Logo
শিরোনাম
রাজবাড়ীতে ট্রাকের সাথে সংঘর্ষে মোটর সাইকেল আরোহীর মৃত্যু রাজবাড়ীতে আবৃত্তি ও কথামালায় প্রকাশনা উৎসব নওগাঁয় মোটরসাইকেলের ধাক্কায় স্কুল ছাত্র নিহত-মা ও ছোট বোন আহত মোরেলগঞ্জে শ্রমীকদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করলেন এমপি মিলন লালমনিরহাটে বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে মারাগেছে স্কুলছাত্র নওগাঁয় বোরো ধান চাষের শুরুতেই বিদ্যুতের লোড শেডিং, দুঃশ্চিন্তায় কৃষকরা নওগাঁয় ৩৫ কোটি টাকা মূল্যের কষ্টিপাথরের মূর্তি উদ্ধার করেছে পুলিশ কুড়িগ্রামের শীতকাতর অসহায় মানুষের পাশে কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেত্রকোনায় বিশ্ব জলাভূমি দিবস উপলক্ষে মানববন্ধন মোরেলগঞ্জে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দৈন্যদশা শিক্ষার্থী ৮ শিক্ষক ২

শুস্বাগতম ২০২৩

প্রকাশিত:Sunday ০১ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

মাজহারুল ইসলাম মাসুম :

শুস্বাগতম ২০২৩। জীবনের গতিপ্রবাহকে বাঁধ দিয়ে ভবিষ্যৎ স্রোতকে রুদ্ধ করা যায় না। সময় ও স্রোতের মতো জীবনটাও ঠিক তেমনই সতত চলমান। জীবনের শেষ গন্তব্য মৃত্যু। তার আগে সর্বাবস্থায় জীবনের স্পন্দন অনুভব করা যায়। জীবনের শেষবিন্দু মৃত্যু পর্যন্ত পৌঁছানোর আগে জীবনঘড়ি টিক টিক চলতেই থাকে।

২০১৯ থেকে মানবসভ্যতা এক কঠিন সময় পাড়ি দিয়ে চলেছে। বৈশ্বিক ক্রান্তিকাল। কখনো মহামারি করোনা। লাখ লাখ মানুষের মৃত্যু। করোনার ধাক্কা শেষ হতে না হতেই যুদ্ধের ধাক্কা। রাশিয়া-ইউক্রেন আঞ্চলিক যুদ্ধ। কিন্তু বৈশ্বিক প্রভাব সারা দুনিয়ায়। রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের প্রভাবে সমগ্র বিশ্ব টালমাটাল।

বিদায়ী বছরের প্রাপ্তি এবং নতুন বছরের সম্ভাবনা নিয়ে আরো কিছু কথা বলার আগে ইংরেজি নববর্ষ উদযাপনের ইতিহাসটায় সংক্ষেপে একটু চোখ বুলিয়ে নেয়া যেতে পারে। যারা নিউইয়র্কে বসবাস করে, বিশেষভাবে তারা ৩১ ডিসেম্বর পুরোনো বছরকে বিদায় জানিয়ে নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে হাজার হাজার নারী-পুরুষ মধ্যরাতে সমবেত হয় ঐতিহাসিক টাইমস স্কয়ারে। সেখানে রাত ঠিক ১২টা ১ মিনিটে আপেল পতনের দৃশ্য অবলোকন করা আমেরিকার একটি প্রাচীন ঐতিহ্য। নতুন বছরকে স্বাগত জানানো শুরু হয় এই আপেল পতন উৎসবের মধ্য দিয়ে। সমবেত সবাই হাতে হাত ধরে নববর্ষের সংগীত গাইতে গাইতে চোখের পলক না ফেলে দেখতে থাকে আপেল পতন। সেকেন্ডের কাঁটা ১২টা স্পর্শ করার সঙ্গে সঙ্গে হর্ষধ্বনি দিয়ে সবাই ২০২২-কে বিদায় জানিয়ে বরণ করে নেবে ২০২৩-কে।

মানুষ আসলে অতীতের সব আবর্জনা জ্বালিয়ে-পুড়িয়ে সামনের সম্ভাবনাকে ধরতে চায়। মানুষ স্বপ্ন দেখে ভবিষ্যতের। কোনো মানুষেরই সব স্বপ্ন-সাধ ফেলে আসা বছরে পূরণ হয় না। অপূর্ণ স্বপ্ন, অপূর্ণ বাসনা-অপ্রাপ্তি সব সে পূরণ করতে চায় ভবিষ্যৎকে সামনে রেখে। অনাগত দিন মানুষকে সতত আশাবাদী করে রাখে।

সে কারণেই নববর্ষ বরণে মানুষের মধ্যে এত উচ্ছ্বাস-উৎসবের আনন্দ। এত রীতিনীতি। দেশে দেশে আচার অনুষ্ঠানে নানা বৈচিত্র্য। ১ জানুয়ারি বিশ্বের অধিকাংশ দেশে নববর্ষ উদযাপিত হলেও সব দেশে উদযাপিত হয় না। অধিকাংশ দেশ যারা ১ জানুয়ারি নববর্ষ উদযাপন করে, তারা মডার্ন গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডার মেনে চলে। তবে এর ব্যতিক্রম আছে। ১০ মাসেও বছর আছে। রোমান ক্যালেন্ডারে ১০ মাসে বছর এবং সে বছর শুরু হয় মার্চ থেকে। ১ জানুয়ারি থেকে যে বর্ষ গণনা শুরু হয়, সেটিই বিশ্বের প্রাচীনতম এবং সর্বজনীনভাবে উদযাপিত উৎসব। জুলিয়ান ক্যালেন্ডারেও ১ জানুয়ারি নববর্ষ উদযাপিত হয়।

ইংরেজি নববর্ষ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এখন এমন বর্ণাঢ্য রূপ এবং বিশাল কলেবরে উদযাপিত হয় যে, তাদের নিজস্ব নববর্ষের উদযাপনও এর কাছে ম্লান হয়ে যায়। বাংলাদেশেও এর ব্যতিক্রম দেখা যায় না। ইংরেজি নববর্ষের হুল্লোড় ঠেকাতে বাংলাদেশে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে অনেক রকম ব্যবস্থা নিতে হয়। অনেক অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটার কথাও শোনা যায়। প্রবাসেও বাঙালি কমিউনিটিকে প্রতিবার ইংরেজি নববর্ষের উৎসবে মেতে উঠতে দেখা যায়। বিশ্বজুড়ে আমেরিকার সাংস্কৃতিক আধিপত্য যে এখনো অটুট, তা দেশে দেশে ইংরেজি নববর্ষ উদযাপনের আতিশয্য দেখেই অনুভব করা যায়। গ্লোবাল ভিলেজের মোড়ল যুক্তরাষ্ট্র এখনো তার প্রভাব বহাল রেখেছে যেমন, বিশ্বে সাংস্কৃতিক আধিপত্যও যুক্তরাষ্ট্রের হাতেই রয়েছে।

বাংলাদেশ এবার নববর্ষ উদযাপন করছে বিশেষ রাজনৈতিক উত্তাপের মধ্য দিয়ে। ২০২৪-এর জানুয়ারির শুরুতেই জাতীয় সাধারণ নির্বাচন। সেই নির্বাচন ঘিরেই এই উত্তেজনা। বাংলাদেশের মানুষ জানে না, তারা ২০২২-এর মতো ২০২৩-কে বিদায় জানাতে পারবে কি না। বাংলাদেশে একটি প্রবাদ আছে, ‘যায় দিন ভালো, আসে দিন খারাপ।আমরা যে দিনটাকে বিদায় জানিয়ে যে দিনকে বরণ করে নিই, সে দিনটি বিদায়ী দিনের চেয়ে ভালো হয় না। অর্থাৎ আমরা ক্রমাগতভাবে খারাপের দিকে এগিয়ে যাচ্ছি। আমরা সবাই সামনে এগিয়ে যেতে চাই। কিন্তু ক্রমাগতভাবে যেন পিছিয়েই যাচ্ছি। যারা আমরা মানুষকে ভালোর প্রতিশ্রুতি দিই, অঙ্গীকার করি, তারাও কেন যেন নিজেদের প্রতিশ্রুতি শেষ পর্যন্ত রক্ষা করার সাফল্য অর্জন করতে পারি না।

কে জানে এই ব্যর্থতার জন্য দায়ী আজকের সময়ে উৎসবও মুনাফার অংশ হয়ে গেছে কি না! এখন সব উৎসবই অর্থনীতিতে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখছে। তাই নির্মল আনন্দের জায়গা নিয়ে নিচ্ছে অর্থনীতি। শত শত কোটি টাকা বিনিয়োগ করছেন ব্যবসায়ীরা মুনাফার আশায়। সে কারণে তাদের উৎসবের চেয়ে বাণিজ্যের দিকে বেশি লক্ষ রাখতে হয়। তবে সবাই প্রত্যাশা করে অর্থনীতি ও বিনোদনের মধ্যে একটা ভারসাম্য রক্ষা পাক। মানুষ আনন্দ লাভ করুক। ব্যবসায়ীরাও বাণিজ্যে লাভবান হোক।


লেখক :

সিনিয়র সাংবাদিক, লেখক,ও গবেষক ( সিনিয়র বার্তা প্রয়োজক একাত্তর টেলিভিশন )

 


আরও খবর



সামরিক শক্তি সূচকে ৪০তম বাংলাদেশ

প্রকাশিত:Sunday ১৫ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Wednesday ০১ February ২০২৩ |
Image

সামরিক সক্ষমতার ওপর নির্ভর করে তৈরি করা আন্তর্জাতিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান গ্লোবাল ফায়ারপাওয়ারের (জিএফপি) চলতি বছরের সামরিক শক্তি সূচকে বিশ্বের ১৪৫টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশ ৪০তম অবস্থানে রয়েছে। এই সূচকে গত বছরের মতো শীর্ষ সামরিক ক্ষমতাধর দেশ নির্বাচিত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এর আগে, ২০২০ ও ২০২১ সালে বাংলাদেশের এই অবস্থান ছিল যথাক্রমে ৪৬ ও ৪৫ তম।

জিএফপির চলতি বছরের সূচকে দেশগুলোর শক্তি বৃদ্ধির প্রবণতার ওপর ভিত্তি করে জাতীয় সামরিক শক্তিকে তুলে ধরা হয়েছে। জিএফপির পর্যালোচনায় ‘পাওয়ারস অন দ্য রাইজ’ তালিকায় ১২তম স্থানে রয়েছে বাংলাদেশ। জিএফপির ২০২৩ সালের বার্ষিক প্রতিরক্ষা পর্যালোচনায় ‘পাওয়ারস অন দ্য রাইজ’ হিসেবে ৫৩টি দেশকে বেছে নেওয়া হয়।

আন্তর্জাতিক এই সংস্থার ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, বিশ্বের ১৪৫টি দেশের সামরিক সক্ষমতার সর্বশেষ সহজলভ্য সামরিক সরঞ্জাম, প্রতিরক্ষা বাজেট, সৈন্য সংখ্যাসহ বিভিন্ন ধরনের ৬০টির বেশি মাপকাঠির ওপর ভিত্তি করে চলতি বছরের সূচক তৈরি করা হয়েছে।

‘২০২৩ মিলিটারি স্ট্রেন্থ র‍্যাংকিং’ নামে প্রকাশিত এই সূচকে সামরিক শক্তিমত্তা বিচারে দেশগুলোর স্কোরও নির্ধারণ করা হয়েছে। এতে বাংলাদেশের সামরিক বাহিনীকে বিশ্বের ৪০তম হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। সামরিক শক্তিসূচকে বাংলাদেশ স্কোর পেয়েছে শূন্য দশমিক ৫৮৭১।

গত ৫ জানুয়ারি পর্যন্ত বাংলাদেশের সামরিক সক্ষমতাকে এই সূচকের ভিত্তি হিসেবে ধরে নিয়ে বাংলাদেশের অবস্থান নির্ধারণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে জিএফপি।

এদিকে, গত বছরের মতো এই সূচকে শীর্ষ স্থান ধরে রেখেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। রাশিয়া-ইউক্রেন চলমান যুদ্ধের পটভূমিতে ১৪৫টি দেশের মধ্যে বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী সামরিক বাহিনীর তালিকায় ১৫তম স্থানে রয়েছে ইউক্রেন।

অন্যদিকে, জিএফপির সূচকে দ্বিতীয় সামরিক ক্ষমতাধর দেশ নির্বাচিত হয়েছে রাশিয়া। দেশটির স্কোর শূন্য দশমিক ০৭১৪। আর সামরিক শীর্ষ ক্ষমতাধর দেশের এই সূচকে চীন রয়েছে তৃতীয় স্থানে। চীনের স্কোর শূন্য দশমিক ০৭২২।

বাংলাদেশের প্রতিবেশি ভারত শীর্ষ সামরিক ক্ষমতাধর দেশের এই তালিকায় চতুর্থ স্থানে আছে ভারত; দেশটির স্কোর শূন্য দশমিক ১০২৫। পাকিস্তান রয়েছে ৭ম স্থানে; স্কোর শূন্য দশমিক ১৬৯৪। আর মিয়ানমার রয়েছে ৩৮তম স্থানে। দেশটির স্কোর শূন্য দশমিক ৫৭৬৮।

জিএফপির এই সূচকে ইরান ১৭তম, ইসরায়েল ১৮তম, ভিয়েতনাম ১৯তম, সৌদি আরব ২২তম, তাইওয়ান ২৩, থাইল্যান্ড ২৪তম ও উত্তর কোরিয়া ৩৪তম সামরিক ক্ষমতাধর দেশের অবস্থানে রয়েছে।

আর এই তালিকার একেবারে তলানিতে রয়েছে দক্ষিণ এশিয়ার দেশ ভুটান। ১৪৫তম অবস্থানে থাকা দেশটির স্কোর ৬ দশমিক ২০১৭।


সূত্র : জিএফপি।


আরও খবর



নওগাঁ আইনজীবী সমিতির সভাপতি পিটু, সম্পাদক রাজ্জাক

প্রকাশিত:Wednesday ০১ February ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টার :

নওগাঁ জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে আবারও সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন অ্যাডভোকেট খোদাদাদ খান পিটু ও সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন অ্যাডভোকেট আব্দুর রাজ্জাক।

মঙ্গলবার রাত ৯টায় নির্বাচন কমিশনার অ্যাডভোকেট সুলতান মাহমুদ ভোট গণনা শেষে এ ফলাফল ঘোষণা করেন। এর আগে বেলা ১১টা থেকে জেলা বার অ্যাসোসিয়েশন ভবনে ভোট গ্রহণ শুরু হয়ে বিকেল ৩টা পর্যন্ত চলে। মোট ৪০৫ জন ভোটারের মধ্যে ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন ৩৯১ জন।

নির্বাচনে মোট ১৫টি পদের মধ্যে সভাপতি সহ বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ সমর্থিত প্যানেল থেকে ১১ জন এবং সাধারণ সম্পাদক সহ বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য প্যানেল থেকে চারজন নির্বাচিত হয়েছেন।

এ নির্বাচনে বঙ্গবন্ধু আওয়ামী পরিষদ থেকে নির্বাচিতরা হলেন-সহ সভাপতি ময়েন উদ্দিন প্রামাণিক ও মোফাজ্জল হক, সহ সাধারণ সম্পাদক (প্রশাসন) কাজী হাসানুজ্জামান হাসান, সহ সাধারণ সম্পাদক (লাইব্রেরী) তানজিমুল হক লিঙ্কন, সহ সাধারণ সম্পাদক (আপ্যায়ন, ক্রীড়া ও সংস্কৃতি) আশরাফুদ্দৌলা নয়ন এবং সদস্য পদে রফিকুল ইসলাম মন্ডল, এ.এস.এম আলতাফ হোসেন, আবু সাঈদ সুমন, শাকিল ইসলাম ও জসিম উদ্দিন প্রামাণিক। অপরদিকে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য পরিষদ থেকে নির্বাচিতরা হলেন- সদস্য পদে মনোয়ার হোসেন, জাহাঙ্গীর আলম-২ ও গোলাম আজম।


আরও খবর



নওগাঁয় শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা প্রদান

প্রকাশিত:Wednesday ০৪ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টার :


নওগাঁর আত্রাই উপজেলায় পারমোহন ঘোষ গ্রামে কৃতি শিক্ষার্থীদের মাঝে সংবর্ধনা ও গুনীজনদের সম্মাননা প্রদান করা হয়েছে। বুধবার ৪ জানুয়ারি পারমোহন ঘোষ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কর্তৃক বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে এই সংবর্ধনা প্রদান অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে পারমোহন ঘোষ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি সঞ্জিত কুমার দাসের সভাপতিত্বে ও সুদরানা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক আসাদুল ইসলামের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা জিল্লুর রহমান। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বিশা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান তোফাজ্জল হোসেন খাঁন, সুদরানা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অমেন্দ্রনাথ সাহা রনি, বড়সাঁওতা উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক খোরশেদ আলম, পারমোহন ঘোষ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বিএম আশফাকুল ইসলাম, উপজেলা আওয়মীলীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক সাইদুর রহমান শোভন প্রমুখ। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) এ ১৯তম ব্যাচে মেধাতালিকায় ১০ম স্থান অধিকারী পারমোহন ঘোষ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কৃতি শিক্ষার্থী সাব্বির আহমেদকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। এছাড়াও পারমোহন ঘোষ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের আরো ৪ জন কৃতি শিক্ষার্থী ও গুনীজনদের সম্মাননা প্রদান করা হয়।  


আরও খবর



মুখ বেঁধে এসিড দিয়ে পুড়িয়ে হত্যা !

প্রকাশিত:Tuesday ৩১ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

কুমিল্লা ব্যুরো :

কুমিল্লায় মুখ বেঁধে এসিড দিয়ে পুড়ে হত্যার অভিযোগে দুই ব্যক্তির যাবজ্জীবন কারাদন্ডের আদেশ দিয়েছে আদালত। সেই সঙ্গে উভয়ের দশ হাজার টাকা অর্থদন্ড অনাদায়ে ৬ (ছয়) মাসের বিনাশ্রম কারাদÐের আদেশ দেয়া হয়। এসময় মামলার আরেক আসামীকে খালাস দেয়া হয়। মঙ্গলবার দুপুরে কুমিল্লার অতিরিক্ত দায়রা জজ আদালত-৫ এর বিচারক জাহাঙ্গীর হোসেন এই রায় দেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মামলার রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী রফিকুল ইসলাম।

দন্ডপ্রাপ্তরা হলেন, মো. জাহিদ হাসান (বাবু) ও মো. মাসুম মিয়া।

মামলার বিবরণনে জানা গেছে, ২০১৭ সালের ১২ মার্চ দাউদকান্দি থানাধীন গৌরীপুরস্থ নিউ মাকের্টে চুরির সময় দেখে ফেলায় নাইট গার্ড শফিকুল ইসলামকে হত্যা করে তারা। পরে তার লাশ যেন চেনা না যায় তাই এসিড দিয়ে পুড়িয়ে দেয়। এঘটনার শফিকুল ইসলামের স্ত্রী মোসা. জোসনা বেগম অজ্ঞাত আসামীদের বিরুদ্ধে দাউদকান্দি থানায় একটি মামলা দায়ের করে। পরে তদন্ত করে আসামীদের পুলিশ গ্রেপ্তার করে। আসামীরা জবানবন্দী দিলে আদালত তাদের যাবজ্জীবন কারাদন্ডের আদেশ দেয়। 

মামলার রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী রফিকুল ইসলাম বলেন, একটি মোবাইল দোকানে চুরির সময় দেখে ফেলায় তাকে হত্যা করা হয়। হত্যা করেই তারা ক্ষান্ত হয়নি। পরিচয় যেন না সনাক্ত হয় তাই লাশ এসিড দিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে। আদালতের রায়ে আমরা সন্তুষ্ট।

কুমিল্লা কোর্ট পুলিশের পরিদর্শক মো. মুজিবুর রহমান জানান, রায় ঘোষণার সময় আসামীরা উপস্থিত ছিলেন। রায়ের পর আসামীদের কারাগারে পাঠানো হয়েছে।


আরও খবর



দিল্লিতে আবারো জেঁকে বসছে শীত

প্রকাশিত:Monday ১৬ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

ভারতের রাজধানী দিল্লিতে আবারো জেঁকে বসেছে শীত। সেখানে আজ সোমবার তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা চলতি মৌসুমের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা।

দিল্লিতে আগামী ৬ দিন প্রবল শৈত্যপ্রবাহের সতর্কতা জারি করেছে আবহাওয়া দপ্তর। শুধু দিল্লিই নয়, প্রবল শৈত্যপ্রবাহের কবলে পড়েছে উত্তর ভারতের বিস্তীর্ণ এলাকা। তীব্র ঠাণ্ডায় কাঁপছে পাঞ্জাব, উত্তরপ্রদেশ, হিমাচল, উত্তরাখাণ্ড ও জম্মু কাশ্মীর। হিমাচল প্রদেশ, উত্তরাখাণ্ড এবং জম্মু কাশ্মীরে প্রবল তুষারপাতের খবর পাওয়া গেছে। তীব্র শীতের কারণে উত্তর প্রদেশের বেশিরভাগ এলাকায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ১৭ জানুয়ারি পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এদিকে কুয়াশার কারণে, বিমান ও রেলের সময়সূচিতে বিপর্যয় ঘটেছে।  


আরও খবর