Logo
শিরোনাম
বিডিটুডেস এ সংবাদ প্রকাশের পর

শ্রীনগরে গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের জায়গা পরির্দশন সংশ্লিষ্টদের

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৬ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

 শ্রীনগর (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ

সংবাদ প্রকাশের পর গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের উপ বিভাগীয় মুন্সীগঞ্জ জেলার প্রকৌশলী শ্রীনগরে ভরাটকৃত ওই জায়গা পরির্দশন করেছেন।

বৃহস্পতিবার বিকালে শ্রীনগর-দোহার সড়কের পাটাভোগ ইউনিয়নের কুশুরীপাড়া মিল্কভিটা অফিস সংলগ্ন গণপূর্তের জায়গাটি পরির্দশন করেন সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলী নাজমুল হাসান হিরা। এর আগে 

গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের আনুমানিক ৫০ কোটি টাকা বাজার 

মূল্যের একটি জলাশয়টি মাটি ভরাট করে একটি প্রভাবশালী 

ভূমি সিন্ডিকেট চক্র। জেলা পরিষদ থেকে লিজ আনার দাবী করে 

রাতের আধারে ভরাট কাজ করছিল সিন্ডিকেট মহলটি। এনিয়ে 

গত ২৫ মে বিডিটুডেস সহ বিভিন্ন দৈনিক পত্রিকা অনলাইন পোর্টালে 

“শ্রীনগরে গণপূর্তের ৫ কোটি টাকার জায়গা লিজ দিল 

জেলা পরিষদ” শিরোনামে সচিত্র সংবাদ প্রকাশিত হলে 

সংশ্লিষ্টদের নজরে আসে। এরই ধারাবাহিকতায় সংশ্লিষ্ট দপ্তরের 

একটি টিম ঘটনাস্থল পরির্দশন করেন। গণমন্ত্রণালয়ের মুন্সীগঞ্জ 

উপ বিভাগীয় প্রকৌশলী নাজমুল হাসান হিরা সাংবাদিকদের 

বলেন, প্রকাশিত সংবাদ দেখে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে 

সরেজমিন এসে জায়গা পরির্দশন করেছি। এখন স্থানীয় ভুমি 

কর্মকর্তার অফিসে যাচ্ছি। সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা সাথে 

আলোচনা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। উল্লেখ্য, শ্রীনগর উপজেলার বেজগাঁও এলাকার প্রভাবশালী ভ‚মি সিন্ডিকেট চক্রের মূলহোতা ভ‚মিদস্যু দেলোয়ার হোসেন ওরফে হোটেল দেলোয়ারের নেতৃতে গণপূর্ত নগর উন্নয়ন মন্ত্রণালয়ের জায়গাটি বালুভরাট করা হয়। জানা যায়, বাংলাদেশ 

সরকারের পক্ষে গনপূর্ত নগর উন্নয়ন মন্ত্রণালয়ের নামে আরএস ২নং খতিয়ানের ৭০ ও ৯১নং দাগের ২ একর ২২ শতাংশ জায়গারেকর্ড রয়েছে। অথচ প্রভাবশালী শক্তিশালী সিন্ডিকেট মহলটি রহস্যজনক জেলা পরিষদ থেকে লিজ এনে জায়গাটি মাটি ভরাট শুরু করে।


আরও খবর



ডাকাতের ছুরিকাঘাতে মারা গেছেন ৭০ বছর বয়সী বৃদ্ধ

প্রকাশিত:সোমবার ২০ জুন ২০22 | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

বুলবুল আহমেদ সোহেল নারায়ণগঞ্জঃ

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে ডাকাতের ছুরিকাঘাতে মারা গেছেন ৭০ বছর বয়সী বৃদ্ধ মো. রফিকুল ইসলাম।  সোমবার ভোররাত সাড়ে ৩টার দিকে রূপগঞ্জের বালিয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত রফিকুল ইসলামের স্ত্রী রুপালি বেগম বলেন, আমার তিন ছেলেই ঢাকায় থাকে। আমি ও আমার স্বামী বাসায় ছিলাম। সোমবার ভোর রাতে সাড়ে তিনটার দিকে ৪/ ৫ জনের একটি ডাকাত দল বাসায় প্রবেশ করে। অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে স্বর্ণালঙ্কার, টাকা-পয়সা লুট করার চেষ্টা করে। এসময় রফিকুল ইসলাম তাদের প্রতিরোধে করার চেষ্টা করলে ও আর্তচিৎকার করলে ডাকাত দলের সদস্যরা তাকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। তাকে চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। 

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ (পরিদর্শক) মো. বাচ্চু মিয়া জানান, ময়নাতদন্তের জন্য রফিকুলের মরদেহ ঢামেক হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট থানার কর্মকর্তাকে জানানো হয়েছে।


আরও খবর



ক্যারিবীয়দের দরকার ৩৫ রান, বাংলাদেশের ৭ উইকেট

প্রকাশিত:রবিবার ১৯ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

ইয়াশফি রহমান :  অ্যান্টিগা টেস্ট যে পাঁচ দিনে গড়াচ্ছে না, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। তৃতীয় দিন শেষে ম্যাচ জয়ের জন্য ওয়েস্ট ইন্ডিজের দরকার মাত্র ৩৫ রান। সামনে দুই দিন, ক্যারিবীয়দের হাতে আছে সাত উইকেট। বাংলাদেশ কি পারবে ৩৫ রান তোলার আগেই ৭ উইকেট তুলে নিতে? সেই সম্ভাবনা একেবারেই কম।

শনিবার (১৮ জুন) দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশ দল ২৪৫ রানে গুটিয়ে যায়। এরপর ওয়েস্ট ইন্ডিজ ব্যাটিংয়ে নেমে ৪৯ রানে তিন উইকেট হারালেও অ্যান্টিগা টেস্ট জয়ের আশা তাদেরই। কারণ সামনে পুরো দুই দিন। আর ৩৫ রান তুলতে তাদের হাতে আছে সাত উইকেট।

ফলে অ্যান্টিগা টেস্ট যে চতুর্থ দিনেই শেষ হচ্ছে, তা বলাই যায়। একই সঙ্গে সাকিব আল হাসানদের এই টেস্টে জয়ের যে ন্যূনতম সম্ভাবনা নেই, তা বললেও ভুল হবে না। তবে বাংলাদেশ দলের জন্য এটিই শান্তনা যে, ইনিংস ব্যবধানে হারের শঙ্কা এড়ানো গেছে। বাংলাদেশ টেস্ট দলে মুমিনুল অধ্যায় শেষ হওয়ার পর সাকিব আল হাসানের তৃতীয় অধ্যায়ের শুরুটা সে অর্থে ভালো হয়নি। সাকিবের অধিনায়কত্বের প্রত্যাবর্তনে অ্যান্টিগায় নিজেদের প্রথম ইনিংসে মাত্র ১০৩ রানে গুটিয়ে যায় বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট হাতে খানিক লড়াই করে উইন্ডিজের সামনে ৮৪ রানের লক্ষ্য দিয়েছে টাইগাররা। অথচ এমন ম্যাচেও শেষদিকে উত্তেজনা ছড়িয়েছে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা।

লক্ষ্যটা মাত্র ৮৪ রানের। অথচ এই টার্গেটকেই ক্যারিবীয় ব্যাটসম্যানদের সামনে যেন পাহাড়সম বানিয়ে দিয়েছেন সফরকারী পেসাররা। ম্যাচের তৃতীয় দিনের শেষ সেশনের শেষ ঘণ্টায় ব্যাট করতে নামা স্বাগতিকদের একপাশ থেকে চেপে ধরেন মুস্তাফিজুর রহমান। অন্যপাশ দিয়ে টপ অর্ডার ধসিয়ে দেন খালেদ আহমেদ। দিনের খেলা শেষে ৩ উইকেট হারিয়ে ৪৯ রান তুলেছে উইন্ডিজ।

জয়ের জন্য বাংলাদেশ দলের প্রয়োজন আর ৭ উইকেট। উইন্ডিজের দরকার ৩৫ রান। জার্মেইন ব্ল্যাকউড ৩৬ বলে ১৭ এবং জন ক্যাম্পবেল ৪২ বলে ২৮ রানে রোববার ম্যাচের চতুর্থ দিন শুরু করবেন।

উইন্ডিজের ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে বল হাতে আসেন খালেদ। ওভারের প্রথম বলটি ব্যাক অব লেন্থের, বেরিয়ে যাচ্ছিল লেগ সাইড দিয়ে। খেলতে গিয়ে ভুল করে বসেন ওপেনার ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট। ব্যাটের কানায় লেগে যায় উইকেটের পেছনে। বাঁদিকে ঝাঁপিয়ে পড়ে তালুবন্দি করলেন নুরুল হাসান সোহান। ২ বলে ১ রান করেন উইন্ডিজ অধিনায়ক।

একই ওভারে দ্বিতীয় আঘাত খালেদের। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে ক্রিজে এসেই দ্বিতীয় বলে দৌড়ে দুই নেন রেমন রেইফার। পরের বলে ডট দিয়ে ধরা পড়েন খালেদের পঞ্চম বলে। ব্যাক অব লেন্থের এক্সট্রা বাউন্স বল। রেইফার ছেড়ে দিতে চেয়েছিলেন। কিন্তু দেরি করে ফেলেন। তার গ্লাভসে লেগে বল যায় উইকেটের পেছনে। সোহান ধরতে ভুল করেননি। ৪ বলে ২ রান নেন রেইফার। উইন্ডিজ ৩ রানে ২ উইকেট হারায়।

নিজের করা তার পরেই ওভারে আবার সাফল্য পান খালেদ। খালেদের আগের বলটি বোনারের ব্যাট ঘেঁষে যায়। জোরালো আবেদনে সাড়া দেননি আম্পায়ার। বাংলাদেশ চ্যালেঞ্জ জানায়। কিন্তু ব্যাটে না লাগায় রিভিউ হারায়। এক বল পরেই বলের লাইন মিস করে বোল্ড হন বোনার। ৬ বলে শূন্য রানে ফেরেন এই ব্যাটসম্যান। খালেদের তিনে তিন!

এরপর দলকে চাপমুক্ত করার দায়িত্ব নেন ক্যাম্পবেল আর ব্ল্যাকউড। তাতে কিছুটা সফলই বলতে হবে তাদের। স্বাগতিকদের আর কোনো বিপদে পড়তে দেননি দুজন। অবিচ্ছেদ্য ৪০ রানের পার্টনারশিপে তৃতীয় দিন শেষ করেছেন তারা। যেখানে ৩ উইকেট হারিয়ে ৪৯ রান করেছে উইন্ডিজ।

ম্যাচের চতুর্থ দিনের শুরুতেই গলার কাটা হয়ে বিঁধে থাকা এই জুটি ফেরাতে পারলে ম্যাচের ভাগ্য বদলে দিতে পারবে বাংলাদেশ দল। আপাতত সেই রোমাঞ্চের অপেক্ষায় ক্রিকেট সমর্থকরা।


আরও খবর



কুমিল্লার মনোহরগঞ্জের বিপুলাসার ইউনিয়নের

চেয়ারম্যান ইকবালের বিরুদ্ধে প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার জিডি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

কুমিল্লা জেলা  প্রতিনিধি ঃ

কুমিল্লার মনোহরগঞ্জের বিপুলাসার ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদের বিরুদ্ধে থানায় জিডি করেছেন উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) মোঃ ওয়াসিম। সরেজমিন পরিদর্শনকালে ইউনিয়নের সাইকচাইল এলাকায় রাস্তা তৈরিতে নিম্ন মানের সামগ্রী ব্যবহারে মিস্ত্রীকে নিষেধ করায় করায় এ কর্মকর্তাকে দুর্ব্যবহারসহ ঐ এলাকায় ভবিষ্যতে না যাওয়ার হুমকি দেন চেয়ারম্যান। এ ঘটনায় জিডি করেন পিআইও।

জিডি ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ইতিপূর্বে নিষেধ করার পরও রাস্তা নির্মানে নিম্ন মানের সামগ্রী ব্যবহার করা হচ্ছিল। গত ৮ জুন পিআইও মোঃ ওয়াসিম এবং উপ-সহকারী প্রকৌশলী সুলতান মাহমুদ 'সাইকচাইল দক্ষিণ পাড়া রাস্তা থেকে লোকমানের বাড়ি পর্যন্ত ৫০০ মিটার এইচবিবি করন' প্রকল্প পরিদর্শনে যান। এ সময় রাস্তায় নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহারের বিষয়ে মিস্ত্রীকে জিজ্ঞেস করলে মিস্ত্রী কোন সদুত্তর দিতে পারেনি। তখন সিডিউল অনুযায়ী গুনগত মানসম্পন্ন মালামাল ব্যবহারের নির্দেশ দেন পিআইও। কিছুক্ষণ পর ইউপি চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ ঘটনাস্থলে গিয়ে কর্মকর্তাদের সাথে দুর্ব্যবহার করেন এবং ভবিষ্যতে ঐ ইউনিয়নে না যাওয়ার হুমকি দেন। আর গেলে অপ্রীতিকর ঘটনারও হুমকি-ধমকি দেন। খারাপ আচরণের কারণ জানতে চাইলে চেয়ারম্যান তার লোকজন নিয়ে দুই কর্মকর্তাকে মারধর করার জন্য এগিয়ে আসে। অবস্থা বেগতিক দেখে কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন।

এ ব্যাপারে বিপুলাসার ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ জানান, এটা ভুল বোঝাবুঝি ছিল। কর্মকর্তাদেরকে চিনতে না পারায় সাইডের লোকজনের সাথে তাদের কথা কাটাকাটি হয়। পরে উপজেলা নেতৃবৃন্দের মধ্যস্থতায় ঘটনাটি মিমাংসা হয়েছে।

এ বিষয়ে মনোহরগঞ্জ থানার ওসি শফিউল ইসলাম জানান, নাথেরপেটুয়া তদন্ত কেন্দ্রের আইসি জিডি'টি তদন্ত করছেন।

নাথেরপেটুয়া তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ জাফর ইকবাল জানান, ঘটনাটি মিমাংসার জন্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা দায়িত্ব নিয়েছেন।

কুমিল্লার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার ( লাকসাম, মনোহরগঞ্জ সার্কেল) মোঃ মুহিতুল ইসলাম জানান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ঘটনাটি মিমাংসা করেছেন। এটি ভুল বোঝাবুঝি ছিল।


আরও খবর



নারায়ণগঞ্জের কারাগারে হাজতির মৃত্যু

প্রকাশিত:শনিবার ১৮ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

বুলবুল আহমেদ সোহেল নারায়ণগঞ্জঃ

নারায়ণগঞ্জ কারাগারে রাসেল মিয়া (৩৫) নামে মাদক মামলার এক হাজতির মৃত্যু হয়েছে। শনিবার সকাল অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুপুরে তার মৃত্যু হয়। রাসেল মিয়া ফতুল্লার পশ্চিম দেওভোগ এলাকার আঃ মান্নান মিয়ার ছেলে।

সত্যতা নিশ্চিত করে নারায়ণগঞ্জ জেলা কারাগারের জেল সুপার মাহবুব আলম জানান, দুই দিন আগে ফতুল্লা থানার একটি মাদক মামলায় রাসেলকে আদালত কারাগারে প্রেরন করেন। যেদিন তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে সেদিনই সে অসুস্থ ছিলেন। মাদকাসক্তির কারনে শ্বাসকষ্ট বেড়ে গিয়ে ছিল। এজন্য তাকে কারাগারের হাসপাতালে রাখা হয়েছিল। শনিবার সকালে তার অবস্থা আরো খারাপ হলে জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়েছে। এবিষয়ে আইনগত পক্রিয়া শেষে পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হবে। 


আরও খবর



বাংলাদেশে ঢুকতে পারছে না গম বহনকারী ৬ হাজার ট্রাক

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী ভারতীয় অংশে আটকে রয়েছে গম বোঝাই ৬ হাজার ট্রাক। গত ১৪ মে থেকে দেশটির পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের বিভিন্ন স্থলবন্দরে এসব ট্রাক আটকে রয়েছে। দেশটির ডিরেক্টরেট জেনারেল অব ফরেন ট্রেড (ডিজিএফটি) থেকে রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেট (আরসি) বা ছাড়পত্র না পাওয়ায় বাংলাদেশে ঢুকতে পারছে না গম বহনকারী এসব ট্রাক।

মঙ্গলবার (৭ জুন) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম দ্য ইকোনোমিক টাইমস। এতে বলা হয়, ডিরেক্টরেট জেনারেল অব ফরেন ট্রেড (ডিজিএফটি) গত ১৩ মে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করে।

সেই প্রজ্ঞাপনে ভারত থেকে অবিলম্বে গম রপ্তানি নিষিদ্ধ করা হয়। মূলত ইউক্রেনে রাশিয়ার চলমান আগ্রাসন এবং স্থানীয় বাজারে মূল্যবৃদ্ধি নিয়ন্ত্রণের পরিপ্রেক্ষিতে এই নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছিল। কারণ এই যুদ্ধের কারণে বিশ্বব্যাপী গম সরবরাহ ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

অবশ্য ডিজিএফটি গম রপ্তানি বন্ধ ঘোষণা করলেও ভারতের সরকারি নির্দেশনায় জানানো হয়, গত ১৩ তারিখের আগে যেসব ঋণপত্র বা এলসি ইস্যু করা হয়েছে, সেগুলো যথাসময়ে রপ্তানি করা হবে। তবে এরপরও ১৩ মের আগে চালান সম্পন্ন হওয়া বা অর্থ পরিশোধ করা গম বাংলাদেশে প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে না।

ইকোনোমিক টাইমস বলছে, ১৩ তারিখের আগে যেসব ঋণপত্র বা এলসি ইস্যু করা হয়েছে সেগুলো সীমান্ত পার হতে বাধা নেই বলে জানানো হলেও এখন বলা হচ্ছে- রপ্তানির জন্য ডিজিএফটি’র ছাড়পত্র প্রয়োজন। আর এতেই সময় লাগছে কারণ রপ্তানিকারকরা যেন এলসি’র ব্যাক-ডেট না করতে পারে, সেটিই নিশ্চিত করার চেষ্টা করছে কর্তৃপক্ষ।

বাণিজ্য সূত্র জানিয়েছে, বাংলাদেশ প্রবেশের জন্য সীমান্তে অপেক্ষারত ট্রাকগুলোর বেশিরভাগই ছোট ব্যবসায়ীদের। অন্যদিকে কান্দলা বন্দরে কয়েকটি বড় কোম্পানির ব্যবসায়ীদের বিপুল পরিমাণ গম আটকে রয়েছে।

কনফেডারেশন অব ওয়েস্ট বেঙ্গল ট্রেড অ্যাসোসিয়েশনের তথ্য অনুযায়ী, বাংলাদেশে প্রবেশের জন্য প্রায় ৬ হাজার ট্রাক, ১০-১২টি রেলওয়ে রেক এবং ১০-১২টি বার্জ/জাহাজ কলকাতা বন্দরে আটকা পড়ে আছে। ব্যবসায়ী ও রপ্তানিকারকদের মোটামুটি অনুমান, প্রায় ২ লাখ থেকে ৩ লাখ টন গমের চালানে প্রকৃত এলসি থাকতে পারে।

ভারতের একটি আন্তর্জাতিক বাণিজ্য সংস্থার চেয়ারম্যান বিমল বেনগানি বলছেন, ‘গম রপ্তানির নিবন্ধন সনদ বা ছাড়পত্রের জন্য পূর্বাঞ্চল থেকে প্রায় ১২০০টি আবেদন অনলাইনে ডিজিএফটিতে জমা পড়েছে। অন্যদিকে এতোগুলো আবেদনের বিপরীতে গত ২ জুন পর্যন্ত বেশ কয়েকটি রপ্তানিকারককে প্রায় ২০০টি আরসি ইস্যু করেছে সংস্থাটি। কিন্তু আবেদনের অনেকগুলোই এখনও আটকে রয়েছে।’ তিনি বলেন, রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেট বা আরসি পেতে দেরি হওয়ায় অনেক রপ্তানিকারক লোকসানে পড়েছেন।

এর আগে গত ২ জুন এক প্রতিবেদনে আরেক ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টেলিগ্রাফ ইন্ডিয়া জানিয়েছিল, বাংলাদেশে প্রবেশের অপেক্ষায় পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের বিভিন্ন স্থলবন্দরে আটকে থাকা গমের পরিমাণ প্রায় চার লাখ টন।

এছাড়া সীমান্তে গম আটকে থাকায় সম্ভাব্য ক্ষতির মুখে পড়ার আশঙ্কা করেছেন ভারতীয় রপ্তানিকারকরা। তাদের আশঙ্কা, গম পরিবহনে বিলম্ব হলে বৃষ্টির কারণে প্রয়োজনীয় এই শস্য পচে যেতে শুরু করবে এবং এতে করে তারা কোটি কোটি রুপি ক্ষতির সম্মুখীন হবেন।


আরও খবর

ছোট ও মাঝারি গরুর দাম বেশি

শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২