Logo
শিরোনাম
রাজধানীর সেতু ভবনে আগুন কমপ্লিট শাটডাউন : ঢাকাসহ সারা দেশে বিজিবি মোতায়েন জয়পুরহাটের পাঁচবিবিতে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ইট বোঝায় ট্রাক খাদে কুষ্টিয়ায় আন্দোলনকারী ও ছাত্রলীগের মধ্যে সংঘর্ষ -কয়েকটি মোটর সাইকেলে আগুন পুঠিয়ায় আ’লীগের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা লালমনিরহাটে অনুষ্ঠিত হয়েছে তিস্তা সমাবেশ বেনাপোল স্থল বন্দর দিয়ে মিথ্যা ঘোষণায় আমদানি করা হয়েছে ১৮ কোটি টাকার সালফিউরিক এসিড কুমারখালীতে মহাসড়ক অবরোধ করে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ, আহত-২ শরণখোলায় নার্সের চিকিৎসার অবহেলায় এক রোগীর মৃত্যুর অভিযোগ শেরপুরে কোটাবিরোধী শিক্ষার্থী-ছাত্রলীগের সংঘর্ষ, সাংবাদিকসহ আহত-২০

স্বার্থপর মানুষ

প্রকাশিত:বুধবার ১৩ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২০ জুলাই ২০24 |

Image

অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান চৌধুরীর ফেসবুক থেকে নেয়া ঃ

স্বার্থপর মানুষ সব সময় মাথা উঁচু করে আকাশের দিকে তাকাতে ভালোবাসে | অথচ স্বার্থপর মানুষ মাটির এতটা কাছাকাছি থেকেও  মাথা নিচু করে মাটির দিকে তাকাতে লজ্জাবোধ করে | কিন্তু এমনটা তো হবার কথা ছিলোনা, তারপরও এমনটাই ঘটে যায় | কারণ মানুষ মনে করে চোখ যত উপরে তোলা যাবে জীবন তত জয়ী  হয়ে উঠবে, কপালটা নামিয়ে চোখ নিচে নেমে এলে  মানুষ সেটাকে নিজের পরাজয় হিসেবে ভাবতে শুরু করে | আসলে মানুষ যা ভাবছে সেটা হয়তো একটা আবরণ, একটা মুখোশ কিংবা অভিনয়  | 

একটা চাদর শরীরে চড়িয়ে দিয়ে মানুষ সে আবরণটাকে মূল্যবান মনে করে | কিন্তু চাদরের ভিতরে নিভৃতে বসে থাকা চামড়ার শরীরটাকে মানুষ কোনো মূল্যই দিতে চায়না |   তবে নির্মম সত্য হলো, ভিতরের চামড়ার কাছে চাদরের কোনো মূল্য নেই | চাদর না থাকলেও মানুষের অস্তিত্ব থাকে, চামড়া না থাকলে অস্তিত্বের সংকটে পড়ে যায় মানুষ | মানুষ চাকচিক্যের মোহে মুগ্ধতাকে আঁকড়ে ধরতে জীবনকে বাজী রাখে, মুগ্ধতার চেয়ে যে বাস্তবতা অনেক বড়  তা কোনোভাবেই মানার মতো যুক্তিপূর্ণ জায়গায় নিজেকে নিয়ে যেতে পারেনা | 

মানুষ পা মাটিতে রেখে মাটিকে আঘাতে আঘাতে ক্ষত-বিক্ষত করতে করতে আকাশ দেখার স্বপ্নে আমোদিত হয়, মাটি  কাঁদে, মাটির কান্না মাটি নিজেই শুষে নেয়   | কিন্তু মাটির নিচে অসহায় কান্না জমতে জমতে নদীর জন্ম দেয়, যে নদী কানায় কানায় কান্নার পানিতে ডুবে থাকে  | খুব সুবিধাবাদী হয় মানুষ, মাটিকে কাঁদায়, আঘাত করে, বার বার বিপন্ন করে মাটির জীবন   আবার   সেই কান্নার জমে থাকা পানি মাটির বুক চিড়ে মানুষ বের করে আনে নিজের অস্তিত্বের স্বার্থে |   অথচ    মাটির সেই বোবা  কান্না মানুষের কানে পৌঁছাতে পারেনা | 

হয়তো মানুষ কান্নাকে কখনো আপন করতে পারেনা অথচ নিজের জন্মের সময় চিৎকার করে মানুষ কেঁদে উঠে | তখন কান্না খুব আপন থাকে , কারণ না কাঁদলে  জন্মটাই যে অর্থহীন হয়ে পড়তে পারে | শেকড়টা মানুষ এখন আর খুঁজেনা, মানুষ শেকড়ের ভিতর তার স্বার্থ খুঁজে |   খুব অদ্ভুত মানুষের মনস্তত্ব | আকাশকে কখনো ধরতে পারেনা অথচ আকাশের চাঁদকে মানুষ ভোগবাদী চিন্তার উৎস বানায় | ঝুলে থাকা তারাদের জ্বল জ্বল করে জ্বলতে দেখে মানুষ নিজের ভিতরের রঙের মেলা বসায় | অথচ সেই তারা গুনতে গুনতে মানুষ খেই হারিয়ে ফেলে | যতবার গুনে ততবার হার মানে | মানুষের কাছে আকাশের তারা ততক্ষন মূল্যবান যতক্ষণ তারাদের পতন ঘটেনা | 

ঝুলন্ত তারায় মানুষ তার স্বার্থের বীজ বুনে অথচ  একটা পতনশীল তারার আর্তনাদ মানুষের কানে  পৌঁছায় না | তারারা হারিয়ে যায় শুন্যতায়, যেমন মানুষও  হারিয়ে যায় শুন্যতায় | 

আকাশ আর মাটি উপমমাত্র | মানুষ তার নিজের মতো করে ভাবুক, ভাবনাগুলো পাখি হোক, সে পাখি কখনো খাঁচায় বন্দি হবেনা | বরং যতক্ষণ বেঁচে থাকবে ততক্ষন মাটিতে পা রেখে স্বাধীন ভাবনা দ্বারা তাড়িত হবে | ভাবনা উড়ুক যতটা উপরে ততটা তবে মানুষটার পা-টা  থাকুক কাদামাটির মাটির নিচে | ক্রমাগত নিচে, যেখানে বিনয় আর ত্যাগ হবে মানুষের শক্তি | যে শক্তির কাছে সব শক্তি একদিন পরাভূত হবে |

--   


আরও খবর



পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের বিবৃতিতে টিআইবির উদ্বেগ

প্রকাশিত:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০২৪ |

Image



বিডি টুডেস ডেস্ক:


সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যম নিয়ে বাংলাদেশ পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের (বিপিএসএ) বিবৃতিকে স্বাধীন সাংবাদিকতার প্রতি সংবিধান পরিপন্থি হুমকি উল্লেখ করে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। 



বিষয়টিকে সাম্প্রতিক সময়ে ফাঁস হওয়া সাবেক শীর্ষ পুলিশ কর্মকর্তাদের বিপুল পরিমাণ অর্থ-সম্পদ অর্জনের তথ্য প্রকাশে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির পাশাপাশি পুলিশ বাহিনী একাংশের দুর্নীতির সুরক্ষা প্রদানের অপচেষ্টা হিসেবে উল্লেখ করেছে সংস্থাটি। 



গতকাল রোববার (২৩ জুন) সংস্থাটির আউটরিচ অ্যান্ড কমিউনিকেশন পরিচালক মোহাম্মদ তৌহিদুল ইসলামের সই করা এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়।



বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ক্ষমতার অপব্যবহার ও দুর্নীতির মাধ্যমে বিপুল সম্পদের মালিক হওয়া সাবেক পুলিশ কর্তাদের নিয়ে নিয়মিত সংবাদ প্রকাশ ও প্রচারের পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশ পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের বিবৃতিকে উটপাখির আচরণসম উল্লেখ করে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, “সাবেক পুলিশ কর্মকর্তাদের দুর্নীতির বিষয়ে সংবাদ প্রকাশকে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত উল্লেখ করে দেওয়া বিবৃতিটিই পুরোপুরি উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।



 পুলিশ কর্মকর্তাদের সংগঠনের এমন বিবৃতি যে দুর্নীতির দায়ে অভিযুক্তদের সুরক্ষা দেওয়ার একটি সুপরিকল্পিত প্রক্রিয়া—এমন মনে হওয়া মোটেও অমূলক নয়। দেশের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তাদের সংগঠনের এ বিবৃতি একদিকে যেমন সংবিধান স্বীকৃত স্বাধীন সাংবাদিকতার প্রতি সরাসরি হুমকি ও গণমাধ্যমের কণ্ঠরোধের প্রচেষ্টা, অন্যদিকে তেমনি নাগরিকের তথ্য জানার অধিকার নিশ্চিতের অধিকারের সুস্পষ্ট লঙ্ঘন।



 মূলত বাস্তবতাকে অস্বীকার করে পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন যে ‘উটপাখির মতো বালিতে মুখ গুঁজে’ রাখার চেষ্টা চালাচ্ছে—এমন মন্তব্য করা মোটেই অত্যুক্তি হবে না।”



গণমাধ্যমে প্রকাশিত দুর্নীতির খবরে পুলিশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হচ্ছে—পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের এমন বক্তব্যকে বালখিল্যতার সামিল উল্লেখ করে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক বলেন, ‘পুলিশের সাবেক শীর্ষ কর্তাদের দুর্নীতির যে বিশাল, অস্বাভাবিক ও অনেকাংশে উৎকট খতিয়ান আমরা গণমাধ্যমের কল্যাণে জানতে পারছি, সেসব সংবাদকে ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হওয়ার খোঁড়া যুক্তিতে থামানোর চেষ্টা করা পুলিশের মতো একটি দায়িত্বশীল সংস্থার ভাবমূর্তি সুরক্ষায় নিজেদের সক্ষমতা ও সৎসাহস নিয়ে প্রশ্ন জন্ম দেয়। 



এমন স্বার্থের দ্বন্দ্বে দুষ্ট যুক্তির বদলে বিপুল দুর্নীতির দায়ে অভিযুক্ত সাবেক কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ জানা যাচ্ছে, তার জন্য বিব্রতবোধ করে স্বপ্রণোদিত হয়ে পুলিশের তরফ থেকে নিরপেক্ষ ও স্বার্থের দ্বন্দ্বমুক্ত তদন্তে সহায়তার ঘোষণা দিলে তা বাহিনীর দুর্নীতি প্রতিরোধের সদিচ্ছার দৃষ্টান্ত স্থাপন করতো। তা একদিকে যেমন পুলিশের ভাবমূর্তির জন্য সহায়ক হতো, অন্যদিকে পুলিশের প্রত্যাশিত পেশাগত মর্যাদার সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ হতো।’



পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের বিবৃতিতে মহান মুক্তিযুদ্ধে অবদানের পাশাপাশি দেশের শান্তিশৃঙ্খলা রক্ষা, বিভিন্ন দুর্যোগ-সংকট মোকাবিলা ও মানবসেবায় পুলিশের ভূমিকার কথা উল্লেখ করা হয়েছে। 



এ বিষয়ে দ্বিমতের কোনো অবকাশ নেই এবং এজন্য পুলিশবাহিনী যৌক্তিকভাবেই প্রশংসার দাবিদার। কিন্তু পুলিশের এই ভূমিকাকে দুর্নীতির তথ্য গোপনের মাধ্যমে অবৈধতা প্রসারের লাইসেন্স হিসেবে ব্যবহারের কোনো সুযোগ নেই উল্লেখ করে ড. জামান বলেন, ‘বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ থেকে শুরু করে বিভিন্ন সংগ্রাম, দুর্যোগ কিংবা সংকটে পুলিশের অবদানকে আমরা শুধুমাত্র স্বীকারই করি না, প্রশংসার সঙ্গে স্মরণেও রাখি।



 কিন্তু এই অবদানকে অপরাধের সুরক্ষার লাইসেন্স হিসেবে ব্যবহার বা অপরাধীর জন্য বিচারহীনতার সুযোগের হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করার দুরভিসন্ধি পুলিশের নৈতিকতাকেই প্রশ্নবিদ্ধ করে।’



গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদ থেকে জানা যাচ্ছে, পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের বিবৃতির পর পুলিশকে নিয়ে সংবাদ প্রকাশের ক্ষেত্রে গণমাধ্যম যেন সতর্কতা অবলম্বন করে, সে বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়কে অনুরোধ করেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।



 বিষয়টিকে শুধু দেশের গণমাধ্যমের স্বাধীনতাই নয়, পুরো জবাবদিহিমূলক গণতান্ত্রিক ব্যবস্থার জন্য অশনিসংকেত হিসেবে মন্তব্য করেছে টিআইবি।


এ প্রসঙ্গে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক বলেন, ‘পুলিশ বাহিনীতে দুর্নীতি প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণের অন্যতম হাতিয়ার হিসেবে তথ্য প্রকাশ নিশ্চিতের পরিবেশ সৃষ্টি করার কথা যে মন্ত্রণালয়ের, সেই স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কেই তথ্য গোপনের মাধ্যমে দুর্নীতিকে সুরক্ষা প্রদানে উদ্যোগী হতে দেখা যাচ্ছে।



 দুর্নীতির বিরুদ্ধে শূন্য সহনশীলতার ঘোষণাসহ একটি গণতান্ত্রিক ও জনকল্যাণে নিবেদিত দাবি করা সরকারের জন্য এর চেয়ে দুর্ভাগ্যজনক আর কি হতে পারে! আমরা আশা করবো, পুলিশ কর্মকর্তাদের সংগঠন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় তাদের ওপর সাংবিধানিকভাবে অর্পিত দায়িত্বকে স্মরণ করে দুর্নীতি ও ক্ষমতার অপব্যবহারসহ সব ধরনের অপরাধকে সুরক্ষা দেওয়ার এই হীন প্রচেষ্টা থেকে বেরিয়ে অভিযোগের নিরপেক্ষ ও স্বার্থের দ্বন্দ্বমুক্ত তদন্তে সহায়ক ভূমিকা পালনে উদ্যোগী হবে।’



আরও খবর

রাজধানীর সেতু ভবনে আগুন

বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪




যুক্তরাজ্যে বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়ে জয়ের পথে লেবার পার্টি

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৫ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ |

Image



বিডি টুডেস আন্তর্জাতিক ডেস্ক:



যুক্তরাজ্যে কনজারভেটিভ পার্টির ১৪ বছরের শাসনের অবসান ঘটিয়ে দেশটির প্রধান বিরোধী দল লেবার পার্টি বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) অনুষ্ঠিত সাধারণ নির্বাচনে বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়ে বিজয়ী হতে চলেছে। 



বুথ ফেরত জরিপের এই আভাসের মাধ্যমে ধরে নেওয়া হচ্ছে ঋষি সুনাককে সরিয়ে দিয়ে দেশটির পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হতে চলেছেন কেইর স্টারমার। খবর এএফপির।



যুক্তরাজ্যের সম্প্রচার মাধ্যমগুলোর সর্বশেষ জরিপে দেখা যাচ্ছে, এই নির্বাচনে হাউস অব কমন্সের ৬৫০টি আসনের মধ্যে মধ্য-বামপন্থি লেবার পার্টি ৪১০টি আসন পেতে যাচ্ছে। 



এর ফলে মনে করা হচ্ছে প্রয়োজনের চেয়ে ১৭০টিরও বেশি আসনের সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ২০১০ সালের পর আবারও ক্ষমতায় ফিরতে যাচ্ছে লেবার পার্টি।



জরিপ অনুযায়ী, ঋষি সুনাকের কনজারভেটিভ পার্টি ১৩১ আসনে জয়ী হতে যাচ্ছে। অভিবাসন-বিরোধী নাইজেল ফারাজের রিফর্ম ইউকে পার্টি পেতে যাচ্ছে ১৩টি আসন।




 এ ছাড়া অপেক্ষাকৃত ছোট দল লিবারেল ডেমোক্রেট পেতে পারে ৬১টি আসন। এর ফলে স্কটিশ ন্যাশনাল পার্টিকে হটিয়ে তৃতীয় অবস্থানে চলে আসছে লিবারেল ডেমোক্রেটরা। স্কটিশ ন্যাশনাল পার্টি ১০টি আসনে জয়ী হবে বলে মনে করা হচ্ছে।


নির্বাচনের এই প্রত্যাশিত সামগ্রিক ফলাফল ব্রিটেনের ঘনিষ্ঠ পশ্চিমা মিত্রদের ডানমুখী প্রবণতার বিপরীত ধারাকেই প্রতিফলিত করছে। কেননা ফ্রান্সে অতি-ডানপন্থিরা ক্ষমতায় চোখ রেখে কথা বলছে আর যুক্তরাষ্ট্রে ডোনাল্ড ট্রাম্প আবারও ক্ষমতায় ফিরে আসছেন বলে মনে করা হচ্ছে।



২০১০ সালে গর্ডন ব্রাউনের পর আবারও লেবার পার্টি ক্ষমতায় আসছে এই ধরনের শিরোণামে ব্রিটিশ পত্রিকাগুলো ইতোমধ্যে তাদের খবর প্রকাশ করতে শুরু করেছে। লেবার পার্টির প্রতি সমর্থন দেওয়া ডেইলি মিরররে প্রধান শিরোনাম ছিল ‘কেইর উই গো’।



 এ ছাড়া ২০০৫ সালের পর প্রথমবারের মতো লেবার পার্টিকে সমর্থন প্রদানকারী রুপার্ট মারডকের ট্যাবলয়েড দ্য সান শিরোনাম করে ‘ব্রিটেন সিস রেড’।




এদিকে স্টারমার ও সুনাক দুই নেতাই নির্বাচনি প্রচার-প্রচারণায় সমর্থন ও পরিশ্রম করার জন্য নিজ নিজ দলের নেতাকর্মীদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন। তবে লোবার পার্টির জ্যেষ্ঠ নেতারা এখনই আগাম কোনো উদযাপনে যোগ দেওয়া থেকে বিরত রয়েছেন।


যুক্তরাজ্য জুড়ে ৪০ হাজার নির্বাচন কেন্দ্রে নেওয়া ভোট গণনা শেষে স্থানীয় সময় আজ শুক্রবার সকালে ফলাফল ঘোষণা করা হবে বলে আশা করা হচ্ছে।


আরও খবর



দেশে রিজার্ভ ২৭ বিলিয়ন ছাড়িয়েছে

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪ |

Image

বিডি টুডেস রিপোর্ট: বাংলাদেশ ব্যাংক জানিয়েছে, দেশে বৈদেশিক মুদ্রার সরবরাহ বাড়ায় গ্রস রিজার্ভের পরিমাণ ২৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ছাড়িয়েছে।

 আজ শুক্রবার (২৮ জুন) সকালে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের এক বার্তায় এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়।

এতে বলা হয়, শুক্রবার চূড়ান্ত হিসাব শেষে দেশের গ্রস রিজার্ভের পরিমাণ ২৭ দশমিক ১৫ বিলিয়ন ডলার পাওয়া গেছে।

রিজার্ভ নিয়ে অবশ্য এরআগেই সুখবর দিয়েছিল বাংলাদেশ ব্যাংক। বৃহস্পতিবার রাতে এক বার্তায় বলা হয়, আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ) ও অন্যান্য খাত থেকে বৈদেশিক মুদ্রার সরবরাহ বাড়ায় গ্রস রিজার্ভ ২৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ছাড়িয়েছে।

ওই বার্তায় বলা হয়, আইএমএফ থেকে ১ দশমিক ১৫ বিলিয়ন ডলার এসেছে। এছাড়াও কোরিয়া, আইবিআরডি, আইডিবি প্রভৃতি থেকে আরও ৯০০ মিলিয়ন ডলার এসেছে। 

এতে গ্রস রিজার্ভের পরিমাণ ২৬ বিলিয়ন ডলারের বেশি হতে পারে। শেষ কর্মদিবসের আগের দিন হওয়ায় এখনও চূড়ান্ত হিসাব করা হয়নি। বৃহস্পতিবার পূর্ণ হিসাব করা হবে। তবে প্রাক্কলিত রিজার্ভের পরিমাণ হতে পারে প্রায় ২৬ দশমিক ৫ বিলিয়ন ডলার।

গত সোমবার বাংলাদেশের জন্য ৪৭০ কোটি ডলারের ঋণচুক্তির আওতায় তৃতীয় কিস্তি ছাড়ের অনুমোদন দেয় আইএমএফ। এর আগে গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে আইএমএফের ঋণের প্রথম কিস্তির ৪৭ কোটি ৬৩ লাখ ডলার পেয়েছিল বাংলাদেশ। আর গত ডিসেম্বরে পাওয়া যায় দ্বিতীয় কিস্তির ৬৮ কোটি ১০ লাখ ডলার।

এখন তৃতীয় কিস্তির অর্থছাড়ের ফলে বাংলাদেশ সব মিলিয়ে তিন কিস্তিতে আইএমএফের কাছ থেকে ২৩১ কোটি ডলার পেয়েছে। ঋণের বাকি প্রায় ২৩৯ কোটি ডলার আরও চার কিস্তিতে পাওয়া যাবে।

করোনার পর থেকেই বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ নিয়ে চাপে রয়েছে বাংলাদেশ। রাশিয়া–ইউক্রেন যুদ্ধের ফলে আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি ও অন্যান্য ভোগ্য পণ্যের দাম বেড়ে যাওয়ায় দ্রুতই কমতে শুরু করে রিজার্ভ।

গত মে মাসে এশিয়ান ক্লিয়ারিং ইউনিয়ন- আকু’র ১৬৩ কোটি ডলার পরিশোধের পর রিজার্ভ দাঁড়ায় ১৮ দশমিক ২৬ বিলিয়ন ডলার। যা ছিল গত এক দশকের মধ্যে সবচেয়ে কম। সে সময় আইএমএফের হিসাব পদ্ধতি বিপিএম ৬ অনুযায়ী, বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ কমে হয় ১৩ দশমিক ৭৬ বিলিয়ন ডলারে।

এর আগে, ২০১৪ সালের শুরুর দিকে রিজার্ভ ১৮ বিলিয়ন ডলারের ঘর ছাড়ানোর পর আর নিচে নামেনি।

গত ১ জুন বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু জানিয়েছিলেন, দেশে সাড়ে ৪ মাসের ডলার রিজার্ভ রয়েছে। তিনি বলেন, ‘বর্তমানে অর্থনীতির চাপের মধ্যে রয়েছে দেশ। এক সময় আমাদের রিজার্ভ ৪৮ বিলিয়ন পর্যন্ত গিয়েছিল। সেখান থেকে আমাদের রিজার্ভ কমে এসেছে। 

যেকোনো দেশে ৩ মাসের রিজার্ভ থাকলেই কোনো সমস্যা হয় না। সেখানে আমাদের প্রায় সাড়ে ৪ মাসের রিজার্ভ রয়েছে। যদি বিদেশ থেকে রেমিট্যান্স আসে ও বিদেশে রপ্তানি বিনিয়োগ বাড়ানো যায় তাহলে সুবিধা হবে।’

এদিকে, বাংলাদেশ ২০২২ সালের জুলাইয়ে আইএমএফের কাছে ঋণের আবেদন করে। ওই আবেদনের ছয় মাস পর গত বছরের ৩০ জানুয়ারি ৩৮টি শর্তে ৪৭০ কোটি ডলারের ঋণ অনুমোদন করে আইএমএফ।

বর্ধিত ঋণসহায়তা (ইসিএফ), বর্ধিত তহবিল সহায়তা (ইএফএফ) ও রেজিলিয়েন্স অ্যান্ড সাসটেইনেবিলিটি ফ্যাসিলিটি (আরএসএফ)—এই তিন আলাদা কর্মসূচির আওতায় ৪৭০ কোটি ডলারের ঋণ অনুমোদন করে আইএমএফ।

ঋণ অনুমোদনের সময় আইএমএফ জানায়, শর্তপূরণ সাপেক্ষে ২০২৬ সাল পর্যন্ত মোট সাত কিস্তিতে ঋণের এ অর্থ দেয়া হবে।

এরই মধ্যে গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে আইএমএফের ঋণের প্রথম কিস্তির ৪৭ কোটি ৬৩ লাখ ডলার পেয়েছিল বাংলাদেশ। আর গত ডিসেম্বরে পেয়েছিল দ্বিতীয় কিস্তির ৬৮ কোটি ১০ লাখ ডলার।

 এখন তৃতীয় কিস্তির অর্থছাড়ের ফলে বাংলাদেশ সব মিলিয়ে তিন কিস্তিতে আইএমএফের কাছ থেকে প্রায় ২৩১ কোটি ডলার পেয়েছে। ঋণের বাকি প্রায় ২৩৯ কোটি ডলার আর চার কিস্তিতে পাওয়া যাবে।


আরও খবর



‘দেশের ৫০ লাখ মানুষ অনলাইন জুয়ায় আসক্ত’

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৪ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২০ জুলাই ২০24 |

Image

বিডি টুডেস ডেস্ক:


অনলাইন জুয়া নিয়ে দেশের ভয়াবহ তথ্য তুলে ধরেছেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। তিনি বলেছেন, ৫০ লাখ মানুষ অনলাইন জুয়ায় আসক্ত।



বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) আইসিটি টাওয়ারে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের উদ্যোগে ‘আইসিটি এবং মানসিক স্বাস্থ্য’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে এ কথা জানান পলক।



তিনি বলেন, দেশের ৫০ লাখ মানুষ অনলাইন জুয়ায় আসক্ত। জুয়ার কারণে পরিবার ধ্বংস হচ্ছে। দেশের টাকা পাচার হচ্ছে। এসব তো আমরা মেনে নিতে পারি না। এসব বন্ধ করতে হবে।



প্রতিমন্ত্রী বলেন, সাইবার বুলিং, ডিপফেইক ভিডিও বানিয়ে সোস্যাল মিডিয়ায় মানুষকে হয়রানির জন্য ফেসবুক টিকটক এক্স, হোয়াটসঅ্যাপের মতো প্লাটফর্মগুলো দায়ী। এই প্রতিষ্ঠানগুলো ক্রিমিনাল। তাদেরকে সরকারের সঙ্গে আলোচনার টেবিলে বসতে বাধ্য করা হবে।


আরও খবর



জয়পুরহাটের পাঁচবিবির নুরুল ইসলাম হত্যা মামলায়, স্বামী-স্ত্রীসহ তিন জনের যাবজ্জীবন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২০ জুলাই ২০24 |

Image

মোঃ আবু সুফিয়ান মুক্তার - জয়পুরহাট জেলা প্রতিনিধি::



জয়পুরহাট পাঁচবিবির নুরুল ইসলাম হত্যা মামলায় স্বামী-স্ত্রীসহ তিন জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এছাড়াও তাদের প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা ও অনাদায়ে আরও দুই বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

সোমবার (১৫ জুলাই) দুপুরে অতিরিক্ত দায়রা জজ দ্বতীয় আদালতের বিচারক নুরুল ইসলাম এ রায় দেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সংশ্লিষ্ট আদালতের সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর (এপিপি) অ্যাড.উদয় সিংহ।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলো, পাঁচবিবি উপজেলার বড়পুকুরিয়া গ্রামের মৃত রহিম উদ্দিনের ছেলে সানাউল,তার স্ত্রী লতিফা বেগম ও  ছেলে ফিরোজ হোসেন।

মামলার বিবরণ ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায় পাঁচবিবি উপজেলার কুসুম্বা ইউনিয়নের বড়পুকুরিয়া গ্রামের নুরুল ইসলামের সঙ্গে আসামিদের জমি বন্ধকের টাকা লেনদেন নিয়ে বিরোধ ছিল। এ নিয়ে ২০১৬ সালের ৩ জানুয়ারি সকালে নুরুল ইসলামের সঙ্গে আসামিদের কথা কাটাকাটি হয়,এক পর্যায়ে আসামিরা নুরুল ইসলামের মাথায় কোদাল দিয়ে আঘাত করেন। এ সময় গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে প্রথমে জয়পুরহাট জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরপর তার অবস্থা আরও অবনতি হলে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজে ও তারপরে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে যাওয়ার পথে সে মৃত্যু বরণ করে।

এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী আঞ্জুয়ারা বেগম বাদী হয়ে পরের দিন পাঁচবিবি থানায় মামলা করলে দীর্ঘ শুনানি শেষে বিজ্ঞ আদালত এ রায় দেন।

আরও খবর