Logo
শিরোনাম

স্লিপ এপনিয়া উপসর্গ ও চিকিৎসা

প্রকাশিত:সোমবার ২০ জুন ২০22 | হালনাগাদ:রবিবার ০৩ জুলাই ২০২২ |
Image

সম্প্রতি ভারতীয় উপমহাদেশের সংগীতশিল্পী বাপ্পী লাহিড়ী মুম্বাইয়ের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, জনপ্রিয় এই গায়কের মৃত্যু হয়েছে অবস্ট্রাকটিভ স্লিপ অ্যাপনিয়ায়। কিন্তু এই স্লিপ অ্যাপনিয়া কী, কত ধরনের, এর কোনো চিকিৎসা আছে কিনা এবং থেকে প্রতিকারের উপায় সম্পর্কে মানুষে ধারণা খুব কম। এবার তাহলে স্লিপ অ্যাপনিয়ার এই সব বিষয়ে জেনে নেয়া যাক-

 

স্লিপ অ্যাপনিয়া

স্লিপ অ্যাপনিয়ায় আক্রান্ত ব্যক্তির ঘুমে বারবার ব্যাঘাত ঘটে শ্বাস-প্রশ্বাস বন্ধ হওয়ায়। বিষয়ে জাতীয় নাক কান গলা ইনস্টিটিউটের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক অধ্যাপক মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ জানিয়েছেন, যখন কোনো ব্যক্তির স্লিপ অ্যাপনিয়া হয় তখন তিনি ঘুমানোর একটু পরই জোরে জোরে শ্বাস নিতে থাকেন। আক্রান্ত ব্যক্তির শ্বাস নেয়ার গতি বেড়ে গেলে হঠাৎ করেই আবার শ্বাস-প্রশ্বাস বন্ধ হয়। এক্ষেত্রে কিছুক্ষণ পর ফের শ্বাস-প্রশ্বাস নেয়া শুরু হয়। আর শ্বাস-প্রশ্বাসের এই ব্যাঘাতকে অ্যাপনিয়া বলা হয়।

 

ঘুমের মধ্যে জোরে নিঃশ্বাস নেয়ার সময় হঠাৎ করেই শ্বাস-প্রশ্বাস বন্ধ হওয়ার কারণ হিসেবে অধ্যাপক আব্দুল্লাহ জানিয়েছেন, শ্বাস-প্রশ্বাস যখন বারবার নেয়া হয় তখন মূলত বাতাসের সঙ্গে শরীর থেকে কার্বন ডাই অক্সাইড বের হয়। কার্বন ডাই অক্সাইডের পরিমাণ কমে গেলে মানুষের শরীরে থাকা শ্বাস-প্রশ্বাসের সিস্টেম বন্ধ করে দেয় সেন্ট্রাল নার্ভাস সিস্টেম। তখন নিশ্বাস কিছুক্ষণ বন্ধ থাকার পর শরীরের সেন্ট্রাল নার্ভাস সিস্টেমে ফের কার্বন ডাই অক্সাইডের পরিমাণ বৃদ্ধি পেলে নার্ভাস সিস্টেম পুরোদমে উজ্জীবিত হয়ে শ্বাস-প্রশ্বাস ফিরে আসে। আর এই জটিল পরিস্থিতিতে অনেক সময় মানুষের মৃত্যুও হয়ে থাকে।

 

অ্যাপনিয়ার প্রকারভেদ

অধ্যাপক মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ জানিয়েছেন, শ্বাস-প্রশ্বাসের ক্ষেত্রে বাধা সৃষ্টি হলে তখন তাকে অবস্ট্রাকটিভ স্লিপ অ্যাপনিয়া বলা হয়ে থাকে। এটা গলায় টনসিল ফুলে গিয়ে হতে পারে। অনেক ক্ষেত্রে শ্বাসনালী এবং গলার সংযোগ স্থলে মাংসপেশি ফুলে গিয়ে হয়ে থাকে। যাকে অ্যাডনয়েডও বলা হয়। আবার অনেক সময় নাকের ভেতরে মাংসপেশি বড় হয়ে যায়।

 

এসব সমস্যাগুলো শ্বাস-প্রশ্বাসের ক্ষেত্রে বাধা তৈরি করে থাকে। যাকে অবস্ট্রাকটিভ স্লিপ অ্যাপনিয়া হিসেবে শনাক্ত করা হয়। রোগে সাধারণত যাদের ওজন বেশি বা শরীরে মেদ বেশি, বয়স্ক মানুষ শিশু তারা ভোগে থাকেন।

 

বিশেষজ্ঞ এই চিকিৎসকের মতে, হৃদপিণ্ড, ব্রেন এবং নিউরোজনিত সমস্যা থেকে মানুষের শরীরের সেন্ট্রাল নার্ভাস সিস্টেনে বিভিন্নরকম জটিলতা হয়ে থাকে এবং ওই ব্যক্তির তখন স্লিপ অ্যাপনিয়ায় ভোগার সম্ভাবনা থাকে। অনেক ক্ষেত্রে এই সমস্যা জটিল এবং গুরুতর হয়। তবে এই দুই ধরনের অ্যাপনিয়াতেই আক্রান্ত ব্যক্তির মৃত্যুর ঝুঁকি রয়েছে।

 

অ্যাপনিয়ার চিকিৎসা

অবস্ট্রাকটিভ স্লিপ অ্যাপনিয়ায় আক্রান্ত ব্যক্তির ক্ষেত্রে প্রথমেই যা দেখা হয় তা হলো, শ্বাসনালীকে কেন্দ্র করে কোন জায়গায় বাধা রয়েছে এবং তা চিহ্নিত করে পরে অপসারণ করতে হয়। এক্ষেত্রে অল্প সময়েই মুক্তি পাওয়া যেতে পারে এই সমস্যা থেকে। তবে জটিল স্লিপ অ্যাপনিয়া শরীরের বিভিন্ন গুরুতর সমস্যা থেকে হয়ে থাকে বলে এর চিকিৎসা আজীবন চালানোর প্রয়োজন হতে পারে।

 

প্রতিরোধের উপায়

স্লিপ অ্যাপনিয়া থেকে মুক্তির ক্ষেত্রে চিকিৎসকদের পরামর্শ, একটু সতর্ক থাকলে এই রোগ থেকে দূরে থাকা সম্ভব। শরীরের উচ্চতা অনুযায়ী ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখা। নিয়মিত শারীরিক ব্যায়াম করা এবং সুষম খাদ্যাভ্যাস করা। এছাড়া যাদের ঘুমের মধ্যে বার বার নিঃশ্বাস বন্ধ হয় তাদের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের পরামর্শ নিতে বলে থাকেন চিকিৎসকরা।

 


আরও খবর

বাড়ছে মৃত্যু, কমেছে শনাক্ত

শনিবার ০২ জুলাই 2০২2




ঈদের আগে অনুষ্ঠিত হচ্ছে না এসএসসি পরীক্ষা

প্রকাশিত:শনিবার ১৮ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

মইনুল ইসলাম মিতুল :   দেশজুড়ে বন্যা পরিস্থিতির অবনতির কারণে পিছিয়ে গেল এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা। ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের বিশ্বস্ত সূত্র থেকে পাওয়া এক খবরে এ তথ্য নিশ্চিত হওয়া গেছে। সূত্রটি বলছে, বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হলে আগামী সাত থেকে দশ দিন পর পুনরায় এসএসসির নতুন রুটিন প্রকাশ করা হবে।

এ বিষয়ে আন্তঃশিক্ষাবোর্ড সমন্বয় কমিটির সভাপতি ও ঢাকা শিক্ষাবোর্ড চেয়ারম্যান অধ্যাপক তপন কুমার সরকার বলেন, ঈদের আগে এসএসসি পরীক্ষা আয়োজনের সুযোগ যে একেবারে নেই তা বলবো না। তবে সবকিছুই নির্ভর করছে বন্যা পরিস্থিতির ওপর। আমরা আশা করছি আগামী এক সপ্তাহের মধ্যেই বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হবে। আর পরিস্থিতি ভাল হলেই পরীক্ষার সময়সূচি প্রকাশ করা হবে।

এবার এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় ২০ লাখ ২১ হাজার ৮৬৮ জন শিক্ষার্থীর অংশ নেবে। সাধারণ নয়টি বোর্ডের অধীনে ১৫ লাখ ৯৯ হাজার ৭১১ জন পরীক্ষার্থী রয়েছে। এর বাইরে দাখিলে ২ লাখ ৬৮ হাজার ৪৯৫ জন আর কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এসএসসি ও দাখিল ভোকেশনালে ১ লাখ ৬৩ হাজার ৬৬২ পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় বসবে।

এসএসসি পরীক্ষার্থীরা বলছেন, দীর্ঘ আড়াই বছরের বেশি সময় ধরে তারা নাইন-টেনের ক্লাস করছেন। এতদিনে তাদের কলেজে ক্লাস করার কথা।

এ বিষয়ে বোর্ড চেয়ারম্যান বলেন, আসলে প্রাকৃতিক দুর্যোগের উপর কারও হাত নেই। তবে প্রথমদিকে করোনা ও পরবর্তীতে বন্যার কারণে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, আমাদের নিয়মিত সময় ছিল ফেব্রুয়ারি-মার্চে এসএসসি পরীক্ষা আয়োজনের। ওই সময় দেশে বৃষ্টিপাত বা বন্যার সম্ভাবনা থাকে না। কিন্তু করোনা মহামারি আমাদের শিক্ষা ক্যালেন্ডার তছনছ করে দিয়েছে। আমরা আবার আগের সূচিতে ফিরে যাওয়ার চেষ্টা করবো।

এদিকে এসএসসি পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে অনেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করা হয়েছে। এ বিষয়ে অধ্যাপক তপন কুমার সরকার বলেন, বন্যা কবলিত এলাকা ছাড়া অন্য সব এলাকার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে স্বাভাবিক নিয়মে পাঠদান চালু থাকবে। যদি কোনো প্রতিষ্ঠান ক্লাস কার্যক্রম ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করে তবে তা পূণরায় চালু করতে হবে।

এর আগে শুক্রবার দেশের সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় আগামীর ১৯ জুন থেকে শুরু হওয়া সকল শিক্ষা বোর্ডের এসএসসি জেনারেল, এসএসসি ভোকেশনাল এবং দাখিল পরীক্ষা স্থগিত করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে মন্ত্রণালয় পরীক্ষার পরিবর্তিত সময়সূচি পরে জানানো হবে বলেও জানিয়েছে।

জানা যায়, এ বছর এসএসসিতে তিনটি বিষয়ে পরীক্ষা দিতে হবে না শিক্ষার্থীদের। এসএসসিতে বিভাগভেদে বাংলা, ইংরেজি, গণিত, গার্হস্থ্য বিজ্ঞান, কৃষিশিক্ষা, সংগীত, আরবি, সংস্কৃত, পালি, শারীরিক শিক্ষা ও ক্রীড়া, চারু ও কারুকলা, পদার্থবিজ্ঞান, বাংলাদেশের ইতিহাস ও বিশ্বসভ্যতা, ফিন্যান্স ও ব্যাংকিং, রসায়ন, পৌরনীতি ও নাগরিকতা, ব্যবসায় উদ্যোগ, ভূগোল ও পরিবেশ, উচ্চতর গণিত, হিসাববিজ্ঞান, জীববিজ্ঞান, অর্থনীতি বিষয়ে পরীক্ষা হবে।

এর আগে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি পদ্মা সেতু উদ্বোধনের কারণে ২৫ জুন এসএসসি পরীক্ষার্থীদের ইংরেজী দ্বিতীয় পত্র পরীক্ষা আগের দিন অর্থাৎ ২৪ জুন নেয়ার ঘোষণা দেন। তিনি, এসএসসি পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে ১৫ জুন থেকে সারাদেশের কোচিং সেন্টার তিন সপ্তাহ বন্ধের নির্দেশ দেন।


আরও খবর



কিশোরগঞ্জে হাওরে নৌকাডুবিতে তিনজন নিখোঁজ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৪ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

মুজাহিদ সরকারঃ 

কিশোরগঞ্জের ইটনার হাওরে ১৩ জুন রোজ সোমবার সকালের ঝড়ের কবলে পড়ে ০৩ জন নিখোঁজ হয়েছেন। উক্ত দুর্ঘটনা ঘটে বড়িবাড়ী ইউনিয়নের এন সহিলা গ্রামের সামনের হাওরে। 

ইটনা থানা থেকে নৌকাডুবি দুর্ঘটনা বিষয়টি নিশ্চিত  করে বলেন, সকালে তাড়াইল উপজেলার দামিহা এলাকা থেকে নৌকায় করে গাছের ডালপালা নিয়ে ইটনা সদর ইউনিয়নের বেতেগার দিকে রওনা দেন মাসুদ, সিরাজ,ওয়াসিম, নিজামুল। বড়িবাড়ি ইউনিয়নের এন সহিলা গ্রামের সামনে হাওরে পৌঁছালে ঝড়ো বাতাস শুরু হয়। এতে ডুবে যায় নৌকাটি। এর মধ্যে ওয়াসিম ও নিজামুল দুই জন সাঁতরে মাছ ধরার নৌকায় উঠে যান। বাকি ০৩জন কে পাওয়া যায়নি। 

নিখোঁজ ব্যক্তিরা হলেন করিমগঞ্জের সিরাজ(৬০), তাড়াইলের মাসুদ(২৫) ও করিমগঞ্জের ওয়াসিম 

ইটনা ফায়ারসার্ভিস স্টেশন বলেন, নিখোঁজদের উদ্ধারের ০৪ ডুবুরি দল ঘটনাস্থলে আসে। রাত ৮টা পর্যন্ত তাদের পাওয়া না যাওয়ায় উদ্ধারকাজ স্থগিত করা হয়েছে এবং ১৪ জুন মঙ্গলবার সকালে আবার উদ্ধারে কাজ শুরু করবে।


আরও খবর



ছয় দফা দিবসে বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে শ্রদ্ধা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

ঐতিহাসিক ছয় দফা দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানিয়েছে আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন সংগঠন।

১৯৬৬ সালের এই দিনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ঘোষিত বাঙালি জাতির মুক্তির সনদ ৬-দফা দাবির পক্ষে দেশব্যাপী তীব্র গণআন্দোলনের সূচনা হয়। দিনটি বাঙালি জাতির স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাসে প্রতিবাদ এবং আত্মত্যাগের গৌরবোজ্জ্বল সংগ্রামী অনন্য এক দিন।

ঐতিহাসিক এই দিবসটি উপলক্ষে ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানিয়েছে আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন সংগঠন।

দিবসটি উপলক্ষে মঙ্গলবার (৭ জুন) সকালে নেতাদের সঙ্গে নিয়ে আওয়ামী লীগের পক্ষে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে তারা নীরবে কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকেন।

পরে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপির অপপ্রচারের জবাব কাজের মাধ্যমে দেবে আওয়ামী লীগ। যারা ৭ জুন মানে না, তারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী নয় বলেও মন্তব্য করেন, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী।

প্রসঙ্গত, ঐতিহাসিক ছয় দফা দিবস। ১৯৬৬ সালের এ দিনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ঘোষিত বাঙালি জাতির মুক্তির সনদ ৬ দফা দাবির পক্ষে দেশব্যাপী তীব্র গণআন্দোলনের সূচনা হয়। এ দিনে আওয়ামী লীগের ডাকা হরতালে টঙ্গি, ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জে তৎকালীন পুলিশ ও ইপিআরের গুলিতে মনু মিয়া, শফিক ও শামসুল হকসহ ১১ জন বাঙালি শহীদ হন। এরপর থেকেই বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে আপসহীন সংগ্রামের ধারায় উনসত্তরের গণ-অভ্যুত্থানের দিকে এগিয়ে যায় পরাধীন বাঙালি জাতি।

পরবর্তী সময়ে ঐতিহাসিক ৬ দফাভিত্তিক নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলনই ধাপে ধাপে বাঙালির স্বাধীনতা সংগ্রামে পরিণত হয়। এ দাবির সপক্ষে বাঙালি জাতির সর্বাত্মক রায় ঘোষিত হয় ১৯৭০ সালের ঐতিহাসিক সাধারণ নির্বাচনের মধ্য দিয়ে। ওই নির্বাচনে আওয়ামী লীগকে সংখ্যাগরিষ্ঠ আসনে বাঙালিরা বিজয়ী করে।

অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধুর দলকে জনগণ বিজয়ী করলেও স্বৈরাচারী পাকিস্তানের শাসকরা বিজয়ী দলকে সরকার গঠন করতে না দিলে আবারো বঙ্গবন্ধু জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করে স্বাধীনতার পক্ষে আন্দোলন শুরু করেন। এরই ধারাবাহিকতায় বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে ১৯৭১ সালে সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অভ্যুদয় ঘটে স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশের।


আরও খবর



নোয়াখালীতে যায়যায়দিন পত্রিকার প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

প্রকাশিত:সোমবার ০৬ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

অনুপ সিংহ,নোয়াখালী প্রতিনিধিঃ

যায়যায়দিন পত্রিকার ১৭তম বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষে নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীতে কেক কাটা ও আলোচনা সভার মধ্য দিয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত। 

বস্তুনিষ্ঠতা, সাহসিকতা ও নিরপেক্ষতা কে সঙ্গী করে পাঠক নন্দিত দৈনিক যায়যায়দিন পত্রিকার প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে সোনাইমুড়ী প্রেসক্লাবে সোমবার সকাল ১১টার দিকে দৈনিক যায়যায়দিন প্রতিনিধি ও প্রেসক্লাব সভাপতি খোরশেদ আলম সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা মোঃ ইসমাইল হোসেন, থানার অফিসার ইনচার্জ হারুন-অর-রশিদ, সোনাইমুড়ী অন্ধ কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মোস্তফা ভুইয়া, সোনাইমুড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও বাজার বণিক সমিতির সভাপতি মাহফুজুর রহমান বিপি বাহার, যুবলীগের আহ্বায়ক খলিলুর রহমান, সোনাইমুড়ী থানার এসআই মাইনুদ্দিন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ইয়াকুব আল মাহমুদ ,সাবেক সভাপতি সামছুল আরেফিন জাফর, সিনিয়র সহ-সভাপতি বেলাল হোছাইন ভূঁইয়া, সহ-সভাপতি মামুনুর রশিদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিন, ফজলুল হক, সাংগঠনিক সম্পাদক অনুপ সিংহ, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক এমএবি সিদ্দিক, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মোহাম্মদ উল্যাহ ভূঁইয়া, সম্মানিত সদস্য আবুল কাশেম, আমাদের সময় প্রতিনিধি গোলজার হানিফ, এশিয়ান টিভির প্রতিনিধি মাহবুব আলম, 

ভোরের সময় জেলা প্রতিনিধি মোঃ সেলিমসহ সাংবাদিকবৃন্দ।


আরও খবর



রাঙ্গামাটি রাজস্থলীতে আঞ্চলিক সংগঠনের দুই পক্ষের গোলাগুলি, নিহত ১

প্রকাশিত:রবিবার ২৬ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

উচিংছা রাখাইন,রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি

রাঙ্গামাটির রাজস্থলীতে আঞ্চলিক সংগঠনের দুই গ্রুপের গোলাগুলিতে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি (জেএসএস)এর পোষাক পরিহিত  একজন নিহত হয়েছেন।শুক্রবার দিবাগত রাত আনুমানিক ১০ ঘঠিকার সময় উপজেলার গাইন্দ্যা ইউনিয়নের ওগারীপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সুত্রে জানা গেছে।

রাজস্থলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাকির হোসাইন জানান, উপজেলা সদর থেকে ৭ কিলোমিটার দূরে দুর্গম পাহাড়ি এলাকায় গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। সকালে ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পোশাক পরিহিত একজনের লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত ব্যক্তি আঞ্চলিক সংগঠন চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি (জেএসএস)এর সদস্য বলে ধারণা করা যাচ্ছে  বলে জানিয়েছেন ওসি। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাঙ্গামাটি জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হচ্ছে বলে জানান। রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত গোলাগুলিতে নিহত ব্যক্তির পরিচয় এখনো জানা যায়নি।


আরও খবর