Logo
শিরোনাম
বাউল ছালমা হলেন বরিশাল বিভাগের শ্রেষ্ঠ "জয়িতা" পাংশায় মাদক সহ ৯ মামলার আসামী গ্রেফতার ১৬৩ টাকায় তেল বিক্রির ব্যত্যয় ঘটলে ব্যবস্থা নেয়া হবে: ভোক্তার মহাপরিচালক দুর্গাপুরে বালুবাহী হ্যান্ডট্রলির চাপায় প্রাণ গেল শিক্ষার্থীর নওগাঁ জেলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি আবু বক্কর, সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত নওগাঁয় প্রাইভেটকার তল্লাসি, ৭২ কেজি গাঁজা সহ যুবক আটক রূপগঞ্জে প্রাইভেটকার চাপায় গৃহবধু নিহত রাঙ্গামাটির বড়ইছড়ি নির্মাণ শ্রমিক বোঝাই ট্রাক খাদে নিহত-২, আহত-২০ মুসলিমদেরকে সঠিক পথ থেকে বিচ্যুত করার জন্য বিভিন্ন ষড়যন্ত্র চলছে নওগাঁয় কম্পিউটার ব্যবসার অন্তরালে অশ্লিল ভিডিও বিক্রি করায় ৩ যুবক আটক

ট্রল তো করাই যায়, আসুন সাধুবাদ জানাই মাহির পরিশ্রমকে

প্রকাশিত:সোমবার ২৫ ডিসেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪ |

Image

রাশেদ আলম :মাহিকে নিয়ে সবাই ট্রল করছে,  আমিও প্রথমে বিষয়টি হাস্যকর হিসেবে নিয়েছিলাম। তবে আমার ধারণা সম্পূর্ণ ভুল হয়েছে৷ 

বিষয়টি আমার কাছে মনে হয়েছিল অন্যান্য তথাকথিত শিল্পী মানে রিয়াজ, তারিন, ডিপজল বা ফেরদৌসদের মত সেও আওয়ামিলীগের নমিনেশন কিনবে। যদি লটারি লেগে যায় তাইলেই ছক্কা ধরনের ধান্দাবাজী কিছু। ফেরদৌসের লটারি লেগে গেছে, ব্যাস হয়ে গেছে। তারিন, ডিপজল, রিয়াজদের এবার লটারি লাগে নাই, আগামীতে আবার লটারি লাগার আশায় তারা থেকে যাবে। 

যদি বাস্তবে বিএনপি-আওয়ামিলীগ নির্বাচন যুদ্ধ হত তবে এইসব ফেরদৌসদের নমিনেশন পাওয়া দুরের কথা নমিনেশন কেনার চিন্তাও এরা করত কিনা সন্দেহ। ২০১৪ সালের নির্বাচন থেকেই এইসব ধান্দাবাজদের একটাই স্বপ্ন নমিনেশন নিব, হাস্যকর তেলবাজি করব যদি নমিনেশন পেয়ে যাই তাইলে তো অটোপাশ এবং লটারি লেগে গেছে । নির্বাচনের মাঠে আসল যুদ্ধে নেমে জয় ছিনিয়ে আনার চেষ্টা বা যুদ্ধ করতে হলে অনেক বড় কলিজা লাগে। আর এখানেই মাহিয়া মাহি আমার ধারণা চেঞ্জ করে দিয়েছে এই কয়দিনে। 

মাহি নমিনেশন পায় নাই, কিন্তু সে নির্বাচনকে সিরিয়াসলি নিয়েছে। সাহস করে স্বতন্ত্র দাঁড়িয়ে গেছে শুধু নয় রীতিমতো প্রচলিত প্রার্থীদের মত সারাদিন রাত নির্বাচনী এলাকায় অন্যান্য সিজেন পলেটিক্যাল পারসনদের মত ঝাপিয়ে পরেছে। সাধারণ মানুষের সাথে কথা মিশতেছে, কথা বলতেছে।  একজন নাইকা ইমেজের কেউ হুট করে এইভাবে কোন রাজনৈতিক শেল্টার ছাড়া, নিশ্চিত পরাজয় জেনেও চ্যালেঞ্জ নেয়া খুব কম সাহসের নয় কিন্তু। 

মাহি ভালো করেই জানে আওয়ামিলীগ থেকে নমিনেশন চেয়ে না পেয়েও সে স্থানীয় আওয়ামিলীগ থেকে কোন সাহায্য পাবে না বরং বাধায় পরবে এবং বাধায় পরতেছেও। যেহেতু মার্কা নৌকা নয় তাই প্রশাসনের সাহায্যও সে পাবে না এইটাও মাহি জানে। তবুও সে নির্বাচনটা সিরিয়াসলি করতেছে। এবার মাহি জয় পাবে না, কিন্তু আগামীতে তার এইসব কাজ অনেক কাজে আসবে বিশেষ করে ২০২৯ সালের নির্বাচনে। তখন আওয়ামিলীগও তাকে নমিনেশন দিবে কিনা তা সিরিয়াসলি দেখতে হবে। এখানেই মাহিয়া মাহী নির্বাচনের আগেই জিতে গেলো। 

আমি এই মাহির সিনেমা দেখা দুরের কথা, তাকে নিয়ে কোন আগ্রহও ফিল করি নাই,  এটাই স্বাভাবিক। বরং এদের নিয়ে সংবাদ সব সময় বিরক্তি নিয়ে এড়িয়ে যাই কারন বাংলাদেশের সিনেমা নামক অখাদ্য যেসব তৈরি হয় এফডিসির সিনেমা মেইন স্ট্রিম থেকে, তার জন্যে এদের সকলের উপর ক্ষোভ কাজ করে। ফেরদৌস, রিয়াজ, জায়েদ খান,অপু বিশ্বাস, সাকিব, বুবলি,ওমর সানি, মৌসুমি  এরা অভিনেতা বা অভিনেত্রী হিসেবে আমার কাছে ভার ছাড়া অন্য কিছু না। 

কিন্তু বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে প্রতিদিন মাহির নির্বাচনের জন্যে দৌড়াদৌড়ি ও পরিশ্রমের সংবাদ অনিচ্ছাকৃত হলেও যখন চোখের সামনে আসতেছিল বারবার তখন,  দেখতে ও পড়তে বাধ্য হলাম। 

আমার মত বাংলাদেশের সিনেমার এইসব নায়ক, নাইকা দুরের কথা এদের সিনেমাতেও যাদের বিন্দুমাত্র আগ্রহ নেই তাদের কাছেও মাহির  এই চ্যালেঞ্জ নেয়া, পরিশ্রম করা ইতিবাচক হয়ে দেখা দিচ্ছে। আমাদের মত সাধারণ মাজুষেরাও তাকে জাজ করছে একজন নির্বাচনের প্রার্থী হিসেবে। এইটাই তার সার্থকতা। 

নায়ক ফেরদৌস,  ক্রিকেটের সাকিবেরা কি নৌকা নমিনেশন না পাইলে স্বতন্ত্র করার সাহস করত? মাশরাফি এবার নৌকা না পাইলে কি নির্বাচন করার সাহস করতো? নিজের পকেটের টাকা খরচ করে, এত শ্রম দিয়ে নিশ্চিত পরাজয় মেনে নিয়েও সাহস করে নির্বাচন এইসব ফেরদৌস, সাকিব এমনকি মাশরাফিরও সাহস হইতো না নিশ্চিত। এরা ফ্রি ফ্রি এমপি হবার জন্যেই এসেছে,  রাজনৈতিক কোন আহামরি চিন্তা করে নয়। সেখানে মাহি সাহস করে নিজের টাকায় যুদ্ধে নেমে গেছে। 

বহু পুরুষ মানুষকেও দেখছি সারাজীবন রাজনীতি করে,  দুনিয়ার ত্যাগ শিকার করেও চ্যালেঞ্জ নেয়ার সাহস করে না। মাথা নিচু করে লাইফ পার করে দেয়। নিজেদের নিজেরা সান্তনা দেয় - আদর্শের জন্যে রাজনীতি করি, পদ পদবির জন্যে রাজনীতি করি না আরও কত কথা। আসলে যে ভিতু সেটা স্বীকার করে না। কত ভাই ব্রাদার দেখছি সেই বিশ বছর থেকে নেতাদের পিছন পিছন ঘুরে তো ঘুরেই। এখনো বলার মত কোন পদ নাই অথবা ভিক্ষা হিসেবে এদিক সেদিক হাস্যকর কিছু কমিটিতে সদস্য পদ পাইছে তাতেই মহা খুশি। আজকেই দেখলাম,  বিশ্ববিদ্যালয়ের এক বড় ভাই নিজের দশ বছর ছোট এক নেতার পাশে দাঁড়িয়ে ছবি তুলে পোস্ট দেয় - আমার নেতা, আমার আদর্শ। অথচ এই নেতা যখন ক্লাস ফাইভে পড়ে, রাজনীতির 'র' জানে না তখন আমার বিশব্বিদ্যালয়ের বড় ভাইটি রাজনীতি করে বিশ্ববিদ্যালয়ে। এখন সেই ক্লাস ফাইভের বাচ্চাও বলে বড় ভাইয়ে আদর্শিক নেতা। চুল দাড়ি পাকায় ফেলছে রাজনীতি করতে করতে, আজকে ডাক দিলেও একটা ছেলে তারজন্যে দশ মিনিট পাশে দাঁড়াবে না। এরা আজীবনই অন্যের পা চেটে বেঁচে থাকার জন্যে জন্ম নিয়েছে। 

এখানেই মহিরা ভিন্ন, চ্যালেঞ্জ নিতে জানে। চাইছি নমিনেশন,  দেয় নাই তো কি হয়েছে ?  নিজের যোগ্যতা নিজেই প্রমান করে দেখাবো। 

মাহির মত মানুষদের নিয়ে ট্রল করা সহজ কিন্তু তাদের এইভাবে সাহস করে এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টাকে প্রশংসা করা হয়ত কিছুটা কঠিন। তবুও কঠিন চেষ্টাটি করলাম - কারন নিশ্চিত হেরে যাবে  জানার পরেও যে যুদ্ধে নামে তাকে আমি সব সময় সাধুবাদ জানাই। সমাজে এইধরনের মানুষেরা নিজেদের অজান্তেও অনেক যোদ্ধা তৈরি করে সমাজের অনেক ক্ষেত্রে অনেক পরিসরে, সমাজ এদের জন্যেই মহিমান্বিত হয়।। 

মাহিয়া মাহির জন্য শুভকামনা। ট্রল তো করাই যায়, আসুন না সাধুবাদও জানাই তার পরিশ্রমকে।।


আরও খবর

সোমবারের মধ্যে গাজায় যুদ্ধবিরতি হতে পারে

মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




নোবিপ্রবিতে সাংবাদিকের উপর ছাত্রলীগের হামলা

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪ |

Image

নোবিপ্রবি প্রতিনিধি :

নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (নোবিপ্রবি) সাধারণ শিক্ষার্থীদের খাবারে ভর্তুকি প্রদান, নিরাপদ পরিবহন ব্যবস্থা, ক্লাসরুম সংকট নিরসনসহ মোট ১১ দফা আন্দোলনে সংবাদ সংগ্রহের সময় এক সাংবাদিক বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ কর্মীর দ্বারা হামলার শিকার হন। 

আজ রবিবার (১১ ফেব্রুয়ারী) দুপুর ১.৩০ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের গোলচত্বরে এ ঘটনা ঘটে। 

জানা যায়, সাধারণ শিক্ষার্থীদের উপর হামলা চলাকালে পেশাগত দায়িত্ব্পালন করতে গেলে শাখা ছাত্রলীগের কর্মীরা ওই সাংবাদিকের উপর চরাও হন। পরবর্তীতে আড়ালে ডেকে নিয়ে সাংবাদিকের মুঠোফোনে তোলা ছবি ও ভিডিও ডিলিট করার চেষ্টা করেন। পাশাপাশি ওই সাংবাদিককে প্রহার করতে থাকেন।  

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র অনুযায়ী, হামলার নেতৃত্ব দানকারী হাবীবুর রহমান রকি ইংরেজি বিভাগ ২০১৭-১৮ সেশনের শিক্ষার্থী। তিনি ভাষা শহীদ আব্দুস সালাম হল ছাত্রলীগের শীর্ষ পদ প্রত্যাশী। 

ভুক্তভোগী সাংবাদিক মিরাজ মাহমুদ দৈনিক নবদেশ ২৪ এর বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছেন।তিনি  বলেন, " আমি শিক্ষার্থীদের চলমান আন্দোলনের ভিডিও সংবাদ সংগ্রহ করতেছিলাম। আন্দোলন তখন প্রায়  শেষের দিকে। আন্দোলনের মধ্যে প্রশাসনিক ভবনের গেইটে তখন অনেকের মধ্যে হাতাহাতি ও বিশৃঙ্খলা  হচ্ছিল।  সেই মুহুর্ত আমি ভিডিও ধারণ করছিলাম। হঠাৎ করে পেছন থেকে একজন আমাকে  ডেকে নিয়ে যায় এবং গোলচত্বরে বাসের আড়ালে নিয়ে গিয়ে  আমার মাথায় এবং শরীরে জোড়ে থাপ্পর এবং কিল, ঘুষি দিয়ে আমাকে ভিডিও ডিলেট করার জন্য চাপ দিতে থাকে । আমি তাকে সাংবাদিক পরিচয়ও দিয়েছি। তারপরেও সে আমাকে কিল ঘুষি দিচ্ছিল।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, ঘটনাস্থলে এসেই বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করেন বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের ১নং সহ সভাপতি মাকসুদুল কাদের সোহান।

তবে  সাংবাদিকের গায়ে হাত তোলার বিষয়টি অস্বীকার করেন ছাত্রলীগ কর্মী হাবীবুর রহমান রকি।

সাংবাদিকের গায়ে হাত তোলার বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান বলেন, সাংবাদিকদের গায়ে হাত তোলা কখনোই কাম্য নয়। এমন কোনো অভিযোগ পেলে আইন অনুযায়ী তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


আরও খবর

বাউল ছালমা হলেন বরিশাল বিভাগের শ্রেষ্ঠ "জয়িতা"

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

পাংশায় মাদক সহ ৯ মামলার আসামী গ্রেফতার

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




মিয়ানমারে ৬২ সৈন্যকে হত্যা

প্রকাশিত:সোমবার ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ |

Image

সশস্ত্র বিদ্রোহী গোষ্ঠীর হামলায় গত তিন দিনে অন্তত ৬২ জন সেনা ও কয়েকটি ঘাঁটি হারিয়েছে মিয়ানমারের সামরিক জান্তা। সংবাদমাধ্যম ইরাবতীর এক প্রতিবেদন থেকে এই তথ্য জানা যায়।

গত কয়েক দশক ধরে সামারিক বাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছে একাধিক সশস্ত্র গোষ্ঠী। সর্বশেষ অভ্যুত্থানের পর থেকে সামরিক বাহিনীর সাথে গ্রামাঞ্চলে মারাত্মক সংঘাতে লিপ্ত রয়েছে একাধিক বিদ্রোহী গোষ্ঠী। বিদ্রোহী বাহিনীর একটি দল সম্প্রতি চীন সীমান্তে জান্তা লক্ষ্যবস্তুতে একের পর এক আকস্মিক হামলা চালিয়েছে

২০২১ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে অং সান সুচির সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করার সময় জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছে সামরিক বাহিনী। সামরিক শাসনের বিরুদ্ধে গণতন্ত্রপন্থিদের বিক্ষোভ কঠোরভাবে দমন করে জান্তা। স্থানীয় এক পর্যবেক্ষক গোষ্ঠীর মতে, সামরিক বাহিনীর দমন অভিযানে চার হাজার ৪০০ জনেরও বেশি মানুষ নিহত হয়েছেন। গ্রেপ্তার হয়েছেন কয়েক হাজার। তবে সাম্প্রতিক মাসগুলোতে সশস্ত্র গোষ্ঠীর অভিযানের মুখে কঠিন চ্যালেঞ্জে পড়েছে জান্তা বাহিনী। 

ইরাবতী জানায়, সাগাইং, মাগওয়ে, মান্দালা, কাচিন ও কারেন প্রদেশে সংঘর্ষের খবর মিলেছে। পিডিএফ বাহিনীর অভিযানের মুখে জান্তা বাহিনী তাদের মিশন ছেড়ে পালিয়ে গেছে।  

২৬ জানুয়ারি থেকে ৪০০ জান্তাসেনা নিয়ে একাধিকবার মিতওয়ে শহর দখলের চেষ্টা করেছে সরকার। তবে তা এখন পিডিএফ বাহিনীর নিয়ন্ত্রণে আছে। 

গোষ্ঠীটি জানায়, ত্যাগ করা এই সামরিক ঘাঁটিগুলোতে ১৫ জন সেনার মরদেহ পেয়েছে তারা। এছাড়া সংঘাতে জান্তা বাহিনীর আরও ৪০ জন সদস্য আহত হয়েছে বলে জানায় তারা। 


আরও খবর



ধামরাইয়ে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ম্যানেজিং কমিটি গঠন নিয়ে অনিয়মের অভিযোগ

প্রকাশিত:শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪ |

Image

মাহবুবুল আলম রিপন(স্টাফ রিপোর্টার)

ঢাকার ধামরাই উপজেলার নান্নার ইউনিয়নের ৮১ নং নান্নার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ম্যানেজিং কমিটি গঠন নিয়ে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। বর্তমান ম্যানেজিং কমিটি বিলুপ্ত না করেই নতুন কমিটি প্রকাশ করার চেষ্টা করছে একটি স্বার্থান্বেষী মহল। 

সংশ্লিষ্ট সুত্র জানায়, ২০২১ সালে নির্বাচনের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানটির ম্যানেজিং কমিটি নির্বাচিত হয়। সে কমিটি সফল ভাবেই বিদ্যালয়ের কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছিলো। ২০২৪ সালে পুরোনো কমিটি বিলুপ্ত না করে কোন ধরণের আহ্বায়ক কমিটি তৈরি না করে নতুন কমিটির নাম উপজেলা শিক্ষা অফিসে প্রস্তাব করা হয়েছে। কমিটি অনুমোদিত হওয়ার পূর্বেই ক্রীড়া প্রতিযোগি তার অনুষ্ঠানের দাওয়াতপত্রে

নতুন কমিটির সদস্যদের নাম প্রকাশ করা হয়েছে।

স্কুল কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলে জানা যায়, পূর্বের কমিটির ৪ জনের সাথে নতুন ৭ জনকে যুক্ত করে কমিটি করা হয়েছে। পূর্বের কমিটির দু একজনের সন্তান এখন এই স্কুলে পড়ে না তাই তারা সদস্যপদ হারিয়েছেন। 


এ ব্যাপারে জানতে চাইলে প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক আবুল কালাম আজাদ বলেন, কমিটির মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়ায় উপজেলা শিক্ষা অফিস বরাবর নতুন কমিটির প্রস্তাব করা হয়েছে। পুরোনো কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়নি কোন আহ্বায়ক কমিটি করা হয়নি। শিক্ষার্থীদের অভিভাবক ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যাক্তিবর্গের মধ্যস্থতার মাধ্যমে এ কমিটি সৃষ্টি করা হয়েছে, কমিটি এখনও অনুমোদিত হয়নি।

নতুন কমিটির সভাপতি মো. মোশাররফ হোসেন বলেন, আমি গতবার সভাপতি ছিলাম এবারও সকলেই আমাকে সভাপতি বানিয়েছেন। আমার প্রতিদ্বন্দ্বী কেউ ছিলো না। কমিটি বিলুপ্ত করে আহ্বায়ক কমিটির মাধ্যমে নির্বাচিত হয়েছেন কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, এলাকার গণ্যমান্য সকলে মিলেই আমাকে সভাপতি বানিয়েছেন।

এবিষয়ে ধামরাই উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা তাজমুন্নাহার বলেন, এভাবে নিয়মবহির্ভূত ভাবে নতুন কমিটি করা যাবে না। বিদ্যালয়ের কমিটি করতে হলে এলাকার গণ্যমান্য ব্যাক্তি ও অভিভাবক ও পূর্বের কমিটির উপস্থিতি রাখতে হয়। কেন এমন অসামঞ্জস্যতা দেখা দিলো তা বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


আরও খবর

বাউল ছালমা হলেন বরিশাল বিভাগের শ্রেষ্ঠ "জয়িতা"

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

পাংশায় মাদক সহ ৯ মামলার আসামী গ্রেফতার

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




শবে বরাত পালন মুসলিম জাতিকে একতার চেতনায় উদ্বুদ্ধ করে।

প্রকাশিত:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪ |

Image

মাইজভাণ্ডার শরীফের সাজ্জাদানশীন, হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ মাইজভাণ্ডারী বলেছেন, "পবিত্র শবে বরাত বা শাবান মাসের ১৫ তারিখ রজনীতে মহান আল্লাহ্ তার বান্দাদের জন্য বিশেষ দয়া ও ক্ষমা করে থাকেন। প্রিয় নবিজী (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) এ রজনীকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়েছেন। শবে বরাত মুসলিম সংস্কৃতির অবিচ্ছেদ্য অংশ। এ রজনীতে ঘরে ঘরে রুটি হালুয়া তৈরির একটি প্রথা রয়েছে। মুসলিমরা তাদের প্রতিবেশী ও দরিদ্রদের মাঝে এ খাবার বিতরণ করেন। এতে মানুষের মাঝে ভাতৃত্ববোধ ও সম্প্রীতির মনোভাব বৃদ্ধি পায়। মুসলিম উম্মাহর মাঝে একতা ও জাতীয় চেতনার জাগরণ ঘটে এ ধরনের উপলক্ষ্যগুলো পালনের মাধ্যমে। রুটি-হালুয়া এক ধরনের হালাল খাবার। মানুষকে খাওয়ানে সবচেয়ে উত্তম কাজগুলোর মধ্যে অন্যতম। বিশেষত দরিদ্রদের খাওয়ানো মহৎ একটি গুণ। এ রজনীতে বেশি বেশি তাওবা ইস্তেগফার করা, নফল নামায আদায়, পবিত্র কুরআন তিলাওয়াত, তাহাজ্জুদ আদায়, প্রিয় নবিজী (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) এর প্রতি শ্রদ্ধার সাথে সালাতু সালাম পেশ ও দরুদ শরীফ পাঠ, দান সদকাহ্ করা,নবী রসুল, সাহাবী অলি আল্লাহ মাজার ও মুরববীগনের জেয়ারত করা এবং পরদিন রোজা পালন অত্যন্ত বরকতময় আমল। মহান আল্লাহ্ যেন, এ মহিমান্বিত রজনীর মাধ্যমে আমাদের সকলের প্রতি তার সদয় দৃষ্টি নিবদ্ধ করেন।"

সীতাকুণ্ডের ভাটিয়ারিতে হযরত নেয়ামত শাহ্ (রহঃ) মাজার প্রাঙ্গণে, শেরে খোদা মওলা আলি (আঃ), গাউসুল আযম হযরত সৈয়দ আহমদউল্লাহ্ মাইজভাণ্ডারী (কঃ) ও হুযুর গাউসুল ওয়ারা হযরত আল্লামা শাহ্সুফি সৈয়দ মইনুদ্দীন আহমদ আল হাসানী মাইজভাণ্ডারী (কঃ) স্মরণে আয়োজিত গাউসুল আযম মাইজভাণ্ডারী কনফারেন্সে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

উপস্থিত ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা, বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ, ওলামা মাশায়েখ, খলিফাবৃন্দ, আঞ্জুমান-এ-রহমানিয়া মইনীয়া মাইজভাণ্ডারীয়া ও মইনীয়া যুব ফোরামের নেতৃবৃন্দ। 

দো-জাহানের বাদশাহ্, রহমাতুল্লিল আলামীন, হযরত আহমদ মুজতবা, মুহাম্মদ মুস্তফা (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) এবং তার পবিত্র আহলে বাইতগণের প্রতি সশ্রদ্ধ সালাম পেশ শেষে দেশ ও মানবতার কল্যাণ কামনায় মুনাজাত করেন, সাইয়্যিদ সাইফুদ্দীন আহমদ আল হাসানী মাইজভাণ্ডারী।


আরও খবর

অনুমতি ছাড়া হজ করলে শাস্তি ঘোষণা

শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪




শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনায় শেষ হলো ইজতেমার প্রথম পর্ব

প্রকাশিত:রবিবার ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ |

Image

দেশ ও জাতির কল্যাণ, বিশ্ব মুসলিম উম্মাহর শান্তি, ঐক্য, সমৃদ্ধি এবং ঈমানি জিন্দিগি কামনা করে আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব।

রবিবার আখেরি মোনাজাতে সমবেত লাখ মুসল্লির কণ্ঠে ইয়া আল্লাহ আর আমিন আমিন ধ্বনিতে মুখরিত হয় টঙ্গীর তুরাগতীরসহ আশপাশের কয়েক কিলোমিটার এলাকা।

ঢাকার কাকরাইল মসজিদের খতিব মাওলানা যোবায়ের সকাল ৯টার দিকে আখেরি মোনাজাত শুরু করেন। ২৩ মিনিটের আখেরি মোনাজাতে আত্মশুদ্ধি ও নিজ নিজ গুনাহ মাফের পাশাপাশি দুনিয়ার সব বালা-মুসিবত থেকে হেফাজতের আশায় দুই হাত তুলে অনুনয়-বিনয় করে মহান আল্লাহর দরবারে রহমত প্রার্থনা করেন দেশি-বিদেশি বিভিন্ন বয়সের লাখ লাখ মানুষ।

আখেরি মোনাজাতে মাওলানা যোবায়ের কান্নায় ভেঙে পড়েন। কান্নাজড়িত কণ্ঠে তিনি বলেন, হে আল্লাহ, আপনি এ উম্মতকে রক্ষা করুন। আমাদের ইমানকে শক্ত করুন। আপনি আমাদের মাফ করে দিন। কোটি কোটি টাকা যেন আমাদের ইমানকে কেড়ে নিতে না পারে, আমাদের ইমানকে যেন নষ্ট করতে না পারে, আপনি আমাদের সবাইকে সেই তৌফিক দান করুন।

এদিকে আগামী ৯ ফেব্রুয়ারি এই ইজতেমা ময়দানে শুরু হবে বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব । একইভাবে ১১ ফেব্রুয়ারি আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হবে এবারের বিশ্ব ইজতেমা।


আরও খবর

গ্যাস লিকেজ থেকে বিস্ফোরণ, দগ্ধ সাত

বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪