঢেঁকিতে ধান ভানার দৃশ্য, লাঙ্গল কাধে মাঠে যাওয়া ও পালকিতে নববধুর আগমনের দৃশ্য পটচিত্র ও মুখোশ গ্যালারি নদী মাতৃক বাংলাদেশের সাম্পান আর বজরা সহ বৈচিত্রময় নৌকার মডেল। কাঠ খোদাইয়ের বিভিন্ন উপাদান পালকিতে জমিদার সহ গ্রাম বাংলার কারিগরদের নানা কারুশিল্প।


আগামী ১৬ ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত চলবে এ মেলা। 


আরও খবর



ধামরাইয়ে সরকারি কর্মকর্তাদের পারিবারিক মিলনমেলা

প্রকাশিত:Saturday ০৭ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Thursday ০২ February 2০২3 |
Image

মাহবুবুল আলম রিপন :


ঢাকার ধামরাইয়ের সরকারি কর্মকর্তা, কর্মচারী ও তাদের পরিবার নিয়ে মিলনমেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ধামরাই সরকারি চাকরিজীবী সমবায় সমিতি লি. এর উদ্যোগে এই মিলনমেলার আয়োজন করা হয়।

শুক্রবার (০৬ জানুয়ারি) সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত ধামরাইয়ের সানোড়া ইউনিয়নের মহিশাষী এলাকার মোহাম্মদী গার্ডেন এ মিলনমেলা অনুষ্ঠিত হয়।

এ সময় ধামরাই সরকারি চাকরিজীবী সমবায় সমিতি লি. এর সদস্যদের ছেলেমেয়ে ও স্ত্রীদের মাঝে ক্রীড়া প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।

ঢাকা জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (স্পেশাল ব্রাঞ্চ) মো. শহিদুল ইসলাম অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন।

সভাপতি তার বক্তব্যে বলেন, আজকের এই অনুষ্ঠানে ধামরাইয়ের কৃতি সন্তানরা একত্রিত হতে পেরেছেন। এই সমিতির মাধ্যমে ধামরাইয়ের উন্নয়ন হবে বলে তিনি আশা ব্যক্ত করেন। তিনি বলেন, একজন সরকারি কর্মকর্তা পারেন দেশকে উন্নত করতে। আমরা যারা সরকারের বিভিন্ন পদে কাজ করছি, যদি সঠিক ও সৎভাবে নিজেদের দায়িত্ব পালন করি তাহলে দেশটা খুব দ্রুত উন্নত হবে। তাই আমরা ক্ষুদ্র থেকে এই সমিতি গড়ে তুলছি।

তিনি আরোও বলেন, আশা করছি সামনের দিনগুলোতে ধামরাইয়ের আরো যারা সরকারি কর্মকর্তা আছেন, তাদের অনেককেই আমরা আমাদের এ সমিতির সদস্য করতে পারবো এবং ধামরাইয়ে উন্নয়নের অংশীদার হতে পারবো। সবসময় আমাদের এই সমিতির মাধ্যমে আমরা মানুষের পাশে থাকবো।

জানা যায়, সরকারি চাকরিজীবী সমবায় সমিতির মাধ্যমে এলাকার অসহায় দরিদ্র শিক্ষার্থীদের পড়ালেখার খরচ বহন করা হয়। করোনা ও বন্যার সময় শত শত মানুষের মাঝে ত্রাণসামগ্রী দেয়া হয়। এবার শীতের সময় অসহায় মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়। ২০১২ সালে এই সমিতির যাত্রা শুরু এবং ২০১৮ সনে সমিতির নিবন্ধন করা হয়।

এ সময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, ওডিসি ক্রাফট প্রাঃ লিঃ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবুবকর সিদ্দিক খান রিপন, এশিয়ান কনজিউমার কেয়ার প্রাইভেট লিঃ এর ডাবার এর ফ্যাক্টরি ম্যানেজার নুর হোসাইন, সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোঃ আলী হোসেন, ধামরাই প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মোঃ আনিস উর রহমান স্বপন, ধামরাই রিপোর্টার্স ক্লাবের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রাজিউল হাসান পলাশ, ধামরাই সরকারি চাকরিজীবী সমবায় সমিতি লিঃ এর সকল সদস্যবৃন্দ।


আরও খবর



এ বছর হজে যেতে পারবেন গত বছরের দ্বিগুণ

প্রকাশিত:Monday ০৯ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ফরিদুল হক খান জানিয়েছেন, ২০২৩ সালে দেশের সম্ভাব্য হজযাত্রীর কোটা ১ লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন। ২০০৯ সালে এ হজযাত্রীর সংখ্যা ছিল ৫৮ হাজার ৬২৮ জন।

রবিবার জাতীয় সংসদে প্রশ্নোত্তোর পর্বে এম আব্দুল লতিফের এক প্রশ্নের উত্তরে প্রতিমন্ত্রী এ তথ্য জানান।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী সংসদ অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন।

প্রশ্নের উত্তরে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী বলেন, ২০০৯ সালে হজযাত্রীর সংখ্যা ছিল ৫৮ হাজার ৬২৮ জন, ২০১৯ সালে বেড়ে হয় এক লাখ ২৬ হাজার ৯২৩ জন। কিন্তু করোনা পরিস্থিতির কারণে ২০২২ সালে হজযাত্রীর সংখ্যা কমে দাড়ায় ৬০ হাজার ১৪৬ জনে।

তিনি আরও বলেন, চলতি ২০২৩ সালে হজযাত্রীর সম্ভাব্য কোটা বেড়ে হচ্ছে ১ লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন। ২০০৯ এর তুলনায় এই সংখ্যা ১৪৮ শতাংশ বেশি। এটি সরকারের সাফল্যের একটি মাইলফলক।


আরও খবর

বিশ্ব ইজতেমা শুরু

Friday ১৩ January ২০২৩