Logo
শিরোনাম

চা বাগানে ঘেরা হ্রদের শহর মিরিক

প্রকাশিত:সোমবার ২০ জুন ২০22 | হালনাগাদ:বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ |
Image

দার্জিলিং জেলার পাহাড়ে অবস্থিত একটি অপূর্ব সুন্দর প্রাকৃতিক দৃশ্য শোভিত স্থান মিরিক। মিরিক শব্দটি এসেছে লেপচা শব্দ 'মির-ইয়ক' থেকে। এর অর্থ 'আগুনে পুড়ে যাওয়া স্থান' মিরিক শহরটির অবস্থানের অক্ষাংশ দ্রাঘিমাংশ হল ২৬.° উত্তর ৮৮.১৭° পূর্ব। সমূদ্র সমতল থেকে মিরিকের গড় উচ্চতা ১৪৯৫ মিটার (৪৯০৫ ফুট) এখানকার উচ্চতম স্থান বোকার গোম্ফার উচ্চতা প্রায় ১৭৬৮ মিটার (৫৮০১ ফুট) নিম্নতম স্থান মিরিক লেক ১৪৯৪ মিটার (৪৯০২ ফুট) উচ্চতায় অবস্থিত।

কলকাতা থেকে ট্রেন, বাসে পৌঁছতে হবে শিলিগুড়ি। বিমানে বাগডোগরা পৌঁছতে বেশি সময় লাগে না। শিলিগুড়ি থেকে ৫২ এবং বাগডোগরা থেকে ৫৫ কিলোমিটার দূরত্ব অবস্থিত মিরিকে পৌঁছনো যায় সড়ক পথে। সঙ্গী হয় বাস কিংবা প্রাইভেট বা ভাড়া করা গাড়ি। পথিমধ্যে পার্বত্য শোভা পর্যটকদের মুগ্ধ করে।

মনোরম আবহাওয়া, প্রাকৃতিক সৌন্দর্য সুগম হওয়ার কারণে মিরিক একটি পর্যটন কেন্দ্র হয়ে উঠেছে। এখানকার মূল আকর্ষণ সুমেন্দু হ্রদ। হ্রদের একদিকে বাগান, অন্য দিকে পাইন গাছের সারি।

কয়েক বছর আগে পর্যটকরা কেবল দার্জিলিং যাওয়ার পথেই ঢুঁ মারতেন হ্রদের শহর মিরিকে। মায়াবী প্রকৃতি, সুমেন্দু হ্রদে নৌকোবিহার, সুস্বাদু খাবারদাবার সবই উপভোগ করার মতো। কিন্তু রাতে থাকতেন না। এখন অবশ্য পরিস্থিতি বদলেছে।

চারদিকে ঘিরে আছে বিখ্যাত সব চা বাগান সৌরিনী, থুর্বো, গোপালধারা, ফুগুরি। মনের প্রশান্তি চাইলে কিছুক্ষণ বসতে পারেন তিব্বতি বৌদ্ধ মঠ বোকার গুম্ফায়। পাইনের ঘন অরণ্যে গেলে ইচ্ছে করবে রহস্যময়ী প্রকৃতির মধ্যে হারিয়ে যেতে। রামিতে দারা ভিউ পয়েন্ট থেকে চোখে পড়বে রাজকীয় কাঞ্চনজঙ্ঘা। আরও বেশ কিছু ভিউ পয়েন্ট রয়েছে, যেগুলো থেকে সূর্যোদয় এবং সূর্যাস্তের অপরূপ শোভা চাক্ষুষ করতে পারবেন।

তবে প্রধান আকর্ষণ সুমেন্দু হ্রদ। তাকে ঘিরে সাবিত্রী পুষ্পোদ্যান নামের বাগান। নেতাজি সুভাষচন্দ্রের আজাদ হিন্দ ফৌজে অংশ নিয়ে যুদ্ধে শহিদ হন সাবিত্রী থাপা।তাঁকে শ্রদ্ধা জানিয়ে এই নাম রাখা হয়েছে। হ্রদের দুধারে পাইন গাছের জঙ্গল। ইন্দ্রেনি পুল নামের একটি বাঁকানো সেতু দিয়ে জুড়ে আছে দুই পাড়। আজাদ হিন্দ ফৌজের আরেক শহিদ ইন্দ্রেনি থাপার স্মরণে এই সেতু। প্রায় সাড়ে কিলোমিটার লম্বা রাস্তা ঘিরে আছে হ্রদকে। একা বা কোনও সঙ্গীকে নিয়ে হাঁটলে বেশ মজা পাবেন। আকাশ পরিষ্কার থাকলে দিগন্তে কাঞ্চনজঙ্ঘা দেখা যায়।

মিরিকে পর্যটনকেন্দ্র গড়ে তোলার কাজ শুরু হয় ১৯৬৯ সালে। থুর্বো চা বাগান থেকে ৩৩৫ একর জমি কিনে নেয় পশ্চিমবঙ্গ পর্যটন দপ্তর। কয়েক বছর আগে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রশাসন উপলব্ধি করতে পারে, বিশ্বমানের ট্যুরিস্ট স্পট হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে মিরিকে। পর্যটকদের কাছে ছোট্ট এই শহরকে আরও লোভনীয় করে তোলার কাজ চলছে।

 


আরও খবর

নতুন রূপে সেজেছে সাগরকন্যা

মঙ্গলবার ০২ আগস্ট 2০২2




সাজেকে বিপুল পরিমাণ ইয়াবা সহ এক মাদক ব্যাবসায়ী আটক

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৯ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২ |
Image

উচিংছা রাখাইন রাঙ্গামাটি ঃ 

রাঙ্গামাটি বাঘাইছড়ি উপজেলার সাজেক পর্যটন এলাকা থেকে  গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ৪৮০ পিচ ইয়াবা ও ইয়াবা সেবনের বিপুল পরিমাণ সরঞ্জাম সহ চিহ্নিত এক মাদক ব্যবসায়িকে আটক  করেছে সেনাবাহিনী বাঘাইহাট জোন। 

শুক্রবার ২৯ জুলাই দুপুরে  বাঘাইহাট জোন,৬ ইস্ট বেঙ্গল, জোন  কমান্ডার লেঃ কর্নেল মুনতাসির  রহমান চৌধুরী,পিএসসি এর নির্দেশে সাজেক আর্মি  ক্যাম্পের  কমান্ডার সিনিয়র ওয়ারেন্ট অফিসার ইবনুল বায়াৎ মোঃ ফজলে এলাহী এর নেতৃত্বে একটি  বিশেষ টহল দল এই অভিযান পরিচালনা করেন। আটক মাদক ব্যাবসায়ী  সাজেক গেস্ট হাউজ এর মালিক (অংশীদার) মোঃ জনি, সে দিঘিনালা এলাকার  মোঃ আলমগীরের ছেলে।  সেনাবাহিনী জানায় অভিযানে   ৪৮০ পিস ইয়াবা,  ফুয়েল পেপার  ২০০ টি, ইয়াবা সেবনের জন্য  বোতলের সিপি ০৩ টি, কাগজের পাইপ ০৭ টি এবং নগদ মাদক বিক্রির ২৬,০০১ টাকা সহ আটক করা হয়। পরবর্তীতে উক্ত মাদক ব্যবসায়ীকে জব্দকৃত মালামাল সহ  সাজেক থানায় হস্তান্তর করা হয়। সাজেক থানার ওসি মোঃ নুরুল ইসলাম বিষয়টি   নিশ্চিত  করে  বলেন উক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে মাদক আইনে মামলা প্রক্রিয়াধিন রয়েছে। 

বাঘাইহাট সেনা জোনের জোন কমান্ডার লেঃ কর্ণেল মুনতাসীর রহমান চৌধুরী, পিএসসি,   বলেন পার্বত্য অঞ্চলে শান্তি চুক্তি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে এবং সাজেক পর্যটন এলাকায় মাদক দ্রব্য থেকে যুব সমাজকে রক্ষার  জন্য  সেনাবাহিনী নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।

তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের সকলকে মনে রাখতে হবে সবার উপরে দেশ। তারই ধারাবাহিকতায় দেশের জনগণ এবং দেশের সম্পদ রক্ষার জন্য সেনাবাহিনী প্রতিনিয়ত কাজ করে আসছে এবং ভবিষ্যতেও এ কাজের ধারাবাহিতা অব্যাহত থাকবে।


আরও খবর



ইটনায় অবৈধ জালের বিরুদ্ধে মোবাইল কোর্ট

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৬ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৮ আগস্ট ২০২২ |
Image

মুজাহিদ সরকারঃ 

নিরাপদ মাছে ভরবো দেশ বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ। জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ ২০২২ ইং উপলক্ষে কিশোরগঞ্জের ইটনায় অবৈধ জালের বিরুদ্ধে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাফিসা আক্তার। 

২৬ শে জুলাই মঙ্গলবার সকালে ইটনা উপজেলা নির্বাহি অফিসার নাফিসা আক্তারের নেতৃত্বে ইটনা হাওরে অবৈধ কারেন্ট জাল ও চাইনা জালের বিরুদ্ধে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়। তখন উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা ফরিদ আহমদ সহ উপজেলা প্রশাসনের নেতৃবৃন্দ। 

জানা যায়, ইটনা হাওরের মাছ শিকারের সময় জেলেদের কাছ থেকে দুইটা কারেন্ট জাল ও একটা বেড় জাল জব্দ করা হয় এবং উপজেলা নির্বাহী অফিসারের উপস্থিতিতে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে ফেলা হয়। তখন জেলেদের কাউকে নগদ অর্থ জরিমানা করা হয় নাই ও জালের মূল্য আনুমানিক ৬৫-৭০ হাজার টাকা হবে।


আরও খবর



শ্রীলঙ্কায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচন ২০ জুলাই

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১২ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৭ আগস্ট ২০২২ |
Image

বিক্ষোভের মুখে পদত্যাগে বাধ্য হয়েছিলেন শ্রীলঙ্কার সাবেক প্রেসিডেন্ট রাজাপাকসে। শঙ্কার মধ্যে থেকেও তার স্থলাভিষিক্ত হয়েছিলেন প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপাকসে। রাজনৈতিক সংকট এড়াতে তিনিও এবার পদত্যাগ করে আগামি ২০ জুলাই নতুন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ঘোষণা দিয়েছেন।

সোমবার (১১ জুলাই) পার্লামেন্টের স্পিকার এ তথ্য জানিয়েছেন। বিক্ষোভকারীরা বর্তমান প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে হামলার দুই দিন পরে এ ঘোষণা এল। তারা উভয়ই অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক গোলযোগের মধ্যে পদত্যাগ করার প্রস্তাব দিয়েছেন।

প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপাকসে, যিনি প্রতিরক্ষা সচিব হিসাবে থাকাকালীন তামিল টাইগারদের নিধনের তত্ত্বাবধান করেছিলেন তিনি বুধবার (১৩ জুলাই) পদত্যাগ করতে চলেছেন। ১৯৪৮ সালে ব্রিটেনের কাছ থেকে স্বাধীনতা পাওয়ার পর থেকে সবচেয়ে বেশি সংকটে পড়ে শ্রীলঙ্কায় জ্বালানি, খাদ্য ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম আকাশচুম্বী। ফলে বিক্ষোভের মুখে তার ভাই প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসে ও ভাগ্নে এর আগে পদ ছেড়ে দিয়েছিলেন।

স্পিকার মাহিন্দা ইয়াপা আবেবর্ধনে এক বিবৃতিতে বলেছেন, শুক্রবার (১৫ জুলাই) পার্লামেন্ট ফের অধিবেশনে বসার পাঁচ দিন পর নতুন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত করবে।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ‘সোমবার রাজনৈতিক দলের নেতারা বৈঠকে সম্মত হয়েছেন যে, সংবিধান অনুযায়ী নতুন একটি সর্বদলীয় সরকার গঠন করা জরুরি।’

স্পিকার মাহিন্দা ইয়াপা আবেবর্ধনে আরও বলেছেন, ক্ষমতাসীন দল জানিয়েছে, সর্বদলীয় সরকার গঠনে প্রধানমন্ত্রী ও মন্ত্রিসভার অন্য সদস্যরাও পদত্যাগ করতে প্রস্তুত।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহের বাড়িতে আগুন দেয় বিক্ষোভকারীরা। তার কার্যালয় বলেছে যে, রাজাপাকসে প্রধানমন্ত্রীর কাছে তার পদত্যাগের পরিকল্পনা নিশ্চিত করেছেন। তারা আরও জানিয়েছে যে সর্বদলীয় সরকার গঠনের জন্য একটি চুক্তি হয়ে গেলে মন্ত্রিসভা পদত্যাগ করবে।


আরও খবর



দেশে সারের কোন সংকট নেই

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৪ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২ |
Image

বিশ্ব বাজারে ডলারের দাম বৃদ্ধির ফলে দেশে সারে প্রদত্ত সরকারের ভর্তুকিও বেড়েছে প্রায় ৪ গুণ। ২০২০-২১ অর্থবছরে যেখানে ভর্তুকিতে লেগেছিল ০৭ হাজার ৭১৭ কোটি টাকা; সেখানে ২০২১-২২ অর্থবছরে লেগেছে ২৮ হাজার কোটি টাকা।

আমরা লক্ষ করছি, সারের দাম বাড়ায় বিএনপিসহ কিছু বাম দল উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। বিএনপির সার নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ তাদের চরম নির্লজ্জতার প্রমাণ বলে আমি মনে করি। বিএনপি'র শাসন আমলে সারসহ কৃষি উপকরণের চরম সংকট ছিল। বিএনপি তাদের সময়ে কৃষককে সার দিতে না পেরে পালিয়ে পালিয়ে বেড়িয়েছে। সারের জন্য বিএনপি সরকার ১৯৯৫ সালে ১৮ জন কৃষককে গুলি করে হত্যা করেছিল।

বিপরীতে, বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার সারের উৎপাদন ও আমদানি অব্যাহত রেখেছে। গত১৩ বছরে সারসহ অন্যান্য কৃষি উপকরণের কোন সংকট হয়নি।

 বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার ২০০৯ সাল থেকে ২০২১-২২ অর্থবছর পর্যন্ত সার, সেচসহ কৃষি

উপকরণে মোট ৮৮ হাজার ৮২৮ কোটি টাকা ভর্তুকি প্রদান করেছে।

বিএনপি'র শাসন আমলে (২০০৫-০৬ অর্থ বছরে) সারে ভর্তুকির পরিমাণ ছিল মাত্র ১ হাজার ৯৫ কোটি টাকা।

২০০৫-০৬ অর্থ বছরের তুলনায় বর্তমানে ২৮ (সাতাশ) গুণ বেশি ভর্তুকি প্রদান করা হচ্ছে। যার ফলে খাদ্য উৎপাদন বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং কৃষকগণ সরাসরি উপকৃত হচ্ছেন।


আরও খবর

আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস

মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২




ইউক্রেনকে আরও ২৭ কোটি ডলারের অস্ত্র দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

প্রকাশিত:শনিবার ২৩ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৮ আগস্ট ২০২২ |
Image

ইউক্রেনকে আরও ২৭ কোটি ডলারের বাড়তি অস্ত্র দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। এর আওতায় থাকবে মধ্যম পাল্লার রকেট সিস্টেম এবং ট্যাক্টিক্যাল ড্রোন অন্তর্ভুক্ত থাকবে।

ইউক্রেনে পাঠানো আমেরিকার হাই মবিলিটি আর্টিলারি রকেট সিস্টেম বা এইচআইএমএআরএস-এর চারটি ইউনিট ধ্বংস করার পর শুক্রবার এ ধরনের আরও ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা সরবরাহের প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করল ওয়াশিংটন।

নতুন এই সামরিক সহায়তা প্যাকেজে চারটি এইচআইএমএআরএস লঞ্চার এবং ৫৮০টি ফিনিক্স ঘোস্ট ড্রোন থাকছে বলে জানিয়েছেন হোয়াইট হাউজের জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের মুখপাত্র জন কিরবি। এছাড়া ৩৬ হাজার রাউন্ড কামান বা রকেটের গোলা এবং এইচআইএমএআরএস-এ ব্যবহারযোগ্য ক্ষেপণাস্ত থাকবে।

ইউক্রেনকে নতুন এই সামরিক সহযোগিতা প্যাকেজ পাঠালে এ পর্যন্ত আমেরিকার পক্ষ থেকে দেশটিতে ৮২০ কোটি ডলারের অস্ত্রশস্ত্র পাঠানো হবে। প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রশাসন ইউক্রেনের জন্য সম্প্রতি চার হাজার কোটি ডলারের অর্থনৈতিক এবং নিরাপত্তা সহায়তা প্যাকেজ ঘোষণা করে। তবে রাশিয়া বলেছে, আমেরিকা এবং পশ্চিমা যেসব দেশ ইউক্রেনে অস্ত্রশস্ত্র পাঠাবে সেগুলো রাশিয়ার সেনাদের জন্য বৈধ লক্ষ্যবস্তু হিসেবে গণ্য হবে। মস্কো এও বলেছে, পশ্চিমা অস্ত্রের চালান হবে তাদের প্রধান লক্ষ্যবস্তু। সূত্র: ওয়াশিংটন পোস্ট, ফ্রান্স২৪


আরও খবর