Logo
শিরোনাম

টিসিবির পণ্য বিক্রি স্থগিত

প্রকাশিত:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

দেশে দরিদ্র পরিবারগুলোর জন্য সোমবার (১৬ মে) থেকে ১১০ টাকা লিটার বোতলজাত সয়াবিন তেল বিক্রি কর‌ার ঘোষণা দিলেও হঠাৎ করে সেই সিদ্ধান্ত থেকে পিছু হটল টিসিবি।

রবিবার (১৫ মে) রাত সাড়ে ৯টায় ন্যায্যমূল্যে তেল বিক্রির এ কার্যক্রম স্থগিত ক‌রা হ‌য়ে‌ছে ব‌লে এক বিশেষ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানায় সংস্থাটি।

প্রকাশিত বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে টিসিবি জানায়, বিক্রয় কার্যক্রম সুশৃঙ্খলভাবে পরিচালনা এবং প্রকৃত সুবিধাভোগীর কাছে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য সাশ্রয়ী মূল্যে পৌঁছানোর লক্ষ্যে সরকার নীতিগতভাবে ফ্যামিলি কার্ডের মাধ্যমে টিসিবির পণ্য (ভোজ্য তেল, মসুর ডাল, চিনি) বিক্রয়ের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। ঢাকা (উত্তর ও দক্ষিণ) ও বরিশাল সিটি কর্পোরেশনে ফ্যামিলি কার্ড প্রণয়ন ও বিতরণ কার্যক্রম চলমান রয়েছে। ফ্যামিলি কার্ড বিতরণ কার্যক্রম সম্পন্ন হওয়ার পর শুধুমাত্র ফ্যামিলি কার্ডের মাধ্যমেই টিসিবির পণ্য সামগ্রীর বিক্রয় কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। তাই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের জন্য চলতি মাসের ১৬ মে থেকে ৩০ মে পর্যন্ত স্বল্প পরিসরে সাধারণ ট্রাকসেল কার্যক্রম স্থগিত করা হল। আগামী জুন মাসে ফ্যামিলি কার্ডের মাধ্যমে এক কোটি নিম্ন আয়ের পরিবারের নিকট টিসিবি কর্তৃক ভর্তুকি মূল্যে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য (ভোজ্য তেল, মসুর ডাল, চিনি) বিক্রয় করা হবে।

এর আগে টিসিবি ঘোষণা দিয়েছিল ১৬ থেকে ৩০ মে পর্যন্ত ১৫ দিনব্যাপী দেশের বড় বড় নগরীর পাশাপাশি জেলা-উপজেলা পর্যায়ে ৩০০টি খোলা ট্রাকের মাধ্যমে পণ্য বিক্রি করা হবে।

ট্রাক থেকে একজন ক্রেতা ৫৫ টাকা কেজি দরে সর্বোচ্চ দুই কেজি চিনি, ৬৫ টাকা কেজি দরে সর্বোচ্চ দুই কেজি মসুর ডাল, ১১০ টাকা দরে ২ লিটার সয়াবিন তেল কিনতে পারবেন। এছাড়া গত মাসের অবশিষ্ট ছোলা ৫০ টাকা কেজি দরে ভোক্তার চাহিদা অনুযায়ী বিক্রি করা হবে বলে ঘোষণা দিয়েছিলো টিসিবি।

এছাড়া রোজার মাসে নিত্যপণ্যের দাম সহনীয় রাখতে গত মার্চ ও এপ্রিল মাসে সারাদেশে তালিকাভুক্ত এক কোটি পরিবারের কাছে ফ্যামিলি কার্ডের মাধ্যমে ন্যায্যমূল্য পণ্য বিক্রি করেছে টিসিবি।


আরও খবর



পাচার হওয়া টাকা বৈধ ঘোষণার প্রস্তাব

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৯ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

রোকসানা মনোয়ার : দেশ থেকে বিভিন্ন উপায়ে পাচার হয়ে যাওয়া অর্থ বাজেটে বৈধ করার প্রস্তাব দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। কর দিয়ে এসব অর্থ বৈধ হয়ে গেলে এর বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে পারবে না আয়কর কর্তৃপক্ষসহ যেকোনো কর্তৃপক্ষ। ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেট বক্তৃতায় তিনি এই প্রস্তাব দিয়েছেন।

বাজেট বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রী বলেন, বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ও চলমান অস্থিতিশীল পরিস্থিতির কারণে বৈশ্বিক অর্থনীতিতে মন্দার পূর্বাভাস পাওয়া যাচ্ছে। এ অবস্থায় আগামী অর্থবছরে আমাদের কঠিন পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে হতে পারে।

এমতাবস্থায়, আর্থিক নীতি প্রণয়ন ও বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে অধিক বিচক্ষণতা ও দূরদর্শী পন্থা অবলম্বন করতে হবে। অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে সরকারি ব্যয় নির্বাহের জন্য এক দিকে আমাদের অধিক পরিমাণে রাজস্ব জোগান দিতে হবে, অন্যদিকে বেসরকারি খাতেও অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে গতিশীলতা আনতে হবে। এ অবস্থায় বিদেশে অর্জিত অর্থ ও সম্পদ অর্থনীতির মূল স্রোতে আনার মাধ্যমে বিনিয়োগ ও আর্থিক প্রবাহ বৃদ্ধির লক্ষ্যে তিনি আয়কর অধ্যাদেশে নতুন বিধান যুক্ত করার প্রস্তাব দেন।

নতুন বিধানের বিষয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, প্রস্তাবিত বিধান অনুযায়ী বিদেশে অবস্থিত যে কোনো সম্পদের ওপর কর পরিশোধ করা হলে আয়কর কর্তৃপক্ষসহ যে কোনো কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে কোনো প্রশ্ন উত্থাপন করবে না। বিদেশে অর্জিত স্থাবর সম্পত্তি বাংলাদেশে আনা না হলে এর ওপর ১৫ শতাংশ, বিদেশে থাকা অস্থাবর সম্পত্তি বাংলাদেশে আনা না হলে ১০ শতাংশ ও বাংলাদেশে পাঠানো (রেমিটকৃত) নগদ অর্থের ওপর ৭ শতাংশ হারে করারোপের প্রস্তাব করেন তিনি। এ সুবিধা ২০২২ সালের ১ জুলাই হতে ২০২৩ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত বলবৎ থাকবে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, প্রস্তাবিত বিধান কার্যকর হলে অর্থনীতির মূল স্রোতে বৈদেশিক মুদ্রার প্রবাহ বৃদ্ধি পাবে, আয়কর রাজস্ব আহরণ বাড়বে; আর করদাতারাও বিদেশে অর্জিত অর্থ-সম্পদ আয়কর রিটার্নে প্রদর্শনের সুযোগ পেয়ে স্বস্তিবোধ করবেন।

অর্থমন্ত্রীর প্রস্তাব অনুমোদন হলে পাচার হয়ে যাওয়া অর্থ দেশে ফিরবে। আর সেই অর্থ মিশে যাবে অর্থনীতির মূল প্রবাহে। এর মাধ্যমে সংকট কাটিয়ে অর্থনীতির চাকা সচল করার কথা বলেছেন তিনি।

বিদেশ থেকে অর্থ ফেরত আনা প্রসঙ্গে অর্থ পাচার রোধে কাজ করা বাংলাদেশ ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের সাবেক প্রধান আবু হেনা মোহা রাজী হাসান বলেন, যার অর্থ তিনি চাইলে উন্নত দেশগুলো থেকে ফেরত আনতে পারবেন; কারণ ওই দেশগুলো থেকে টাকা পাঠাতে আইনি বাধা নেই। তবে ওই দেশগুলোতে অর্থের বৈধতা, অপরাধ ও কর ফাঁকির অভিযোগ থাকলে ফেরত আনা কঠিন।


আরও খবর

ছোট ও মাঝারি গরুর দাম বেশি

শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২




একাই পাঁচ গোল করলেন মেসি

প্রকাশিত:সোমবার ০৬ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ |
Image

একে একে প্রতিপক্ষ এস্তোনিয়ার জালে পাঁচবার বল ঢুকিয়েছেন সাতবারের ব্যালন ডি’অর জয়ী লিওনেল মেসি। ক্লাব ফুটবলে বার্সেলোনার হয়ে এক ম্যাচে পাঁচ গোলের রেকর্ড থাকলেও জাতীয় দলের জার্সিতে এর আগে তিন গোলের বেশি ছিল না। এবার সেই আক্ষেপই যেন দূর করলেন আর্জেন্টাইন তারকা। ক্যারিয়ারের অষ্টম আন্তর্জাতিক হ্যাটট্রিকের দিনে গোল উৎসবই করলেন ক্ষুদে জাদুকর।

রবিবার (৫ জুন) দিবাগত রাতে ওসাসুনার মাঠ আল সদর স্টেডিয়ামে একাই দলের হয়ে পাঁচটি গোল করেন লিওনেল মেসি।

শুরু থেকে প্রায় পুরোটা সময় নিজেদের অর্ধ ও ডি বক্সের আশপাশেই ছিলেন এস্তোনিয়ার খেলোয়াড়। ল্যাতিন পরাশক্তিদের বিপক্ষে নিজেদের প্রথম ম‍্যাচে লড়াইয়ের মানসিকতা দেখাতে পারেনি তারা।

২০১৯ সালের পর আর কোনো ম‍্যাচ না হারা দলটি এগিয়ে যায় অষ্টম মিনিটে মেসির সফল স্পট কিকে। হেরমান পেস্সেইয়াকে এস্তোনিয়ার গোলরক্ষক ফাউল করায় পেনাল্টি পেয়েছিল দুইবারের বিশ্ব চ‍্যাম্পিয়নরা। এ গোলের মধ্যদিয়ে আর্জেন্টিনার জার্সিতে ভিন্ন ভিন্ন ৩০টি দলের বিপক্ষে গোলের রেকর্ড গড়েন মেসি।

এদিন ফিনালিসিমা ম্যাচের একাদশ থেকে আট পরিবর্তন নিয়ে মাঠে নামে আর্জেন্টিনা। এতে বড় পরিবর্তনে খেলার ওপর কোনো প্রভাব পড়েনি আলবিসেলেস্তেদের। প্রথমার্ধে প্রায় ৮৫ শতাংশ সময় বল দখলে রেখে একের পর এক আক্রমণ করে যায় আর্জেন্টিনা।


আরও খবর



নারায়ণগঞ্জে জাতীয় পার্টির সম্মেলন জিএম কাদের

দেশের মালিকানা জনগনের কাছ থেকে ছিনতাই হওয়ার পথে

প্রকাশিত:শনিবার ১৮ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ |
Image

বুলবুল আহমেদ সোহেল; নারায়ণগঞ্জঃ

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও বিরোধী দলীয় উপনেতা গোলাম মেহাম্মদ কাদের বলেছেন, দেশের মালিকানা জনগনের কাছ থেকে ছিনতাই হওয়ার পথে। সামনে নির্বাচন ঘিরে যে ধরনের পরিস্থিতি সৃস্টি হয়েছে। সেখানে যারা ক্ষমতায় আছে তারা যেকোন ভাবেই হোক ক্ষমতায় আসতে হবে এর জন্য অর্থ এবং পেশিশক্তি দিয়ে দলীয় করন করে ক্ষমতাকে কুক্ষিগত করার চেষ্টা করছে। আর যারা বিপক্ষ দল তারাও বিভিন্ন ভাবে চেষ্টা করছে ক্ষমতায় আসতে। তারা জানে যে পরাজিত হলে তাকে রাজনীতি থেকে বিদায় নিতে হবে। 

শুক্রবার (১৭ জুন) বন্দর সমরক্ষেত্রে আয়োজিত নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর জাতীয় পার্টির দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায়  তিনি এসব কথা বলেন 

তিনি আরো বলেন -বর্তমান সরকারের আমলে দেশের ৮ হাজার কোটি অবৈধ টাকা সুইস ব্যাংকে রাখা হয়েছে। সেই টাকা দেশে ফিরিয়ে এনে নাম মাত্র টেক্স দিয়ে ভাগাভাগি করে নেয়ার পায়তারা চলছে। সম্মেলন জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি সানাউল্লাহ সানুর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, জাতীয় পার্টির মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু, প্রেসিডিয়াম সদস্য গেলাম কিবরিয়া টিপু, প্রেসিডিয়াম সদস্য সাইদুর রহমান টেপা, নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব একে এম সেলিম ওসমান, নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা সহ জেলা ও মহানগর জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা।

এমপি সেলিম ওসমান বলেন, ‘দীর্ঘদিন এই সম্মেলনের কারনে আমাদের কমিটি গুলো সম্পুর্ন করা হয়নি। নারায়ণগঞ্জ হচ্ছে জাতীয় পার্টির দুর্গ। এই দুর্গে কোন দিন ফাটল ধরাতে পারবে না। আমার নারায়ণগঞ্জের নেতারা কোনদিন লোভি ছিলো না। তাদের টেন্ডারবাজি বা চাদাঁবাজি করার কোন দরকার নাই। তারা শুধু জানে মানুষের সেবা করতে, এছাড়া তাদের আর কোন চাহিদা নাই। দল যখন ভালোর দিকে যায় তখন, ছেচরা, চাদাঁবাজ দলে ঢুকার চেষ্টা করে। আমরা ইতিমধ্যেই এক ভুমিদস্যুকে দলের থেকে বহিস্কার করিছি। 

তিনি আরও বলেন, এমন কোন লোককে জাতীয় পার্টিতে ঢুকিয়ে দিয়েন না যাতে করে আমাদের গর্ব নষ্ট হয়ে যায়। সে যেই হোক না কেনো, কোন জমি দখলকারি কোন চান্দাবাজ অন্তত এই নারায়ণগঞ্জের জাতীয় পার্টিতে ঢুকতে দিবো না। তিনি বলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট আবেদন করতে চাই, ‘আমাদের এমন বাজেট দিন যাতে আমরা বেঁচে থাকতে পারি, অসহায় যাতে না হয়ে পারি। আমরা এতদিন বর্তমান সরকারের সহায়ক হিসেবে কাজ করে যাচ্ছিলাম, তবে এখন আমরা বিরোধী দলে থেকেও সরকারের সহায়ক হিসেবে কাজ করে যাচ্ছি। আমাদের কেন্দ্রীয় নেতাদের অনুরোধ করবো যাতে এই বিষয়ে তারা সরকারের সাথে আলোচনা করেন। পরে আমরা চিন্তা করবো যে আন্দোলনে যাবো কি না।’

এমপি লিয়াকত হোসেন খোকা বলেন, কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের নির্দেশে নারায়ণগঞ্জের প্রতিটি উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ের কমিটি গঠন করার জন্য আমি ধন্যবাদ জানাই। এসময় তিনি জাতীয় পার্টির প্রয়াত চেয়ারম্যান হুসাইন মুহাম্মদ এরশাদসহ প্রয়াত সকলে নেতৃবৃন্দের আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন।

সম্মেলন শেষে জেলা ও মহানগরের নব-নির্বাচিত কমিটি ঘোষণা করা হয়।  সানাউল্লাহ সানুকে সভাপতি ও আবু নাঈম বিপ্লবকে জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক ঘোষণা করা হয়। অপরদিকে মহানগর কমিটিতে সভাপতি পদে মোদাছিরুল হক দুলাল ও সাধারণ সম্পাদক আফজাল হোসেনের নাম ঘোষণা করা হয়। 


আরও খবর



সারাদেশে চলছে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাম্পেইন

প্রকাশিত:বুধবার ১৫ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

আজ থেকে শুরু হয়েছে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাম্পেইন। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অধীনে জাতীয় পুষ্টি সেবার (এনএনএস) সার্বিক ব্যবস্থাপনায় আজ থেকে চার দিনব্যাপী দেশ জুড়ে চলবে এ ক্যাম্পেইন।

জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ৬-১১ মাস বয়সী শিশুদের ১ লাখ আইইউ মাত্রার একটি নীল ক্যাপসুল এবং ১২-৫৯ মাস বয়সী শিশুদের ২ লাখ আইইউ মাত্রার একটি লাল ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।

দেশের সব ইপিআই কেন্দ্র এবং স্থায়ী স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলোয় চার দিন ক্যাম্পেইন পরিচালিত হবে। নির্ধারিত ইপিআই শিডিউল অনুযায়ী প্রত্যেক ওয়ার্ডের (পুরোনো) আটটি সাব-ব্লকে সপ্তাহের চার কর্মদিবসে নির্ধারিত ইপিআই কেন্দ্রে পর্যায়ক্রমে স্বাস্থ্য সহকারী, পরিবার কল্যাণ সহকারী ও স্বেচ্ছাসেবী কর্তৃক উদ্দিষ্ট শিশুদের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।

তাছাড়া কমিউনিটি ক্লিনিক ও অন্যান্য সরকারি স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রে শিশুদের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। পৌরসভা ও সিটি করপোরেশন এলাকায়ও ইপিআই কেন্দ্রগুলোয় এ কার্যক্রম পরিচালিত হবে।



আরও খবর



বন্যার আশঙ্কা

খুলে দেওয়া হলো তিস্তার ৪৪ গেট

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৯ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

কয়েক দিনের ভারী বর্ষণ ও উজানের পাহাড়ি ঢলে হঠাৎ করে লালমনিরহাটের তিস্তা নদীতে পানি বেড়েছে। ফলে তিস্তা ব্যারাজের ডালিয়া পয়েন্টে ৪৪টি গেট খুলে দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

বৃহস্পতিবার (৯ জুন) দুপুর ১২টায় দেশের বৃহত্তম সেচ প্রকল্প হাতীবান্ধা উপজেলার তিস্তা ব্যারাজ ডালিয়া পয়েন্টে পানির প্রবাহ রেকর্ড করা হয় ৫২ দশমিক ০৫ সেন্টিমিটার। যা (স্বাভাবিকের চেয়ে ৫২ দশমিক ৬০সেন্টিমিটার) বিপৎসীমার ৫৫ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

নদী-তীরবর্তী বাসিন্দারা জানান, কয়েক দিন ধরে টানা বৃষ্টি ও ভারতের গজলডোবা ব্যারেজে পানি বিপৎসীমা অতিক্রম করায় উজানের ঢল বেড়ে যায়। ফলে তিস্তা ব্যারাজের ডালিয়া পয়েন্টে পানির প্রবাহ বেড়েছে। যদিও এখনো জেলার তিস্তা নদীর পানি বিপৎসীমার নিচে রয়েছে। তবে জেলার নিম্নাঞ্চল পানিতে নিমজ্জিত হয়েছে। এছাড়া পানি জমেছে জেলা শহর থেকে শুরু করে প্রত্যন্ত এলাকায়। এসব পানি তিস্তা ও ধরলা নদীতে চলে আসায় পানি অনেকটা বেড়েছে।

তারা আরও জানান, তিস্তা নদীর বাম তীরে ভাঙন ও বন্যা থেকে রক্ষায় আদিতমারী উপজেলার গোবর্দ্ধন এলাকায় সলেডি স্প্যার বাঁধ ২ নির্মাণ করে পানি উন্নয়ন বোর্ড। গত বছর কিছু অংশে ভাঙন দেখা দিলে তা সংস্কার শুরু করে। সেই সংস্কার কাজ শেষ হতে না হতেই আবারও সেটি ভেঙে যাচ্ছে। এত দিনে পানি কমে গেলেও এবার সেটির কোনো কাজ করেনি পানি উন্নয়ন বোর্ড।

লালমনিরহাট পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) নির্বাহী প্রকৌশলী মিজানুর রহমান বলেন, উজানের পাহাড়ি ঢলে তিস্তার পানির প্রবাহ কিছুটা বেড়েছে। ব্যারাজ রক্ষার্থে সবগুলো জলকপাট খুলে না দিয়ে পানি নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করা হচ্ছে। প্রতি বছর জুনে বন্যা দেখা দেয়। তাই তিস্তাপাড়ের মানুষকে সতর্ক থাকতে বলা হচ্ছে।


আরও খবর