Logo
শিরোনাম

বিরল প্রজাতির ম্যাকাও পাখিটিকে সাফারি পার্কে অবমুক্ত করা হয়েছে

প্রকাশিত:শনিবার ২৮ মে ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৩ জুলাই ২০২২ |
Image

অনলাইন ডেস্কঃ

                  ঝড়ে উড়ে আসা গ্রিন উইং ম্যাকাও পাখিটিকে আজ অবমুক্ত করা হয়েছে  গাজীপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কে।

এর আগে অবমুক্তির জন্য আজ কর্তৃপক্ষের কাছে পাখিটিকে  হস্তান্তর করা হয়।

গত বৃহস্পতিবার বিকালে সাভার উপজেলার নয়ারহাটের চকলর গ্রাম থেকে পাখিটিকে উদ্ধার করা হয়।

বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের পরিদর্শক নিগার সুলতানা জানান, পাখিটি সিটিস অ্যাপেনডিক্স-এক ভুক্ত। ঝড়ের মধ্যে আহতাবস্থায় পাখিটিকে পাওয়া গিয়েছিল। পরে তা স্থানীয় হাবিবুর রহমান মেম্বারের হেফাজতে ছিল।

“পোষা পাখি ব্যবস্থাপনা, ২০২০-এর আলোকে এ ধরনের পাখি আমদানির ক্ষেত্রে বনবিভাগ এনওসি দেয় না। কিন্তু প্রাণিটি কোথা থেকে সাভারে উড়ে এলো খতিয়ে দেখা হচ্ছে।“  

আজ শনিবার দুপুরে পাখিটির চিকিৎসা ও প্রতিপালনের জন্য গাজীপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্ক কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করা হয় বলে সাফারি পার্কের পরিদর্শক গণমাধ্যমকে অবহিত করেন।


আরও খবর



একাই পাঁচ গোল করলেন মেসি

প্রকাশিত:সোমবার ০৬ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ |
Image

একে একে প্রতিপক্ষ এস্তোনিয়ার জালে পাঁচবার বল ঢুকিয়েছেন সাতবারের ব্যালন ডি’অর জয়ী লিওনেল মেসি। ক্লাব ফুটবলে বার্সেলোনার হয়ে এক ম্যাচে পাঁচ গোলের রেকর্ড থাকলেও জাতীয় দলের জার্সিতে এর আগে তিন গোলের বেশি ছিল না। এবার সেই আক্ষেপই যেন দূর করলেন আর্জেন্টাইন তারকা। ক্যারিয়ারের অষ্টম আন্তর্জাতিক হ্যাটট্রিকের দিনে গোল উৎসবই করলেন ক্ষুদে জাদুকর।

রবিবার (৫ জুন) দিবাগত রাতে ওসাসুনার মাঠ আল সদর স্টেডিয়ামে একাই দলের হয়ে পাঁচটি গোল করেন লিওনেল মেসি।

শুরু থেকে প্রায় পুরোটা সময় নিজেদের অর্ধ ও ডি বক্সের আশপাশেই ছিলেন এস্তোনিয়ার খেলোয়াড়। ল্যাতিন পরাশক্তিদের বিপক্ষে নিজেদের প্রথম ম‍্যাচে লড়াইয়ের মানসিকতা দেখাতে পারেনি তারা।

২০১৯ সালের পর আর কোনো ম‍্যাচ না হারা দলটি এগিয়ে যায় অষ্টম মিনিটে মেসির সফল স্পট কিকে। হেরমান পেস্সেইয়াকে এস্তোনিয়ার গোলরক্ষক ফাউল করায় পেনাল্টি পেয়েছিল দুইবারের বিশ্ব চ‍্যাম্পিয়নরা। এ গোলের মধ্যদিয়ে আর্জেন্টিনার জার্সিতে ভিন্ন ভিন্ন ৩০টি দলের বিপক্ষে গোলের রেকর্ড গড়েন মেসি।

এদিন ফিনালিসিমা ম্যাচের একাদশ থেকে আট পরিবর্তন নিয়ে মাঠে নামে আর্জেন্টিনা। এতে বড় পরিবর্তনে খেলার ওপর কোনো প্রভাব পড়েনি আলবিসেলেস্তেদের। প্রথমার্ধে প্রায় ৮৫ শতাংশ সময় বল দখলে রেখে একের পর এক আক্রমণ করে যায় আর্জেন্টিনা।


আরও খবর



কোলেস্টেরলের মাত্রা ঠিক রাখে যে খাবার

প্রকাশিত:শনিবার ১১ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

অনেকেই কোলেস্টেরলের সমস্যায় ভুগছেন। কেউ কেউ ধারণা করেন চর্বি জাতীয় খাবার বেশি খেলেই কোলেস্টেরলের মাত্রা বেড়ে যায়। সব ক্ষেত্রে এ ধারণা ঠিক নয়। শরীরে কোলেস্টেরলের মাত্রা বাড়বে কি না, তা নির্ভর করে প্রত্যেকের শরীরের বিপাক হারের উপর। কারও যদি ডায়াবিটিস থাকে, তা হলে কোলেস্টেরলের মাত্রা বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। কোলেস্টেরলের মাত্রা বাড়লে তা রক্তবাহের মধ্যে সঞ্চিত হয়। রক্ত চলাচলে ব্যাঘাত ঘটে। ফলে রক্তচাপ বাড়ে এবং হৃদ্রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কাও বেড়ে যায়।

কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে চর্বিজাতীয় খাবার, চিপস ও শর্করাযুক্ত পানীয় এড়িয়ে চলতে হবে। সেই সঙ্গে রোজের খাদ্যতালিকায় রাখতে হবে বেশ কিছু খাবার, যা আপনাকে সুস্থ থাকতে সাহায্য করবে।

যেসব খাবার নিয়মিত খাদ্য তালিকায় রাখবেন

ওট্স

কোলেস্টেরলের সমস্যা থাকলে খাদ্য তালিকায় নিয়মিত ওট্স রাখতে পারেন। এতে প্রচুর পরিমাণে দ্রবণীয় ফাইবার রয়েছে। বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে এই ‘সলিউবল ফাইবার’ খেলে শরীর থেকে খারাপ কোলেস্টেরল বেরিয়ে যায়।

কমলালেবু

কমলালেবুর মধ্যে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি। এই ভিটামিন শরীরের খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে সাহায্য করে। এ ছাড়া কমলালেবুতে রয়েছে দ্রবণীয় ফাইবার। এই প্রকার ফাইবার কোলেস্টেরল কমায়।

আপেল

কোলেস্টেরল বা হৃদ্যন্ত্রের কোনও সমস্যা থাকলে চিকিৎসকরা রোগীদের আপেল খাওয়ার পরামর্শ দেন। আপেল হৃদ্যন্ত্রে রক্ত জমাট বাঁধতে দেয় না। পাশাপাশি, কোলেস্টেরলও নিয়ন্ত্রণে রাখে।

মাছ

মাছের মধ্যে রয়েছে ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড। এই ফ্যাটি অ্যাসিড কিন্তু রক্তে কোলেস্টেরল কমাতে বেশ উপকারী। এ ক্ষেত্রে সামুদ্রিক মাছে ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিডের পরিমাণ বেশি থাকে। তাই রোজের খাদ্যতালিকায় মাছ কিন্তু রাখতেই হবে।


আরও খবর

বাড়ছে মৃত্যু, কমেছে শনাক্ত

শনিবার ০২ জুলাই 2০২2




ভেনেজুয়েলার জন্য আরও একটি তেল ট্যাংকার নির্মাণ করলো ইরান

প্রকাশিত:রবিবার ১২ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

বৃহৎ আকারের দ্বিতীয় তেল ট্যাংকার নির্মাণ করে ভেনেজুয়েলার কাছে হস্তান্তর করেছে ইরানের একটি জাহাজ নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান। 

ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো শুক্রবার তেহরান সফরে আসার পর ইরানের জাহাজ নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান সাদ্রা শিপবিল্ডিং এই তেল ট্যাংকার ভেনেজুয়েলার ব্যবসায়ীদের কাছে হস্তান্তর করে।

ইরানের দক্ষিণাঞ্চলের বন্দরে এই জাহাজ হস্তান্তর করা হয় এবং হস্তান্তর অনুষ্ঠানটি প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রায়িসি ও নিকোলাস মাদুরো ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রত্যক্ষ করেন। এ সময় সাদ্রা কোম্পানি ও ভেনেজুয়েলার কর্মকর্তারা জাহাজ হস্তান্তরের বিষয়ে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র বিনিময় করেন।

আফ্রাম্যাক্স নামে এই ট্যাংকারের ওজন ৮০ হাজার থেকে এক লাখ ২০ হাজার মেট্রিক টনের মধ্যে। ট্যাংকারটি ২৫০ মিটার লম্বা এবং এতে ২১ হাজার হর্স পাওয়ারের ইঞ্জিন ও তিনটি ডিজেল জেনারেটর ব্যবহার করা হয়েছে। যা ৯০০ কিলোওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে পারে।

সাদ্রা কোম্পানি হচ্ছে ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনীর একটি জাহাজ নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান এবং এর ডকইয়ার্ড পারস্য উপসাগরের বুশেহর এলাকায় অবস্থিত। চলতি সপ্তাহের প্রথম দিকে সাদ্রা কোম্পানি আফ্রাম্যাক্স ট্যাংকারের পরীক্ষামূলক অভিযান পরিচালনা করে।

কোম্পানির প্রধান নিবার্হী কর্মকর্তা আলী জারেয়ি জানান, ভেনেজুয়েলার জন্য আরও দুটি আফ্রাম্যাক্স ট্যাংকার খুব শিগগিরই সাদ্রা কোম্পানি নির্মাণ শুরু করবে।


আরও খবর



নাকের সৌন্দর্যে রাইনোপ্লাস্টি কতটা নিরাপদ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২১ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

মানুষের সৌন্দর্য ফুটে উঠে নাকে। চ্যাপ্টা নাক মুখায়ববের সৌন্দর্য ম্লান করে দেয়। খাড়া ও আকর্ষণীয় সুন্দর নাকের অধিকারী কে না হতে চায়?

নাকের সৌন্দর্যবর্ধনে রাইনোপ্লাস্টি নিয়ে বিস্তারিত জানিয়েছেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের নাক, কান ও গলা রোগ বিশেষজ্ঞ এবং সার্জন ডা. মোস্তফা কামাল আরেফিন।

আধুনিক চিকিৎসা বিজ্ঞানে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে মানুষের নাকের আকৃতি পরিবর্তন করা সম্ভব। রাইনোপ্লাস্টির মাধ্যমে বোঁচা, থ্যাবড়ানো বা বসে যাওয়া নাক যেমন খাড়া করা যায়। তেমনি বেঁকে যাওয়া নাক, কুঁকড়ানো নাক সোজা করা যায়। আবার অস্বাভাবিক খাড়া নাক, পাখির ঠোঁটের মতো নিচের দিকে বাঁকানো নাক-ও স্বাভাবিক আকৃতিতে আনা যায়।

মোটা নাককে করা যায় সরু, আর সরু বা বন্ধ নাককে করা যায় প্রসারিত, তাই নাকের সৌন্দর্য রক্ষায় ও সৌন্দর্যবর্ধনে রাইনোপ্লাস্টি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।

নাকের এই আকৃতিগত বিকৃতি যেমন জন্মগতভাবে হতে পারে, তেমনি নাকে বিভিন্ন ধরনের আঘাত অথবা তথাকথিত কবিরাজি বা হারবাল চিকিৎসার কারণে হয়ে থাকে। বিনা অপারেশনে নাকের পলিপ, মাংস বৃদ্ধি, রক্তপড়া রোগের নিরাময়ের মিথ্যা প্রলোভনে নির্বিচারে বিপজ্জনক রাসায়নিক পদার্থ (যেমন-অ্যাসিড) নাকে সরাসরি প্রয়োগ করা হচ্ছে, যা নাকের স্থায়ী মারাত্মক ক্ষতির কারণ। যেমন— নাকের ছিদ্র আংশিক বা সম্পূর্ণ বন্ধ হয়ে যাওয়া, নাক বসে যাওয়া ইত্যাদি।

রাইনোপ্লাস্টি অপারেশন শুধু নাকের সৌন্দর্যবর্ধনের জন্যই করা হয় না; বরং অভ্যন্তরীণ বিবিধ সমস্যার সমাধান-ও এই অপারেশনের মাধ্যমে হয়ে থাকে।

নাক, কান, গলা (ইএনটি) সার্জন এবং প্লাস্টিক সার্জনেরা রাইনোপ্লাস্টি সার্জারি করে থাকেন, যাদের রাইনোপ্লাস্টির ওপর বিশেষ প্রশিক্ষণ করা থাকে।


আরও খবর

রসুনের গুণেই মেদ ঝরবে

শনিবার ১১ জুন ২০২২




বন্যা পরিস্থিতির আরো অবনতি

প্রকাশিত:রবিবার ১৯ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

মইনুল ইসলাম মিতুল :  টানা বর্ষণ ও অব্যাহত পাহাড়ি ঢলে সিলেটে বেড়েই চলেছে বন্যার পানি। এরই মধ্যে সিলেট নগরী ও অনেক উপজেলার বিস্তীর্ণ অঞ্চল পানিতে পুরোপুরি ডুবে গেছে। গতকাল শনিবারও টানা বর্ষণে নতুন করে প্লাবিত হয়েছে সিলেট নগরীর বাকি এলাকা। পুরো সিলেট বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। বন্ধ রয়েছে ট্রেন যোগাযোগ।

এ ছাড়া গতকাল সকালে সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ, জৈন্তাপুর, গোয়াইনঘাট, কানাইঘাট, সদর উপজেলাসহ আরো অনেক এলাকা প্লাবিত হয়েছে। বন্যাদুর্গতদের উদ্ধারে সেনাবাহিনীর সঙ্গে নৌবাহিনী ও ফায়ার ব্রিগেড সদস্যরা মাঠে নেমেছেন।

গতকাল শসকাল থেকে নৌবাহিনীর ৩৫ জন সদস্য দুটি টিমে বিভক্ত হয়ে উদ্ধার অভিযান শুরু করে। নৌবাহিনীর সদস্যরা নিজস্ব ক্রুজ ও বিমান বাহিনীর হেলিকপ্টার ব্যবহার করছেন। বিকালে ৬০ জনের আরেকটি দল এবং আরো ক্রুজ ও হেলিকপ্টার উদ্ধার কাজে যুক্ত হয়েছে।

বন্যার পানি ওঠায় পানিতে তলিয়ে গেছে কুমারগাঁও বিদ্যুৎ উপকেন্দ্র। ফলে পুরো সিলেট বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হওয়ায় মোবাইল টেলিফোন নেটওয়ার্কও পাচ্ছেন না বন্যাদুর্গতরা। এদিকে ভয়াবহ অবস্থা দেখা দিয়েছে সিলেটের জকিগঞ্জ-কানাইঘাট উপজেলায়। প্রথম দফা বন্যায় সুরমা-কুশিয়ারা নদীর অন্তত ১৫ স্থানে ভেঙে যাওয়া ডাইক মেরামত না করায় ফের ভাঙা অংশ দিয়ে প্রবল বেগে পানি ঢুকছে লোকালয়ে। গত শুক্রবার সকাল থেকে সুরমা-কুশিয়ারা নদীর অন্তত ৫টি স্থান দিয়ে পানি ঢুকছে। গতকাল নতুন করে প্লাবিত হচ্ছে অনেক এলাকা।

বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন পুরো সিলেট : সিলেট কুমারগাঁও গ্রিড উপকেন্দ্রে বন্যার পানি উঠে যাওয়ায় পুরো সিলেট ও সুনামগঞ্জ জেলার বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। গতকাল দুপুর সোয়া ১২টার দিকে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। বিদ্যুৎ বিভাগের সিলেটের প্রধান প্রকৌশলী আবদুল কাদের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, পানি উঠে যাওয়ায় আপাতত সাবস্টেশনটি বন্ধ করা হয়েছে। তবে আমরা চেষ্টা করছি পানি সেচে দ্রুততম সময়ের মধ্যে এটি আবার চালু করতে। এর আগে গত বৃহস্পতিবার রাত থেকে এই সাবস্টেশনে পানি উঠতে শুরু করে। গত শুক্রবার দুপুর থেকে এই কেন্দ্র সচল রাখতে যৌথভাবে কাজ শুরু করে সেনাবাহিনী, বিদ্যুৎ বিভাগ, ফায়ার সার্ভিস ও সিটি করপোরেশন। বিদ্যুৎ কেন্দ্রের চারপাশে বাঁধ নির্মাণ করেন তারা। তবে পানি দ্রুত বাড়তে থাকায় বন্ধ করে দিতে হলো উপকেন্দ্রটি।

ভাঙা ডাইক এখন মরণফাঁদ : জকিগঞ্জ-কানাইঘাট উপজেলায় ভয়াবহ অবস্থা দেখা দিয়েছে। প্রথম দফা বন্যায় সুরমা-কুশিয়ারা নদীর অন্তত ১৫ স্থানে ভেঙে যাওয়া ডাইক মেরামত না করায় ফের ভাঙা ডাইক দিয়ে প্রবল বেগে পানি ঢুকছে লোকালয়ে। গত শুক্রবার সকাল থেকে সুরমা-কুশিয়ারা নদীর অন্তত ৫টি স্থান দিয়ে পানি ঢুকছে। গতকাল শনিবার পর্যন্ত পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় নতুন করে প্লাবিত হচ্ছে অনেক এলাকা।

সরেজমিনে দেখা গেছে, সুরমা নদীর আটগ্রাম এলাকার মরিচা, নালুহাটি ও বড়বন্দ গ্রামে প্রথম দফায় ভেঙে যাওয়া ডাইক দিয়ে প্রবল বেগে পানি লোকালয়ে ঢুকছে। শুক্রবার সকাল থেকে পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় মাত্র ১২ ঘণ্টায় নতুন করে প্লাবিত হয়েছে অর্ধশতাধিক গ্রাম। তলিয়ে গেছে গ্রামীণ রাস্তাঘাট।

সেনাবাহিনীর পাশাপাশি উদ্ধার অভিযানে নৌবাহিনী : সিলেটে বন্যাদুর্গত এলাকায় পানিবন্দি লোকজনকে উদ্ধারে কাজে যোগ দিয়েছে নৌবাহিনী। গতকাল সকাল থেকে নৌবাহিনীর ৩৫ জন সদস্য দুটি টিমে ভাগ হয়ে কাজ শুরু করেছে। সিলেট জেলা প্রশাসক মো. মজিবর রহমান এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। উদ্ধার কাজে নৌবাহিনী সদস্যরা নিজস্ব ক্রুজ ও বিমান বাহিনীর হেলিকপ্টার ব্যবহার করছেন। বিকালের মধ্যে ৬০ জনের আরেকটি দল এবং আরো ক্রুজ ও হেলিকপ্টার উদ্ধার কাজে যুক্ত হবে। জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, নৌবাহিনীর ৩৫ সদস্যের একটি দল শুক্রবার রাতেই সিলেট এসে পৌঁছায়। গতকাল সকাল থেকে ৩৫ সদস্যের দল কোস্টগার্ডের একটি ক্রুজ ও বিমানবাহিনীর দুটি হেলিকপ্টার দিয়ে উদ্ধার কাজ শুরু করে। সিলেট সদর উপজেলার জালালাবাদ ইউনিয়নে একটি টিম সকাল থেকে কাজ শুরু করে। আরেকটি টিম কোম্পানীগঞ্জে কাজ শুরু করেছে। জেলা প্রশাসন সূত্র আরো জানায়, আরো দুটি ক্রুজ উদ্ধার কাজে যোগ দেওয়ার কথা রয়েছে। এর মধ্যে একটি সিলেটে ও অন্যটি সুনামগঞ্জে উদ্ধার কাজে যুক্ত হবে। এদিকে, সেনাবাহিনীর ৯টি ইউনিট সিলেট ও সুনামগঞ্জে উদ্ধার কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। গত শুক্রবার বিকাল থেকে তারা সিলেটের ৩টি উপজেলা ও সুনামগঞ্জের ৫টি উপজেলায় উদ্ধার কাজ করছে।

রেকর্ড ভেঙেছে এবার বন্যা : সিলেটে বন্যা দেশের আগের সব রেকর্ড ভেঙেছে। বিভাগের ৮০ শতাংশ এলাকা এখন পানির নিচে। এর মধ্যে সুনামগঞ্জের ৯০ শতাংশ এলাকা ডুবে গেছে। বাকি তিন জেলা শহরের কিছু উঁচু স্থান, পাহাড়ি এলাকা এবং ভবন ছাড়া সবখানে এখন পানি। আগামী দুই দিনে এই পানি আরো বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র।

বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র বলছে, ১৯৯৮ সালের জুন মাসে সিলেট বিভাগে অনেকটা এমন বন্যা হয়েছিল। কিন্তু এরপর বেশির ভাগ বন্যা মূলত হাওর ও সুনামগঞ্জের নিম্নাঞ্চল পর্যন্ত সীমাবদ্ধ ছিল। ২০১৯ সালে সুনামগঞ্জ ও সিলেট শহরে দু-তিন দিনের জন্য হঠাৎ বন্যা হয়। কিন্তু পুরো সিলেট বিভাগের বেশির ভাগ এলাকা প্লাবিত হওয়ার মতো বন্যা হয়নি।

বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের নির্বাহী প্রকৌশলী আরিফুজ্জামান ভূইয়া বলেন, দেশের একটি বিভাগের প্রায় ৮০ শতাংশ ডুবে যাওয়ার মতো বন্যা এর আগে বাংলাদেশে হয়নি। সিলেটে এর আগে যত বন্যা হয়েছে তা মূলত হাওর এলাকা ও এর পার্শ্ববর্তী এলাকার মধ্যে সীমাবদ্ধ ছিল। কিন্তু এবার গ্রাম, শহর ও উঁচু এলাকা হিসেবে বিবেচিত স্থানগুলোও পানির নিচে চলে গেছে। আর সোমবারের আগে এই পানি নামার সম্ভাবনা কম। কারণ উজানে আগামী দুই দিন অতিভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস আছে।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের ভূ-উপগ্রহভিত্তিক সংস্থা ইসিএমডব্লিউর পূর্বাভাস অনুযায়ী, আগামীকাল বাংলাদেশের উজানে ভারতের চেরাপুঞ্জিতে ৫০০ থেকে ৬০০ মিলিমিটার বৃষ্টি হতে পারে। এর আগে গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে ৯৭২ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে; যা ১২২ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ বৃষ্টি। আর গত তিন দিনে সেখানে প্রায় আড়াই হাজার মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। এই অল্প কয়েক দিনে এত বৃষ্টির রেকর্ডও গত ১০০ বছরে নেই।

রানওয়েতে পানি, ফ্লাইট শিডিউল পরিবর্তন

ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের রানওয়েতে পানি উঠে যাওয়ার কারণে সিলেট-লন্ডন ফ্লাইটের শিডিউলে পরিবর্তন আনা হয়েছে। গতকাল ও আজকের দুটি ফ্লাইট পিছিয়ে আগামী ২১ ও ২৩ তারিখে নেওয়া হয়েছে। গতকাল এ তথ্য জানিয়েছেন সিলেট এমএজি ওসমানী বিমানবন্দরের ব্যবস্থাপক হাফিজ আহমদ। তিনি বলেন, শনিবার ও রবিবার সিলেট-লন্ডন রুটে বিমানের দুটি ফ্লাইট ছিল। কিন্তু ওসমানী বিমানবন্দরের রানওয়েতে পানি উঠে যাওয়ায় এসব ফ্লাইট শিডিউল পরিবর্তন করা হয়েছে। ১৮ তারিখের ফ্লাইট ২১ তারিখ এবং ১৯ তারিখের ফ্লাইট ২৩ তারিখ যাবে। এর আগে শুক্রবার বিকালে সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের সব ধরনের বিমান চলাচল বন্ধ ঘোষণা করা হয়।

সিলেট রেলওয়ে স্টেশন বন্ধ ঘোষণা

বন্যার পানি ঢুকে পড়ায় বিমানবন্দরের পর এবার সিলেট রেলস্টেশনও বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। তবে ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার মাইজগাঁও রেলস্টেশন থেকে ট্রেন চলবে। গতকাল দুপুর দেড়টার দিকে স্টেশন বন্ধ ঘোষণা করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সিলেট রেলস্টেশন ম্যানেজার মো. নুরুল ইসলাম।

তিনি জানান, এরই মধ্যে রেলস্টেশনের মূল প্ল্যাটফরমে বন্যার পানি ঢুকে পড়েছে। স্টেশনে কোনো ট্রেন ঢুকতে পারছে না। তাই রেলস্টেশন বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। তবে বিকল্প হিসেবে মাইজগাঁও রেলস্টেশন থেকে ট্রেন চলাচল করবে।

সিলেট-সুনামগঞ্জের পর হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জ ও নবীগঞ্জে বন্যা দেখা দিয়েছে। কালনী-কুশিয়ারাসহ বিভিন্ন নদণ্ডনদীর পানি দ্রুত বাড়ছে। প্রতিনিয়ত প্লাবিত হচ্ছে নতুন নতুন এলাকা। এরই মধ্যে জেলার দুই উপজেলার অন্তত ৪০টি গ্রামের হাজারো পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। তাদের আশ্রয়ণ কেন্দ্রে নেওয়া হয়েছে। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বন্যার্তদের মধ্যে খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। আজমিরীগঞ্জ-পাহারপুর ও আজমিরীগঞ্জ-কাকাইলছেও সড়ক ডুবে যাওয়ায় দুটি ইউনিয়নের সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে।



আরও খবর