Logo
শিরোনাম

সোনাইমুড়ী প্রেসক্লাবের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন সভাপতি খোরশেদ, সম্পাদক ইয়াকুব, সাংগঠনিক অনুপ

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৬ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

নোয়াখালী প্রতিনিধিঃ

সোনাইমুড়ী প্রেসক্লাবের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন (২০২২-২৪) অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

শুক্রবার সকাল ১১টার দিকে ২০২২ সালের নির্বাচনে ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন ২৬জন সদস্য।

উৎসবমুখর পরিবেশে "সোনাইমুড়ী প্রেসক্লাব" কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন "দৈনিক যায়যায়দিন" পত্রিকার প্রতিনিধি খোরশেদ আলম, সাধারণ সম্পাদক পদে এশিয়ান টিভির প্রতিনিধি ইয়াকুব আল মাহমুদ, সহ সভাপতি দৈনিক ইনকিলাব/নিউ নেশন"প্রতিনিধি বেলাল হোছাইন ভূঁইয়া,দৈনিক আমাদের অর্থনীতির প্রতিনিধি মামুনুর রশীদ, যুগ্ন সাধারন সম্পাদক পদে দৈনিক আমার প্রতিনিধি জসিম উদ্দিন,দৈনিক আমার কাগজ প্রতিনিধি ফজলুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক পদে বিডিটুডেইস এর  অনুপ সিংহ, "দৈনিক বাংলাদেশের খবর"প্রতিনিধি মোরশেদ আলম, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক দৈনিক খবর প্রতিনিধি এম এ বি সিদ্দিক,দৈনিক নয়াদিগন্ত প্রতিনিধি কোষাধক্ষ্য পদে আব্দুল মতিন, দপ্তর সম্পাদক পদে দৈনিক সরকার প্রতিনিধি এ কে এম মহিউদ্দিন, প্রচার সম্পাদক পদে দৈনিক জাতীয় নিশান প্রতিনিধি মোহাম্মদ উল্লাহ নির্বাচিত হয়েছে।

প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন পরিচালনা পরিষদের দায়িত্ব পালন করেন প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি শামসুল আরেফিন জাফর, প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ও অধ্যাপক সালাউদ্দিন পাটোয়ারী,সোনাইমুড়ী সরকারি ডিগ্রি কলেজের বাংলার প্রভাষক মহিবুল্লাহ খান ভুট্টো,প্রতিষ্ঠাতা সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা এম এ মতিন। এছাড়াও আইনশৃঙ্খলার দায়িত্বে সোনাইমুড়ী থানা পুলিশের ফোর্সও নিয়োজিত ছিলো নির্বাচনে। 

এর আগে গত ২মে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয় এবং ৪মে মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ ও যাচাই-বাছাই করা হয়। ৫মে মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন ছিলো। এবং পূর্বঘোষিত শুক্রবার (৬-মে) নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

উপস্থিত ছিলেন প্রেসক্লাব সদস্য টিএ সেলিম, শাহজাহান আলম ভূঁইয়া, আবুল কাশেম মোহাম্মদ সেলিম, মাহফুজুর রহমান, গুলজার  হানিফ, মোহাম্মদ হোসেন, জাহাঙ্গীর আলম,আনোয়ার বারি পিন্টু মোশারফ হোসেন শিবলু, মামুনুর রশিদ, রবিউল হাসান।


আরও খবর



মদ খাইয়ে তরুণীকে ধর্ষণ সহকর্মীদের

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৬ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

তথ্য ও প্রযুক্তি-ভিত্তিকে একটি কর্পোরেট সংস্থার অনুষ্ঠানের আয়োজন ছিল হোটেলে। সেখানে মদ খাইয়ে এক তরুণীকে গণধর্ষণ করেন তারই সহকর্মীরা। গণধর্ষণের অভিযোগে শেষ পর্যন্ত গ্রেপ্তার করা হয়েছে তিনজনকে। ঘটনাটি ভারতের পশ্চিমবঙ্গে, চীনার পার্কের।

চীনার পার্কের একটি অভিজাত হোটেল ভাড়া নিয়ে অনুষ্ঠান চলছিল। অভিযোগ, গত ১১ জুনের ওই অনুষ্ঠানের ফাঁকেই হোটেলের একটি কক্ষে এক তথ্যপ্রযুক্তি নারী কর্মীকে গণধর্ষণ করেন তার সহকর্মীরা। এর আগে তাকে মদ খাইয়ে অচেতন করে দেওয়া হয় বলেও অভিযোগ।

স্থানীয় পুলিশের কাছে ওই গণধর্ষণের অভিযোগ করেন ক্ষতিগ্রস্ত তরুণী। তার দেওয়া বয়ানে পুলিশ জানতে পেরেছে, গত শনিবার বাগুইআটি থানার চীনার পার্কের ওই হোটেলের ষষ্ঠ তলায় চলছিল কর্পোরেট পার্টি।

পার্টির জন্য হোটেলের গোটা ফ্লোরই ভাড়া নিয়েছিল সংস্থাটি। তরুণীর বর্ণনা অনুযায়ী, অফিস পার্টিতে তার এক সহকর্মী ও বন্ধু ভুল বুঝিয়ে একটি কক্ষে নিয়ে যায় তাকে। সেখানেই মদ খাইয়ে তাকে একাধিকবার ধর্ষণ করেন দুই সহকর্মী।

এফআইআরে তিনি ওই দুই সহকর্মীর নামও জানিয়েছেন তিনি। পুলিশ ওই অভিযোগ পাওয়ার পর এক নারীসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে। তারা প্রত্যেকেই ওই তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থারই কর্মী এবং ওই তরুণীল সহকর্মী বলে জানিয়েছে পুলিশ। গ্রেপ্তারদের বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) আদালতে তোলার কথা রয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, ইতিমধ্যেই তরুণীর শারীরিক পরীক্ষা করা হয়েছে। গোপন জবানবন্দি দেওয়ার জন্য তাকেও বৃহস্পতিবার আদালতে নিয়ে যাওয়া হবে। পুলিশ ওই ঘটনায় হোটেলের কর্মীদেরও জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। তারা জানিয়েছে, পার্টির সময় তরুণীকে হোটেলের ৬০২ নম্বর কক্ষে ঢুকতে দেখেছিলেন তারা ।


সূত্র : আনন্দবাজার


আরও খবর



স্ত্রীর দাবি নিয়ে পরকীয়া প্রেমিকের বাড়িতে গৃহবধূ

প্রকাশিত:সোমবার ২৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

এক যুগের সংসার, স্বামী ও দুই সন্তান ছেড়ে স্ত্রী’র দাবি নিয়ে পরকীয়া প্রেমিকের বাড়িতে তিন দিন ধরে অবস্থান করছেন এক গৃহবধূ। ওই গৃহবধূ হুমকি দিয়ে বলেছেন, তাকে স্ত্রী হিসাবে মেনে না নিলে পরকীয়া প্রেমিকের বাড়িতেই আত্মহত্যা করবেন তিনি।

কুড়িগ্রাম জেলার ভুরুঙ্গামারী উপজেলার তিলাই ইউনিয়নের দক্ষিণছাট গোপালপুর গ্রামের এই ঘটনায় এলাকায় মানুষের মাঝে নান গুঞ্জন ও প্রতিক্রিয়া লক্ষ্য করা গেছে।

জানা গেছে, উপজেলার পশ্চিম ছাটগোপাল গ্রামের আবু ইব্রাহীম লিটন প্রায় ১২ বছর পুর্বে একই গ্রামের মোজাম্মেল হকের কন্যা মৌসুমী আক্তারকে (৩০) বিয়ে করেন। তাদের সংসারে দুটি সন্তান রয়েছে।

মৌসুমী পাগলারহাট বাজার এলাকায় একটি বেসরকারী কেজি স্কুলে শিক্ষকতা করেন। ইউনিয়নের দক্ষিণ ছাটগোপালপুর গ্রামের জহির উদ্দিন বানিয়ার ছেলে আতিকুল ইসলাম (১৮) তার ভাতিজাকে কেজি স্কুলটিতে আনা নেয়ার সুবাদে মৌসুমী ও আতিকুলের মাঝে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। দীর্ঘদিন তারা গোপনে ছুটিয়ে প্রেম করেন।

এরই মধ্যে গত ১৮ জুন আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে যাওয়ার কথা বলে মৌসুমী ও তার পরকীয়া প্রেমিক আতিকুল ইসলাম দুজনে মিলে ঢাকার সাভারে একটি ভাড়া বাসায় উঠেন। সেখানে বাসার মালিকের সহায়তায় কাজী ডেকে মৌসুমী তার স্বামী আবু ইব্রাহীম লিটনকে তালাক দেন। একই দিন এফিডেভিটের মাধ্যমে পরকীয়া প্রেমিক আতিকুল ইসলামকে বিয়ে করেন।

বিষয়টি আতিকুলের পরিবার জানতে পারলে মৌসুমীকে নিয়ে আতিকুলকে বাড়ি ফিরতে বলেন। তারা বাড়ি ফেরার পথিমধ্যে পরিকল্পনা অনুযায়ী আতিকুলের পরিবার তাদেরকে বাস থেকে নামিয়ে মৌসুমীর কাছ থেকে সকল কাগজপত্র ও মোবাইল ফোন কেড়ে নিয়ে আতিকুলকে ঢাকায় ফেরত পাঠায়।

বিষয়টি জানাজানি হলে ইউপি চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান প্রেমিক আতিকুল ইসলামের অভিভাবককে বিষয়টি সমাধানের পরামর্শ দেন। কিন্তু আতিকুলের পরিবার চেয়ারম্যানের নির্দেশ অমান্য করে ছেলেকে হাজির না করায় চেয়ারম্যান মৌসুমীকে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেন।

এদিকে নিরুপায় হয়ে মৌসুমী গত ২৫ জুন পরকীয়া প্রেমিক আতিকুলের বাড়িতে গিয়ে তাকে স্ত্রী’র মর্যাদার দেয়ার দাবি জানায়। এরপর থেকে গত তিনদিন সে আতিকুলের বাড়িতে অবস্থান করছেন।

মৌসুমী জানায়, যেহেতু তিনি স্বামী আবু ইব্রাহীম লিটনকে তালাক দিয়ে আতিকুলকে বিয়ে করেছেন, তাই আতিকুলের সংসার করতে না পারলে আত্মহত্যা করা ছাড়া আর কোন উপায় নেই। স্ত্রী’র মর্যাদা না পেলে আতিকুলের বাড়িতেই আত্মহত্যা করবেন বলে জানায় দুই সন্তান, ১২ বছরের স্বামী ও সংসার ছেড়ে আসা এই গৃহবধূ।

আতিকুল ইসলামের পিতা জহির উদ্দিন বানিয়া জানায়, মৌসুমী মেয়েটি তার ছেলেকে ফাঁসিয়েছে। ওই মেয়ে জোর করে বিয়ে করার জন্য বাড়িতে অবস্থান নিয়েছে বলেও জানান তিনি।

তিলাই ইউপি চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান বলেন, আমি তদন্ত করে ঘটনার সত্যতা পেয়ে মামলার হয়রানি থেকে বাঁচানোর জন্য উভয় পরিবারকে মিমাংসার প্রস্তাব দেই। কিন্তু ছেলে পক্ষের সাড়া না পাওয়ায় ওই নারীকে আইনের আশ্রয় নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছি।



আরও খবর



দীর্ঘ দুই বছর পর বাংলাদেশ-ভারত বাস চলাচল শুরু

প্রকাশিত:শুক্রবার ১০ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

করোনা মহামারির কারণে গত ২ বছরেরও বেশি সময় ধরে বন্ধ ছিল বাংলাদেশ-ভারত বাস চলাচল। আজ শুক্রবার সকাল থেকে দুই দেশের মধ্যে পুনরায় বাস সার্ভিস চালু হলো। প্রথম ট্রিপে বাংলাদেশ থেকে ২২ জন যাত্রী নিয়ে কলকাতার উদ্দেশ্য রওনা হয়েছে শ্যামলী এন আর পরিবহনের একটি বাস।

আজ শুক্রবার সকালে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশনের (বিআরটিসি) মতিঝিল বাস ডিপো থেকে দুই দেশের মধ্যে আন্তর্জাতিক বাস সার্ভিস পুনরায় চালুর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষ নির্বাহী পরিচালক নীলিমা আক্তার ও বিআরটিসি চেয়ারম্যান মো. তাজুল ইসলাম।

এই বাস চালুর বিষয়ে শ্যামলী এন আর ট্রাভেলসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শুভঙ্কর ঘোষ রাকেশ বলেন, ‘করোনার প্রাদুর্ভাবের কারণে দীর্ঘ ২ বছর পর বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে পুনরায় আন্তর্জাতিক বাস সার্ভিস চালু হলো। দীর্ঘদিন পর বন্ধুপ্রতিম দুই প্রতিবেশী দেশের জনসাধারণের যাতায়াতের এবার সুবিধা হবে। সাধারণ মানুষও অপেক্ষায় ছিল কবে এই বাস সার্ভিস চালু হবে। এখন থেকে ঢাকা থেকে সরাসরি বাসে কলকাতা যাওয়া যাবে। এই রুটের বাসের ভাড়া বাড়ানো হচ্ছে না, আগের নির্ধারিত ভাড়ায় যাত্রীরা অনায়াসে কলকাতা ভ্রমণ করতে পারবেন।

রাকেশ আরও বলেন, করোনার আগে যে টাইম সিডিউল বাসগুলো চলত, সেই সিডিউল বাস চলাচল করছে। পর্যায়ক্রমে আমরা বাসের সংখ্যা বাড়াব। আজ দুটি রুটে ঢাকা কলকাতা, ঢাকা আগরতলা বাস চলাচল শুরু হলো। পর্যায়ক্রমে বাকি রুটগুলোতেও বাস পরিচালনা করা হবে।

এদিকে করোনার কারণে বাস সেবা বন্ধ রাখার আগে ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে মোট ৫টি রুটে বাস চলাচল করত। সেগুলো হচ্ছে, ঢাকা-কলকাতা-ঢাকা, ঢাকা-আগরতলা-ঢাকা, ঢাকা-সিলেট-শিলং-গুয়াহাটি-ঢাকা, আগরতলা-ঢাকা-কলকাতা-আগরতলা ও ঢাকা-খুলনা-কলকাতা-ঢাকা।


আরও খবর



১২ বছর পর বিচ্ছেদের ঘোষণা দিলেন পিকে-শাকিরা

প্রকাশিত:রবিবার ০৫ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

দীর্ঘ একযুগের সম্পর্কের অবসান ঘটেছে। বিচ্ছেদের ঘোষণা দিয়েছেন জনপ্রিয় পপ গায়িকা শাকিরা এবং তার সঙ্গী তারকা ফুটবল খেলোয়াড় জেরার্ড পিকে। তাদের দুটি সন্তান রয়েছে। বার্তা সংস্থা এএফপি শনিবার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

এক যৌথ বিবৃতিতে সদ্য বিচ্ছেদের পথে হাঁটা এই তারকা জুটি জানান, আমরা দুঃখিত যে আমরা আমাদের বিচ্ছেদের বিষয়টি নিশ্চিত করছি। আমাদের সর্বাধিক অগ্রাধিকার, আমাদের সন্তান। তাদের ভালোর জন্য আমরা আমাদের গোপনীয়তাকে সম্মান জানানোর অনুরোধ করছি।

অবশ্য যতটা সোজাসাপ্টা ভাবে তারা বিচ্ছেদের ঘোষণা দিয়েছেন, বিষয়টা মোটেও ততটা সহজ নয়।  শোনা যাচ্ছে পিকের পরকীয়াই বিচ্ছেদের পর্দা টেনে দিয়েছে এই যুগলের মাঝে। এমনকি বিচ্ছেদের কারণে শাকিরাকে ‘অ্যাংজাইটি অ্যাটাক’ কারণে হাসপাতালে পর্যন্ত যেতে হয়। অ্যাম্বুলেন্সে উঠার সময়ও নাকি জনপ্রিয় এই তারকা কাঁদছিলেন!

পিকে আর শাকিরার গল্পের শুরুটা ২০১০ সালে। সে বছর বিশ্বকাপ ফুটবলের থিম সং গেয়েছিলেন এই পপ তারকা। বিশ্ব আক্রান্ত হয়েছিল শাকিরা জ্বরে। সেই আঁচ লেগেছিল স্প্যানিয়ার্ড ডিফেন্ডার জেরার্ড পিকেরও। ১০ বছরের বড় শাকিরার সঙ্গে প্রণয়ে জড়ান তিনি। এরপর একই ছাদের নিচে কেটে গেছে ১২টি বছর। দুই সন্তানও রয়েছে এই দম্পতির। তবে টান কমে যাবে ভেবে বিয়ের পিঁড়িতে না বসলেও বন্ধনটা শেষমেস টুটেই গেল।

সম্প্রতি শাকিরার একটি গানে তাদের বিচ্ছেদের ইঙ্গিত ছিল। শাকিরা গানের নতুন অ্যালবামের কাজ নিয়ে ব্যস্ত। একটি নাচের অনুষ্ঠানের বিচারকও তিনি। পিকে বার্সেলোনার হয়ে খেলছেন ২০০৮ সাল থেকে। তিনি রক্ষণভাগের ফুটবলার হলেও বার্সেলোনার হয়ে লা লিগায় ২৯টি গোল করেছেন।


আরও খবর

শিশুদের সিনেমায় মিথিলা

শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২




বিয়ের প্রশ্নে যে উত্তর দিলেন কিয়ারা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

বর্তমানে নতুন ছবি ‘যুগ যুগ জিও’ এর প্রচারাণায় ব্যস্ত বলিউড অভিনেতা বরুণ ধাওয়ান ও কিয়ারা আদভানি। প্রচারণার কাজে সম্প্রতি পশ্চিমবঙ্গের কলকাতায় হাজির হয়েছিলেন এই জুটি। শত ব্যস্ততার মাঝেই গণমাধ্যমের মুখোমুখি কিয়ারা-বরুণ। এ সময় বিয়ের প্রশ্ন করতেই কৌশলী উত্তর দিলেন কিয়ারা। গণমাধ্যমের সঙ্গে কিয়ারা-বরুণের সাক্ষাতকারের কিছু অংশ তুলে ধরা হল:-

প্রশ্ন: মঞ্চে তো দারুণ গান গাইলেন। তাহলে কি এবার গায়িকা হিসেবেও পাওয়া যাবে?

কিয়ারা: আমি ভাবছি না। কিন্তু আমি নিশ্চিত বরুণ আমার জন্য এমন কিছু পরিকল্পনা করছে। বরুণ: হ্যাঁ, আমি পরিকল্পনা করছি। ও ভাল গান করে। তো এমন কিছু ভাবা যেতেই পারে।

প্রশ্ন: ‘ভুলভুলাইয়ার’ সময় বলেছিলেন কার্তিকের ভক্তদের আপনি চুরি করে নেবেন। বরুণের ক্ষেত্রেও কি তাই?

কিয়ারা: (কিছুটা হেসে) এ বাবা, এমনটা না। অন্যের ভ্ক্তদের নিয়ে নেওয়া কি এত সহজ! বরুণ: না না। ও আমার সব ভক্তদের নিজের করে নেবে। আমি নিশ্চিত।

প্রশ্ন: এখন সবাই বাস্তবধর্মী ছবির দিকে ঝুঁকছে। সেখানে ‘যুগ যুগ জিও’ কেন দেখবে দর্শক?

কিয়ারা: এই ছবিটাও ভীষণ বে বাস্তবধর্মী। পরিবার, সম্পর্ক, বিচ্ছেদের এমন গল্প এর আগে কেউ বলেনি। বিনোদনের মোড়কে এই ছবি খুবই বাস্তবধর্মী। বরুণ: আমি কিয়ারার সঙ্গে সহমত।

প্রশ্ন: বরুণ তো অনেক বিয়ের টিপস দিলেন আপনাকে। কিয়ারা তাহলে বিয়েটা কবে করছেন? বরুণ: এই তো, এটাই তো আসল প্রশ্ন। উত্তর দাও তোমার বিয়েটা কবে!

কিয়ারা: (একগাল হাসি) আমি আশা করছি এই জীবনে একবার বিয়েটা করেই ফেলব।


আরও খবর

শিশুদের সিনেমায় মিথিলা

শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২