Logo
শিরোনাম

শিল্পাচার্য জয়নুলের ৪৭তম মৃত্যুবার্ষিকী

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৩ জুলাই ২০২২ |
Image

বাংলাদেশে চারুকলা চর্চার পথিকৃত শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদীনের ৪৭তম প্রয়াণ দিবস শনিবার (২৮ মে)। ১৯১৪ সালে ময়মনসিংহে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন প্রতিভাবান এই শিল্পীকে ইনস্টিটিউট অব আর্টস অ্যান্ড ক্র্যাফটস প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে বাংলাদেশে আধুনিক শিল্প আন্দোলনের পথিকৃৎ বলে ধরে নেয়া হয়। ১৯৪৮ সালে ঢাকায় প্রতিষ্ঠিত এ প্রতিষ্ঠানের (বর্তমান চারুকলা ইনস্টিটিউট) তিনি ছিলেন প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ।

১৯৩৩ সালে কলকাতা সরকারি আর্ট স্কুলে ভর্তি হন এবং পাঁচ বছর সেখানে ব্রিটিশ বা ইউরোপীয় স্টাইলের ওপর পড়াশোনা করেন। ১৯৩৮ সালে তিনি আর্ট স্কুল অনুষদে যোগ দেন। ১৯৩৮ সালে সর্বভারতীয় চিত্রকলা প্রদর্শনীতে তার অঙ্কিত জলরঙের ছবির জন্য তিনি স্বর্ণপদক পান। ১৯৪৩ সালের দুর্ভিক্ষে জয়নুল আবেদিনের করা স্কেচগুলো ছিল অনবদ্য। এ দুর্ভিক্ষে হাজার হাজার মানুষ প্রাণ হারায়। সস্তা প্যাকিং পেপারে চায়নিজ ইঙ্ক ও তুলির আঁচড়ে ‘দুর্ভিক্ষের রেখাচিত্র’ নামে ছিল জয়নুলের এ ছবিগুলো। যা তাকে সারা ভারতে পরিচিত করে তোলে।

১৯৪৭ সালে উপমহাদেশের বিভক্তির পর জয়নুল আবেদিন তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের রাজধানী ঢাকায় বসবাস শুরু করেন। জয়নুল আবেদিন ও ঢাকা প্রত্যাগত তার কয়েকজন সহযোগী মিলে আর্ট ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠা করেন। ১৯৫১ সালে তিনি লন্ডনের স্লেড স্কুল অব আর্টে দুই বছরের প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন। লন্ডন থেকে প্রত্যাবর্তনের পর জয়নুলের চিত্রে নতুন যে ধারাটি দেখতে পাওয়া যায়, তাকে বলা যায় ‘বাঙালি ধারা’। ‘দুই মহিলা’ (গোয়াশ, ১৯৫৩), ‘পাইন্যার মা’ (গোয়াশ, ১৯৫৩) ও ‘মহিলা’ (জলরং, ১৯৫৩) হলো এ আমলের উল্লেখযোগ্য চিত্রকর্ম। ১৯৬৯ সালের গণঅভ্যুত্থানের বিজয়কে ভিত্তি করে আঁকা ‘নবান্ন’ এবং ১৯৭০ সালের প্রলয়ংকরী ঘূর্ণিঝড়ে প্রাণ হারানো হাজারো মানুষের স্মৃতির উদ্দেশ্যে আঁকা ‘মনপুরা’ তার বৈচিত্র্যময় কাজের উদাহরণ।

১৯৭৫ সালে জয়নুল আবেদিন সোনারগাঁয়ে একটি লোকশিল্প জাদুঘর এবং ময়মনসিংহে একটি গ্যালারি (শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিন সংগ্রহশালা) প্রতিষ্ঠা করেন। এ দুটি প্রতিষ্ঠানে তার অঙ্কিত কিছু চিত্রকর্ম সংরক্ষিত আছে।


আরও খবর

কবি গুরুর জন্মোৎসব

রবিবার ০৮ মে ২০২২




কমতে শুরু করেছে তিস্তার পানি অপরিবর্তিত ধরলা বন্যা পরিস্থিতি

প্রকাশিত:শনিবার ১৮ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২ |
Image

লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধি ঃ

লালমনিরহাটে তিস্তার পানি ডালিয়া পয়েন্টে বিপদ সীমার নিচে থাকলেও মাটিতে বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত রয়েছে। 

সংবাদ প্রচারের পর জেলা প্রশাসন শুক্রবার বিকাল থেকে মাঠে কাজ করছে। লালমনিরহাটে কোন বন্যা হয়নি এমন তথ্য জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক আবু জাফর। পরে বন্যা সংক্রান্ত সংবাদ একাত্তর টেলিভিশনে প্রচার হওয়ার পর শুক্রবার বিকেল থেকে নদী তীরবর্তী এলাকায় কাজ শুরু করেন জেলা প্রশাসনের লোকজন। তাদের সরকারি জরিপ অনুপাতে এ পর্যন্ত ১৫৫০০ পরিবার পানিবন্দি হয়েছে মর্মে জানানো হয় । 

তিস্তার পানি ডালিয়া পয়েন্টে বিপদসীমার ২৫ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। অপরদিকে ধরলা নদীর পানি বিপদসীমার ৩ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে বইছে। ধরলা সহ রত্নাই সানিয়াজান এসকল নদীতে বন্যার পানি অপরিবর্তিত রয়েছে। ধরলা বন্যানিয়ন্ত্রণ বালুর বাঁধে দেখা দিয়েছে ধ্বস। এসকল বন্যার্তদের জন্য প্রাথমিক পর্যায়ে ১শ ৫০  মেট্রিক টন চাল, শিশু খাদ্য সহ শুকনো খাবার বাবদ ৮ লাখ ৭৫  হাজার এবং গো খাদ্য বাবদ ৩ লাখ ৭৫ হাজার টাকা বরাদ্দ দিয়েছেন জেলা প্রশাসন উপজেলা পর্যায়ে। তবে এ সংবাদ লেখা পর্যন্ত বানভাসিদের মাঝে সরকারি বরাদ্দ পৌঁছায়নি।


আরও খবর



বাড়ছে মৃত্যু, কমেছে শনাক্ত

প্রকাশিত:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | হালনাগাদ:রবিবার ০৩ জুলাই ২০২২ |
Image

সারাদেশে করোনাভাইরাসে আরও ছয় জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ২৯ হাজার ১৬০ জনে।

দেশে ১ জুলাই সকাল ৮টা থেকে ২ জুলাই সকাল ৮টা পর্যন্ত ১ হাজার ১০৫ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এ পর্যন্ত করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে মোট ১৯ লাখ ৭৬ হাজার ৭৮৭ জন।

শনিবার (২ জুলাই) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

উল্লিখিত সময়ে সুস্থ হয়েছেন ২৩৩ জন করোনা রোগী। এ পর্যন্ত করোনামুক্ত হয়েছেন ১৯ লাখ ৭ হাজার ৯৯০ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় করোনা শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ২২ শতাংশ। এ পর্যন্ত করোনা শনাক্তের গড় হার ১৩ দশমিক ৭৬ শতাংশ। সুস্থতার হার ৯৬ দশমিক ৫২ শতাংশ। করোনায় মৃত‌্যুর হার ১ দশমিক ৪৮ শতাংশ।


আরও খবর



প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে ইটনায় বিক্ষোভ মিছিল

প্রকাশিত:রবিবার ০৫ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

মুজাহিদ সরকার ঃ

প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা কে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে সারাদেশের ন্যয় আজ ৪ জুন 

বিকেলে ইটনা উপজেলা আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠন ইটনা শহরে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করে ।

মিছিলটি ইটনা উপজেলা আওয়ামীলীগের নিজস্ব কার্যালয়ের সম্মুখ থেকে বের হয়ে বিভিন্ন রাস্তা প্রদক্ষিণ করে সংক্ষিপ্ত। 

বিক্ষোভ মিছিল শেষে বক্তব্য রাখেন ছাত্রলীগ, যুবলীগ,স্বেচ্ছাসেবকলীগ, কৃষকলীগে নেতৃবৃন্দ ছাড়াও ইটনা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক প্রচার সম্পাদক তাপস রায় এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সোহরাব হোসেন (খসরু ঠাকুর)। 

তখন নেতাকর্মীরা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হত্যার প্রতিবাদে তীব্র নিন্দা জানান। তারা আরো বলেন বিএনপি-জামায়াত এই দেশটাকে তাসের রাজত্ব তৈরি করতে চাচ্ছে। যত দ্রুত সম্ভব বিএনপি-জামাত ছাত্রদলে সন্ত্রাসীদের দাঁতভাঙ্গা জবাব দিবে।


আরও খবর



শেরপুরে ফের পাহাড়ি ঢল, দু‌র্ভো‌গে মানুষ

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 |
Image

শেরপুর জেলা প্রতিনিধি ঃ

বৃহস্পতিবার রাত থে‌কে ভারী বর্ষণ  ও উজান থে‌কে নে‌মে আসা পাহাড়ি ঢলের পানিতে দ্বিতীয় দফায় শেরপুরের নদ-নদীর পা‌নি বৃ‌দ্ধি পে‌য়ে‌ছে। এ‌তে ঝিনাইগাতী উপজেলার মহারশী ও সোমেশ্বরী নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে উপজেলা সদরের বিভিন্ন অফিস, সদর, ধানাশাইল, গৌরীপুর, হাতিবান্দা ও মালিঝিকান্দাসহ ৫ ইউনিয়নের ২০ গ্রামের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। এসব এলাকার রামেরকুড়া, দিঘীর পাড়, চতলের বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে উপজেলা সদর এবং আশপাশের বিভিন্ন এলাকায় পানি প্রবাহিত হচ্ছে। 

পানির তো‌ড়ে শুক্রবার রামেরকূড়া গ্রামের বাঁধের সাথে একটি বাড়ি ও মুরগীর খামার ভেসে গেছে। সেই সাথে ওই গ্রামের বেশ কয়েকটি বাড়ির মানুষ পানি বন্দি হয়ে পড়ায় স্থানীয় ফায়ার সার্ভিস বিভাগ উদ্ধারের চেষ্টা করছে। প্রবল পানির স্রোত থাকায় নিজ বা‌ড়ি ছে‌ড়ে অন‌্যত্র চ‌লে গে‌ছে।

এদিকে, চেল্লাখালী ও ভোগাই নদীর পা‌নি বে‌ড়ে‌ছে। এ‌তে নিম্নাঞ্চ‌লের বেশ ক‌য়েক‌টি গ্রাম প্লা‌বিত হ‌য়ে‌ছে।

ঝিনাইগাতী বাকাকুড়া গ্রা‌মের বা‌সিন্দা রমজান আলী ব‌লেন, রাই‌তে এল্লা মেঘ আই‌লো, সহা‌লেই দে‌হি আমার বা‌ড়ি উডা‌নে পা‌নি, প‌রে চুলার ম‌ধ্যে আগুন দিবার পাই‌নি। তাই বিস্কুট খাই‌য়ে আ‌ছি।

একই গ্রা‌মের বা‌সিন্দা আফজাল ব‌লেন, ঢলডা সহা‌লেই আই‌ছে। প‌রে খা‌লি বাড়‌তেই আ‌ছে, মেলা মানুষ ঘর থ‌নে বাই‌রে আবার পাইতা‌ছে না।

রামেরকূড়া গ্রামের বা‌সিন্দ‌া ফ‌কির মিয়া ব‌লেন, হডাত কই‌রি ঢল আই‌লো, আই‌য়ে বাধটা ভা‌ঙ্গি‌য়ে গেল গা। সা‌থে সা‌থে ওইহা‌নে এডা ঘর আ‌ছিল, মুরগীর খামার আ‌ছিল, সব  পা‌নির সা‌থে গে‌ছে গা। 

ঝিনাইগাতী উপ‌জেলা নির্বাহী অ‌ফিসার ফারুক আল মাসুদ ব‌লেন, বৃ‌ষ্টি ও উজা‌নের পানির কার‌ণে কিছু জায়গায় নিম্নাঞ্চল প্লা‌বিত হয়ে‌ছে। উপ‌জেলা প্রশাসন থে‌কে ক্ষ‌তিগ্রস্থ‌দের সহ‌যো‌গিতা করা হচ্ছে। পাশাপা‌শি স্থায়ী বাঁধ নির্মা‌ণে উর্ধ্বতন কর্তৃপ‌ক্ষকে জানা‌নো হ‌য়ে‌ছে। আশা ক‌রি, খুব দ্রুতই স্থায়ী বাঁধ নির্মাণ হ‌বে। আর পা‌নি ক‌মে যাওয়ার পর সংস্কার কাজ শুরু হ‌বে ইনশাআল্লাহ।

জেলা পা‌নি উন্নয়ন বো‌র্ডের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মো: শাহজাহান ব‌লেন, গত রাতে জেলা সদরে ৮৫‌ মি‌লি‌মিটার ও না‌লিতাবাড়ী উপ‌জেলায় ১১৫ মি‌লি‌মিটার বৃ‌ষ্টির রেকর্ড করা হ‌য়ে‌ছে। এছাড়া সকা‌লে না‌লিতাবাড়ীর চেল্লাখা‌লি নদীর পা‌নি বিপদসীমার ১৭৬ সে‌ন্টি‌মিটার ওপর দি‌য়ে প্রবা‌হিত হ‌য়ে‌ছে। আমরা এ বিষ‌য়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ‌কে জা‌নি‌য়ে‌ছি। তা‌রা সব সময় নি‌র্দেশনা দি‌চ্ছেন। আশা ক‌রি, খুব দ্রুত সম‌য়ের ম‌ধ্যেই পা‌নি স্বাভা‌বিক হ‌বে, পাশাপা‌শি ঢ‌লে যে ক্ষ‌তি হ‌বে তা বরাদ্দ সা‌পে‌ক্ষে ব‌্যবস্থা নেওয়া হ‌বে।


আরও খবর



রাজধানীতে তল্লাশি জোরদার

প্রকাশিত:সোমবার ২০ জুন ২০22 | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ |
Image

পদ্মা সেতু উদ্বোধন ও আসন্ন রথযাত্রা ও উল্টো রথযাত্রা উপলক্ষে যে কোনো ধরনের নাশকতা এড়াতে রাজধানীর আবাসিক হোটেল ও মেসগুলোতে তল্লাশি জোরদার করেছে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)।

পুলিশ সদস্যদের উদ্দেশে ডিএমপি কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম বলেন, বুদ্ধিমত্তার সঙ্গে কাজ করে জনগণের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। আগামী ২৫ জুন পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে ভিআইপি ও ভিভিআইপিদের সুষ্ঠু গমনাগমন এবং নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।

ডিএমপির মে মাসের মাসিক অপরাধ পর্যালোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। এসময় তিনি মে মাসে বড় ধরনের কোনো অঘটন না ঘটায় পুলিশ সদস্যদের ধন্যবাদ জানান।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, গরুর হাটকে কেন্দ্র করে কোনো ধরনের চাঁদাবাজিসহ অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা যেন না ঘটে সেদিকে সংশ্লিষ্ট সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। আসন্ন ঈদুল আজহা উপলক্ষে যেসব এলাকায় গরুর হাট বসবে সেসব স্থানে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে দায়িত্ব পালন করতে হবে।

অনুষ্ঠানে ঢাকা মহানগরের আইনশৃঙ্খলা রক্ষা ও জননিরাপত্তা বিধানসহ ভালো কাজের স্বীকৃতি হিসেবে এ মাসিক অপরাধ পর্যালোচনা সভায় শ্রেষ্ঠ পুলিশ কর্মকর্তাদের পুরস্কৃত করেন ডিএমপি কমিশনার।

অপরাধ পর্যালোচনা সভায় ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (লজিস্টিকস, ফিন্যান্স আ্যন্ড প্রকিউরমেন্ট) ড. এ এফ এম মাসুম রব্বানী, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম অ্যান্ড অপারেশনস্) কৃষ্ণ পদ রায়, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (গোয়েন্দা) এ কে এম হাফিজ আক্তার, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) মো. মুনিবুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (সিটিটিসি) মো. আসাদুজ্জামান, যুগ্ম পুলিশ কমিশনার ও উপ-পুলিশ কমিশনারসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর