Logo
শিরোনাম
বাউল ছালমা হলেন বরিশাল বিভাগের শ্রেষ্ঠ "জয়িতা" পাংশায় মাদক সহ ৯ মামলার আসামী গ্রেফতার ১৬৩ টাকায় তেল বিক্রির ব্যত্যয় ঘটলে ব্যবস্থা নেয়া হবে: ভোক্তার মহাপরিচালক দুর্গাপুরে বালুবাহী হ্যান্ডট্রলির চাপায় প্রাণ গেল শিক্ষার্থীর নওগাঁ জেলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি আবু বক্কর, সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত নওগাঁয় প্রাইভেটকার তল্লাসি, ৭২ কেজি গাঁজা সহ যুবক আটক রূপগঞ্জে প্রাইভেটকার চাপায় গৃহবধু নিহত রাঙ্গামাটির বড়ইছড়ি নির্মাণ শ্রমিক বোঝাই ট্রাক খাদে নিহত-২, আহত-২০ মুসলিমদেরকে সঠিক পথ থেকে বিচ্যুত করার জন্য বিভিন্ন ষড়যন্ত্র চলছে নওগাঁয় কম্পিউটার ব্যবসার অন্তরালে অশ্লিল ভিডিও বিক্রি করায় ৩ যুবক আটক

নওগাঁ-৩ মহাদেবপুর-বদলগাছী আসনে ১১ জনের মনোনয়নপত্র দাখিল

প্রকাশিত:শুক্রবার ০১ ডিসেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪ |

Image

সিনিয়র রিপোর্টার :দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন এর মনোনয়ন পত্র দাখিল এর শেষ দিন গতকাল বৃহস্পতিবার পর্যন্ত নওগাঁ-৩ 'মহাদেবপুর-বদলগাছী' আসনে মোট ১১ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন। স্ব স্ব প্রার্থীরা তাদের নেতা-কর্মী ও সমর্থক সহ মোটরসাইকেলের বহর নিয়ে সোডাউন দিয়ে মনোনয়ন পত্র দাখিল করেন। মনোনয়ন পত্র উৎসব মুখরভাবে দাখিল করায় এলাকায় নির্বাচনি আমেজ লক্ষ করা যাচ্ছে। 

১১ জন প্রার্থীর মধ্যে কেউ মহাদেবপুর ও বদলগাছী সহকারি রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট, আবার কেউ জেলা রিটার্নিং অফিসার ও নওগাঁ জেলা প্রশাসকের নিকট মনোনয়ন পত্র দাখিল করেন।

মনোনয়ন পত্র দাখিলকারিদের মধ্যে রয়েছেন, আওয়ামীলীগের নৌকা প্রতিকের প্রার্থী ও নতুন মুখ সৌরেন্দ্রনাথ চক্রবর্ত্তী,

সতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে বর্তমান এমপি মোঃ ছলিম উদ্দিন তরফদার (সেলিম), সাবেক এমপি ও সদ্য প্রয়াত ড. আকরাম হোসেন চৌধুরীর স্ত্রী মাহফুজা আকরাম মায়া চৌধুরী স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে সহ বাংলা চলচিত্রের জনপ্রিয় কৌতুক অভিনেতা ও ইউটিউবার শামিনুর রহমান চিকন আলী এবং মাসুদ রানা জাতীয় পার্টির প্রার্থী হিসেবে, সোহেল কবির চৌধুরী তৃণমূল বিএনপি'র প্রার্থী হিসেবে, স্বপন কুমার দাস এনপিপির প্রার্থী হিসেবে, জাবেদ আলী বিএনএফ এর প্রার্থী হিসেবে, আলাল হোসেন জাকের পার্টির প্রার্থী হিসেবে, ডিএম মাহবুবুল মান্নাফ ও ফিরোজ হোসেন স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে।


আরও খবর

সোমবারের মধ্যে গাজায় যুদ্ধবিরতি হতে পারে

মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




খতনা করাতে গিয়ে রাজধানীতে আরেক শিশুর মৃত্যু

প্রকাশিত:বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ |

Image

রাজধানীর হাসপাতালে খতনা করাতে গিয়ে ভুল চিকিৎসায় আরেক শিশুর মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার মালিবাগের জে এস ডায়াগনস্টিক অ্যান্ড মেডিকেল চেকআপ সেন্টারে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে মেডিকেল সেন্টারটির দুই চিকিৎসককে হাতিরঝিল থানায় নিয়েছে পুলিশ।

আহনাফ তাহমিন আয়হাম নামের শিশুটি মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র।

পরিবারের সদস্যরা জানান, খতনা করাতে মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে আয়হামকে মালিবাগের ওই স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করা হয়। অ্যানেসথেশিয়া দেওয়ার পর আর জ্ঞান ফেরেনি তার।

তাদের অভিযোগ, লোকাল অ্যানেসথেশিয়া দেওয়ার কথা থাকলেও ফুল অ্যানেসথেশিয়া দেওয়া হয় আয়হামকে। ঘণ্টাখানেকের মধ্যে তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়। ঘটনার পর যে চিকিৎসকের অধীনে ভর্তি করা হয়েছিল, তিনি সটকে পড়েন।

আয়হামের বাবা ফখরুল আলম বলেন, অ্যানেসথেশিয়া দিতে নিষেধ করার পরও সেটি শরীরে পুশ করেন ডাক্তার মুক্তাদির। তাঁর অভিযোগ, এই মৃত্যুর দায় মুক্তাদিরসহ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সবার।

হাতিরঝিল থানার ডিউটি অফিসার এসআই সুমন হোসেন রাত ১টার দিকে সমকালকে জানান, এ বিষয়ে এখনও কেউ আনুষ্ঠানিক অভিযোগ করেননি। খবর পেয়ে মেডিকেল সেন্টারটিতে গিয়ে শিশু মৃত্যুর সত্যতা পাওয়া যায়। এ বিষয়ে বিস্তারিত জানতে সেন্টারটির দুই চিকিৎসককে থানায় আনা হয়েছে।

রাজধানীর ইউনাইটেড মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে খতনা করাতে গিয়ে শিশু আয়ানের মৃত্যুর ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতে ফের আরেক শিশুর মৃত্যুর অভিযোগ উঠল। ৫ বছরের আয়ানেরও অ্যানেসথেশিয়া দেওয়ার পর জ্ঞান ফেরেনি। সাত দিন লাইফ সাপোর্টে থাকার পর গত ৭ জানুয়ারি তাকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা।


আরও খবর

গ্যাস লিকেজ থেকে বিস্ফোরণ, দগ্ধ সাত

বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




বাউল ছালমা হলেন বরিশাল বিভাগের শ্রেষ্ঠ "জয়িতা"

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪ |

Image

হাসিবুর রহমান রাজাপুর প্রতিনিধি :

গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অন্যতম একটি মহতী উদ্যোগ "জয়িতা অন্বেষণে বাংলাদেশ" শীর্ষক কার্যক্রমে ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪. রোজ মঙ্গলবার বেলা ১১ ঘটিকায় বরিশাল জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে বরিশাল বিভাগীয় পর্যায়ে "সমাজ উন্নয়নে অসামান্য অবদান রেখেছে যে নারী" ক্যারাগরিতে শ্রেষ্ঠ জয়িতা সম্মাননা পেলেন ঝালকাঠি জেলার রাজাপুর উপজেলার বড়ইয়া ইউনিয়নের সংরক্ষিত নারী ইউপি সদস্য মোসাঃ ছালমা বেগম (বাউল ছালমা)।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব নাজমা মোবারেক। বরিশালের বিভাগীয় কমিশনার মোঃ শওকত আলী এর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর গ্রেড-১ এর মহাপরিচালক কেয়া খান, বরিশাল রেঞ্জ ডিআইজি মোঃ জামিল হাসান (পিপিএম-সেবা ও পিপিএম), বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার জিহাদুল কবির (পিপিএম-সেবা ও পিপিএম), মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের পরিচালক (যুগ্মসচিব) জাকারিয়া আফরোজ, মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের কর্মসূচি পরিচালক (যুগ্মসচিব) সালেহা বিনতে সিরাজ ও জেলা প্রশাসক মোঃ শহিদুল ইসলাম বরিশাল।

অনুষ্ঠান পরিচালনায় ছিলেন বরিশালের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার সার্বিক  মোঃ পারভেজহাসান (বিপিএএ) ও বরিশাল মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উপ পরিচালক মেহেরুন নাহার মুন্নি। ঝালকাঠি জেলার রাজাপুর উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চল বড়ইয়া ইউনিয়নের মেয়ে ছালমা বেগম। বিশখালি নদীর তীরবর্তী ভাঙ্গন কবলিত এলাকায় বেড়ে ওঠা ছালমার, স্বামীর বাড়িও একই এলাকায়। দরিদ্র ঘরে জন্ম নেয়া ছালমা বেগমের সমাজসেবা, জনসেবা ও গানের প্রতি আন্তরিকতা কমাতে পারেনি শত দারিদ্রতা। আর সেই শক্তি দিয়ে-ই ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ পেলেন "সমাজ উন্নয়নে অসামান্য অবদান রেখেছে যে নারী" ক্যাটাগরিতে বিভাগীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ "জয়িতা" সম্মাননা। 

ছালমা পল্লীগীতির তালিকাভুক্ত নিয়মিত কন্ঠশিল্পী বাংলাদেশ টেলিভিশনের এবং বাউল গানের নিয়মিত কণ্ঠশিল্পী বাংলাদেশ বেতার বরিশালের।

উপজেলার বড়ইয়া ইউনিয়নের ৮ নং দক্ষিণ বড়ইয়া ওয়ার্ডের কৃষক মরহুম ইয়াকুব আলীর ২য় মেয়ে এবং ৯ নং পালট ওয়ার্ডের জনপ্রিয় সমাজকর্মী ও সাংবাদিক আলমগীর শরিফের স্ত্রী এবং বর্তমানে ইউনিয়নের ৭,৮,৯ নং ওয়ার্ডের নারী ইউপি সদস্য।


আরও খবর

পাংশায় মাদক সহ ৯ মামলার আসামী গ্রেফতার

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




গজারিয়ায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের মাসিক সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ |

Image

গজারিয়া প্রতিনিধি:

গজারিয়ায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের নিয়ে মাসিক সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

গত (১৯ ফেব্রুয়ারী) সোমবার সকালে মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের আয়োজনে এ-ই মাসিক সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হয়। 

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের মাসিক সমন্বয় সভায়  উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো: আব্দুল কাদের মিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিতি থেকে দিকনির্দেশনা মূলক বক্তব্য প্রদান করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার কোহিনুর আক্তার। মাসিক সমন্বয় সভার প্রধান অতিথি তিনি শিক্ষকদের উদ্দেশ্য বলেন, শিক্ষক হলো জাতি গড়ার কারিগর। শিক্ষার মাধ্যমে আমাদের কোমলমতি শিক্ষার্থীদের সঠিক চলার পথ শিখাতে হবে।শিক্ষার মানোন্নয়ন ও শিশুদের সুশিক্ষায় গড়ে তুলতে সবাইকে আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে। যে কোন প্রয়োজনে আমি আপনাদের পাশে আছি। শিক্ষার মাণ উন্নয়নে শিক্ষকদের সকল কাজের সহায়তা প্রদানের আশ্বাস দিয়ে তিনি আরো বলেন, আপনাদের জন্য আমার দরজা সব সময় খোলা। বর্তমান সরকার বিনামূল্যে বই ও উন্নত অবকাঠামো নির্মান করে শিক্ষার্থীদের জন্য আধুনিক শিক্ষার ব্যবস্থা করছে। এজন্য তিনি শিক্ষক গনকে শিক্ষার্থীদের প্রতি মনোযোগী হওয়ার আহবান জানান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইন্সট্রাক্টর মোঃ আইয়ুব মিয়া, উপজেলার সহকারী শিক্ষা অফিসার বৃন্দ।

পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার কোহিনুর আক্তার কে প্রাথমিক শিক্ষা পরিবারের পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হয়।

অনুষ্ঠান শেষে প্রধান শিক্ষকদের মধ্যে বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য শিক্ষা উপকরণ বিতরণ  করেন।


আরও খবর

বাউল ছালমা হলেন বরিশাল বিভাগের শ্রেষ্ঠ "জয়িতা"

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

পাংশায় মাদক সহ ৯ মামলার আসামী গ্রেফতার

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




বঙ্গবন্ধু টানেলে একসাথে ৫ গাড়ির সংঘর্ষ

প্রকাশিত:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ |

Image

চট্টগ্রামের কর্ণফুলী নদীর তলদেশে নির্মিত বঙ্গবন্ধু টানেলে আবারো দুর্ঘটনা ঘটেছে। এবার দুর্ঘটনার শিকার হয়েছে একসাথে ৫টি গাড়ি

শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) রাতে এ দুর্ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ৩টি প্রাইভেটকার ও ২টি মাইক্রোবাস। এতে কয়েকজন আহত হয়েছে বলে জানা গেলেও কারো নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

তবে আহতদের মধ্যে একজনের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের (সিএমপি) কর্ণফুলী থানার সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) বিল্লাল হোসেন বলেন, রাতে বঙ্গবন্ধু টানেলের ভেতরে বেপরোয়া গতির কারণে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি প্রাইভেটকার অন্যকয়েকটি গাড়িকে ধাক্কা দেয়। এতে একই লাইনে থাকা ৫টি গাড়ি দুর্ঘটনায় কবলিত হয়। এর মধ্যে ৩টি প্রাইভেটকার ও ২টি মাইক্রোবাস রয়েছে।

৫টি গাড়িই কম-বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সেগুলো জব্দ করা হয়েছে বলে জানান তিনি


আরও খবর

গ্যাস লিকেজ থেকে বিস্ফোরণ, দগ্ধ সাত

বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




চাকুরি দেওয়ার লোভ দেখিয়ে ১১ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ |

Image

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, সিনিয়র রিপোর্টার :

রেলওয়ের খালাসি পদে চাকরির প্রলোভন দিয়ে ১১ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে আব্বাস আলী ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে। ভুক্তভোগী আজিজুল হক নওগাঁর জেলা প্রশাসক সহ বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করে প্রতিকার না পেয়ে অবশেষে নওগাঁ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে ৩ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের করেছেন। অভিযুক্ত নওগাঁ জেলার বদলগাছী উপজেলার চাকরাইল গ্রামের মৃত জমির উদ্দীনের ছেলে আব্বাস আলী দেওয়ান এবং তার দুই সন্তান ডিএম আব্দুল ওয়াহাব পলাশ ও সাব্বির আহম্মেদ সাদি। ভুক্তভোগী আজিজুল হক নওগাঁ সদর উপজেলার বরুনকান্দি (স্কুলপাড়া) গ্রামের মৃত ঝরু মন্ডলের ছেলে। 

মামলা সুত্রে জানা যায়, আব্দুল ওয়াহাব পলাশ রেলওয়ের খালাসি হিসেবে পারবর্তীপুরে চাকুরি করেন। বড় ভাই পরিবার নিয়ে আজিজুল হকের বাসায় ভাড়া থাকার সুবাদে আজিজুর হকের সাথে পালাশের পরিবারের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সেই সুযোগে পালাশ তার বাবা ও ভাইকে দিয়ে আজিজুল হকের ছেলে মেহেদী হাসানকে রেওয়ের খালাসী পদে চাকুরি দেওয়ার কথা বলে ১১ লাখ নেন। ভুক্তভোগী সরল বিশ্বাসে কোনো প্রমানপত্র ছাড়া তাকে ১১ লাখ টাকা দেন। টাকা নেওয়ার পর বেশ কিছুদিন পার হয়ে গেলে ছেলের আর চাকুরি হয় না। আজিজুল হক তার ছেলের চাকুরির জন্য পলাশ ও তার বাবার দ্বারে দ্বারে ঘুরে ছেলেকে চাকুরি দেন না, টাকাও ফেরত পান না। ছেলের চাকুরি ও টাকা কোনোটি ফেরত না পেয়ে ভুক্তভোগী আজিজুল বাবা ও ছেলে কাছ থেকে নন জুডিসিয়াল ট্যাম্প করে নেন। বাবা ও ছেলে আগামী এক মাসের মধ্যে টাকা ফেরত দেওয়ার জন্য ট্যাম্পে অঙ্গিকার করেন। অঙ্গিকার করার পরে আব্বাস আলী আজিজুল হকের বিরুদ্ধে জোর করে স্ট্যাম্প করে নেওয়া হয়েছে বলে চাঁদাবাজি মামলা করেন। চাঁদাবাজি প্রমান করতে না পারায় মামলা আদালত থেকে বাতিল করা হয়েছে। আজিজুল হক নিরুপায় হয়ে বিভিন্ন দপ্তরে টাকা ফেরতের জন্য আবেদন করেন। অবশেষে আদালতে মামলা দায়ের করেন। সেই মামলায় ডিএম আব্দুল ওয়াহাব পলাশ ও তার ভাই সাব্বির আহম্মেদ সাদি জেল হাজতে আছেন।

এ ব্যাপারে চাকরী প্রার্থী মেহেদী হাসান অভিযোগ করে বলেন, পলাশ ও তার পরিবার সাথে আমাদের পরিবারে ভালো সম্পর্ক ছিলো। আমাদের জমি-জমা বিক্রি করে ১১ লাখ টাকা দেওয়া হয়। আমাদের চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে টাকা হাতিয়ে নিয়ে আমাদের পরিবারকে নিঃস্ব করে দিয়েছে। আমরা বিভিন্ন সময়ে এলাকার গণ্যমান্য লোকজনকে ধরে তাকে অনুরোধ করেও টাকা ফেরত পাচ্ছি না। এছাড়া কয়েক মাস পূর্বে টাকা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে একটি নন জুডিসিয়াল স্ট্যাম্প করে দেন পলাশ ও তার বাবা। কিন্তু নির্দিষ্ট সময়ে পেরিয়ে গেলেও টাকাগুলো আর ফেরত দেননি তারা। ভুক্তভোগী আজিজুল হক দাবি করেন, পলাশ ও তার বাবা টাকা ফেরত দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে অঙ্গীকার করে স্ট্যাম্প করে দেন। তবে এখন টাকা না দিয়ে উল্টো আমাদেরকে জোর করে তার কাছে থেকে স্ট্যাম্প নেওয়া হয়েছে বলে ভুল তথ্য সরবরাহ করে টাকা নেওয়ার বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করছেন এবং আমাদের কিরুদ্ধে চাঁদাবাজি মামলা করেন। তবে সেই মামলা তিনি প্রমান করতে পারেনি। তিনি বলেন, বিভিন্ন দপ্তরের অফিযোগ করার পর বিষয়টি জেলা গোয়েন্দা স্ংস্থা তদন্ত করে ১১ লাখ টাকা নেওয়ার বিষয়টি প্রমান হয়েছে। তারপর তিনি টাকা ফেরত দিতে অস্বীকার করেন। তাই আমি আইনের আশ্রয় নিয়েছি। এ ব্যাপারে অভিযুক্ত পালাশ জেল হাজতে থাকায় তার বক্তব্য না পাওয়া গেলেও পালাশের পিতা আব্বাস আলী বলেন, চাকুরি দেওয়ার কথা বলে টাকা নেওয়ার যে অভিযোগ করা হয়েছে তা সত্য নয়। মিথ্যা ও ভীত্তিহীন। তারা জোর করে আমাদের কাছ থেকে স্ট্যাম্প করে নিয়ে আমাদের বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে আমার দুই ছেলেকে জেলে পাঠিয়েছেন। 


আরও খবর

বাউল ছালমা হলেন বরিশাল বিভাগের শ্রেষ্ঠ "জয়িতা"

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

পাংশায় মাদক সহ ৯ মামলার আসামী গ্রেফতার

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪