Logo
শিরোনাম
বাউল ছালমা হলেন বরিশাল বিভাগের শ্রেষ্ঠ "জয়িতা" পাংশায় মাদক সহ ৯ মামলার আসামী গ্রেফতার ১৬৩ টাকায় তেল বিক্রির ব্যত্যয় ঘটলে ব্যবস্থা নেয়া হবে: ভোক্তার মহাপরিচালক দুর্গাপুরে বালুবাহী হ্যান্ডট্রলির চাপায় প্রাণ গেল শিক্ষার্থীর নওগাঁ জেলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি আবু বক্কর, সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত নওগাঁয় প্রাইভেটকার তল্লাসি, ৭২ কেজি গাঁজা সহ যুবক আটক রূপগঞ্জে প্রাইভেটকার চাপায় গৃহবধু নিহত রাঙ্গামাটির বড়ইছড়ি নির্মাণ শ্রমিক বোঝাই ট্রাক খাদে নিহত-২, আহত-২০ মুসলিমদেরকে সঠিক পথ থেকে বিচ্যুত করার জন্য বিভিন্ন ষড়যন্ত্র চলছে নওগাঁয় কম্পিউটার ব্যবসার অন্তরালে অশ্লিল ভিডিও বিক্রি করায় ৩ যুবক আটক

ডেঙ্গুতে মৃত্যু ১৬০০ ছাড়ালো

প্রকাশিত:সোমবার ২৭ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪ |

Image

সারাদেশে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আটজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে চলতি বছর ডেঙ্গুতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে এক হাজার ৬০৬ জনে।

গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৯২০ জন ডেঙ্গুরোগী। অন্যদিকে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে বর্তমানে চিকিৎসাধীন আছেন ৩ হাজার ৪৯৩ জন ডেঙ্গুরোগী।

সোমবার (২৭ নভেম্বর) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের ইনচার্জ মো. জাহিদুল ইসলাম সই করা ডেঙ্গুবিষয়ক নিয়মিত প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, রোববার (২৬ নভেম্বর) সকাল ৮টা থেকে সোমবার সকাল ৮টা পর্যন্ত সারাদেশে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া ৯২০ জনের মধ্যে ঢাকার বাসিন্দা ২১৯ এবং ঢাকার বাইরের ৭০১ জন। অন্যদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া আটজনের মধ্যে ঢাকার বাসিন্দা ৪ জন, ঢাকার বাইরের ৪ জন।

চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে ২৭ নভেম্বর পর্যন্ত সারাদেশে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়েছেন মোট তিন লাখ ৯ হাজার ৮৭ জন। তাদের মধ্যে ঢাকার বাসিন্দা ১ লাখ ৭ হাজার ২৯৮ জন, আর ঢাকার বাইরের ২ লাখ ১ হাজার ৭৮৯ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গু আক্রান্তদের মধ্যে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র পেয়েছেন এক হাজার ১৪ জন। তাদের মধ্যে ঢাকার বাসিন্দা ২২১ জন এবং ঢাকার বাইরের ৭৯৩ জন।

গত ১ জানুয়ারি থেকে ২৭ নভেম্বর পর্যন্ত ডেঙ্গু আক্রান্তদের মধ্যে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র পেয়েছেন তিন লাখ ৩ হাজার ৯৮৮ জন। তাদের মধ্যে ঢাকার বাসিন্দা এক লাখ ৫ হাজার ৩৫৭ জন এবং ঢাকার বাইরের ১ লাখ ৯৮ হাজার ৬৩১ জন।

২০২২ সালে ডেঙ্গুতে ২৮১ জন মারা যান। ওই বছরের শেষ মাস ডিসেম্বরে ২৭ জনের মৃত্যু হয়। একই সঙ্গে আলোচ্য বছরে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন ৬২ হাজার ৩৮২ জন।

২০২০ সালে করোনা মহামারিকালে ডেঙ্গু সংক্রমণ তেমন একটা দেখা না গেলেও ২০২১ সালে সারাদেশে ডেঙ্গু আক্রান্ত হন ২৮ হাজার ৪২৯ জন। একই বছর দেশব্যাপী ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ১০৫ জনের মৃত্যু হয়েছিল।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যমতে, দেশে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ২০২২ সালে ২৮১ জন, ২০২১ সালে ১০৫ জন, ২০২০ সালে সাতজন ও ২০১৯ সালে ১৭৯ জনের মৃত্যু হয়।


আরও খবর

চোখ রাঙাচ্ছে এডিস মশা

বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




সোশ্যাল মিডিয়ায় উত্তাপ ছড়ালেন রুনা খান!

প্রকাশিত:বুধবার ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ |

Image

নতুন ছবি দিয়ে অন্তর্জালে উত্তাপ ছড়ালেন অভিনেত্রী রুনা খান। বছরখানেক আগে ওজন কমিয়ে আলোচনায় এসেছিলেন তিনি। প্রতিনিয়ত নতুন নতুন ছবি প্রকাশ করেন এই অভিনেত্রী।

সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) দুপুরেও কয়েকটি স্থিরচিত্র পোস্ট করেন রুনা খান। জানালেন, এই ফটোশুটের পেছনের গল্প। রুনা বলেন, আমি ইনস্টাগ্রাম ব্যবহার করি। ইনস্টাগ্রামে দীপিকা, প্রিয়াঙ্কা, ক্যাটারিনা, কারিনা কাপুর, আলিয়া ভাট ওদের সবার ফটোশুট দেখি। সেই দেখা থেকে কিছুটা অনুপ্রাণিত হয়ে এমন একটা ফটোশুট করা।

টেলিভিশন নাটকে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে তার কর্মজীবন শুরু হয়। তিনি হালদা চলচ্চিত্রে অভিনয় করে শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেত্রী বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন। এছাড়া তিনি গহীন বালুচরছিটকিনি ছবিতে অভিনয় করে প্রশংসিত হয়েছেন। তার বেশকটি সিনেমা মুক্তিরও অপেক্ষায় রয়েছে।

রুনা খান বলেন, এই ফটোশুটের উদ্যোগ আমার নয়। অবশেষে যখন ফটোশুটের বিষয়টি ফাইনাল হলো, তখন শুধু একটা বিষয় চেয়েছিলাম, মেকআপটা যেন আন্তর্জাতিক মানের হয়।

কারণ হিসেবে রুনা বলেন, বাংলাদেশের মেকআপে অন্য রকম একটা ব্যাপার আছে, মোটা আইল্যাশ পরাবে। চোখের ওপর গ্লস দিয়ে ভরে ফেলবে। পারলার টাইপের মেকআপ যেটাকে বলে। আমি ধরে দেখিয়ে দিয়েছি, আমি দীপিকার এই লুক, প্রিয়াঙ্কার নো মেকআপ লুকটা চাই। চোখের পাপড়িটা চাই। চেহারার পুরো ব্যাপারটা যেন বোঝা যায়। এ চাওয়াটা ছিল।

তিনি আরও বলেন, চাইলেই তো আর প্রিয়াঙ্কা, দীপিকা ও ক্যাটরিনার মতো সবকিছু সম্ভব নয়। কারণ, ওরা তো আমাদের চেয়ে হাজার গুণ পেশাদার। তাঁদের কাজের ধরনও আমাদের চেয়ে অনেকটা এগিয়ে। তারপর লুকওয়াইজ কাছাকাছি কিছু একটা করার চেষ্টা করেছি। আন্তর্জাতিক স্ট্যান্ডার্ডে যতটা ধরা যায়।

এক যুগ আগে রুনা খানের ওজন ছিল ৫৬ কেজি। ২০০৯ সালে তার বিয়ে হয়। পরের বছরই সন্তান রাজেশ্বরীর জন্ম। একসময় রুনার ওজন ৯৫ কেজিতে গিয়ে ঠেকে।

সন্তান জন্মের এক বছর পর, মানে ২০১১ সাল থেকে ওজন কমানোর মিশন শুরু করেন রুনা। কিন্তু কোনোভাবেই পারছিলেন না, বরং একপর্যায়ে ওজন আরও বেড়ে হয় ১০৫ কেজি। ওজন কমাতে ধানমন্ডির একাধিক জিম ও প্রশিক্ষকের শরণাপন্ন হন তিনি। শুরু করেন সাঁতার। ভর্তি হন ইয়োগা ও অ্যারোবিকস ক্লাসেও। স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া শুরু করেন।

 


আরও খবর

ব্যবসা শুরু করতে যাচ্ছেন পরীমণি

শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত মাহিয়া মাহির

শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




রাণীনগরে পানি সেচ না দেয়ায় আলু ক্ষেত নষ্টের অভিযোগ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ |

Image

কাজী আনিছুর রহমান,রাণীনগর (নওগাঁ) :

নওগাঁর রাণীনগরে চলতি মৌসুমে জমিতে পানি সেচ না দিয়ে আলু ক্ষেত নষ্টের অভিযোগ ওঠেছে গভীর নলকূপ অপারেটর মোজাম্মেল মোল্লার বিরুদ্ধে। এঘটনায় ভুক্তভোগী কৃষক উপজেলা সেচ কমিটি এবং বিএমডিএ বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থার মাধ্যমে সু-বিচার দাবি করেছেন কৃষক এনামুল হক।

উপজেলার কালীগ্রাম ইউনিয়নের মধুপুর গ্রামের ইসমাইল হোসেনের ছেলে কৃষক এনামুল হক অভিযোগ করে বলেন,চলতি মৌসুমে গ্রামের পশ্চিম মাঠে বিএমডিএর গভীর নলকূপের আওতায় প্রায় সাড়ে ১৬শতক জমিতে আলু রোপন করেছেন। জমিতে আলু রোপনের পর থেকে একই মাঠে সকল কৃষকের জমিতে পানি সেচ দিলেও আমার জমিতে এক ফোটা পানিও সেচ দেয়নি গভীর নলকূপের অপারেটর একই গ্রামের মোজাম্মেল মোল্লা। এতে পানির অভাবে ক্ষেতের ফসল নষ্ট হয়ে গেছে। তিনি আরো জানান,জমিতে পানি সেচ না দেয়ায় স্থানীয় মেম্বার ও গন্যমান্য লোকজন নিয়ে বসেছিলাম। সেখানে পানি সেচের জন্য ১৫শত টাকা মিটমাট হলেও পরে আর পানি দেয়নি। ফলে ক্ষেতের ফসল নষ্ট হয়ে গেছে। তিনি জানান,পারিবারিক দ্ব›েদ্বর জ্বের ধরে জমিতে পানি সেচ দেয়নি। বাধ্য হয়ে সু-বিচার পেতে রোববার বিকেলে উপজেলা সেচ কমিটির সভাপতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং বিএমডিএ বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছি।

স্থানীয় মেম্বার হেলাল উদ্দীন বলেন,আমরা বিষয়টি নিয়ে বসে সমাধান করেছিলাম। কিন্তু উভয় পক্ষের জিদের কারনে পরে আবারো তা ভেস্তে গেছে।

এব্যাপারে গভীর নলকূপের অপারেটর মোজাম্মেল হকের সাথে যোগাযোগ করতে তাকে না পাওয়ায় মোজাম্মেলের ছেলে আব্দুল মমিন মোল্লা বলেন,ধানের জমিতে পানি সেচ দিয়ে গত দুই বছরেও এনামুল কোন টাকা দেয়নি। তার জমিতে পানি সেচ ও জমিতে চাষ বাবদ ৩হাজার  ৩০০টাকা পাওনা রয়েছি আমরা। টাকা চাইলে নানানভাবে টালবাহনা করে। ফলে আমরা জমিতে পানি সেচ দিইনি।

রাণীনগর উপজেলা বিএমডিএর সহকারী প্রকৌশলী ইমানুর রহমান বলেন,এব্যপারে খোঁজ খবর নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উপজেলা সেচ কমিটির সভাপতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উম্মে তাবাসসুম বলেন,লিখিত অভিযোগের বিষয়টি দ্রুত তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।


আরও খবর

বাউল ছালমা হলেন বরিশাল বিভাগের শ্রেষ্ঠ "জয়িতা"

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

পাংশায় মাদক সহ ৯ মামলার আসামী গ্রেফতার

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




লালমনিরহাটে পৃথক অভিযানে ৯ মাদক কারবারি আটক

প্রকাশিত:বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ |

Image

নিজস্ব প্রতিনিধি,লালমনিরহাট: 

জেলা সদর লালমনিরহাট থানা পুলিশের পৃথক পৃথক তিনটি অভিযানে ৩৫ বোতল মাদকদ্রব্য ফেন্সিডিল সহ ০২ জন, ১০ বোতল মাদকদ্রব্য ফেন্সিডিলসহ ০২ জন, এবং ০২ কেজি মাদকদ্রব্য গাঁজাসহ ০১ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার, মাদকদ্রব্য পরিবহনে ব্যবহৃত ০১টি ব্যাটারী চালিত অটো রিক্সা জব্দ।

পুলিশ সুপার লালমনিরহাট এর দিক নির্দেশনায় লালমনিরহাট থানার অফিসার ইনচার্জ  মোঃ ওমর ফারুক এর নের্তৃত্বে মাদকবিরোধী অভিযানে লালমনিরহাট থানা পুলিশের অভিযান টিম এর এসআই দীপ্ত কুমার সিং সঙ্গীয় ফোর্সসহ ১নং মোগলহাট ইউনিয়নের দুরাকুটি মৌজাস্থ বিষবাড়ী এলাকার সামনে মোগলহাট টু লালমনিরহাট গামী পাকা রাস্তার ওপর হইতে আসামী মিস্টার আলী(৩৮), পিতা-মৃত-জহুরুল হক, সাং- দুর্গাপুর, থানা- আদিতমারী, জেলা -লালমনিরহাট,মোঃ সাজ্জাদ কবির @ রতন (৪১), পিতা-মোঃ ফারুক হোসেন, সাং- মিয়াপাড়া দোয়ানীটারী, থানা- হারাগাছ, জেলা -রংপুরদ্বয়কে হাতে নাতে গ্রেফতার করেন। 

এছাড়াও থানা পুলিশের অপর অভিযানে এসআই মোঃ আশরাফুল ইসলাম ফোর্সসহ লালমনিরহাট থানাধীন ০৮ নং গোকুন্ডা ইউনিয়নের তিস্তা এলাকা হইতে আসামী মোঃ আব্দুর রহিম(২৮), পিতা-মোঃ আজিজার রহমান, গ্রাম- দুলালী, ইউপি-গোরল ০৬নং ওয়ার্ড , থানা- কালীগঞ্জ, জেলা -লালমনিরহাট, মোঃ মামুন শেখ (২২), পিতা-তছির উদ্দিন, মাতা-মোছাঃ মাছুদা বেগম, গ্রাম- বেড়াভাঙ্গা, থানা- পলাশবাড়ী, জেলা -গাইবান্ধাদ্বয়কে হাতে নাতে গ্রেফতার করেন।


একই এলাকায় আরেকটি অভিযানে এসআই মোঃ রুহুল ইসলাম ০২ কেজি মাদকদ্রব্য গাঁজাসহ আসামী মোঃ আনিছুর রহমান, পিতা- মোঃ আলেফ উদ্দিন, সাং-রতিপুর বাতানটারী, থানা ও জেলা- লালমনিরহাটকে হাতে নাতে গ্রেফতার করেন। এসময় মাদকদ্রব্য গাঁজা পরিবহনে ব্যবহৃত একটি ব্যাটারী চালিত পুরাতন অটো রিক্সা জব্দ করে।

 মাদকদ্রব্যসহ গ্রেফতারকৃত আসামীদের বিরুদ্ধে পৃথক পৃথক মাদক মামলা রুজু করে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন লালমনিরহাট সদর থানার অফিসার ও ওমর ফারুক।


আরও খবর

বাউল ছালমা হলেন বরিশাল বিভাগের শ্রেষ্ঠ "জয়িতা"

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

পাংশায় মাদক সহ ৯ মামলার আসামী গ্রেফতার

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




৫৭ তম খোশরোজ শরীফ ও মইনীয়া যুব ফোরামের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন

প্রকাশিত:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪ |

Image

বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টির (বিএসপি) চেয়ারম্যান ও মাইজভার দরবার শরীফের সাজ্জাদানশীন শাহ্সূফী মাওলানা সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী মাইজভারীর (মা.জি.আ.) ৫৭ তম খোশরোজ শরীফ উপলক্ষ্যে তাঁরই প্রতিষ্ঠিত হযরত সৈয়দ মইনুদ্দীন আহমদ মাইজভারী ট্রাস্টের বার্ষিক সাধারণ সভা ও  মইনীয়া যুব ফোরামের ১১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে যুব মহাসমাবেশ চট্টগ্রাম ফটিকছড়ি মাইজভার দরবার শরীফে অনুষ্ঠিত হয়। ২৪ ফেব্রæয়ারি শনিবার দিনব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচি ও বাদ মাগরিব হুজুর কিবলার জীবনী আলোচনা, র‌্যালি, মাদক, যৌতুক ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে গণসচেতনতায় গণস্বাক্ষর ও প্রচারণা, রক্তদান,, খতমে কুরআন, খতমে গাউছিয়াসহ নানা কর্মসূচি পালিত হয়। খোশরোজ শরীফ ও মইনীয়া যুব ফোরামের মহাসমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শাহ্সূফী মাওলানা সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী বলেন, যুব তরুণ সমাজ আজ লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে নানামুখী অবক্ষয়ে ধুঁকছে। বিপথগামিতার পথে পা বাড়িয়ে বহু তরুণ নিজেদের মূল্যবান জীবন নিঃশেষ করে দি”েছ। সর্বনাশা মাদক ও বিভিন্ন প্রকার নেশার আগ্রাসনের শিকার সম্ভাবনাময়ী যুব তরুণ সমাজ। তাই, অবক্ষয়ের অতল গহŸর থেকে তাদেরকে ফিরিয়ে এনে সত্য সুন্দর ও আলোর পথে নিয়ে আসতে হবে। তাদেরকে দেখাতে হবে উজ্জ্বল ভবিষ্যতের সুষমামন্ডিত স্বপ্ন। তিনি বলেন, যুব তরুণদের আধুনিক জীবন যাপনের নামে অবাধ মেলামেশা ও অনৈতিকতার পথে বাধাহীনভাবে চলতে দেয়া যায় না। তাদেরকে সূফিবাদি উদার মানবিক, নৈতিক ও দ্বীনি মূল্যবোধের আলোকে গড়ে তুলতে হবে। নবী-ওলী মনীষীদের মহৎ জীবনাদর্শের আলোকে যুব সমাজকে জাগিয়ে তুলতে পারলে তারাই এগিয়ে নেবে দেশকে।তিনি বলেন, অক্ষর জ্ঞানে শিক্ষিত হলে হবে না। রাষ্ট্র ও সমাজ গঠনে ভূমিকা রাখতে নৈতিকভাবে পরিশুদ্ধ সৎ, বিবেকবান ও দুর্নীতিমুক্ত সু¯’-আদর্শিক হতে হবে। নৈতিকভাবে উজ্জীবিত আদর্শবান প্রজন্মই দেশকে এগিয়ে নিতে পারে বলে তিনি মন্তব্য করেন। সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী যুব সমাজকে মইনীয়া যুব ফোরামের ্প্লাটফরমে এসে জ্ঞান, চরিত্র ও আদর্শিকভাবে উজ্জীবিত হবার আহŸান জানান এবং তথ্য প্রযুক্তির অপব্যবহার থেকে সবাইকে সতর্ক থাকার তাগিদ দেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মইনীয়া যুব ফোরামের সভাপতি শাহ্জাদা সৈয়দ মেহবুব-এ-মইনুদ্দীন আল-হাসানী, উদ্বোধক ছিলেন ফোরামের কার্যনির্বাহী সভাপতি শাহ্জাদা সৈয়দ মাশুক-এ-মইনুদ্দীন আল্-হাসানী। বিশেষ অতিথি ছিলেন পি, এইচ, পি ফ্যামিলীর চেয়ারম্যান সূফি মোঃ মিজানুর রহমান, আন্জুমানে রহমানিয়া মইনীয়া মাইজভারীয়ার কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক খলিফা শাহ্ মো: আলমগীর খান, হযরত সৈয়দ মইনুদ্দীন আহমদ মাইজভারী ট্রাস্টের মহাসচিব ও বিএসপি কো-চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট খলিফা কাজী মহসীন চৌধুরী। প্রধান আলোচক ছিলেন মইনীয়া যুব ফোরামের সাধারণ সম্পাদক খলিফা মো: আসলাম হোসাইন। মহাসমাবেশ ও ট্রাস্টের সভায় অতিথি এবং আলোচক ছিলেন আনজুমান চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা সাধারণ সম্পাদক কাজী মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ, বিএসপি দপ্তর সম্পাদক মোঃ ইব্রাহিম মিয়া, , প্রমুখ। মিলাদ ক্বিয়াম শেষে বিশ্বশান্তি, নিপীড়িত মানবতার মুক্তি এবং দেশবাসীর ওপর আল্লাহর রহমত কামনায় মুনাজাত পরিচালনা করেন শাহ্সূফী মাওলানা সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (মা.জি.আ.)। পরে সবার মাঝে তবারুক পরিবেশিত হয়। 


আরও খবর



বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়কে ১৫ শতাংশ ট্যাক্স দিতে হবে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪ |

Image

সব বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়কে ১৫ শতাংশ ট্যাক্স দিতে হবে বলে রায় দিয়েছেন আপিল বিভাগ। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সরকারের ১৫ শতাংশ হারে আয়কর আদায় সংক্রান্ত আপিল নিষ্পত্তি করে আদালত এ রায় দিয়েছেন।

এ সংক্রান্ত আপিল নিষ্পত্তি করে মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) আপিল বিভাগের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি বোরহান উদ্দিনের নেতৃত্বাধীন আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিন। রিটের পক্ষে ছিলেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এ এফ হাসান আরিফ।

এর আগে ২০২৩ সালের জুন মাসে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সরকারের ১৫ শতাংশ হারে আয়কর আদায় সংক্রান্ত আপিল নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত আয়কর আদায় থেকে বিরত থাকতে আপিল বিভাগের আদেশ বহাল রাখেন সর্বোচ্চ আদালত। একইসঙ্গে আয়কর আদায় নিয়ে বিভিন্ন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে দায়ের করা ৪৬টি রিট হাইকোর্টে চূড়ান্ত শুনানির আদেশ বহাল রাখা হয়।

২০২১ সালের ৯ ফেব্রুয়ারি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সরকারের ১৫ শতাংশ হারে আয়কর আদায়ের দুই প্রজ্ঞাপন অবৈধ ঘোষণা করে হাইকোর্টের দেওয়া রায়ের বিরুদ্ধে আপিলের অনুমতি (লিভ টু আপিল) দেন আপিল বিভাগ। একইসঙ্গে এ আপিল নিষ্পত্তি না পর্যন্ত এ আয়কর আদায় থেকে বিরত থাকতে এনবিআরকে নির্দেশ দেওয়া হয়।

২০০৭ সালের ২৮ জুন জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) একটি প্রজ্ঞাপন জারি করে।

ওই প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন অনুমোদিত প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় এবং অপরাপর বিশ্ববিদ্যালয় যারা পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় নয়, তাদের উদ্ভূত আয়ের ওপর ১৫ শতাংশ হারে আয়কর পুনর্নির্ধারণ করা হলো। ১ জুলাই থেকে এটা কার্যকর হবে।

২০১০ সালের ১ জুলাই এনবিআরের আরেক প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় ছাড়া বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়, বেসরকারি মেডিকেল কলেজ, বেসরকারি ডেন্টাল কলেজ, বেসরকারি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ বা শুধু তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ে শিক্ষাদানে নিয়োজিত বেসরকারি কলেজের উদ্ভূত আয়ের ওপর প্রদেয় আয়করের হার হ্রাস করে ১৫ শতাংশ নির্ধারণ করা হলো। এরপর বিভিন্ন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে ৪৬টি রিট করা হয়েছিল।


আরও খবর