Logo
শিরোনাম

ভারতের চেরাপুঞ্জিতে ২৭ বছরে বৃষ্টির রেকর্ড

প্রকাশিত:রবিবার ১৯ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

ভারতের মেঘালয় রাজ্যের চেরাপুঞ্জির টানা তিন দিনের বৃষ্টিতে তলিয়ে গেছে বাংলাদেশের সিলেট বিভাগের প্রায় সব জেলা।

গত তিন দিনে আসাম ও মেঘালয়ে প্রায় ২ হাজার ৫০০ মিলিমিটারেরও বেশি বৃষ্টি হয়েছে, যা গত ২৭ বছরের মধ্যে তিন দিনে সবচেয়ে বেশি বৃষ্টিপাতের রেকর্ড। প্রবল বর্ষণে সৃষ্ট ঢল ভাটিতে থাকা বাংলাদেশের সিলেট বিভাগের প্রায় সব জেলায় প্রবেশ করেছে।

বিশ্বের সবচেয়ে বৃষ্টিপ্রবণ ও আর্দ্র স্থানগুলোর একটি চেরাপুঞ্জি। স্থানীয় আবহাওয়া বিভাগ জানিয়েছে চলতি জুনে শুক্রবার (১৭ জুন) পর্যন্ত সর্বমোট প্রায় ৪ হাজার ৮১ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। এর আগে, গত মঙ্গলবার চেরাপুঞ্জিতে বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে ৬৭ দশমিক ৬ সেন্টিমিটার, পরদিন বুধবার ৮১ দশমিক ১ সেন্টিমিটার এবং গত বৃহস্পতিবার রেকর্ড করা হয়েছে ৬২ দশমিক ৬ সেন্টিমিটার।

ভারতের আবহাওয়া অধিদপ্তরের (আইএমডি) বরাত দিয়ে ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস জানিয়েছে, চেরাপুঞ্জিতে গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে ৯৭২ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে, এই বৃষ্টিপাতের পরিমাণ বিগত ১২২ বছরের মধ্যে ৩য় সর্বোচ্চ।

এর আগে সর্বশেষ ১৯৯৫ সালে ১৬ জুন ১৫৬ দশমিক ৩ সেন্টিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছিল চেরাপুঞ্জিতে।

এদিকে, চেরাপুঞ্জির ভাটিতে থাকা বাংলাদেশের সিলেট বিভাগের প্রায় কয়েকটি জেলার বন্যা পরিস্থিতি অবনতি হয়েছে। বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র জানিয়েছে, শুক্রবার সকাল ৯টায় সুরমা নদীর পানি সিলেটের কানাইঘাট পয়েন্টে বিপৎসীমার ১০৮ সেন্টিমিটার, সিলেটে ৭০ সেন্টিমিটার এবং সুনামগঞ্জে ১২০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে বইছিল।

আগামী ৭২ ঘণ্টায় দেশের উত্তরাঞ্চল, উত্তর-পূর্বাঞ্চল এবং তৎসংলগ্ন ভারতের আসাম, মেঘালয় ও হিমালয় পাদদেশীয় পশ্চিমবঙ্গে ভারি থেকে অতিভারি বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস রয়েছে।


আরও খবর



কুমিল্লায় শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের আহবানে সুজনের সংবাদ সম্মেলন

প্রকাশিত:রবিবার ১২ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

নিজস্ব প্রতিবেদক,কুমিল্লা ।।

কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন নির্বা চনে প্রার্থীদের তথ্য উপস্থাপন এবং অবাধ নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ নির্বা চনের আহবানে সংবাদ সম্মেলনে করেছে সুশাসনের জন্য নাগরিক- সুজন কুমিল্লা মহানগর ও জেলা শাখা।

রোববার সকালে কুমিল্লা টাউন হল কনফারেন্স রুমে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন, সুজন জেলা কমিটির সভাপতি শাহ মোঃ আলমগীর খান।জেলা কমিটির যুগ্মসম্পাদক রেজবাউল হক রানার সঞ্চালনায় সংবাদ সম্মেলনের স্বাগত বক্তব্য রাখেন সাধারন সম্পাদক অধ্যাপক আলী আহসান টিটু, লিখিত

বক্তব্য পাঠ করেন মহানগর কমিটির সভাপতি আনিসুর রহমান আকন্দ।সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন মহানগর কমিটির সাবেক সভাপতি অধ্যক্ষ সফিকুর রহমান, মহানগর কমিটির সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুক, জেলা কমিটির যুগ্নসম্পাদক শাহানা হক, সদস্য মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন রনী,আজাদ সরকার লিটন, সুজনের সম্বনয়কারী সৈয়দ নাসির উদ্দিনসহ আরো অনেকে।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা, অবাধ নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ নির্বা চন অনুষ্ঠানে রাষ্ট্র,ভোটার, নির্বা চন কমিশন, রাজনৈতিক দল , মন্ত্রী ও সাংসদ, সরকারি-বেসরকারি কর্মকর্মর্তা -কর্মচারী, আইনশৃঙ্খশৃ লা বাহিনী, গনমাধ্যম, প্রার্থী ও সমর্থক ও সচেতন নাগরিকদের প্রতি তাদের দায়িত্ব ও কর্তব্য পালনসহ দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখার আহব্বান জানান।


আরও খবর



প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে ইটনায় বিক্ষোভ মিছিল

প্রকাশিত:রবিবার ০৫ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

মুজাহিদ সরকার ঃ

প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা কে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে সারাদেশের ন্যয় আজ ৪ জুন 

বিকেলে ইটনা উপজেলা আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠন ইটনা শহরে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করে ।

মিছিলটি ইটনা উপজেলা আওয়ামীলীগের নিজস্ব কার্যালয়ের সম্মুখ থেকে বের হয়ে বিভিন্ন রাস্তা প্রদক্ষিণ করে সংক্ষিপ্ত। 

বিক্ষোভ মিছিল শেষে বক্তব্য রাখেন ছাত্রলীগ, যুবলীগ,স্বেচ্ছাসেবকলীগ, কৃষকলীগে নেতৃবৃন্দ ছাড়াও ইটনা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক প্রচার সম্পাদক তাপস রায় এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সোহরাব হোসেন (খসরু ঠাকুর)। 

তখন নেতাকর্মীরা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হত্যার প্রতিবাদে তীব্র নিন্দা জানান। তারা আরো বলেন বিএনপি-জামায়াত এই দেশটাকে তাসের রাজত্ব তৈরি করতে চাচ্ছে। যত দ্রুত সম্ভব বিএনপি-জামাত ছাত্রদলে সন্ত্রাসীদের দাঁতভাঙ্গা জবাব দিবে।


আরও খবর



বাল্যবিয়ের কারণে ?

সোয়া ২ লাখ এসএসসি পরীক্ষার্থী কমেছে

প্রকাশিত:রবিবার ১২ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

এ বছর এসএসসি ও সমমানে পরীক্ষার্থী কমেছে ২ লাখ ২১ হাজার ৩৮৬ জন। এবার এত সংখ্যক পরীক্ষার্থী কমেছে কেন, তার ব্যাখ্যা দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

রবিবার সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা নিয়ে জাতীয় মনিটরিং ও আইন-শৃঙ্খলা সংক্রান্ত কমিটির সভা শেষে তিনি এর ব্যাখ্যা দেন।

করোনাকালে বিপুল সংখ্যক মেয়ে শিক্ষার্থীর বাল্যবিবাহের খবর পাওয়া যায়। সংবাদ সম্মেলনে পরীক্ষার্থী কমার বিষয়টি জানার পর অনেকের প্রশ্ন জাগে, তাহলে কি একারণেই চলতি বছর অধিক সংখ্যক পরীক্ষার্থী কমলো? এমন প্রশ্নে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের পরিসংখ্যান তা বলছে না। আমাদের পরিসংখ্যানে ছেলেদের তুলনায় এ বছর মেয়ে শিক্ষার্থী বেশি।’

পরীক্ষার্থী কমার ব্যাখ্যা দিয়ে তিনি বলেন, ‘প্রতি বছর মানোন্নয়নের জন্য অনেকে পরীক্ষা দেয়। কিন্তু গতবার এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা নেওয়া হয়েছে সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে, শুধু আবশ্যিক বিষয়ে। সে কারণে পরীক্ষায় অনুত্তীর্ণ পরীক্ষার্থী নেই বললেই চলে। গতবার যদি পূর্ণাঙ্গ পরীক্ষা হতো তাহলে যারা অকৃতকার্য হতো তারা এবারও পরীক্ষায় অংশ নিতো। সে কারণে এবার পরীক্ষার্থী কম মনে হচ্ছে। আসলে নিয়মিত পরীক্ষার্থী কমেনি।’

তিনি আরও বলেন, ‘এছাড়া প্রতিবছর এমনও হয়, কেউ কেউ রেজিস্ট্রেশন করেও পরীক্ষা দেয় না। কিন্তু এ ক্ষেত্রে তা হয়নি। সবাই পাস করেছে।’

আগামী ১৯ জুন এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হচ্ছে। এই পরীক্ষায় মোট অংশ নিতে যাচ্ছে ২০ লাখ ২১ হাজার ৮৬৮ জন পরীক্ষার্থী। ২০২১ সালের তুলনায় ২০২২ সালে মোট পরীক্ষার্থী কমেছে ২ লাখ ২১ হাজার ৩৮৬ জন। পরীক্ষায় অংশ নেওয়াদের মধ্যে ছাত্র ১০ লাখ ৯ হাজার ৫১১ জন এবং ছাত্রী ১০ লাখ ১২ হাজার ৩৫৭ জন। এবার ছাত্রী সংখ্যা বেশি ২ হাজার ৮৪৬ জন।


আরও খবর



ইউক্রেনে আরও এক রুশ জেনারেল নিহত

প্রকাশিত:সোমবার ০৬ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

ইউক্রেনের হামলায় রাশিয়ার সামরিক বাহিনীর আরও একজন মেজর জেনারেল নিহত হয়েছেন বলে দাবি করেছে কিয়েভ।

লুহানস্ক অঞ্চলের নিকোলায়েভকা এলাকায় যুদ্ধে রোমান কুতুজভ নামে রাশিয়ার ওই মেজর জেনারেল প্রাণ হারান। খবর আনাদোলুর।

রুশ সামরিক বাহিনী সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এক পোস্টে মেজর জেনারেলের নিহত হওয়ার কথা স্বীকার করেছে।

এর আগে মেজর জেনারেলসহ আরও ৫ রুশ ঊর্ধ্বতন সেনা কর্মকর্তা নিহতের দাবি করেছে ইউক্রেন। গত ২৮ ফেব্রুয়ারি নিহত হন রুশ মেজর জেনারেল আন্দ্রেই সুখোভেতস্কি, ৭ মার্চ মেজর জেনারেল ভিতালি গেরাসিমভ, ১১ মার্চ মেজর জেনারেল আন্দ্রেই কোলেসনিকভ, ১৫ মার্চ মেজর জেনারেল ওলেভ মিতায়েভ ও ১৬ মার্চ লেফটেন্যান্ট জেনারেল আন্দ্রেই মর্দভিচেভ।


আরও খবর



বাড়ছে কোরবানির পশুর দাম

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

মইনুল ইসলাম মিতুল :  সারাদেশের হাটগুলোতে পশু পরিবহন শুরু হবে দু’একদিনের মধ্যেই। পথে পথে চাঁদাবাজি চিরচেনা দৃশ্য। হাটে অতিরিক্ত মাশুল আদায়, বন্যা ও পশু খাদ্যের মূল্য বৃদ্ধি কারণে এবার কোরবানির ঈদে পশুর দাম ব্যাপকভাবে বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

সম্প্রতি একটি গোয়েন্দা সংস্থা বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিবের কাছে দেওয়া প্রতিবেদনে এসব কথা উল্লেখ করেছে। দ্রুত এ ব্যাপারে পদক্ষেপ নেওয়া না হলে জনগণকে অতিরিক্ত দামে কোরবানির পশু কিনতে হবে বলে সতর্ক করা হয়েছে। খবর ডয়চে ভেলে।

গোয়েন্দা প্রতিবেদন পাওয়ার কথা স্বীকার করে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব তপন কান্তি ঘোষ বলেছেন, ওই প্রতিবেদনের ভিত্তিতে আমরা দ্রুতই একটা বৈঠক করব। একজন উপসচিব রিপোর্টটির পর্যালোচনা করছেন। তবে এবার পশু সংকট হবে না, সেটা মৎস ও প্রাণীসম্পদ মন্ত্রণালয় থেকে তো আগেই বলা হয়েছে। অন্যগুলো কিভাবে ব্যবস্থাপনা হবে সেগুলো আমরা দেখছি। পাশাপাশি চাঁদাবাজিসহ অন্য বিষয়গুলো স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় দেখবে। ওই গোয়েন্দা প্রতিবেদনে চামড়ার কথাও বলা হয়েছে। চমড়া সংরক্ষণে যাতে সংকট না হয় সে জন্য আমরা শিল্প মন্ত্রণালয়কে দেড় লাখ টন লবন আমদানির অনুমতি দিয়েছি। চমড়া পরিবহনেও যাতে সংকট না হয় সেটাও আমরা দেখব।

গত ২৩ জুন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে পাঠানো ওই গোয়েন্দা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত পাঁচ মাসে বাজারে সব ধরনের পশু ও পোলট্রি খাদ্যের দাম ৩০ থেকে ৪০ শতাংশ পর্যন্ত বেড়েছে। ফলে পশু পালনে খামারিদের ব্যয় অনেক বেড়েছে। এতে আসন্ন ঈদুল আযহার কোরবানির পশুর দাম বাড়তে পারে। এতে কোরবানির পশুর বাজারে অস্থিরতা দেখা দিতে পারে। বাজার তদারকির মাধ্যমে পশুখাদ্যের জোগান নিশ্চিত করা এবং দাম সহনীয় পর্যায়ে রাখা না গেলে কোরবানির বাজারে পশুর অপ্রতুলতা দেখা দিতে পারে। একই সঙ্গে বলা হয়েছে, কোরবানির পশু পরিবহনে বিভিন্ন স্থানে চাঁদাবাজি হয়, স্থায়ী ও অস্থায়ী হাটের মালিকেরা অযৌক্তিক হাসিল আদায় করে। এসব বন্ধেও সুপারিশ করা হয়েছে।

‘গত এক বছরে পশুখাদ্যের দাম প্রায় ৪০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে, যার কারণে এবার গরুর দাম ১০ থেকে ১৫ শতাংশ এমনিতেই বাড়বে বলে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে’

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, করোনা মহামারি, বিভিন্ন দেশে পশুখাদ্যের কাঁচামালের উৎপাদন কমে যাওয়া এবং রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে সরবরাহ বাধাগ্রস্থ হওয়ার কারণে সামগ্রিকভাবে পশুখাদ্যের দাম বেড়েছে। পশুখাদ্যের অন্যতম উপাদান হচ্ছে গম, ভুট্টা, ধানের কুড়া, সয়ামিল, সরিষার খৈল, আটা-ময়দা প্রভৃতি। এর মধ্যে বাংলাদেশের পশুখাদ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলো গম, ভুট্টা ও সয়ামিল বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে আমদানি করে। রাশিয়া ও ইউক্রেন থেকে বেশি ভুট্টা আমদানি করেন বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরা। আবার গম আমদানিতেও এ দুটি দেশের ওপর নির্ভরতা রয়েছে বাংলাদেশের। কিন্তু যুদ্ধের কারণে গত ফেব্রুয়ারির পরে দেশ দু'টি থেকে আমদানি এক প্রকার বন্ধ রয়েছে। ফলে এক বছরের বেশি সময় ধরে এসব পণ্যের দাম বাড়ছে। বেড়েছে পরিবহন খরচও। যে কারণে পশুখাদ্য উৎপাদন খরচও বেড়েছে।

প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডা. মনজুর মোহাম্মদ শাহজাদা বলেন, এ বছর কোরবানিযোগ্য এক কোটি ২১ লাখ ২৪ হাজারের বেশি গবাদি পশু প্রস্তুত রয়েছে। গত বছর এক কোটি ১৯ লাখ গবাদি পশু প্রস্তুত ছিল, তার মধ্যে প্রায় ৯১ লাখ গবাদি পশু কোরবানি হয়েছে। এ বছর চলাচলে কোনো বিধি-নিষেধ না থাকায় গত বছরের চেয়ে কোরবানি বেশি হবে বলে আমরা আশা করছি। এবার কোরবানিযোগ্য পশুর মধ্যে গরু-মহিষ রয়েছে ৪৬ লাখ, ছাগল-ভেড়া রয়েছে ৭৫ লাখ এবং অন্যান্য পশু রয়েছে ১৪ হাজার। ফলে পশুর সংকট হবে না।

চাঁদাবাজিসহ হাটগুলোতে অতিরিক্ত মাশুল নেওয়ার বিষয়ে কী পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে? জানতে চাইলে ডা. শাহজাদা বলেন, আমরা সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে একাধিকার বৈঠক করেছি। পশুবাহী পরিবহন যাতে দ্রুত চলাচল করতে পরে সে পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

বাংলাদেশ ডেইরি ফার্মারস অ্যাসোসিয়েশনের (বিডিএফএ) সাধারণ সম্পাদক শাহ ইমরান বলেন, কয়েকদিন আগে আমরা প্রাণীসম্পদ অধিদপ্তরে বৈঠক করেছি। সেখানে মন্ত্রীও উপস্থিত ছিলেন। আমি সুনির্দিষ্ট কিছু প্রস্তাব সেখানে দিয়েছি। তার মধ্যে পশুবাহি ট্রাক দ্রুত চলাচলের ব্যবস্থা করতে হবে। এসব ট্রাক থেকে যাতে চাঁদাবাজি না হয় সে উদ্যোগ নিতে হবে। কোন খামার থেকে যদি কেউ পশু কেনেন তাদের কাছ থেকে কোন মাশুল আদায় করা যাবে না। আমরা যে হাটে পশু নিতে চাইব সেখানে নেওয়ার সুযোগ দিতে হবে। অনেক ইজারাদার জোর করে তাদের হাটে খামারিদের ট্রাক নিয়ে যান। দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে পশুবাহী ট্রাকগুলো টোলমুক্ত করার প্রস্তাবও আমি দিয়েছি।

এবার দাম বৃদ্ধির যে আশঙ্কা করা হচ্ছে, সেটা কেন? জবাবে জনাব ইমরান বলেন, দাম তো বাড়বেই। গত এক বছরে পশুখাদ্যের দাম প্রায় ৪০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে, যার কারণে এবার গরুর দাম ১০ থেকে ১৫ শতাংশ এমনিতেই বাড়বে যদি পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকে। আর চাঁদাবাজিসহ অন্যান্য খরচ বাড়লে তো পশুর দাম আরও বেড়ে যাবে।

এদিকে সিলেট, সুনামগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে সাম্প্রতিক বন্যায় গবাদি পশুর খাবারের বেশ সংকট হয়। দাম বেড়ে যায় গোখাদ্যের। এর প্রভাব কোরবানির পশুর হাটে পড়তে পারে। দেশের অন্যতম গোচারণভূমির এলাকা সিরাজগঞ্জ। সেখানেও এবার বন্যা হয়েছে।


আরও খবর