Logo
শিরোনাম

নারায়ণগঞ্জ পুলিশ সুপারসহ ৪২ জন পুলিশের বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশিত:রবিবার ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ |
Image

বুলবুল আহমেদ সোহেল ঃ

পুলিশ ও বিএনপির নেতাকর্মীদের সংঘর্ষে যুবদল কর্মী শাওন প্রধান নিহতের ঘটনায়, গুলি ও হত্যার অভিযোগ এনে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপারসহ ৪২ জন পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে, মামলার আবেদন করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব এড. রুহুল কবির রিজভী। আজ সকালে নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট ইমরান হোসেন মোল্লার আদালতে এই মামলার আবেদন করেন তিনি।

মামলায় হুকুমের আসামি করা হয়েছে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) গোলাম মোস্তফা রাসেলকে। সেইসঙ্গে প্রধান আসামি করা হয়েছে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) উপ-পরিদর্শক (এসআই) মাহফুজুর রহমান কনককে। আদালত শুনানি শেষে পরে আদেশ দিবেন বলে জানান। এরপর সাংবাদিকদের বিষয়টি নিশ্চিত করেন রিজভী। এসময় তার পক্ষে নারায়ণগঞ্জ কোর্টের একাধিক আইনজীবী ছিলেন। বেলা ১১টায় রিজভী আদালত প্রাঙ্গন ত্যাগ করেন।

এ বিষয়ে মামলার আইনজীবী মোঃ মাসুদ আহম্মেদ তালুকদার গণমাধ্যমকে বলেন, নারায়ণগঞ্জ শহরের ২নং রেলগেইট এলাকায় বিএনপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত শোভাযাত্রায় পুলিশ অতর্কিতভাবে পেছন থেকে হামলা করে গুলিবর্ষণ করে। এতে যুবদল কর্মী শাওন নিহত হয়েছে। পুলিশের এই সন্ত্রাসীমূলক কার্যক্রমের প্রতিবাদে আমরা মামলার আবেদন করেছি। আশা করি আদালত মামলা গ্রহণ করে ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা করবেন।

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব এড. রুহুল কবির রিজভী আদালত থেকে বেরিয়ে গণমাধ্যমে কর্মীদের বলেন-

সংবিধান অনুযায়ী সমাবেশ র‌্যালী করার যে অধিকার রয়েছ তা হরণ করা হচ্ছে। সেটার প্রমান হচ্ছে ১লা সেপ্টেম্বরের ঘটনা। গণতান্ত্রিক যে অধিকার রয়েছে সেটা তারা কোনটাই রাখতে চায়না। সেটা একদলীয় সরকারের যে নমুনা, সেই নমুনারই চুড়ান্ত প্রকাশ হয়েছে সেদিন।

উল্লেখ্য, গত ১ সেপ্টেম্বর নারায়ণগঞ্জ বঙ্গবন্ধু সড়কে বিএনপির নেতাকর্মী ও পুলিশের সাথে সংঘর্ষ হয়েছে। এ সময় শাওন নামে এক যুবক নিহত হয়েছে। ঘটনার দিন রাতে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় নিহত শাওনের বড় ভাই মিলন বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।  পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় পুলিশ বাদি হয়ে ঘটনার পরদিন আরো একটি মামলা দায়ের করেন।


আরও খবর



পাকিস্তানে বন্যায় নিহত সংখ্যা বেড়ে প্রায় ১৫০০

প্রকাশিত:শনিবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ |
Image

পাকিস্তানের নজিরবিহীন বন্যায় এখন পর্যন্ত ১৫০০ মানুষের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার দেশটির দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগ এ তথ্য জানিয়েছে।

কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বিভিন্ন স্থানে বন্যার পানি কমতে শুরু করলেও এখনও হাজার হাজার মানুষ খোলা আকাশের নিচে রাত্রিযাপন করছে। দেশটির জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, দেশজুড়ে বন্যায় ৫৩০ শিশুসহ মৃতের সংখ্যা ১৪৮৬ জনে দাঁড়িয়েছে। বন্যার তাণ্ডবে সিন্ধু প্রদেশে প্রায় লাখো মানুষ ঘরবাড়ি হারিয়েছে। ঘরহারা এসব মানুষের জন্য তাঁবু কেনা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন, সিন্ধুর মুখ্যমন্ত্রী সৈয়দ মুরাদ আলী শাহ। দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার সংযুক্ত আরব আমিরাত ও যুক্তরাষ্ট্র থেকে ত্রাণবাহী বিমান এসেছে।  


আরও খবর

চিকিৎসাবিজ্ঞানের নোবেল ঘোষণা

মঙ্গলবার ০৪ অক্টোবর ২০২২




এসএসসির প্রথম দিনের পরীক্ষা শেষ হলো

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ০৫ অক্টোবর ২০২২ |
Image

এসএসসি, দাখিল ও এসএসসি ভোকেশনালের প্রথম দিনের পরীক্ষা শেষ হয়েছে। বেলা ১১টায় শুরু হয়ে দুপুর ১টায় শেষ হয় এই পরীক্ষা। 

এবার দেশের ১১টি শিক্ষা বোর্ডের আওতায় ২০ লাখ ২১ হাজার ৮৬৮ জন পরীক্ষার্থী অংশ নিচ্ছে। তাদের মধ্যে নিয়মিত পরীক্ষার্থী ১৮ লাখ ৯৩ হাজার ৯২৩ জন। বাকিরা অনিয়মিত পরীক্ষার্থী। প্রথম দিন আজ বাংলা প্রথম পত্রের পরীক্ষা হচ্ছে।

ঢাকায় যানজটের কারণে এসএসসি পরীক্ষার্থী, গাজীপুর ও বিমানবন্দর গমনকারী যাত্রীদের অতিরিক্ত সময় হাতে নিয়ে যাত্রা করার অনুরোধ জানিয়েছিল ঢাকা মহানগর পুলিশের ট্রাফিক বিভাগ। ডিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) মো. মুনিবুর রহমান এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ অনুরোধ জানান।

সাধারণত সকাল ১০টায় পাবলিক পরীক্ষা শুরু হয়। কিন্তু এবার বেলা ১১টায় দুই ঘণ্টার এই পরীক্ষা শুরু হবে। যানজট এড়াতে সময় পেছানো হয়েছে। পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে আসনে বসতে হবে। তবে কেউ দেরি করলে প্রবেশপথে সংরক্ষিত রেজিস্টারে কারণ লিখে পরীক্ষার হলে প্রবেশ করতে পারবে। এএসএসসি পরীক্ষা ১৯ জুন শুরু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু তখন সিলেট, সুনামগঞ্জসহ দেশের কয়েকটি এলাকা বন্যাকবলিত হয়ে পড়ে। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে এর দুদিন আগে পরীক্ষা স্থগিত করার ঘোষণা দেয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়। 

পরীক্ষা সামনে রেখে ৫ সেপ্টেম্বর শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পরীক্ষাসংক্রান্ত জাতীয় মনিটরিং ও আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়। ওই সভায় পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে আয়োজন ও প্রশ্নফাঁস এড়াতে ১২ সেপ্টেম্বর (সোমবার) থেকে ২ অক্টোবর পর্যন্ত দেশের সব কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।


আরও খবর

শিগগিরই বাড়ছে বিদ্যুতের দাম

মঙ্গলবার ০৪ অক্টোবর ২০২২




ছোঁয়াচে ‘চোখ ওঠা’ রোগ ছড়াচ্ছে

প্রকাশিত:বুধবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ |
Image

সারা দেশে হঠাৎ করেই কনজাংটিভাইটিস (চোখের প্রদাহ) রোগীর সংখ্যা বেড়ে চলেছে। চোখ ওঠা নামে পরিচিত এই রোগে সব বয়সিরাই আক্রান্ত হচ্ছে। তবে শিশুদের বেশি আক্রান্ত হতে দেখা যাচ্ছে। এতে উদ্বিগ্ন অনেক অভিভাবক সংক্রমণ হওয়ার ভয়ে তাদের সন্তানদের স্কুলে পাঠাতে ভয় পাচ্ছেন। সংক্রমিতরা বেশিরভাগই বাড়িতে চিকিৎসা নিচ্ছেন বলে জানা গেছে। তবে অনেকেই অবস্থার অবনতি হলে হাসপাতালে গিয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

শিশু থেকে বৃদ্ধ সবার হচ্ছে। এক পরিবারের একজনের হলে পর্যায়ক্রমে অন্যদের হচ্ছে। দেশের সর্বত্রই রোগটি ছড়িয়েছে বলে বিভিন্ন এলাকা থেকে সংবাদদাতারা জানিয়েছেন। চোখ ওঠা রোগটিকে চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষায় কনজাঙ্কটিভিজি বা কনজাঙ্কটিভা বলে। ভাইরাসের কারণে রোগটি হয়ে থাকে। রোগটি হলে কারো কারো কোনো চিকিৎসা ছাড়া এমনিতেই ভালো হয়ে যায়। আবার কারো চিকিৎসা লাগে। সাধারণত বছরের এ সময়টাতেই চোখ ওঠা রোগ হয়ে থাকে। এই রোগ হলে চোখ গোলাপি অথবা লাল হয়ে যায়।

আক্রান্ত হলে এক চোখে অথবা দুই চোখেই জ্বলতে পারে, সাথে চোখ লাল বা গোলাপি আকার ধারণ করতে পারে। জ্বালাপোড়ার সাথে চুলকানি হয়। খচখচে ভাব হতে পারে, মনে হতে পারে চোখে কাটা ফুটেছে। আবার চোখ থেকে পানি পড়ে, বারবার সাদা ময়লা আসা, কিছু ক্ষেত্রে চোখে তীব্র ব্যথা হয়।


রোগটি এতই ছোঁয়াচে যে, চোখ ওঠা রোগীর সংস্পর্শে না এসে কাছাকাছি থাকলে এ চোখ ওঠে যেতে পারে। কারণ ভাইরাসটি বাতাসে ছড়াতে পারে। রোগীর ব্যবহার্য রুমাল, তোয়ালে, বালিশ, টিসু অন্যরা ব্যবহার করলে তারা আক্রান্ত হতে পারে। অনেক সময় দেখা যায়, কাছাকাছি না থাকলেও অন্যদের হয় আবার খুবই কাছাকাছি থাকার পরও চোখ ওঠে না। ভাইরাসটির বিরুদ্ধে কারো দেহে প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে ওঠলে (অ্যান্টিবডি হয়ে গেলে) কাছাকাছি থাকলেও হয় না। ভাইরাসের সংক্রমণে প্রদাহ হয়, চোখের মধ্যে থাকা খুবই সুক্ষ্ম রক্তনালী ফুলে যেতে পারে। রক্তনালীগুলো ফুলে যায় বলেই চোখের রঙ লাল হয়।

এমন রোগীর কাছাকাছি থাকলে একটু সাবধান থাকতে হয়। বারবার চোখে বা মুখে হাত না ছোঁয়ানোর জন্য পরামর্শ দিয়েছেন চিকিৎসকরা। যাদের চোখ ওঠে তাদের চোখ খুব চুলকাতে পারে। চোখে হাত ছোঁয়াতে চাইলে সাবান দিয়ে ধুয়ে নিতে হবে। আক্রান্তদের চোখের পানি টিস্যু দিয়ে মুছে আবদ্ধ জায়গায় বা বাস্কেটে ফেলতে হবে। তা নাহলে রোগটি আশেপাশে যারা থাকবে তাদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়বে। তা ছাড়া চোখ ওঠা রোগীর ব্যবহার্য সামগ্রী না ধুয়ে অন্যদের ব্যবহার করা উচিত নয়। চোখ ওঠা সমস্যা এক সপ্তাহের মধ্যে ভালো না হলে অবশ্যই চোখের চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

বিশিষ্ট চক্ষু বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা: এম এ আজিজ জানিয়েছেন, বর্তমানে যে ভাইরাসে চোখ ওঠা রোগটি হচ্ছে এই ভাইরাসটি চোখের কালো (কনজাঙ্কটিভা) অংশটিকে বেশি আক্রান্ত করে। তবে মাঝে মধ্যে চোখের কর্নিয়াকেও আক্রান্ত করতে পারে। এক সপ্তাহের মধ্যে ভালো না হলে চোখের বিশেষজ্ঞের কাছে যাওয়া উচিত। তিনি মেশিনে চোখ পরীক্ষা করে কিছু ওষুধ দেবেন। বরং আমি বলব, মেশিনে পরীক্ষা করে চোখের চিকিৎসা করালেই যথাযথ চিকিৎসা হয়। চোখের ডাক্তার রোগীকে অ্যান্টি হিস্টাসিন দিতে পারেন। দিতে পারেন চোখের অ্যান্টিবায়োটিক। একই সাথে তিনি লো স্টেরয়েডও দিতে পারে।

চিকিৎসক নর্মাল স্যালাইন দিয়ে চোখ পরিষ্কার করতে বলতে পারেন। নরসল নামে চোখের ড্রপ পাওয়া যায় ওষুধের দোকানে। রোগটি কর্নিয়াকে আক্রান্ত করলে যথাসময়ে যথাযথ চিকিৎসা করা দরকার। না হলে কর্নিয়াতে দাগ পড়ে যেতে পারে। ফলে রোগী পরে স্থায়ীভাবে ঝাপসা দেখতে পারেন। অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুস আরো বলেন, চোখ ওঠার রোগীর চোখের পানি পাতলা টিস্যু দিয়ে মুছে নিরাপদ স্থানে ফেলতে হবে। চোখের পানিতে প্রচুর পরিমাণে ভাইরাস থাকে। এই পানিটি খুব সাবধানে মুছে টিস্যুই হোক বা অন্য কিছু হোক যত্রতত্র ফেলা যাবে না। অন্যরা এই পানির সংস্পর্শে এলে তাদেরও চোখ ওঠা রোগটি হয়ে যেতে পারে। প্রথমে একটি চোখে সমস্যা সৃষ্টি করলেও পরে আরেকটি চোখে সমস্যা হতে পারে। সাবধানে থাকলে, গরম সেঁক দেয়া হলে চোখে আরাম বোধ করবেন রোগী। এই রোগের সময় বাইরে না যাওয়াই ভালো। বাইরে গেলে চোখে কালো চশমা পরে নিলে রোগী আরাম বোধ করবেন। কিন্তু সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়তে পারে।

 


আরও খবর

ভয়াবহ হচ্ছে ডেঙ্গু

মঙ্গলবার ০৪ অক্টোবর ২০২২

করোনা টিকার মেয়াদ বাড়ল তিন দিন

মঙ্গলবার ০৪ অক্টোবর ২০২২




কিশোর গ্যাং আতঙ্কে রাজধানী

প্রকাশিত:শনিবার ০১ অক্টোবর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ |
Image

মইনুল ইসলাম মিতুল : রাজধানীতে ক্রমেই বাড়ছে কিশোর অপরাধ। কিশোর গ্যাং উৎপাতে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে নগরবাসী। গ্যাংয়ের অধিকাংশ সদস্যই ছিন্নমূল ও বস্তিবাসী। যাদের বেশির ভাগের বয়স ১৮ থেকে ২২ বছর। মাদক সেবন ও চুরি-ছিনতাইসহ নানা অপরাধে জড়িত তারা। মাদক বিক্রি, জমি দখল, চুরি-ছিনতাই এমনকি হত্যা মামলাও রয়েছে অনেক কিশোর গ্যাংয়ের বিরুদ্ধে। 

রাজনৈতিক পেশিশক্তির ঢাল ও মাদক কারবারের স্বার্থে কিশোর অপরাধ বাড়ছে বলে মনে করছেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তা ও বিশেষজ্ঞরা। তারা বলছেন, সংগত কারণে কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যদের প্রশ্রয় দিয়ে থাকেন এলাকার প্রভাবশালী কিছু রাজনৈতিক নেতা ও মাদক কারবারি। তবে কিশোর অপরাধ রুখতে নানা পদক্ষেপ নিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। তালিকাভুক্ত করা হয়েছে থানাভিত্তিক কিশোর গ্যাং লিডার, সদস্য ও পৃষ্ঠপোষকদের।

পুলিশের তথ্য বলছে, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) মিরপুর বিভাগের ৭টি থানায় অন্তত ২৫টির বেশি কিশোর গ্যাং সক্রিয়। এসব গ্যাংয়ে পাঁচ শতাধিক সদস্য রয়েছে। যার বেশিরভাগের বয়স ১৮ থেকে ২২ বছর। পৃষ্ঠপোষকতায় রয়েছেন প্রভাবশালী ব্যক্তি ও স্থানীয় রাজনৈতিক নেতারা।

নারীদের দিয়ে মাদক বিক্রি করা এ গ্যাংয়ের একটি কৌশল। এ গ্যাংয়ের মাদক কারবারিতে বাধা দেওয়ায় হামলার শিকারও হয়েছেন অনেকে।

পল্লবীর তালতলা মোড়, নাভানা আবাসিক ভবন, ও সবুজ বাংলা আবাসিক গেট এলাকায় আশিক গ্রুপের উৎপাতে অতিষ্ঠ বাসিন্দারা। আশিকের নেতৃত্বে এ গ্রুপে শামীম, রায়হান, আল-আমিন, রাব্বি, রনি, মহিন ও সুমনসহ ১২-১৩ জন সদস্য সক্রিয় রয়েছে। আশিক গ্রুপকে লিড দিচ্ছে পল্লবী থানা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মিলন ঢালী। জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এটা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। আমি কোনো কিশোর গ্যাং নিয়ন্ত্রণ বা প্রশ্রয় দেই না। বরং কিশোর গ্যাং উৎপাত রোধে কাজ করছি। যুবলীগের কিছু নেতাকর্মীরা এসব কিশোর গ্যাংদের মদদ দিচ্ছে।’

বি-ব্লক, ঈদগাহ মাঠ এলাকায় রয়েছে- পিন্টু-কাল্লু গ্রুপ। অন্তত ২০ জন সক্রিয় সদস্য রয়েছে এ গ্রুপে। বাউনিয়া বাঁধ বি-ব্লকের কাল্লু, ‘ডি’ ব্লকের উজ্জ্বল, সজিব, সাজ্জাদ, শুক্কুর, ‘ই’ ব্লকের জন্টু এবং ‘এ’ ব্লকের হাসান অন্যতম। অভিযোগ রয়েছে এ গ্যাংয়ে পৃষ্ঠপোষক হিসেবে ৫নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খলিলুর রহমান এবং ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগের সদস্য সুলতান। এ বিষয়ে খলিলুর রহমানের কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

কিশোর গ্যাংকে মদদ দেওয়া বিষয়টি অস্বীকার করে যুবলীগ নেতা সুলতান বলেন, ‘আমরা রাজনীতি করি। এর মানে এই নয় যে, কিশোর গ্যাংদের প্রশ্রয় দিব। হয়তো প্রতিপক্ষের বিরোধের জের ধরে আমাকে জড়ানো হচ্ছে।’

রানা মুন্সি নামে স্থানীয় এক ব্যবসায়ী বলেন, ‘মিরপুর এলাকায় বেশ কয়েকটি কিশোর গ্যাং সক্রিয় রয়েছে। গ্যাংয়ের বেশির ভাগ সদস্য কিশোর হলেও তাদের পরিচালনা করেন কয়েকজন প্রভাবশালী ব্যক্তি ও রাজনৈতিক নেতা। বিশেষ করে মাদক কারবারি, ছিনতাই ও রাজনৈতিক অপকর্মে তাদের ব্যবহার করা হয়। এসব গ্যাং সদস্যদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করলে হামলা-দামলা এমনকি মামলারও শিকার হতে হয়।

পল্লবীর ই-ব্লকে রয়েছে রোমান্টিক গ্রুপ। কুর্মিটোলা বিহারি ক্যাম্পের বাসিন্দা ভুলু এ গ্রুপের লিডার। মনু, জসিম ওরফে ক্যাডার জসিম, পল্টু, দেলোয়ার ও গুড্ডু এ প্রুগের অন্যতম সদস্য। তাদের বিরুদ্ধে মাদক কারবার ও মারামারির অভিযোগ রয়েছে। রোমান্টিক গ্রুপের পৃষ্ঠপোষক হিসেবে বিহারি ক্যাম্পের চেয়ারম্যান জালাল উদ্দিন ভন্টুর নাম ওঠে আসে। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমি ক্যাম্পের চেয়ারম্যান। আমার কাছে সবাই আসে, তাই বলে কী আমি সবাইকে মদদ দেই! আমাদের এখানে কোনো গ্রুপ নেই। এখানে কোনো কিশোর গ্যাং নেই।



আরও খবর

কল্যাণপুরে ভবনে ফাটল

রবিবার ০২ অক্টোবর 2০২2

রাজধানীর গ্রিনরোডে গ্যারেজ শ্রমিক খুন

শুক্রবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২




প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে

মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের মাঝে পাঞ্জাবি ও বই বিতরণ

প্রকাশিত:বুধবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ |
Image

শ্রীনগর সংবাদদাতাঃ

মুন্সীগঞ্জ শ্রীনগরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৭৬ তম জন্মদিন উপলক্ষে মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের মাঝে পাঞ্জাবি ও বই বিতরণ করা হয়েছে। বুধবার বিকাল ৫ টার সময়  উত্তর বালাসুর কাসেমুল উলূম রাহমানিয়া মাদ্রাসায় মুন্সীগঞ্জ জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের অর্থ বিষয়ক সম্পাদক শাহ জালাল বাসার উদ্যোগে প্রায় ২ শতাদিক শিক্ষার্থীদের মাঝে পাঞ্জাবি ও বই বিতরণ করা হয়। 

সে সময় আরও উপস্থিত ছিলেন মুন্সীগঞ্জ জেলার স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ তাজুল ইসলাম পিন্টু,রাড়িখাল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হানিফ বেপারী, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক সভাপতি নিশাদ শিকদার,পাটাভোগ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও সাবেক স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক হামিদুল্লা খান মুন,  বিশিষ্ট ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলাম বাবু খানসহ মাদ্রাসা শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ। পরে প্রধানমন্ত্রী জন্য বিশেষ দোয়া ও মিলাদ  আয়োজন করা হয়।


আরও খবর

পুলিশের পক্ষে বললেন খামেনি

মঙ্গলবার ০৪ অক্টোবর ২০২২