Logo
শিরোনাম
রাজধানীর সেতু ভবনে আগুন কমপ্লিট শাটডাউন : ঢাকাসহ সারা দেশে বিজিবি মোতায়েন জয়পুরহাটের পাঁচবিবিতে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ইট বোঝায় ট্রাক খাদে কুষ্টিয়ায় আন্দোলনকারী ও ছাত্রলীগের মধ্যে সংঘর্ষ -কয়েকটি মোটর সাইকেলে আগুন পুঠিয়ায় আ’লীগের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা লালমনিরহাটে অনুষ্ঠিত হয়েছে তিস্তা সমাবেশ বেনাপোল স্থল বন্দর দিয়ে মিথ্যা ঘোষণায় আমদানি করা হয়েছে ১৮ কোটি টাকার সালফিউরিক এসিড কুমারখালীতে মহাসড়ক অবরোধ করে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ, আহত-২ শরণখোলায় নার্সের চিকিৎসার অবহেলায় এক রোগীর মৃত্যুর অভিযোগ শেরপুরে কোটাবিরোধী শিক্ষার্থী-ছাত্রলীগের সংঘর্ষ, সাংবাদিকসহ আহত-২০

মাওলানা নেয়ামতুল্লাহ ফরিদী আমাদের গর্ব

প্রকাশিত:সোমবার ২৫ ডিসেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ২০ জুলাই ২০24 |

Image

আমিনুল ইসলাম কাসেমী,শিক্ষক ও কলামিস্ট :

নব্বই দশকের কথা। ইশা ছাত্র আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সভাপতি তখন নেয়ামতুল্লাহ  ফরিদী সাহেব। ঢাকা মহানগর ছাত্র আন্দোলনের কর্মি সন্মেলন আহবান করা হল। স্হান ছিল ঢাকা জেলা ক্রীড়া সমিতি মিলনায়তন। উক্ত সন্মেলনে দেশের বরেণ্য ওলামায়েকেরাম, বুদ্ধিজীবী মহল এবং মরহুম পীর সৈয়দ ফজলুল করীম সাহেব উপস্হিত ছিলেন। সন্মেলনের এক পর্যায়ে বক্তৃতার পালা আসে নেয়ামতুল্লাহ আল ফরিদী সাহেবের। তিনি মঞ্চে উঠে যে চমকপ্রদ বক্তৃতা করে ছিলেন, তাতে উপস্হিত অতিথিবৃন্দকে হতবাক করেদিয়েছিল। 

সেসময়ে মঞ্চে উপস্হিত ছিলেন মরহুম ব্যারিষ্টার কোরবান আলী সাহেব। ব্যারিষ্টার কোরবান আলী সাহেব তো একজন প্রাজ্ঞ রাজনীতিবিদ ছিলেন। তিনি তো নেয়ামতুল্লাহ আল ফরিদীর বক্তৃতা শুনে আর নিজেকে ধরে রাখতে পারেন নি। মঞ্চের মাইক ধরে প্রায় পাঁচ মিনিট শুধু নেয়ামতুল্রাহ ফরিদীর বক্তৃতা এবং জ্ঞানের ভুয়সী প্রশংসা করেছিলেন। তাঁর কথা ছিল এমন, একজন মাদ্রাসা পড়ুয়া ছাত্র এত্ত জ্ঞান রাখে? মাদ্রাসার ছাত্ররা এত তথ্যপূর্ণ আলোচনা করতে পারে? 

আজ  ২৩ ডিসেম্বর ২০২৩ সন। এর মধ্যে ৩০ বছর পার হয়ে গেছে।  ব্যারিস্টার কোরবান আলী সাহেবও নেই। জনাব ফরিদী সাহেব এখন এদেশের প্রথমশ্রেণীর  দেওবন্দী মাদ্রাসার মোহতামিম ও শাইখুল হাদীস। তবে দীর্ঘ এত বছর পার হয়েগেলেও নেয়ামতুল্রাহ আল ফরিদী ফুরিয়ে যান নি। বরং তাঁর বক্তৃতার স্পিরিট যেন আগের থেকে আরো গতিশীল।

আজ "জাতীয় ওলামা মাশায়েখ আইম্মা পরিষদ " এর জাতীয় সেমিনারে যে বক্তৃতা তিনি করেছেন, যে ভঙ্গিমা, যে ভাষার অংলকার, শব্দের গাঁথুনি এবং তথ্য নির্ভর সম্বলিত আলোচনা জাতির সামনে উপস্হাপন করেছেন, তাতে এ প্রজন্মের মানুষেরা উৎসাহিত হবে।  বিশেষ করে আকাবির- আসলাফের ইতিহাস- ঐতিহ্য রোমন্থন করে সাবলিল বাচন ভঙ্গিতে কথাগুলো তুলে ধরেছেন, সত্যি সেটা শুনতে ইচ্ছে করে।

আমি বারবার শিহরিত হচ্ছিলাম তাঁর কথায়। কী কথার জাদু!  কী অসম্ভব সুন্দর শব্দচয়ন! বক্তৃতা শুনে অভিভূত হলাম। তাছাড়া একটা ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্সে এরকম  তাত্মিক আলোচনা শোনার জন্য অপেক্ষায় ছিল মানুষ। জনাব ফরিদী সাহেবের বক্তৃতামালায় অবশ্য আজ পিপাসিত অন্তরগুলো সজীবতা ফিরে পাবে। উৎসাহ- উদ্দীপনা খুঁজে পাবে ভেঙেপড়া মানুষগুলো।

মাওলানা নেয়ামতুল্লাহ আল ফরিদী আমাদের গর্ব। তিনি আমাদের অহংকার। তিনি যেন এখন নতুন প্রজন্মের চেতনা।  আমি তাঁর জন্য কায়মনোবাক্যে দুআ করি, আল্লাহ তাঁকে নেক হায়াত দান করেন। আমিন।


আরও খবর



রাজাকার’ স্লোগানে ‘হতবাক ও ক্ষুব্ধ’ সুশীল সমাজ

প্রকাশিত:সোমবার ১৫ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২০ জুলাই ২০24 |

Image

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের কণ্ঠে তুমি কে আমি কে, রাজাকার রাজাকার স্লোগানে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট। বাংলাদেশের রাজনৈতিক ইতিহাসে বহু প্রগতিশীল আন্দোলন সংগ্রামের সূতিকাগার এই বিশ্ববিদ্যায়ের শিক্ষার্থীদের কণ্ঠে এমন স্লোগানে হতবাক তারা।

আজ সোমবার (১৫ জুলাই) সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ ও সাধারণ সম্পাদক মো. আহকাম উল্লাহ সাক্ষরিত বিবৃতিতে ক্ষোভ প্রকাশ করা হয়।

কোটা সংস্কার আন্দোলন নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্যে মর্মাহতঅপমানিত বোধ করায় রোববার রাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা হল থেকে মিছিল নিয়ে বেরিয়ে বিক্ষোভ করেন। ওইসব মিছিলে শিক্ষার্থীরা তুমি কে আমি কে, রাজাকার রাজাকার, চেয়েছিলাম অধিকার, হয়ে গেলাম রাজাকার', লাখো শহীদের রক্তে কেনা, দেশটা কারও বাপের না' ইত্যাদি স্লোগান দেন।

সাংস্কৃতিক জোট সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সই করা সোমবারের বিবৃতিতে বলা হয়, গতরাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের বেশ কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ে কোটা আন্দোলনকারীদের মিছিলে আমরা সবাই রাজাকারতুমি কে আমি কে রাজাকার রাজাকার স্লোগান প্রদান করার ঘটনায় আমরা বিস্মিত ও হতবাক।

বিবৃতিতে বলা হয়, যেকোনো বিষয়ে মত, ভিন্নমত থাকতেই পারে। আলাপ-আলোচনা ও শান্তিপূর্ণ পন্থায় দাবি আদায়ের জন্য আন্দোলন করবার প্রত্যেক নাগরিকের গণতান্ত্রিক অধিকার রয়েছে। কিন্তু আন্দোলনের নামে মহান মুক্তিযুদ্ধ ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে অসম্মানজনক বক্তব্য প্রদান, কটাক্ষ করা একেবারেই অগ্রহণযোগ্য ও ঔদ্ধত্যের সামিল। মুক্তিযুদ্ধের বিরোধিতাকারী রাজাকার বাহিনীর পরিচয়কে আত্মপরিচয় হিসেবে স্লোগান দেয়ার পর বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা বহন করার নৈতিক অধিকার থাকে কি?

সাংস্কৃতিক জোট আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেছে, যারা নিজেদের রাজাকার বলে স্লোগান দিয়েছেন, তারা নানা কারণে বিভ্রান্ত। তারা মুক্তিযুদ্ধের মূলধারায় ফিরে আসবেন এবং কন্ঠে তুলে নেবেন সেই কালজয়ী স্লোগান জয় বাংলা


আরও খবর

রাজধানীর সেতু ভবনে আগুন

বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪




জনগণের দৃষ্টি অন্যদিকে সরাতে ছাগলকাণ্ড করেছে সরকার : জয়নুল আবদিন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০২ জুলাই 2০২4 | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০২৪ |

Image

বিডি টুডেস ডেস্ক:



বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও জাতীয় সংসদের সাবেক বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ জয়নুল আবদিন ফারুক বলেছেন, আওয়ামী লীগ সরকার আজিজ, বেনজীর, আসাদুজ্জামান মিয়া ও মতিউরদের তৈরি করেছে।



 সরকার এক এক কাণ্ড তৈরি করে মানুষের দৃষ্টি অন্যদিকে সরানোর জন্য ছাগলকাণ্ড করেছে।



আজ মঙ্গলবার (২ জুলাই) ভারতের সাথে অবৈধ চুক্তি, দুর্নীতি, দেশকে ধ্বংস করার ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে আয়োজিত অবস্থান কর্মসূচিতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জয়নুল আবদিন ফারুক একথা বলেন। জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এই অবস্থান কর্মসূচির আয়োজন করে গণতন্ত্র ফোরাম।



অবস্থান কর্মসূচিতে জয়নুল আবদিন ফারুক বলেন, আপনারা আজিজ, বেনজীর, আসাদুজ্জামান মিয়া, মতিউর তৈরি করেছেন। নতুন করে ফয়সাল তৈরি করেছেন। এক এক কাণ্ড তৈরি করে মানুষের দৃষ্টি অন্যদিকে সরানোর জন্য ছাগলকাণ্ড করেছেন। এসব কাণ্ডে কোন কাজ হবে না। বাংলাদেশের মানুষ শহীদ জিয়ার দল, তারেক রহমানের নেতৃত্বে আজ অত্যন্ত সুদৃঢ় অবস্থায়।



বিরোধীদলীয় সাবেক এই চিফ হুইপ বলেন, এই সরকারের বিরুদ্ধে জনগণ কথা বলা শুরু করেছে। প্রধানমন্ত্রী ভারত গেলেন এক সপ্তাহে দুইবার। কি মধুর সম্পর্ক, কি প্রেম-প্রীতি, ভালোবাসা। আম, লিচু, ইলিশ পাঠান, কিন্তু গিয়ে ফেরত আসেন খালি হাতে। আমার পানির ন্যায্য হিস্যা আনতে পারেন না। বরং নতুন করে আমার বুকের উপর দিয়ে রেললাইন নির্মাণের সমঝোতা চুক্তি করেন।



আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের উদ্দেশে জয়নুল আবদিন ফারুক বলেন, গান গায় শিল্পী, তলে তলে ব্যথা। আসলেই সত্যি আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেতুমন্ত্রীর তলে ব্যথা আছে। তিনি একেক দিন একেকটা নতুন কথা আবিষ্কার করেন। 



আবার আবিষ্কার করলেন, আজকে পত্রিকায় দেখলাম, মমতার জন্য নাকি আমরা তিস্তার পানির শেয়ার পাচ্ছি না। হায়রে কপাল আমাদের এত মন্দ। এই মন্দের পেছনে আওয়ামী লীগ। এই কপাল খারাপের পেছনে আওয়ামী লীগ।



 আবার নতুন করে সমঝোতা স্বাক্ষরের নামে বাংলাদেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব আজকে খর্ব করার পথে আপনারা। বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জন করেছি আমরা দিল্লির দাসত্ব গ্রহণ করার জন্য নয়।



জয়নুল আবদিন ফারুক বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার বছরে ৯২ হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার করে। আর হিন্দুস্তানের সাথে অসম চুক্তি করে বাংলাদেশের সার্বভৌমত্বের প্রতি আপনারা হুমকি তৈরি করবেন। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের একজন সৈনিক, একজন কর্মী থাকতেও আমরা কোনদিনও এটা গ্রহণ করব না। 



দেশের শিক্ষা ব্যবস্থা, গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা আপনারা সম্পূর্ণভাবে ধ্বংস করে দিয়েছেন। আইনের শাসনের নামে বেআইনি শাসন করে আমাদের লাখ লাখ কর্মীকে জেলে রেখেছেন। মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও মির্জা আব্বাসের মতো সততার পরিচয় দেওয়া নেতাদের বিচারপতির বাসভবনে ঢিল মারার কারণে জেল খাটতে হয়। এর চেয়ে লজ্জার কিছু হয় না।


গণতন্ত্র ফোরামের সভাপতি ভিপি ইব্রাহিমের সভাপতিত্বে ও কৃষক দলের ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল নাঈমের সঞ্চালনায় অবস্থান কর্মসূচিতে আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম আজাদ, বিএনপির সহ যুব বিষয়ক সম্পাদক মীর নেওয়াজ আলী নেওয়াজ, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সহ-সভাপতি রাশেদুল হক, মৎস্যজীবী দলের সদস্য ইসমাইল হোসেন সিরাজ প্রমুখ।


আরও খবর



তারেককে ফেরাতে জোর কূটনৈতিক তৎপরতা চলমান: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:বুধবার ২৬ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২০ জুলাই ২০24 |

Image



সদরুল আইনঃ


লন্ডনে পলাতক বিএনপির ভারপ্রাপ্ত  চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনতে জোর কূটনৈতিক তৎপরতা ও আইনি কার্যক্রম একইসাথে চলমান রয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 


বুধবার (২৬ জুন) জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য বেগম ফরিদা ইয়াসমিনের প্রশ্নের জবাবে এ তথ্য জানান প্রধানমন্ত্রী। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে প্রশ্নোত্তর টেবিলে উপস্থাপিত হয়।


তিনি বলেন, একুশ আগস্ট গ্রেনেড হামলাসহ একাধিক মামলায় সাজাপ্রাপ্ত আসামি তারেক রহমানকে যুক্তরাজ্য থেকে দেশে ফিরিয়ে আনার বিষয়ে কিছু আইনগত জটিলতা রয়েছে।



 তবে সকল জটিলতা আইনি প্রক্রিয়াতেই নিরসন করে এই অপরাধীকে দেশে রিয়ে আসা ও তার প্রাপ্য সাজার মুখোমুখি করার বিষয়ে সরকার দৃঢ় প্রতিজ্ঞা। আশা করা যায়, এই প্রক্রিয়ায় ফলাফল আমরা অচিরেই দেখতে সক্ষম হবো।


প্রধানমন্ত্রী বলেন, একুশ আগস্ট গ্রেনেড হামলা, মানিলন্ডারিংসহ দুর্নীতির একাধিক মামলায় সাজাপ্রাপ্ত আসামি তারেক রহমান বর্তমানে যুক্তরাজ্য অবস্থান করছে। যুক্তরাজ্য থেকে তাকে দেশে ফিরিয়ে আনার বিষয়েও কিছু আইনগত জটিলতা রয়েছে। 



তারপরও সকল জটিলতা আইনি প্রক্রিয়াতেই নিরসন করে এই অপরাধীকে দেশে রিয়ে আসা ও তার প্রাপ্য সাজার মুখোমুখি করার বিষয়ে সরকার দৃঢ় প্রতিজ্ঞা। এ উদ্দেশ্য জোর কূটনৈতিক তৎপরতা ও আইনি কার্যক্রম একইসাথে চলমান রয়েছে।



 যুক্তরাজ্য সরকারের সঙ্গে নিবিড় যোগাযোগ রক্ষার মাধ্যমে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়সহ সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলো এ উদ্দেশ্যেই কাজ করে যাচ্ছে। আশা করা যায়, এই প্রক্রিয়ায় ফলাফল আমরা অচিরেই দেখতে সক্ষম হবো।


২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় তারেক রহমান ওরফে তারেক জিয়াসহ ১৫ জন আসামি বর্তমানে পলাতক রয়েছে উল্লেখ করে সরকার প্রধান বলেন, পলাতক আসামিদের গ্রেফতারের প্রচেষ্টা অব্যাহত আছে।



 বিদেশে পলাতক আসামি মওলানা তাজউদ্দীন, মো: হারিছ চৌধরী (গণমাধ্যমে খবর প্রকাশ বাংলাদেশের মাটিতে মারা গেছে) ও রাতুল আহম্মেদ বাবু ওরফে রাতুল বাবুদের বিরুদ্ধে ইন্টারপোলের রেড নোটিশ জারি করা আছে। 



এছাড়াও পলাতক আসামীরা যে সকল দেশে অবস্থান করছে সে সকল দেশের সঙ্গে আলাপ আলোচনার মাধ্যমে তাদের ফিরিয়ে আনার প্রচেষ্টা অব্যাহত আছে। সরকারের উচ্চ পর্যায় থেকে এ বিষয়ে নানামুখী পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। 



খুনিদের দেশে ফিরিয়ে আনার বিষয়ে সহযোগিতা চেয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজেই বিভিন্ন সময়ে সংশ্লিষ্ট দেশগুলোর রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানকে একাধিক চিঠি দিয়েছেন বলে সংসদকে জানান। 


প্রধানমন্ত্রী জানান, সংশ্লিষ্ট দেশগুলোতে খুনিদের অবস্থানের বিষয়ে আইনগত জটিলতা থাকায় এ বিষয়ে প্রত্যাশিত অগ্রগতি হয়নি। খুনিদের দেশে ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে বর্তমানে প্রচলিত কূটনীতির পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট দেশগুলোর আইন অনুযায়ীও ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।


বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলা ও একুশ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার দণ্ডপ্রাপ্ত বিদেশে পলাতক আসামিদের দেশে ফিরিয়ে এনে শাস্তি কার্যকর করার লক্ষ্যে ইন্টারপোলের মাধ্যমে রেড নোটিশ জারি করা হয়েছে জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পলাতক খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে বিচারের রায় কার্যকর করার বিষয়ে কূটনৈতিক তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে। 



এ বিষয়ে পররাষ্ট্র, আইন ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য প্রতিষ্ঠান পরস্পরের সাথে সমন্বয়ের মাধ্যমে কাজ করে যাচ্ছে।


তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর পলাতক খুনিদের মধ্যে মেজর (অব.) নূর চৌধুরী বর্তমানে সপরিবারে কানাডায়, আব্দুর রশিদ ও মেজর (বরখাস্ত) শরিফুল ইসলাম ডালিম পাকিস্তান বা লিবিয়ায়, লে, কর্নেল (অব.) রাশেদ চৌধুরী আমেরিকা এবং রিসালদার মোসলেহ উদ্দিন খান ভারতে অবস্থান করছে বলে জানা যায়। এছাড়া লে. কর্নেল(অব.) আজিজ পাশা জিম্বাবুয়ে অবস্থানকালে মারা যায় বলে জানা যায়। 



বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডে ফাঁসির আদেশপ্রাপ্ত ১২ জন আসামীর মধ্যে ৬ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।


আরও খবর

রাজধানীর সেতু ভবনে আগুন

বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪




দেশের অর্থনীতি এখন যথেষ্ট শক্তিশালী

প্রকাশিত:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২০ জুলাই ২০24 |

Image

রপ্তানির জন্য নতুন পণ্য ও বাজার খুঁজে বের করার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, রাজনৈতিক নয়, এখনকার কূটনীতি হবে অর্থনৈতিক। যে অনুযায়ী রপ্তানির বাজার খুঁজতে হবে।

রবিবার সকালে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে জাতীয় রপ্তানি ট্রফি বিতরণ অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, কোনো একটা পণ্যের ওপর নির্ভরশীল হলে চলবে না। রপ্তানির জন্য নতুন পণ্য ও বাজার খুঁজে বের করতে হবে। এখনকার কূটনীতি হচ্ছে অর্থনৈতিক বাণিজ্যিক কূটনীতি।

পরিকল্পিত পদক্ষেপ নেওয়ায় দেশের অর্থনীতি এখন যথেষ্ট শক্তিশালীএমন মন্তব্য করে সরকারপ্রধান বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে বেসরকারি খাত উন্মুক্ত করেছে বলেই দেশের অর্থনীতি এগিয়েছে। মাত্র ১৫ বছরে আমরা এই যে উন্নতি করতে পারলাম, পরিকল্পিতভাবে কাজ করেছি বলেই এটা সম্ভব হয়েছে।

বঙ্গবন্ধুকন্যা বলেন, আমরা প্রেক্ষিত পরিকল্পনা নিচ্ছি এবং পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা নিচ্ছি। ২০১০ সাল থেকে ২১ সাল পর্যন্ত যে প্রেক্ষিত পরিকল্পনা করেছিলাম, যে লক্ষ্য স্থির করেছিলাম, এটা আমরা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছি।

১৯৭৫ সালে জাতির পিতা স্বল্পোন্নত দেশ রেখে গিয়েছিলেন। এরপর ২৯ বছর এ দেশের মানুষের জীবনে কোনো উন্নতি হয়নি, পরিবর্তন ছিল না। আওয়ামী লীগ সরকারে আসার পর আমরা দেশকে এগিয়ে নিতে সক্ষম হয়েছি। আমাদের দেশের অর্থনীতি এখন যথেষ্ট শক্তিশালী করতে পেরেছি। যোগ করেন প্রধানমন্ত্রী।

এর আগে বৈদেশিক মুদ্রা আহরণ ও ব্যাপক কর্মসংস্থান সৃষ্টির মাধ্যমে রপ্তানি খাতে অবদানের জন্য জাতীয় রপ্তানি ট্রফি পাওয়া ৭৭টি প্রতিষ্ঠানের হাতে ট্রফি তুলে দেন শেখ হাসিনা। অনুষ্ঠানে সর্বাধিক বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রপ্তানি ট্রফি পায় একটি প্রতিষ্ঠান।


আরও খবর

রাজধানীর সেতু ভবনে আগুন

বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪




আত্রাইয়ে দুই হাজার মিটার নিষিদ্ধ রিংজাল জব্দ

প্রকাশিত:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২০ জুলাই ২০24 |

Image
রাণীনগর, নওগাঁ প্রতিনিধি:

নওগাঁর আত্রাইয়ে নদী ও বিল থেকে প্রায় দুই হাজার মিটার নিষিদ্ধ চায়নাদুয়ারী রিংজাল জব্দ করে আগুনে ভস্মিভূত করা হয়েছে। রোববার সন্ধা ৬টা নাগাদ এসব জাল জব্দ করে আগুনে ভস্মিভূত করা হয়।

আত্রাই উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা পলাশ চন্দ্র দেব জানান,আত্রাইয়ের নবাবের তাম্বু এলাকায় পুরাতন নদী ও নদী সংলগ্ন বিলে নিষিদ্ধ রিংজাল দিয়ে মাছ নিধন করা হচ্ছে,এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে থানাপুলিশকে সাথে নিয়ে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় নদী ও বিল থেকে প্রায় দুই লক্ষ টাকা মূল্যের দুই হাজার মিটার নিষিদ্ধ চায়নাদুয়ারী রিংজাল জব্দ করে আগুনে ভস্মিভূত করা হয়েছে।

এসময় থানাপুলিশ ও স্থানীয় ইউপি মেম্বার মুকুল হোসেনসহ এলাকার লোকজন উপস্থিত ছিলেন। তিনি জানান দেশীয় প্রজাতি মাছের সুরক্ষায় এঅভিযান চলমান থাকবে।

আরও খবর