Logo
শিরোনাম
মেঘনা নদীতে গোসল করার সময় নিখোঁজ ছাত্রের মরদেহ উদ্ধার রাজবাড়ীতে ট্রাকের সাথে সংঘর্ষে মোটর সাইকেল আরোহীর মৃত্যু রাজবাড়ীতে আবৃত্তি ও কথামালায় প্রকাশনা উৎসব নওগাঁয় মোটরসাইকেলের ধাক্কায় স্কুল ছাত্র নিহত-মা ও ছোট বোন আহত মোরেলগঞ্জে শ্রমীকদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করলেন এমপি মিলন লালমনিরহাটে বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে মারাগেছে স্কুলছাত্র নওগাঁয় বোরো ধান চাষের শুরুতেই বিদ্যুতের লোড শেডিং, দুঃশ্চিন্তায় কৃষকরা নওগাঁয় ৩৫ কোটি টাকা মূল্যের কষ্টিপাথরের মূর্তি উদ্ধার করেছে পুলিশ কুড়িগ্রামের শীতকাতর অসহায় মানুষের পাশে কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেত্রকোনায় বিশ্ব জলাভূমি দিবস উপলক্ষে মানববন্ধন

কুমিল্লার কুমিল্লায় গৃহবধূ হত্যায় স্বামীর মৃত্যুদণ্ড

প্রকাশিত:Tuesday ২৯ November ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

কুমিল্লা ব্যুরো ঃ

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রা‌মে ২০০৯সা‌লের ২৫জুন গৃহবধূ ঝর্ণা আক্তারকে যৌতুকের জন্য হত্যার ঘটনায় ১৩ বছর পর স্বামীর মৃত্যুদণ্ড ও দশহাজার টাকা অর্থদণ্ডসহ অনাদা‌য়ে ২মা‌সের সশ্রম কারাদ‌ন্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। কুমিল্লার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যনাল-১ এর বিচারক (জেলা ও দায়রা জজ) আব্দুল্লাহ আল মামুন এই রায় দেন।                                          বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কুমিল্লা আদালতের নারী ও শিশু  নির্যাতন দমন ট্রাইবু‌্যনাল -১ এর স্পেষাল পি‌পি প্রদীপ কুমার দত্ত। 

দণ্ডপ্রাপ্ত হ‌লেন জেলার চৌদ্দগ্রা‌মের আব্দুল কাদের। তিনি চৌদ্দগ্রাম উপজেলার কোমার ডোগা এলাকার মালু মিয়ার ছেলে। 

নারী ও শিশু  নির্যাতন দমন ট্রাইবু‌্যনাল -১ এর স্পেশাল পি‌পি প্রদীপ কুমার দত্ত জানান  ২০০৯ সালের ২৪ জুন চৌদ্দগ্রাম উপজেলার কোমার ডোগা এলাকার আব্দুল কাদের তার স্ত্রীকে যৌতুকের জন্য শ্বাসরোধ করে হত্যা করেন। ঘটনার ৪ মাস আগেই তাদের বিয়ে হয়। বিয়েতে ৫০ হাজার টাকা যৌতুকের কথা থাকলেও তারা ২০ হাজার টাকা পরিশোধ করে। বাকি ৩০ হাজার টাকার জন্যই তাকে হত্যা করে স্বামী আব্দুল কাদের। পরে তার লাশ পাশবর্তী একটি পুকুরে ফেলে দেয়। ঘটনার পর নিহতের বোন খা‌লেদা বেগম বাদী হয়ে চৌদ্দগ্রাম থানায় হত‌্যা  মামলা দায়ের করেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা,ম‌্যা‌জি‌স্ট্রেটসহ ১২জ‌নের স্বাক্ষ‌্য গ্রহ‌ণ শে‌ষে দীর্ঘ ১৩ বছর পর মামলার রায় দেন আদালত।  রা‌য়ে স্বামীর  মৃতু‌্যদন্ড হ‌লে এ মামলায় বাকী আসামী ২জন‌কে ‌বেকসুর খালাস প্রদান ক‌রে আদালত।

কোর্ট পুলিশের পরিদর্শক মুজিবুর রহমান বলেন, রায় ঘোষণার সময় আসামী আদালতে উপস্থিত ছিলো। আদাল‌তের রা‌য়ের পর আসামী‌কে কারাগারে পাঠিয়ে দেয়া হ‌য়ে‌‌ছে। ২০০৯সা‌লের ২৫জুন গৃহবধূ ঝর্ণা আক্তারকে যৌতুকের জন্য হত্যার ঘটনায় ১৩ বছর পর স্বামীর মৃত্যুদণ্ড ও দশহাজার টাকা অর্থদণ্ডসহ অনাদা‌য়ে ২মা‌সের সশ্রম কারাদ‌ন্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। কুমিল্লার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যনাল-১ এর বিচারক (জেলা ও দায়রা জজ) আব্দুল্লাহ আল মামুন এই রায় দেন।                                          বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কুমিল্লা আদালতের নারী ও শিশু  নির্যাতন দমন ট্রাইবু‌্যনাল -১ এর স্পেষাল পি‌পি প্রদীপ কুমার দত্ত। 

দণ্ডপ্রাপ্ত হ‌লেন জেলার চৌদ্দগ্রা‌মের আব্দুল কাদের। তিনি চৌদ্দগ্রাম উপজেলার কোমার ডোগা এলাকার মালু মিয়ার ছেলে। 

নারী ও শিশু  নির্যাতন দমন ট্রাইবু‌্যনাল -১ এর স্পেশাল পি‌পি প্রদীপ কুমার দত্ত জানান  ২০০৯ সালের ২৪ জুন চৌদ্দগ্রাম উপজেলার কোমার ডোগা এলাকার আব্দুল কাদের তার স্ত্রীকে যৌতুকের জন্য শ্বাসরোধ করে হত্যা করেন। ঘটনার ৪ মাস আগেই তাদের বিয়ে হয়। বিয়েতে ৫০ হাজার টাকা যৌতুকের কথা থাকলেও তারা ২০ হাজার টাকা পরিশোধ করে। বাকি ৩০ হাজার টাকার জন্যই তাকে হত্যা করে স্বামী আব্দুল কাদের। পরে তার লাশ পাশবর্তী একটি পুকুরে ফেলে দেয়। ঘটনার পর নিহতের বোন খা‌লেদা বেগম বাদী হয়ে চৌদ্দগ্রাম থানায় হত‌্যা  মামলা দায়ের করেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা,ম‌্যা‌জি‌স্ট্রেটসহ ১২জ‌নের স্বাক্ষ‌্য গ্রহ‌ণ শে‌ষে দীর্ঘ ১৩ বছর পর মামলার রায় দেন আদালত।  রা‌য়ে স্বামীর  মৃতু‌্যদন্ড হ‌লে এ মামলায় বাকী আসামী ২জন‌কে ‌বেকসুর খালাস প্রদান ক‌রে আদালত।

কোর্ট পুলিশের পরিদর্শক মুজিবুর রহমান বলেন, রায় ঘোষণার সময় আসামী আদালতে উপস্থিত ছিলো। আদাল‌তের রা‌য়ের পর আসামী‌কে কারাগারে পাঠিয়ে দেয়া হ‌য়ে‌‌ছে।


আরও খবর



সংসদে মুন্সিগঞ্জের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়-মেডিকেল কলেজ চাইলেন মৃণাল কান্তি দাস

প্রকাশিত:Monday ২৩ January 20২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

মুন্সীগঞ্জ  প্রতিনিধি: মহান জাতীয় সংসদে বক্তব্য দিতে গিয়ে মুন্সিগঞ্জ ৩ আসনের সংসদ সদস্য মৃণাল কান্তি দাস বলেছেন, ‘ইতিহাস প্রসিদ্ধ একটি এলাকা। যে এলাকায় জন্মগ্রহণ করেছিলেন শ্রী অতীশ দীপঙ্কর। জ্ঞান বিস্তারের জন্য যিনি সেই সময়ে সূদুর চিন পর্যন্ত গিয়েছিলেন। সেই এলাকার মানুষ একটি পাবলিক ইউনিভার্সিটি, একটি পাবলিক মেডিকেল কলেজ পাবে না। সরকারের দ্বিঘোষিত নীতি অনেক জেলায় হচ্ছে। আমার জেলার মানুষ শুধু জিজ্ঞেস করে, এটি আমাদের কবে হবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমি কড়জোরে আবেদন করবো- নিবেদন করবো, ইতিহাস প্রসিদ্ধ এই এলাকা শ্রী অতীশ দীপঙ্কর, জগদীশ চন্দ্র বসু, সিআর দাসসহ (দেশবন্ধু চিত্তরঞ্জন দাস) বহু মনিষীর এই প্রিয় জন্মস্থলে আপনি এই বিশ্ববিদ্যালয় দুইটি নির্মাণ করলে আমরা কৃতজ্ঞ হবো।’

জাতীয় সংসদের ২১তম অধিবেশনে মহামান্য রাষ্ট্রপতির ভাষণের উপর বক্তব্য দিতে গিয়ে প্রসঙ্গক্রমে মুন্সিগঞ্জ ৩ আসনের সংসদ সদস্য মৃণাল কান্তি দাস বলেন, ‘পদ্মা নদীর পাড়, মেঘনা নদীর পাড়, গোমতি নদীর পাড়, ধলেশ্বরীর পাড়, শীতলক্ষ্যার পাড় এই এলাকায় রয়েছে অনেক চর, অনেক হাওর-বাঁওর সেখানকার মানুষ অনেক কষ্টে আছে। বন্যায় নদী ভাঙে, জায়গা নষ্ট হয়। রয়েছে ভূমিদস্যুতা, রয়েছে বালুদস্যুতা। বালুদস্যুরা মানুষের ভূমি কেড়ে নিয়ে যাচ্ছে আর ভূমিদস্যুরা আমার প্রধানমন্ত্রী চান এক ইঞ্চি জমিও যাতে বিনাচাষ না থাকে। আর এই বালুদস্যুরা মানুষের জমিগুলো দিনেদুপুরে প্রশাসনের নাকের ডগায় ভেকু দিয়ে চার-পাঁচ ফিট মাটি কেটে নিয়ে যাচ্ছে। কৃষকরা চাষ-বাস করতে পারে না। জেলা প্রশাসনকে জানাই, পুলিশ প্রশাসনকে জানাই। কোথাও সহযোগিতা পাই না। অসহায় এমপি- তার এলাকার মানুষের জান-মালের, জীবন রক্ষা করতে।’

গত রোববার সন্ধ্যায় প্রায় ১৭ মিনিটের বক্তব্যকালে সংসদ নেতা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও উপস্থিত ছিলেন।

মৃণাল কান্তি দাস জাতীয় সংসদে তার বক্তব্যে আরও বলেন ‘এলাকার মানুষের কল্যাণে আমি এই পার্লামেন্টে আসার সুযোগ পেয়েছি। মনোনয়ন দিয়েছেন দেশরত্ম শেখ হাসিনা। কিন্তু এলাকার মানুষও তো আমার আছে। সেখানকার সমস্যা সমাধানের জন্যে প্রধানমন্ত্রী অনেক কিছু দিয়েছেন। সেতুমন্ত্রীও দিয়েছেন। তারপরও আমি বলবো ছনবাড়ি থেকে মুক্তারপুর পর্যন্ত যে সড়কটি প্রশস্তকরণ চলছে, ব্রিজগুলো নির্মাণ চলছে। গতি শ্লথ, একটু দ্রুত যদি করেন তাহলে আমার এলাকার মানুষ কষ্ট থেকে বাঁচে।’

তিনি এসময় আরও বলেন, ‘২২৫০ কোটি টাকা দিয়েছেন সেতুমন্ত্রী। পঞ্চবটি থেকে মুক্তারপুর ফ্লাইওভার এবং ফোরলেন করতে। জমি অধিগ্রহণের প্রক্রিয়া আমলাতান্ত্রিক কারণে শ্লথ হয়ে আছে। একটু গতি দিন। কাজগুলো যদি একটু দৃশ্যমান হয় এলাকার মানুষের কাছে আমরা মুখটা, আপনাদের মুখটা, আওয়ামী লীগের মুখটা, সরকারের মুখটা, শেখ হাসিনার মুখটা ওবায়দুল কাদেরের মুখটা আমার চেয়েও অনেক অনেক ‍গুন বড় হবে। আওয়ামী লীগের প্রতি এই এলাকার মানুষের সমর্থন আরও বাড়বে।’

মৃণাল আরও বলেন, ‘একটি ব্রিজ অনেকদিন যাবৎ চেষ্টা করে যাচ্ছি। গজারিয়ার মানুষের দুর্ভোগ- ফুলদি নদীর উপর একটি ব্রিজ যদি করে দেন আমি তার কাছে কৃতজ্ঞ থাকবো। পদ্মা নদীর উপর সেতু নির্মাণের পর বাংলাদেশের মানুষের অর্থনৈতিক গতিতে সঞ্চার আসবে। যদি মোংলা পোর্টের সাথে চিটাগং পোর্টের দূরত্ব কমাতে হয়। ঢাকা শহরের উপর যদি যানজট কমাতে হয় তাহলে মেঘনা নদীর উপর একটি ব্রিজ নির্মাণের অবশ্যই প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। মুন্সিগঞ্জ শহরের পাশ দিয়ে যদি সেই সড়কটি বেরিয়ে যায় তাহলে আমার এলাকার মানুষ যেমন লাভবান হবে জাতীয় অর্থনৈতিক অগ্রগতিতেও সমধিক ভূমিকা রাখবে।’

সংসদ সদস্য মৃণাল কান্তি দাস তার বক্তব্যে বলেন, ‘আমার শহরে একটি মিলনায়তন ছিলো (গণসদন)। বেশ কয়েক বছর যাবৎ বন্ধ। আমলাতান্ত্রিক জটিলতার কারণে তাও নির্মাণ করতে পারছি না। শিল্পকলা একাডেমিটির অবস্থা খুবই খারাপ। সংস্কৃতি মন্ত্রীকে একাধিকবার বলেছি যে, এই উপমহাদেশের সংস্কৃতি আন্দোলনের সূতিকাগার মুন্সিগঞ্জ তথা বিক্রমপুরের জেলা সদরে কেন একটি আধুনিক শিল্পকলা একাডেমি হবে না। তার দিকেও নজর দেয়ার জন্য আমি অনুরোধ জানাচ্ছি।’


আরও খবর



সাত মাসে সর্বনিম্ন পর্যায়ে ডলারের দাম

প্রকাশিত:Saturday ২১ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

আন্তর্জাতিক মুদ্রাবাজারে অন্যান্য মুদ্রার বিপরীতে যুক্তরাষ্ট্রের ডলারের দাম ব্যাপক কমেছে। গত ৭ মাসের মধ্যে যা সর্বনিম্ন। 

গত ডিসেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রে ভোক্তা মূল্য সূচক (সিপিআই) হ্রাস পেয়েছে। এ নিয়ে বিগত আড়াই বছরের মধ্যে প্রথমবারের মতো তা কমলো। ফলে সুদের হার কমানোর পূর্বাভাস দিয়েছে দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভ (ফেড)। তাতে মার্কিন মুদ্রার দরপতন ঘটেছে।

সোমবার (১৬ জানুয়ারি) ডলার সূচক শূন্য দশমিক ৪৬ শতাংশ নিম্নমুখী হয়েছে। বর্তমানে সেটা ১০১ দশমিক ৭৯ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। এতে প্রায় প্রতিটি বৈশ্বিক মুদ্রার মান বেড়েছে।

এদিন সবচেয়ে বেশি লাভের মুখ দেখেছে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) প্রধান মুদ্রা ইউরো। প্রতি ইউরোর দর স্থির হয়েছে ১ দশমিক ০৮৭২৫ ডলারে। গত ৯ মাসের মুদ্রা যা সবচেয়ে বেশি।

প্রধান আন্তর্জাতিক মুদ্রার বিরুদ্ধে বেশ শক্তিশালী হয়েছে জাপানের মুদ্রা ইয়েন। ডলারপ্রতি দর নিষ্পত্তি হয়েছে ১২৭ দশমিক ৩৮ ইয়েনে। গত ৭ মাসের মধ্যে তা সর্বাধিক।

ব্রিটিশ মুদ্রা পাউন্ড স্টার্লিংয়ের মূল্যমান বৃদ্ধি পেয়েছে শূন্য দশমিক ৪৫ শতাংশ। প্রতি স্টার্লিং বিক্রি হয়েছে ১ দশমিক ২২৮৮ ডলারে। গত এক মাসের মধ্যে যা সর্বোচ্চ। এছাড়া নিউজিল্যান্ড ও অস্ট্রেলীয় ডলারের দামও ঊর্ধ্বমুখী হয়েছে।

২০২২ সালে গত ৪০ বছরের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে মূল্যস্ফীতি চড়া হয়। এতে মার্কিন অর্থনীতি ধীর হয়। তবে সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে সেই জায়গা থেকে তা ঘুরে দাঁড়াচ্ছে। এতে কঠোর মুদ্রানীতি থেকে সরে আসছে ফেড।

ওসিবিসির বিশ্লেষকরা বলছেন, আগামী মাসগুলোতে সিপিআই আরও কমতে পারে। সবশেষ ভোক্তা মূল্য সূচক তথ্য সেই আশা জাগাচ্ছে।

গত বছর মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে দফায় দফায় সুদের হার বাড়ায় ফেড। ৪বার ৭৫ এবং ১বার ৫০ বেসিস পয়েন্ট বাড়ায় তারা। এতে গ্রিনব্যাকের দর বাড়ে ৮ শতাংশ।


আরও খবর



দিনাজপুরে ৩৯১ বোতল ফেন্সিডিলসহ দুই জন আটক

প্রকাশিত:Tuesday ২৪ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টার :

সিএনজি যোগে বহনকালে ৩৯১ বোতল ফেন্সিডিল সহ দুই জনকে আটক করেছে র‌্যাব।

সত্যতা নিশ্চিত করে র‌্যাব-৫, সিপিসি-৩, জয়পুরহাট কাম্প থেকে প্রতিবেদক কে জানানো হয়, র‌্যাব-৫, সিপিসি-৩, জয়পুরহাট ক্যাম্পের একটি চৌকশ অপারেশনাল দল কোম্পানি অধিনায়ক মেজর মোঃ মোস্তফা জামান এবং স্কোয়াড কমান্ডার সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার মোঃ মাসুদ রানা এর নেতৃত্বে সোমবার দিনগত রাত সোয়া ১১ টারদিকে দিনাজপুর জেলার হাকিমপুর থানাধীন ধরন্দা এলাকায় অভিযান পরিচালনা ''একটি সিএনজি'' তল্লাসি করে  ৩৯১ বোতল ফেন্সিডিল সহ

জয়নাল আবেদিন (৪৪) ও জহুরুল ইসলাম (৪০) কে হাতেনাতে আটক করেন। আটককৃতরা হলেন, দিনাজপুর জেলার হাকিমপুর উপজেলার শালগ্রাম গ্রামের মৃত আবুল কাশেম এর ছেলে জয়নাল আবেদিন ও মোঃ আবুল কাশেম এর ছেলে জহুরুল ইসলাম।

র‌্যাব আরো জানান, আটককৃত দুইজন দীর্ঘদিন ধরে মাদক এক স্থান থেকে অন্য স্থানে নিয়ে যাওয়ার এই অবৈধ ব্যবসার সাথে জড়িত। ঘটনার সময়ও তারা দিনাজপুর জেলার পার্বতীপুর সীমান্ত এলাকা থেকে ফেন্সিডিল নিয়ে হিলিতে যাচ্ছিল। এ সময় দিনাজপুর জেলার হাকিমপুর থানার হিলি সীমান্ত এলাকায় র‌্যাবের একটি চৌকশ অপারেশন দল অভিযান চালিয়ে তাদের দুই জনকে ৩৯১ বোতল ফেন্সিডিল সহ গ্রেফতার করেন।

এব্যাপারে নিকটস্থ্য থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন-২০১৮ অনুসারে মামলা দায়ের করা হয়েছে বলেও নিশ্চিত করেছে র‌্যাব।


আরও খবর



ধামরাই সোমভাগ ইউনিয়নে গরীব মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ

প্রকাশিত:Monday ০৯ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Friday ০৩ February ২০২৩ |
Image

মোঃ নাজমুল হাসান, ধামরাই :


ঢাকার ধামরাই উপজেলার সোমভাগ ইউনিয়ন পরিষদের ০৭নং ওয়ার্ডের গোয়ালদি গ্রামের কীর্তি সন্তান বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল লতিফ, তার নিজ বাসভবনে গরীব অসহায় মানুষের মাঝে প্রায় দুই হাজার কম্বল বিতরণ করেন। 

এসময় তিনি বলেন আমার সোমভাগ ইউনিয়ন বাসী যেন শীতে কষ্ট না করে তার জন্য আমার নিজের ব্যক্তিগত ভাবে প্রায় দুই হাজার লোকের জন্য কম্বল এর ব্যবস্থা করেছি। আমার আশা আছে আগামীতে আরও বেশি মানুষের মাঝে যেন এই শীতবস্ত্র দিতে পারি, এসময় তিনি আরও বলেন আগামীতে সংসদ নির্বাচন সোমভাগ ইউনিয়ন বাসীর কাছে আমার একটি চাওয়া তাহল আগামী নির্বাচনে আপানারা অবশ্যই বিপুল ভোটের মাধ্যমে নৌকার বিজয় এনে দেবেন, এসময় তিনি সাবেক সংসদ সদস্য ও সভাপতি ধামরাই উপজেলা আওয়ামী লীগ বীরমুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব এম এ মালেকের জন্য সকলের কাছে দোয়া চান,ধামরাইয়ে একমাত্র কর্মী বান্ধব নেতা তিনি হলেন মালেক সাহেব আমরা আশা করি তিনি আগামীতে অবশ্যই নৌকা নিয়ে আসবে এবং আগামীতে ধামরাইয়ের এমপি হবে।

এসময় প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক সংসদ সদস্য ঢাকা ২০ ও সভাপতি ধামরাই উপজেলা আওয়ামী লীগ বীরমুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব এম এ মালেক। 

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাধারণ সম্পাদক ধামরাই উপজেলা যুবলীগ নেতা খায়রুল ইসলাম, সদস্য ঢাকা জেলা পরিষদ ও সাধারণ সম্পাদক ধামরাই পৌরসভা যুবলীগ নেতা সানাউল হক সুজন, সভাপতি ধামরাই পৌর যুবলীগ আমিনুর রহমান, ধামরাই উপজেলা যুবলীগ নেতা শাহিনুর ইসলাম শাহিন ও সমাজ সেবক মানিক মিয়া সহ উপস্থিত ছিলেন সোমভাগ ইউনিয়ন এর গণ্য মান্য ব্যক্তিবর্গ।


আরও খবর



রাণীনগরে পৃথক অভিযানে ৪জন গ্রেপ্তার মাদক উদ্ধার

প্রকাশিত:Sunday ০৮ January ২০২৩ | হালনাগাদ:Thursday ০২ February 2০২3 |
Image

কাজী আনিছুর রহমান,রাণীনগর (নওগাঁ) :


নওগাঁর রাণীনগর থানাপুলিশ পৃথক অভিযান চালিয়ে মাদকসহ দুইজন এবং মারপিট মামলায় আরো দুইজনসহ মোট চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে। শনিবার রাতে ও রোববার সকালে পৃথক অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয় । গ্রেপ্তারকৃতদের রোববার আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

রাণীনগর থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ বলেন, শনিবার রাতে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় উপজেলার আবাদপুকুর বাজার এলাকা থেকে সুমন মোল্লা (৩১) কে ৫০গ্রাম গাঁজাসহ গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তার সুমন উপজেলার বিষ্ণপুর গ্রামের মোজাম্মেল হকের ছেলে। একই রাতে উপজেলার মিরাট ধনপাড়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে ওই গ্রামের একটি মারপিট মামলার আসামী তাছের সরদার (৪০) ও তার ছেলে নয়ন সরদার (১৮) গ্রেপ্তার করা হয়। এছাড়া রোববার সকালে উপজেলার চকাদিন এলাকা থেকে হেরোইনসহ আব্দুল করিম (৩৮) কে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তার করিম উপজেলার খট্রেশ্বর পশ্চিম পাড়া গ্রামের মৃত ছামছুর প্রামানিকের ছেলে। এঘটনায় মাদক সহ গ্রেপ্তারকৃতদের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করে রোববার আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।


আরও খবর