Logo
শিরোনাম

বন্যার কারণে হচ্ছে না এসএসসি পরীক্ষা

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ |
Image

দেশের সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় রবিবার থেকে শুরু হতে যাওয়া এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে। ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক তপন কুমার সরকার আজ শুক্রবার এই তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, পরীক্ষা শুরুর পরিবর্তিত তারিখ পরে জানানো হবে।

টানা বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলের কারণে বন্যার পানিতে প্লাবিত হয়েছে সিলেট ও সুনামগঞ্জের বেশ কয়েকটি উপজেলা। ক্রমেই এই অবস্থার অবনতি ঘটছে।

এ বছর এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় মোট পরীক্ষার্থী ২০ লাখ ২১ হাজার ৮৬৮ জন। গত বছর পরীক্ষার্থী ছিল ২২ লাখ ৪৩ হাজার ২৫৪ জন। এ বছরের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় গত বছরের চেয়ে প্রায় সোয়া দুই লাখ পরীক্ষার্থী কমেছে।

এ বছর নয়টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড, মাদ্রাসা এবং কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে সারা দেশের ২৯ হাজার ৫১৯টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা ৩ হাজার ৭৯০টি কেন্দ্রে এসএসসি, দাখিল এবং এসএসসি (ভকেশনাল) পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার কথা

এবার পরীক্ষার সময় তিন ঘণ্টা থেকে কমিয়ে দুই ঘণ্টা নির্ধারণ করা হয়েছে। এর মধ্যে প্রশ্নপত্রের এমসিকিউ অংশের জন্য ২০ মিনিট এবং সৃজনশীল অংশের জন্য ১ ঘণ্টা ৪০ মিনিট নির্ধারিত থাকবে।

এর আগে পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের কারণে ২৫ জুনের পরীক্ষা এক দিন এগিয়ে আনার সিদ্ধান্ত হয়েছিল। তবে এখন বন্যার কারণে সব পরীক্ষাই স্থগিত হয়ে গেল।



আরও খবর



ভাগিনা মামিকে আপত্তিকর অবস্থায় ধরা

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৫ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২ |
Image

ভাগিনার সঙ্গে দীর্ঘ দুই বছরের প্রেম মামির, পরে তা দৈহিক সম্পর্ক পর্যন্ত গড়ায়। একাধিকবার ধরা খেয়ে শালিস বৈঠকে দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পরও তাদের যুগল প্রেম দমানো যায়নি, কিন্তু শেষ রক্ষা আর হলো না ভাগিনা নুরুজ্জামানের (৪৫)। স্থানীয়দের হাতে আপত্তিকর অবস্থায় ধরা পড়ে বর্তমানে তিনি জেল-হাজতে রয়েছেন।

গ্রেপ্তার নুরুজ্জামান চন্দ্রপুর এলাকার নুরল হকের ছেলে এবং চন্দ্রপুর ইউনিয়ন যুব দলের সাংগঠনিক সম্পাদক বলেও জানা গেছে।

ঘটনাটি ঘটেছে লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার সারপুকুর ইউনিয়নের দেল্লারমোর এলাকায়।

বৃহস্পতিবার (১৪ জুলাই) সন্ধ্যায় আদিতমারী থানায় নারী নির্যাতন আইনে একটি মামলা দায়েরের পর নুরুজ্জামানকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন আদিতমারী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোক্তারুল ইসলাম।

সারপুকুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ কবির হোসেন বলেন, দীর্ঘ ৮ বছর আগে মামির সঙ্গে কালীগঞ্জ উপজেলার চন্দ্রপুর ইউনিয়নের আপেল মিয়ার বিয়ে হয়। তাদের ঘরে একটি কন্যা সন্তানও রয়েছে। কিছুদিন পর মামির ওপর নজর পড়ে ভাগিনার। তাকে হাসিল করার জন্য কৌশলে মামাকে মাদক মামলায় ফাঁসিয়ে জেলে পাঠায় নুরুজ্জামান। এরপর তার মামিকে বিভিন্ন ভয়ভীতি দেখিয়ে তার প্রেমে পড়তে বাধ্য করান মামিকে। ভাগিনার ভয়ভীতির কারণে এক পর্যায়ে ভাগিনার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন মামি। এরপর প্রতিদিন তার সঙ্গে রাত যাপন করতে থাকেন নুরুজ্জামান। বিষয়টি এলাকায় চাউর হলে একাধিকবার বিচার সালিসও হয়। কিন্তু তাদের এই সম্পর্ক চলতেই থাকে।

বৃহস্পতিবার (১৪ জুলাই) মামি থাকার ঘরের মেঝেতে তাদের দুজনকে আপত্তিকর অবস্থায় ধরেন এলাকাবাসী।

আদিতমারী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোক্তারুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনাটি জানার পর নারী নির্যাতন আইনে একটি মামলা দায়ের হয়েছে। সে আলোকে নুরুজ্জামানকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।


আরও খবর



আজ কলেরার দ্বিতীয় ডোজের টিকা

প্রকাশিত:বুধবার ০৩ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ |
Image

রাজধানীতে দ্বিতীয় ডোজ কলেরার টিকাদান কর্মসূচি শুরু হয়েছে। পাঁচটি এলাকায় আজ থেকে ১০ আগস্ট পর্যন্ত এ কর্মসূচি চলবে। মঙ্গলবার (২ আগস্ট) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগ নিয়ন্ত্রণ শাখার পরিচালক ও লাইন ডিরেক্টর অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ নাজমুল ইসলাম এ তথ্য জানান।

এ আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র বাংলাদেশ (আইসিডিডিআর’বি) জানায়, ২৬ জুন থেকে ২ জুলাই পর্যন্ত রাজধানীর মিরপুর, মোহাম্মদপুর, যাত্রাবাড়ী, সবুজবাগ ও দক্ষিণখান এলাকায় কলেরার টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছিল ২৩ লাখ ৬৫ হাজার ৫৮৫ জন। তাদের এই দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হবে। প্রথম ডোজ গ্রহীতারা নিজ নিজ টিকাকেন্দ্রে টিকাকার্ড দেখিয়ে দ্বিতীয় ডোজ নিতে পারবেন। ৯ আগস্ট (আশুরা) ছাড়া প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত এ কার্যক্রম চলবে।

নাজমুল ইসলাম বলেন, ঢাকার পাঁচটি এলাকার বাসিন্দাদের থেকে কলেরা টিকাদান কার্যক্রমে অভূতপূর্ব সাড়া পেয়েছি। খুব অল্প সময়ে রেকর্ডসংখ্যক মানুষকে টিকা দিতে পেরেছি। আশা করি, প্রথম ডোজ গ্রহীতারা অবশ্যই দ্বিতীয় ডোজ নিয়ে নিজেদের এ রোগ থেকে সুরক্ষা করবেন।

আইসিডিডিআর’বির সিনিয়র সায়েন্টিস্ট ও ইনফেকশাস ডিজিজেস ডিভিশনের ভারপ্রাপ্ত সিনিয়র ডিরেক্টর ড. ফেরদৌসী কাদরী বলেন, সবার প্রতি অনুরোধ কলেরা টিকা গ্রহণ করার পাশাপাশি নিজেকে ও প্রিয়জনদের অন্যান্য রোগ প্রতিরোধমূলক কার্যক্রম, যেমন নিরাপদ পানির ব্যবহার, নিরাপদ পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা এবং ব্যক্তিগত পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা নিশ্চিত করতে উৎসাহিত করবেন এবং ডায়রিয়াসহ অন্যান্য সংক্রমক রোগ থেকে সুরক্ষিত থাকবেন।

গর্ভবতী নারী এবং গত ১৪ দিনের মধ্যে অন্য কোনো টিকা নিয়েছেন- এমন ব্যক্তি ছাড়া সবাই কলেরার টিকা নিতে পারবেন। এ টিকা নেওয়ার পরবর্তী ১৪ দিনের মধ্যে অন্য কোনো টিকা নেওয়া যাবে না।


আরও খবর



নারায়ণগঞ্জের আলোচিত সাত খুন মামলার মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামী

নূর হোসেনকে অস্ত্র মামলায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৪ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ |
Image

 বুলবুল আহমেদ সোহেল; নারায়ণগঞ্জঃ

আলোচিত সাত খুন মামলার মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামী নূর হোসেনকে একটি অস্ত্র মামলায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। বৃহস্পতিবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ দ্বিতীয় আদালতের বিচারক সাবিনা ইয়াসমিন এই রায় ঘোষণা করেন।

জেলা ও দায়রা জজ কোর্টের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট মো. সালাহ উদ্দীন সুইট বলেন, সাক্ষীদের সাক্ষ্য প্রমাণের ভিত্তিতে আদালত আসামীর উপস্থিতিতে এই রায় ঘোষণা করেছেন। 

কোর্ট পুলিশের পরিদর্শক আসাদুজ্জামান বলেন, একটি অস্ত্র মামলায় নূর হোসেনের বিরুদ্ধে রায় ঘোষণা করেছে আদালত। রায় ঘোষণার আগে তাকে কড়া নিরাপত্তায় কাশিমপুর কারাগার থেকে নারায়ণগঞ্জ আদালতে আনা হয় সেই সাথে বিচারকি কার্যক্রম শেষে তাকে আবার কড়া নিরাপত্তায় কাশিমপুর কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।

২০১৪ সালে ১৫ মে দুপুরে সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইল এলাকায় নুর হোসেনর স্টোর রুমের নীচ তলা থেকে থেকে একটি রিবালভার, ৮ রাউন্ড গুলি ও ৮ কাটুসের গুলি উদ্ধার করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এঘটনায় পরদিন সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় অস্ত্র আইনের মামলা হয়। মামলাটি তদন্ত শেষে ওই বছরেই প্রতিবেদন দাখিল করে পুলিশ। আদালত ৪ জন স্বাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহন শেষে আসামী নূর হোসেনকে দুটি ধারায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন। 

প্রসঙ্গত, ২০১৪ সালের ২৭ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জ আদালতে মামলায় হাজিরা দিয়ে ফেরার পথে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডের লামাপাড়া এলাকা থেকে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলাম ও আইনজীবি চন্দন সরকারসহ সাতজনকে অপহরণ করা হয়। 

জেলা ও দায়রা জজ আদালত ২০১৭ সালের ১৬ জানুয়ারী রায় প্রদান করেন। রায়ে ২৬ জনকে মৃত্যুদন্ড ও ৭ জনকে ১০ বছর করে এবং ২ জনকে ৭ বছর করে কারাদন্ড প্রদান করা হয়। ওই রায়ের বিরুদ্ধে আসামিপক্ষ আপিল করলে দীর্ঘ শুনানি শেষে ২০১৮ সালে ২২ আগস্ট হাই কোর্ট ১৫ জনের মৃত্যুদন্ডের আদেশ বহাল রাখেন। আর বাকিদের বিভিন্ন মেয়াদে সাজা প্রদান করেন


আরও খবর



প্রক্সিতে লিখিত পরীক্ষায় পাশ

মৌখিক পরীক্ষায় এসে ধরা খেল পরীক্ষার্থী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৪ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ |
Image

পঞ্চগড় প্রতিনিধি ঃ 

পঞ্চগড়ে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বনের দায়ে স্বপন সেন (২৯) নামে এক পরীক্ষার্থী আটক। 

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে পঞ্চগড় জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে মৌখিক পরিক্ষা দিতে এসে তাকে আটক করে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়। 

আটককৃত পরিক্ষার্থী স্বপন সেন জেলার সদর উপজেলার ধাক্কামারা ইউনিয়নের লাঙলগাও এলাকার কমলা কান্ত সেনের ছেলে। 

পুলিশ ও জেলা প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ বোর্ড সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার সকাল থেকে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে প্রাঃ বিদ্যাঃ শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার জন্য মৌখিক পরীক্ষা নেওয়া শুরু হয়।এসময় লিখিত পরিক্ষায় পক্সির মাধ্যমে উর্ত্তীর্ণ হওয়ার পর স্বপন সেন মৌখিক পরীক্ষা দিতে আসলে তাকে বাংলায় লিখতে বলে নিয়োগ বোর্ড৷ এসময় স্বপ্ননের হাতের লেখার সাথে লিখিত পরীক্ষার হাতের লেখার অমিল পাওয়ায় নিয়োগ বোর্ডের সন্দেহ হয়। এবং পরে তাকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে স্বীকার করে যে নিয়োগের জন্য লিখিত পরীক্ষা প্রক্সির মাধ্যমে অন্যের দ্বারা পরিক্ষা দিয়োছিল, এবং এজন্য সে মোটা অংকের টাকাও লেনদেন করে বলে স্বীকার করেন, পরে  তাকে আটক করে সদর থানার পুলিশকে হাতে সোপর্দ করা হয়। 

উল্লেখ্য  চলতি প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের লিখিত পরীক্ষায় ইংরেজী এবং বাংলায় কয়েক লাইন হাতে লেখার কথা বলা হয়। এবং  নিয়োগ পরীক্ষায় প্রক্সি দেওয়াসহ যে কোন অনিয়ম ঠেকাতে লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্নদের কাগজপত্র জমা নেওয়া এবং মৌখিক পরীক্ষাতেও একই ভাবে লেখতে বলা হয়। এই প্রক্রিয়ায় নিয়োগের মৌখিক পরীক্ষায় বোর্ডের চেয়ারম্যান ও জেলা প্রশাসকের কাছে জালিয়াতির ঘটনাটি ধরা পরে। এর আগেও একই অপরাধের দায়ে ৪ পরীক্ষার্থীকে আটক করে৷

এদিকে বিষয়টি নিশ্চিত করে পঞ্চগড় প্রশাসক (ডিসি) মো. জহুরুল ইসলাম বলেন, মৌখিক পরীক্ষা চলাকালে ওই পরীক্ষার্থীকে বাংলায় লিখতে বললে তার লিখিত পরীক্ষার খাতায় লেখার সাথে অমিল পাওয়া যায়। পরে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে অন্যের মধ্যামে পরীক্ষা দেয়ার কথা স্বীকার করে৷ 

এবিষয়ে সদর থানার ওসি জানান, নিয়োগ বোর্ডে লিখিত পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বনের জন্য ওই পরীক্ষার্থীকে নিয়োগ বোর্ড পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছে। তার বিরুদ্ধে মামলার প্রক্রিয়া চলছে। 


আরও খবর



পুলিশের সোর্সের অমানবিক নির্যাতন

প্রকাশিত:শনিবার ৩০ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২ |
Image

নারায়ণগঞ্জ সোনারগাঁ প্রতিনিধিঃ 

নারায়ণগঞ্জ সোনারগাঁ থানার শাহআলম  নারায়ণগঞ্জ এ,এস,আই মজিবর এর সোর্স পরিচয় দিয়ে বুক ফুলিয়ে বীরদর্পে রাতদিন সমানে বর্বর অমানবিক নিষ্ঠুর নির্যাতন করে যাচ্ছে। কেউ চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে তার টর্চার সেলে নিয়ে মিউজিক বাজিয়ে মধ্যযুগীয় কায়দায় অমানবিক নির্যাতন চালায়।

কাবিলগঞ্জের শাহআলম বর্তমানে মোগরাপাড়া চৌরাস্তায় খন্দকার প্লাজার পাশে তার বোনের বাড়ীতে এবং সোনারগাঁ চিলারবাগ তার নানার বাড়ীতে থাকে। শাহ আলম ও তাঁর সাথে পুলিশের যারা জড়িত তদন্ত করে তাদেরকে বিচার আওতায় আনার দাবী জনগণের। 

জানা যায়, নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ থানার পুলিশের সোর্স পরিচয় দিয়ে শাহ আলম সোর্স নীরহ যুবকদের আটকে রেখে টাকা পয়সা হাতিয়ে রেখে পরবর্তীতে পুলিশের মাধ্যমে ডাকাতিসহ বিভিন্ন মামলা দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। সে নিজে মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত। ইয়াবা, ফেনসিডিল বিক্রি এবং সাধারন মানুষকে আটক করে মুক্তিপন দাবী এবং কথা না শুনলে ভয়ংকর নির্যাতনে কারনে শাহ আলম এক আতঙ্কের নাম। পুলিশের ভয় দেখিয়ে সাধারণ মানুষের মুখ বন্ধ করে একের পর এক অপরাধ করে যাচ্ছে।


আরও খবর