Logo
শিরোনাম
বাউল ছালমা হলেন বরিশাল বিভাগের শ্রেষ্ঠ "জয়িতা" পাংশায় মাদক সহ ৯ মামলার আসামী গ্রেফতার ১৬৩ টাকায় তেল বিক্রির ব্যত্যয় ঘটলে ব্যবস্থা নেয়া হবে: ভোক্তার মহাপরিচালক দুর্গাপুরে বালুবাহী হ্যান্ডট্রলির চাপায় প্রাণ গেল শিক্ষার্থীর নওগাঁ জেলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি আবু বক্কর, সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত নওগাঁয় প্রাইভেটকার তল্লাসি, ৭২ কেজি গাঁজা সহ যুবক আটক রূপগঞ্জে প্রাইভেটকার চাপায় গৃহবধু নিহত রাঙ্গামাটির বড়ইছড়ি নির্মাণ শ্রমিক বোঝাই ট্রাক খাদে নিহত-২, আহত-২০ মুসলিমদেরকে সঠিক পথ থেকে বিচ্যুত করার জন্য বিভিন্ন ষড়যন্ত্র চলছে নওগাঁয় কম্পিউটার ব্যবসার অন্তরালে অশ্লিল ভিডিও বিক্রি করায় ৩ যুবক আটক

এখন পর্যন্ত ২৫ ফ্যাক্টরিতে ভাঙচুর, ১৩০টি বন্ধ

প্রকাশিত:রবিবার ১২ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪ |

Image

বর্তমান পরিস্থিতিতে এখন পর্যন্ত ২৫টি ফ্যাক্টরিতে ভাঙচুরের ঘটনা এবং ১৩০টি ফ্যাক্টরি বন্ধ আছে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ পোশাক প্রস্তুতকারক ও রপ্তানিকারক সমিতি (বিজিএমইএ)। তবে বেতন বৈষম্য নাকি হরতাল-অবরোধের কারণে এমন হচ্ছে, সে বিষয়ে কিছু জানাতে পারেনি সংগঠনটি।

১২ নভেম্বর দুপুরের উত্তরার বিজিএমইএ কমপ্লেক্সের সভাকক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান সংগঠনটির সভাপতি ফারুক হাসান।

ফারুক হাসান বলেন, আমরা যখন বৈশ্বিক ও আর্থিক চাপের মধ্যে থেকেই টিকে থাকার সংগ্রাম করছি, ঠিক তখন শিল্পকে নিয়ে শুরু হয়েছে নানা অপতৎপরতা। বিশেষ করে আমাদের শান্ত শ্রমিক গোষ্ঠীকে উসকানি দিয়ে অশান্ত করা হচ্ছে। আমরা গভীর উদ্বেগের সঙ্গে সে লক্ষ্য করছি, মজুরি বৃদ্ধির পরও আন্দোলনের নামে বিভিন্ন জায়গায় কারখানা ভাঙচুর করা হচ্ছে। মজুরি ঘোষণার পর থেকে বেশ কিছু কারখানায় অজ্ঞাতপরিচয় কিছু উচ্ছৃঙ্খল শ্রমিক অযৌক্তিক দাবিতে বেআইনিভাবে কর্মবিরতি পালন করে কর্মকর্তাদের মারধর করেছে, কারখানার ভেতরে ব্যাপক ভাঙচুর ও ধ্বংসযজ্ঞ চালিয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত কারখানাগুলো এ ব্যাপারে আমাদেরকে ভিডিও ফুটেজ দিয়েছে, মামলার কপিও আমাদেরকে দিয়েছে।

তিনি বলেন, উদ্ভূত পরিস্থিতিতে আশুলিয়া, কাশিমপুর, মিরপুর ও কোনাবাড়ি এলাকার প্রায় ১৩০টি পোশাক কারখানা কারখানা ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ বাধ্য হয়ে কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শ্রমিকদের নিরাপত্তা এবং কারখানার সম্পত্তি রক্ষার স্বার্থে কারখানার সব কার্যক্রম অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। যেসব কারখানা শ্রমিকরা কাজ করতে আগ্রহী, সেগুলোতে কাজ চলছে। তাদের কাজ চলমান থাকবে। দুঃখের বিষয় যে, যখন মজুরি বৃদ্ধির বিষয়ে সরকার গঠিত ন্যূনতম মজুরি বোর্ড কাজ করছিল, তখনও কারখানা ভাঙচুর, কারখানায় অগ্নি-সংযোগের ঘটনা ঘটেছে।

বিজিএমইএ সভাপতি বলেন, উদ্যোক্তারা কিন্তু অনেক সীমাবদ্ধতার মধ্যে থেকেই অনেক ঝুঁকি নিয়ে এই শিল্প পরিচালনা করছেন, কর্মসংস্থান সৃষ্টি করছেন, অর্থনীতিতে অবদান রাখছেন। এমন অনেক উদ্যোক্তা আছেন, যারা লোকসান দিয়েও কারখানা সচল রেখেছেন, শুধুমাত্র ব্যবসা টিকিয়ে রাখার জন্য। শ্রমিকদেরকে বেতন দিচ্ছেন ঋণের বোঝা মাথায় রেখে।

তিনি বলেন, শুরু থেকে এখন পর্যন্ত প্রায় ৬ হাজার ৮৮৫টি পোশাক কারখানা বিজিএমইএ এর সদস্যপদ গ্রহণ করলেও কালের পরিক্রমায় ৩ হাজার ৯৬৪টি সদস্য কারখানা বিভিন্ন কারণে বন্ধ হয়ে গেছে। অবশিষ্ট ২ হাজার ৯২১টি সদস্য কারখানার মধ্যে ২ হাজার ৩৩৯টি কারখানা বিজিএমইএ-তে তাদের সদস্যপদ নবায়ন করেছে। এই ২ হাজার ৩৩৯টি সদস্য কারখানার মধ্যে মাত্র ১ হাজার ৬০০টি সদস্য কারখানা ক্রেতাদের কাছ থেকে সরাসরি অর্ডার এনে কাজ করছে। অর্থাৎ আমাদের এ মুহূর্তে সরাসরি রপ্তানিকারক কারখানার সংখ্যা মাত্র ১ হাজার ৬০০টি।

তিনি আরও বলেন, সদস্যপদ নবায়ন করা ২ হাজার ৩৩৯টি কারখানার মধ্যে ১ হাজার ৬০০ কারখানা বাদে বাকি কারখানাগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক কারখানা বিভিন্ন ব্যাংক দেনা ও দায়ের কারণে সরাসরি ব্যাক-টু-ব্যাক খুলতে পারছে না। ফলে তারা ক্রেতাদের কাছ থেকে সরাসরি অর্ডার নিতে পারছে না। এই সদস্য কারখানাগুলো মূলত সাব-কন্ট্রাক্টের মাধ্যমে তাদের ব্যবসা টিকিয়ে রেখেছে। অবশিষ্ট কারখানাগুলো ব্যাংক দেনা ও আর্থিক সংকটের কারণে বন্ধ হয়ে গেছে। তবে তারা আগামীতে দেনা পরিশোধ করে ব্যবসায় ফিরে আসতে ইচ্ছুক।

এ পরিসংখ্যানই বলে দিচ্ছে, শিল্পের উত্থানের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বন্ধ কারখানার সংখ্যাও বাড়ছে। শুধু করোনা মহামারির কারণে ২০২০-২১ সালে বন্ধ হওয়া কারখানার সংখ্যা ৩১৭টি এবং পরবর্তীতে অন্যান্য কারণে প্রতিযোগী সক্ষমতা ধরে রাখতে না পারার কারণে ২৬০টি কারখানা বন্ধ হয়েছে, বলেও জানান বিজিএমইএ সভাপতি।


আরও খবর

১০ হাজার পণ্যের দাম কমেছে আরব আমিরাতে

রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




গজারিয়ায় নদীর তীরে উচ্ছেদ অভিযানে ২৫টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ |

Image

গজারিয়া প্রতিনিধি: 

গজারিয়ায় মেঘনা নদীর সীমানাবর্তী ফুলদী নদীর চর সাহেবানী, মাথাভাঙ্গা, রসুলপুর এবং ইমামপুর মৌজার এলাকা ঘেঁষে বয়ে যাওয়া নদীর তীরে রসুলপুর  এলাকায় বিআইডব্লিউটিএর অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযানে ১টি কমার্শিয়াল বিল্ডিং ভাড়ায় চালিত দোতলায় ইসলামিক ফাউন্ডেশন এর অফিস সহ প্রায় ২৫টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। 

গত (৭ ফেব্রুয়ারী) বুধবার সকালে ১০ টা থেকে  বিআইডব্লিউটিএ’র নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাছলিমা আক্তারের নেতৃত্বে উচ্ছেদ অভিযান শুরু হয়ে বিকেল ৪টায় অভিযান শেষ হয়। অভিযানকালে আরো উপস্থিত ছিলেন বিআইডব্লিউটিএ’র মেঘনাঘাট নদীবন্দরের উপ-পরিচালক শরীফুল ইসলাম সহ অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ।

রসুলপুর এলাকায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযানের সময় ইউপি চেয়ারম্যান হাফিজুজ্জামান খাঁন জিতু"র একটি কমার্শিয়াল বিল্ডিং উচ্ছেদ করা হয়। 

এসময় ইউপি চেয়ারম্যান বলেন, যেহেতু বিআইডব্লিউটিএ’র কর্তৃপক্ষ সিএস রেকর্ড এবং যৌথ জরিপে তারা তাদের অভিযান পরিচালনা করছে তাই আমি নিজে কর্তৃপক্ষ কে অভিযান কাজে সহায়তা করছি।

রসুলপুর বাজারে নিজ দায়িত্বে ছোট ছোট অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

বিআইডব্লিউটিএর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোসাম্মৎ তাসলিমা আক্তার বলেন, আমরা শুধু মেঘনা নদী নয় সমস্ত নদীর চারপাশে যেসব অবৈধ স্থাপনা আছে সেগুলো উচ্ছেদ করছি। আজকে আমাদের অভিযান সকাল থেকে এই পর্যন্ত প্রায় বিশ টির অধিক অবৈধ স্থাপনা গুঁড়িয়ে দিয়েছি। এবং বিকাল পর্যন্ত আমাদের এই অভিযান অব্যাহত থাকবে। পরবর্তীতে আগামী সপ্তাহে আমরা এখানে আসব আর প্রতিদিনই আমাদের কোথাও না কোথাও উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করে থাকি।  

তিনি আরো বলেন পৈত্রিক সম্পত্তি হলে তাদের রেকর্ডের নাম থাকতো। আমরা এখানে সিএস রেকর্ড অনুযায়ী যৌথ জরিপের মাধ্যমে আমাদের নদীর সেই সীমানার পিলার অনেক আগেই এখানে স্থাপনা করে গিয়েছি।  এবং একাধিক বার তাদেরকে বলা হয়েছে এখানে অবৈধ স্থাপনা তৈরি না করার জন্য। কিন্তু তারা আমাদের কথা শোনেননি দখলদাররা আইন অমান্য করে এই কাজটা করে থাকে। এখানেও বলা হয়েছে যার কারণে নিজ উদ্যোগে কিছু কিছু দোকানপাট তারা সরিয়ে নিয়েছে। 

তিনি আরো বলেন, আমাদের অভিযান সিএস রেকর্ড অনুযায়ী হচ্ছে সিএস রেকর্ড এর উপরে আর কোন রেকর্ড নেই। সিএস রেকর্ডে সবসময় লেখা আছে এটা নদীর জমি। 

তিনি আরো বলেন রাজনৈতিক ছত্রছায়া বলতে আমরা সবসময় অবৈধ দখলদারের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে থাকি তিনি যত শক্তিশালী হোক না কেন আমাদের অভিযান চলবে এবং অব্যাহত থাকবে। এবং আমি মনে করি প্রত্যেকের উচিত এগিয়ে আসা সরকারি কাজে সাহায্য করতে। তবেই আমাদের পক্ষে সম্ভব হবে এই নদীর যে প্রবাহমান গতির দ্বারা সেটা অব্যাহত রাখা।


আরও খবর

বাউল ছালমা হলেন বরিশাল বিভাগের শ্রেষ্ঠ "জয়িতা"

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

পাংশায় মাদক সহ ৯ মামলার আসামী গ্রেফতার

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




ঢাকার যানজট নিরসনে ট্রাফিক আইন প্রয়োগ জরুরি

প্রকাশিত:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ |

Image

ঢাকায় এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে ও মেট্রোরেল হওয়ায় শহরের যানজট কিছুটা কমেছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন ঢাকাকে যানজটমুক্ত করতে ট্রাফিক আইন প্রয়োগের পাশাপাশি সমন্বিত উদ্যোগ নিতে হবে আর ব্যক্তিগত গাড়ি নিয়ন্ত্রণের পরামর্শ দিয়েছেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম। যত গাড়ি তত পার্কিং ব্যবস্থা রাখার দরকারি উদ্যোগও নেয়ার কথা বলেন তিনি।

সিরডাপ মিলনায়তনে ঢাকার যানজট: মেট্রোরেল ও এক্সপ্রেসওয়ের প্রভাব শীর্ষক এক সেমিনারে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। 

ঢাকা ইউটিলিটি রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন (ডুরা) আয়োজিত সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি ওবায়দুর মাসুম। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান মোল্লার সঞ্চালনায় সেমিনারে বিভিন্ন বিষয়ের ওপর আলোচনা করেন রাজউকের প্রধান নগর পরিকল্পনাবিদ মো. আশরাফুল ইসলাম, বিআইপি সভাপতি অধ্যাপক ড. আদিল মুহাম্মদ খান, বুয়েটের অ্যাকসিডেন্ট রিসার্চ ইনস্টিটিউটের সহকারী অধ্যাপক কাজী মো. সাইফুন নেওয়াজ, নগর পরিকল্পনাবিদ আয়েশা সাঈদ। 

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, মাথাপিছু আয় বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে মুভমেন্ট বেড়েছে। কোনো ভবনে ২০টা পরিবার থাকলে সেখানে নিজস্ব গাড়ি রাখার ব্যবস্থা রাখতে হবে। পরিবার প্রতি একটি গাড়ি ব্যবস্থা করতে হবে, পরিবারের জন্য দ্বিতীয় গাড়ি রেজিস্ট্রেশন বন্ধ করতে হবে।

স্থানীয় সরকারমন্ত্রী বলেন, মেট্রোরেল সারাবিশ্বের একটি পরিক্ষিত যোগাযোগ ব্যবস্থাপনা। আমরা বাংলাদেশের মানুষ প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বিরল সুযোগ পেয়েছি। এই সুফলটাকে আরো বেশী জনগণের কাছে পৌঁছে দিতে বেশ কিছু সুবিধা যোগ করতে হবে। 

যানজটের কারণ উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, রাস্তা থাকার কথা ২০ শতাংশ। আছে ৭ শতাংশ। সেই ৭ শতাংশের ৩ শতাংশ চলে যায় অব্যবস্থাপনা ও অপরিকল্পিতভাবে অযৌক্তিক অপব্যবহারের কারণে। এগুলো দেখার কথা কার? ট্রাফিক পুলিশের। এজন্য আইন প্রয়োগকারী সংস্থাকে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে।  

আশরাফুল ইসলাম বলেন, হাটার জায়গা বাড়ানো দরকার। যার মাধ্যমে মানুষ স্টেশন থেকে নেমে তার গন্তব্যে হেঁটে যেতে পারবে। এটির কোন বিকল্প নেই। আর বাসের যাত্রীর চেয়ে মোটরসাইকেল যাত্রী বেড়েছে কারণ মান সম্পন্ন বাস নেই। তাই যাত্রীরা অন্যভাবে যাবে, এটাই স্বাভাবিক। বাস রুট রেশনাইলেজনসহ বাসের শৃঙ্খলা দরকার।

ড. আদিল মুহাম্মদ খান বলেন, রাজধানী ঢাকায় মেট্রোরেল ও এক্সপ্রেসওয়ের প্রভাব ইতিবাচক। তবে সমন্বিত উদ্যোগ নেয়া হলে সেটি আরো বেশি মানুষ সুবিধা পেতো। আমরা দেখছি এক্সপ্রেসওয়ের উপর দিয়ে দ্রুত গাড়ি চলে যাচ্ছে আর নিচে যানজট লেগে আছে। নিচের সড়কে শৃঙ্খলায় নজর দিতে হবে। সাইফুন নেওয়াজ বলেন, যানজট নিরসনে পাবলিক সার্ভিসকে গুরুত্ব দিতে হবে। শহরের রাস্তার যে কোন একটা লেন পাবলিক বাসের জন্য নির্ধারণ করে দেয়া যেতে পারে। সেটা হতে পারে রাস্তার বাঁ পাশের লেন। যাতে যাত্রী উঠা নামায় সুবিধা হয়। অন্য লেনগুলো অন্য গাড়ির জন্য উন্মুক্ত থাকলো। এই ক্ষেত্রে তিন লেনের সড়ক হলে সহজ হয়। 

আয়েশা সাঈদ বলেন, আমি যখন অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করতাম আমাদের ক্লাসে প্রফেসররা ইকোনমিক ডেভেলপমেন্ট এবং প্লানিং নিয়ে লেকচার দিতেন। তখন প্রায় সময়ই আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদাহরণ দিতেন। আমি তখন নিজেকে অনেক কৃতজ্ঞ বোধ করতাম যে প্রধানমন্ত্রী শুধু আমাদের দেশকেই নয় দেশের নাগরিকদেরও অনেক উচ্চতায় নিয়ে গেছেন। যানজট ঢাকার দুঃখ উল্লেখ করে আয়েশা সাঈদ বলেন, বুড়িগঙ্গার কোল ঘেঁষে বেড়ে উঠেছে আমাদের প্রিয় রাজধানী। সুখ-দুঃখ আর আনন্দ-বেদনা নিয়েই কাটানো আমাদের এই শহরের নাম ঢাকা। নানা সুখের মধ্যে অন্যতম দুঃখের প্রধান কারণ যানজট। আমরা এখন এয়ারপোর্ট থেকে ফার্মগেটে পৌঁছাতে পারছি মাত্র ৭-৮ মিনিটে। মেট্রোরেল চালু হয়েছে, আরো আসবে। সবগুলো মেট্রোরেল চালু হলে নাগরিক জীবন যাত্রা পুরোটাই বদলে যাবে।

 


আরও খবর

গ্যাস লিকেজ থেকে বিস্ফোরণ, দগ্ধ সাত

বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




গাজায় একদিনে ১১২ ফিলিস্তিকে হত্যা

প্রকাশিত:শনিবার ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ |

Image

গাজায় ইসরায়েলি বাহিনীর আগ্রাসন থামছেই না। সেখানে ২৪ ঘণ্টায় আরও ১১২ জন ফিলিস্তিনিকে হত্যা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার থেকে শুক্রবার সন্ধ্যার মধ্যে ইসরায়েলি বাহিনীর হামলায় আরও ১৪৮ জন আহত হয়েছে। গাজায় ইসরায়েলি সেনাদের তাণ্ডবে ৭৫ শতাংশ মানুষ বাস্তুহারা হয়ে পড়েছে। সেখানে খাবার, পানি, ওষুধ এবং নিরাপদ আশ্রয়ের তীব্র সংকট তৈরি হয়েছে।

ইউএন অফিস ফর দ্য কো-অর্ডিনেশন অব হিউম্যানিটারিয়ান অ্যাফেয়ার্সের (ইউএনওসিএইচএ) এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জাতিসংঘের শিশু তহবিল (ইউনিসেফ) অনুমান করছে যে, গাজার প্রায় ১২ লাখ শিশুর এখন মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক সহায়তা প্রয়োজন।

গত কয়েক দিনের মধ্যে ইসরায়েলি বাহিনীর সবচেয়ে মারাত্মক হামলার ঘটনা ঘটেছে গত বুধবার। খান ইউনিস এবং রাফাহের মধ্যবর্তী এলাকা দিয়ে যাওয়ার সময় একটি বেসামরিক গাড়ি এবং একটি মালবাহী গাড়ি হামলার শিকার হয়। এতে শিশু সহ চারজন নিহত হয়।

গত ৭ অক্টোবর ইসরায়েলের সীমান্তে প্রবেশ করে আকস্মিক হামলা চালায় ফিলিস্তিনি স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাস। এরপরেই গাজায় পাল্টা আক্রমণ শুরু করে ইসরায়েলি বাহিনী। গাজায় ইসরায়েলের হামলায় এখন পর্যন্ত ২৭ হাজারের বেশি মানুষ নিহত হয়েছে। এর মধ্যে ১১ হাজারের বেশিই শিশু। চার মাসেরও কম সময়ে এত সংখ্যক শিশুর প্রাণ গেলো অবরুদ্ধ এই উপত্যকায়।

এদিকে ইসরায়েলের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাফা এলাকায়ও হামলার ঘোষণা দিয়েছেন। এতে চরম নিরাপত্তাহীনতা ভুগছেন ১০ লাখের বেশি বাস্তুচ্যুত ফিলিস্তিনি। এর আগে অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় গণকবরের সন্ধান পাওয়া যায়। এ ব্যাপারে একটি আন্তর্জাতিক তদন্তের দাবি জানিয়েছে ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষ।

উত্তর গাজার হামাদ স্কুলের কাছে কালো প্লাস্টিকের ব্যাগে অন্তত ৩০টি মরদেহ পাওয়া গেছে। তাদের হত্যার জন্য ইসরায়েলি বাহিনীকে দায়ী করেছেন ফিলিস্তিনি কর্মকর্তারা।

তাছাড়া গাজায় অব্যাহত হামলা পুরো অঞ্চলের জন্য হুমকি বলে মন্তব্য করেছেন কাতারের প্রধানমন্ত্রী। তিনি সতর্ক করে বলেছেন, শিগগির গাজায় যুদ্ধ বন্ধ না হলে আঞ্চলিক সংঘাতের ঝুঁকি বাড়বে।


আরও খবর



পুলিশকে আধুনিক হতে হবে, প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪ |

Image

জঙ্গিবাদ-সন্ত্রাস দমনে পুলিশের ভূমিকা প্রশংসা করার মতো বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তবে দিন দিন অপরাধের ধরন বদলে যাচ্ছে উল্লেখ করে সরকারপ্রধান বলেন, পুলিশকেও সেভাবে প্রস্তুতি নিতে হবে।

মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর রাজারবাগে পুলিশ সপ্তাহ-২০২৪ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, করোনাসহ নানা প্রাকৃতিক দুর্যোগে পুলিশ বাহিনী অসামান্য অবদান রেখে যাচ্ছে। কিন্তু জাতির দুর্ভাগ্য হলো, রাজনীতির নামে জনগণের সম্পদ ধ্বংস করার মতো ঘটনা ঘটেছে। এমনকি পুলিশের ওপরও অত্যাচার-নির্যাতন চালানো হয়েছে। তবুও পুলিশ বাহিনী জনগণের জানমাল রক্ষায় দুষ্কৃতকারীদের রুখে দিতে সক্ষম হয়েছে।

বিএনপি-জামায়াতের রাজনৈতিক নাশকতা ঠেকাতে গিয়ে পুলিশ বাহিনী অনেক ধৈর্যের পরিচয় দিয়েছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস দমনে পুলিশের ভূমিকা প্রশংসা করার মতো।

শেখ হাসিনা বলেন, জঙ্গি, সন্ত্রাস ও মাদক মোকাবিলায় পুলিশকে আরও সক্রিয় ভূমিকা রাখতে হবে। অপরাধের ধরন বদলে যাচ্ছে, সেভাবে পুলিশকেও বদলে গিয়ে আরও আধুনিক হতে হবে। সমৃদ্ধ দেশ গড়তে আইনশৃঙ্খলা রক্ষা ও সমাজে স্থিতিশীলতা বজায় রাখা জরুরি।

তিনি আরও বলেন, জনগণের বন্ধু হতে হবে পুলিশকে। বাহিনীকে সেভাবেই গড়ে তোলা হচ্ছে। আজকের পুলিশ বাহিনী অতীতের চেয়ে অনেক দক্ষ। তাদের যথোপযুক্ত প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে। মানুষের মধ্যে আস্থা ও বিশ্বাস স্থাপনের মাধ্যমে দক্ষ-জনবান্ধব বাহিনী হিসেবে গড়ে ওঠেছে পুলিশ।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, পুলিশ বাহিনী আগামী দিনে আরও স্মার্ট হয়ে উঠবে। তাই এই বাহিনীতে আরও লজিস্টিকস সাপোর্ট বাড়াবে সরকার। আধুনিক ডিএনএ ল্যাব প্রতিষ্ঠা করে দেয়া হয়েছে। এসব ল্যাব অচিরেই সারা দেশে স্থাপন করা হবে, যাতে তদন্ত দ্রুত শেষ করা যায়। পুলিশের সাইবার ইউনিট গঠন করার পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের। পুলিশের পূর্ণাঙ্গ এভিয়েশন ইউনিট গড়ে তোলার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। শিগগিরই দুটি হেলিকপ্টার যুক্ত হবে পুলিশ বাহিনীতে।


আরও খবর

গ্যাস লিকেজ থেকে বিস্ফোরণ, দগ্ধ সাত

বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




নওগাঁয় ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে ইউপি সদস্য শ্রীঘরে

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ |

Image

নওগাঁয় তালাক প্রাপ্ত এক নারীকে ধর্ষণ চেষ্টাকালে আনারুল ইসলাম (৪৫) নামের এক ইউপি সদস্যকে আটক করেন স্থানীয়রা। খবর পেয়ে থানা পুলিশ গিয়ে আটক ইউপি সদস্যকে থানা হেফাজতে নেওয়ার পর ঘটনার রাতেই ভিকটিম নারী বাদী হয়ে মামলা করলে আটককৃত ইউপি সদস্যকে বৃহস্পতিবার দুপুরে বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে নওগাঁ জেল হাজতে প্রেরণ করেন থানা পুলিশ।এঘটনাটি ঘটে বুধবার দিনগত রাতে নওগাঁর পত্নীতলা উপজেলার

নির্মইল ইউনিয়ন এর গোবিন্দ-বাটি গ্রামে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নওগাঁর পত্নীতলা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মোজাফফর হোসেন। 

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়,

ভিকটিম নারী নির্মইল ইউনিয়ন এর গোবিন্দ-বাটি গ্রামে বাবার বাড়িতে বসবাস করতেন। বুধবার সন্ধ্যা সারে ৬টারদিকে ঐ নারীর বাড়িতে যান ইউপি সদস্য আনারুল। এসময় কৌশলে নারীর দাদী ও ছোট ভাইকে পান ও সিগারেট আনতে গ্রামের দোকানে পাঠিয়ে দেয় ইউপি সদস্য আনারুল। এসময় বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে আনারুল ভিকটিম নারীকে ধর্ষণ চেষ্টা করলে তার চিৎকারে গ্রামের লোকজন এসে আনারুলকে আটক করেন। পরে পত্নীতলা থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে অভিযুক্তকে উদ্ধার পূর্বক থানা হেফাজতে নেয়। এব্যাপারে

পত্নীতলা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মোজাফফর হোসেন বলেন, রাতেই ধর্ষণের চেষ্টাকারী আনারুল ইসলাম এর বিরুদ্ধে ভিকটিম নারী বাদী হয়ে মামলা করেছেন। মামলায় বৃহস্পতিবার দুপুরে বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে তাকে নওগাঁ জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে এবং ভিকটিম নারীকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য নওগাঁ হাসপাতালে পাঠানো পাঠানো হয়েছে।


আরও খবর

বাউল ছালমা হলেন বরিশাল বিভাগের শ্রেষ্ঠ "জয়িতা"

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

পাংশায় মাদক সহ ৯ মামলার আসামী গ্রেফতার

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪